Skip to content

পাকিস্তানঃ পাওনাদার নাকি দেনাদার

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রবাস জীবনের সবচেয়ে কষ্টকর বিষয় হলো যখন দেশের কোন ভাল অথবা খারাপ সংবাদ শুনি তখন কারো সাথে মন খুলে কথাটা আলোচনা করা যায় না। অনেকেই হয়তো আমার সাথে দ্বিমত করতে পারেন। তবে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে যা হয় তাই বললাম মাত্র। আমার জীবনে একটি মাত্র দেশেই আমি এসেছি। অঢেল টাকা থাকলে হয়তো আরো দেশ ঘুরতাম। আমি যখন এই লেখা লিখতে বসেছি তখন একটা কথা মনে ঘুরপাক খাচ্ছে । তা হল পাকিস্তান আমদের কাছে ৭০০ কোটি টাকা পাওনা !!!! কথাটি আমার কাছে প্রথমে অদ্ভুত মনে হলেও পরবর্তীতে আমার কাছে স্বাভাবিক মনে হয়েছে। স্বাভাবিক মনে করার কিছু কারণ আছে।

প্রথমত, মানুষ যখন প্রচণ্ড অর্থ সংকটে থাকে তখন তার বিবেক কিছু লোপ পায়। পাকিস্তানের বেলায়ও তাই হয়েছে। কারণ যখন পাকিস্তানের অর্থ সম্পদ ছিল তখনই তাদের বিবেক বুদ্ধি ছিল না। আর এখন তো তাদের তৃতীয় শ্রেণীর দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা চলছে। এমন্তাবস্থায় তাদের মুখে এসব কথা স্বাভাবিক ভাবেই মানাই।

দ্বিতীয়ত্ব, পাকিস্তান দেখলাম ভারতের কাছে দেশ বিভাগের সময়কার হিসাব এবং বাংলাদেশের কাছে ১৯৭১ পূর্ববর্তি হিসাবের কথা উল্লেখ করেছে। এখানে একটুখানী চালাকির আশ্রয় নিয়েছে। হিসাব যখন উঠেছে তখন আধা হিসাব কেন? দেশ বিভাগের সময় তৎকালীন পূর্ব বাংলা বর্তমান বাংলাদেশ ভারতের কাছে তখনকার সময় ৩৩ কোটি টাকা পাওনা ছিল। তখন পশ্চিম পাকিস্তানের মুসলিম লীগ নেতারা বললো তোমরা যদি কোলকাতা দাবি না করো তাহলে সে টাকা পূর্ব বাংলা পাবে এবং সেই টাকা দিয়ে পূর্ব বাংলাকে নিউ ইয়র্ক সিটিতে রূপান্তর কারা হবে। ঠিক একই সময় পশিম পাকিস্তান ভারতকে তার চেয়ে বেশি অর্থ পরিশোধ করতে হবে বলে ভারতের দাবি অনুযায়ী বুক ভ্যালু হিসাব করে তাদের সাথে সমঝোতা করলো। এতে আমাদের শেষ পর্যন্ত ৩৩ কোটি থেকে ৯ কোটি টাকা হিসাব আসলো। কিন্তু ঘটনা এখানেই শেষ হয়নি। যেই না মাত্র ঘোষণা করা হলো আমরা ৯ কোটি টাকা পাওনা, ঠিক তখনই ভারত সরকার ঘোষণা করলো যে, পূর্ব বাংলা ভারতের কাছে ৬ কোটি টাকা দেনা। অর্থাৎ তারা আমাদের কাছে পাওনা। পাকিস্তানের বর্তমান হিসেবে কিন্তু সেই কথার উল্লেখ নেই।

তৃতীয়ত, পাকিস্তান থাকাকালীন সময় তৎকালীন শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সাথে মার্কিন যুক্তরাষ্টের ৫ কোটি ডলারের চুক্তি হয় পূর্ব পাকিস্তানের শিল্প উন্নয়নের জন্য। এই টাকা দিয়ে বর্তমান বাংলাদেশে মোট ৫৮টি শিল্প স্থাপন করা হবে। কিন্তু পরবর্তী সময় পশ্চিম পাকিস্তানের হীন মন মানষিকতায় এবং আওয়ামীলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে সেই ডলার আর নিয়ে আসা হয়নি। এসবের ফলে আমাদের শিল্পের যে বিশাল অর্থনৈতিক ক্ষতি হল তার কিন্তু হিসাব নেই পাকিস্তানের বর্তমান হিসেবে।

চতুর্থত্ব, ১৯৭১ সালের যুদ্ধের সময় আমাদের শিল্প কারখানা, আর্থিক প্রতিষ্ঠান , ক্ষেত খামার সব ধ্বংস করা হয়েছে। তার আর্থিক হিসাব কিন্তু তাদের হিসেবে নাই। এছাড়া ৩০ লক্ষ শহীদের যে ক্ষতি এবং তার সাথে ২ লক্ষ মা বোনদের যে অমানুষিক ক্ষতি তারা করেছে । এই হিসাব কে দিবে??
আশার কথা হলো বাংলাদেশ সরকার একটা আর্থিক পাওনার হিসাব দাড় করিয়েছে। এতে দেখা যায় বাংলাদেশ পাকিস্তানের কাছে বর্তমান মূল্যে আনুমানিক ৩৩ হাজার কোটি টাকা পাওনা। এতে করে তাদের আর খরচ করে হিসাব করতে হবে না। আমারই তাদের হিসাব দিয়ে দিবো।

লেখার শুরুতে একটি কষ্টের কথা উল্লেখ করেছি। প্রবাসের কথা। কিন্তু তারচেয়ে বেশি কষ্টের কথা হলো আমরা এখন যারা ফেইসবুক যুগে আছি । অর্থাৎ আমাদের তরুণ প্রজন্ম কি এই সম্পর্কে উয়াকিবহাল আছি । নাকি ফেইসবুকে একটা বিশাল স্ট্যাটাস দিয়ে দায়িত্ব শেষ করছি। পাওনা আদায় করতে হবে আমাদের মতো তরুণ প্রজন্মকেই। হ্যাঁ , আমরা পারবো। পারতেই হবে আমদের। তা না হলে ইতিহাস যে আমাদের ক্ষমা করবে না।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

I THINK YOU DO NOT HAVE IDEA ABOUT PAKISTAN .
PAKISTAN IS MORE SUTIABLE POSITION THAN BANGLADESH
STILL INDIA TREAT YOUR COUNTRT AS HER PROVINCE AND
EVERYDAY MINIMUM 1/2 BANGLADESHI ARE KILLED BY
YOUR LORD INDIAN ON THE OTHER HAND YIUR LORDS HAS NO
CUREAGE TO SHOUT ANY PAKISTANI BIRD EVEN SO MR SORIFUL DO NOT
SHOW OVER SMART . IF YOU WANT TO WRITE SOMETHING PLEASE WRITE
WITH DOCUMENTS .

Abu sufian mia


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

I THINK YOU DO NOT HAVE IDEA ABOUT PAKISTAN .
PAKISTAN IS MORE SUTIABLE POSITION THAN BANGLADESH
STILL INDIA TREAT YOUR COUNTRT AS HER PROVINCE AND
EVERYDAY MINIMUM 1/2 BANGLADESHI ARE KILLED BY
YOUR LORD INDIAN ON THE OTHER HAND YIUR LORDS HAS NO
CUREAGE TO SHOUT ANY PAKISTANI BIRD EVEN SO MR SORIFUL DO NOT
SHOW OVER SMART . IF YOU WANT TO WRITE SOMETHING PLEASE WRITE
WITH DOCUMENTS .

Abu sufian mia

glqxz9283 sfy39587p07