Skip to content

নিলোফার চৌধুরী মনি, আপনাকে ক্ষমা চাইতে হবে

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বড় অদ্ভুত দেশে বাস আমাদের। এই দেশে দীর্ঘ চার দশক ধরে তার ইতিহাসকে ধর্ষণ করা হয়েছে ক্রমাগত, এদেশের জন্মের বিরোধিতাকারী গোষ্ঠী তাদের গাড়িতে জাতীয় পতাকা লাগিয়ে ঘুরে বেড়াবার স্পর্ধা দেখাতে পেরেছে। এদেশের মুক্তিযুদ্ধকে বলা হয়েছে ভারতের ষড়যন্ত্র, দম্ভের সাথে বলা হয়েছে - বাংলাদেশে কোন যুদ্ধাপরাধী নেই। সেইসব গ্লানির দিন পেছনে ফেলে এসে এই ২০১৩ সালে আমরা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করছি, কয়েকজনের বিচার কাজ শেষও হয়েছে। এসব ঘৃণ্য যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে দেশে এক অভূতপূর্ব গণজাগরণ সৃষ্টি করেছে নতুন প্রজন্ম। ঠিক সেই মুহূর্তে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের একজন সংসদ সদস্য একটি গণমাধ্যমে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে একটি অত্যন্ত আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন। বাংলাদেশের একজন নাগরিক এবং একজন ভোটদাতা হিসেবে আমি মনে করি এটি এক ধরণের ঔদ্ধত্য এবং বাংলাদেশের ইতিহাসের নির্লজ্জ অবমাননা।

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের বিএনপি দলীয় সাংসদ নিলোফার চৌধুরী চ্যানেল আইয়ের তৃতীয় মাত্রা অনুষ্ঠানে সম্প্রতি বলেছেন -


শুনেছি ১৯৭১ সালে ৩ লক্ষ, ৩০ লক্ষ শহীদের একটা শব্দ ভুলের জন্য, একটা শূন্য ভুলের জন্য ৩ লক্ষ আজ পর্যন্ত ৩০ লক্ষই হয়ে রইলো। আমরা কেউ বুকে হাত দিয়ে প্রুভ করতে পারলাম না আমাদের সত্যিকার কতজন সেদিন মারা গিয়েছিলো


বাংলা ব্লগস্ফিয়ারে যারা ঘোরাফেরা করেন তারা সন্দেহাতীতভাবে জানেন, মুক্তিযুদ্ধে শহিদের সংখ্যা নিয়ে কারা সন্দেহ প্রকাশ করে। তিরিশ লক্ষ নয়, তিন লক্ষ নিহত হয়েছে - এটি অনলাইনের খুব জনপ্রিয় একটি প্রোপাগান্ডা। একটি মীমাংসিত বিষয় নিয়ে নিলোফার চৌধুরী এমন ঔদ্ধত্যপূর্ণ মন্তব্য করে প্রমাণ করলেন, তিনিও সেই প্রোপাগান্ডা সৈনিকদেরই একজন।

এই প্রোপাগান্ডার জবাব অসংখ্যবার দেয়া হয়েছে। অজস্র রেফারেন্স, পরিসংখ্যান এবং গাণিতিক বিশ্লেষণের সাহায্যে প্রমাণ করে দেয়া হয়েছে মুক্তিযুদ্ধে শহিদের সংখ্যা তিরিশ লক্ষ, বরং এর চেয়ে বেশি হওয়ার সম্ভাবনাও থেকে যায়। এই পোস্টে সেসব প্রমাণের দিকে গিয়ে সময় নষ্ট করার ইচ্ছে নেই। বরং নিলোফার চৌধুরীর মিথ্যচার এবং দুঃসাহস নিয়ে কয়েকটি কথা বলতে চাই।

নিলোফার বলেছেন, একটি শূন্য ভুলের জন্য তিন লক্ষ নাকি তিরিশ লক্ষ হয়ে গেছে। পরিস্কারভাবে বলা যায়, তিনি পরিকল্পিত মিথ্যচার করেছেন, অথবা বাংলাদেশের ইতিহাস সম্পর্কে তিনি আগাগোঁড়া মূর্খতাই ধারণ করেন। একাত্তরে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর হাতে নিহত মানুষের সংখ্যা অর্ধ মিলিয়ন ছাড়িয়েছে মে মাসের প্রথমার্ধেই। সেখানে নিলোফার পুরো নয় মাসে শহিদের সংখ্যা তিন লক্ষ বলেন কোন যুক্তিতে?




খবরে দেখা যাচ্ছে, প্রতিবেদক একটি এস্টিমেশন দাঁড় করিয়েছেন যার সীমা অর্ধ মিলিয়নের কিছু বেশি থেকে এক মিলিয়ন পর্যন্ত। প্রতিবেদনের তারিখ ১১ মে। অর্থাৎ নিলোফার চৌধুরীর আকাশ থেকে পেড়ে আনা সংখ্যার চেয়ে বেশি মানুষ শহিদ হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের একদম প্রথম ভাগেই।

এবার একটু ঐকিক নিয়ম প্রয়োগ করবো আমরা। মে মাসে দশ তারিখ পর্যন্তই ধরে নেই হিসাবের সুবিধার্থে, তাহলে মার্চের ২৬ থেকে শুরু করলে আমরা পাই ৪৬ দিনের একটি হিসাব। প্রতিবেদকের হিসাব অনুসারে অর্থাৎ 'আধা মিলিয়নের বেশি' বলতে যদি আমরা ছয় লক্ষ ধরে নেই তাহলে গড়ে প্রতিদিন নিহত হয়েছেন ০.০১৩ মিলিয়ন মানুষ। মুক্তিযুদ্ধ মোট চলেছে ২৬৭ দিন অর্থাৎ আর ২২১ দিন। তাহলে পূর্বোক্ত হারে ২২১ দিনে নিহত মানুষের সংখ্যা দাঁড়ায় ২.৮৮ মিলিয়ন। জ্ঞান হারাবেন না নিলোফার চৌধুরী, শক্ত হয়ে বসুন। কারণ এই হিসেবে মোট ২৬৭ দিনে শহিদের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ায় প্রায় সাড়ে তিন মিলিয়ন, ভারতের শরণার্থী শিবিরে বিভিন্ন রোগব্যাধিতে ভুগে মারা যাওয়া বাঙালিদের হিসাবেই আনা হয় নি।

এই হিসাব নিখুঁত নয়, একেবারেই সাদামাটা এস্টিমেশন। এবং একে আদর্শ ধরারও কোন কারণ নেই। তবে ইউএনএইচসিআর এর দেয়া পরিসংখ্যান আমাদের এস্টিমেশনকে কিছুটা সমর্থন করে। ( সূত্র) তাদের হিসাবে একাত্তরের গণহত্যায় প্রতিদিন গড়ে ছয় হাজার থেকে বারো হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন। এই হিসেবে দেখানোর কারণ হলো, নিলোফার চৌধুরীকে বুঝতে হবে, যে সংখ্যার হিসেব দেখিয়ে তিনি গণহত্যাকে তাচ্ছিল্য করছেন তা ধোপে টেকে না কোনভাবেই। কারণ সেই সংখ্যা পেরিয়ে গেছে মুক্তিযুদ্ধের শুরুর দিকেই।

হাস্যকর একটি যুক্তি তুলেছেন নিলোফার, একটি শূণ্যের ভুলে নাকি তিন লক্ষ হয়ে গেছে তিরিশ লক্ষ। প্রথমত, এই ধরণের শূন্য ত্রুটি আসতে পারে কেবল লিখিত হিসেবের ক্ষেত্রে। মৌখিকভাবে যখন কেউ এমন একটি হিসেব উপস্থাপন করেন তখন শূন্য ত্রুটি ঘটার কোন কারণই নেই। তিরিশ লক্ষ শহিদের ধারণাটি প্রথম জনসমক্ষে এনেছিলেন বঙ্গবন্ধু, ডেভিড ফ্রস্টের সাথে তার সাক্ষাৎকারে, ১৯৭২ এর জানুয়ারিতে। দ্বিতীয়ত এখানে বঙ্গবন্ধু 'লক্ষ' শব্দটি ব্যবহার করেননি, ব্যবহার করেছেন 'তিন মিলিয়ন'। এবার কি নিলোফার বলবেন, তিন 'লক্ষ' বলতে গিয়ে তিন 'মিলিয়ন' বলেছেন? থামুন, গাধাও হাসবে।

তৃতীয়ত, বঙ্গবন্ধু কোন হাওয়াই পরিসংখ্যান দেননি এখানে। ডেভিড ফ্রস্ট তাকে শহিদের সংখ্যা জিজ্ঞাসা করলে তিনি আত্মবিশ্বাসের সাথেই তিন মিলিয়ন সংখ্যাটি উল্লেখ করেন। ডেভিড ফ্রস্ট কিছুটা বিস্মিত হয়েই তাকে জিজ্ঞাসা করেন, এত বড় একটি অঙ্কের ব্যাপারে তিনি নিশ্চিত হচ্ছেন কীভাবে। বঙ্গবন্ধু জানান, সারাদেশে ছড়িয়ে থাকা আওয়ামীলীগের কর্মীদের পাঠানো তথ্যের সাহায্যেই তিনি এই সংখ্যাটি পেয়েছেন। এবং নিহতের সংখ্যা আরো বেশি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কাজেই, নিলোফার আপনার শূন্য সংক্রান্ত কল্পনাটি একটি আগাগোঁড়া শূণ্যপ্রসূ গার্বেজ ছাড়া কিছু নয়।



আগেই বলেছি, তিরিশ লক্ষ মানুষ আদৌ নিহত হয়েছেন কি না সেটি প্রমাণ করা এই পোস্টের উদ্দেশ্য নয়। এটি একটি প্রমাণিত বিষয়। এই পর্যায়ে আমরা সেই সময়ে বাংলাদেশের অবস্থানকারী একজন প্রত্যক্ষ্যদর্শীর মতামত দেখবো। খেয়াল করুন, নিচের প্রতিবেদনে প্রথমেই স্বীকার করে নেয়া হয়েছে যে মুক্তিযুদ্ধে তিন মিলিয়ন মানুষই শহিদ হয়েছেন। এর পর উপস্থাপন করা হয়েছে ১৯৭২ সালে বাংলাদেশ ঘুরে যাওয়া আমেরিকান নাগরিক ডেভিড লি শানার বক্তব্য। শানা খোলাখুলি জানিয়েছেন পাকিস্তান সেনাবাহিনী বাঙালিদের ঝাড়ে বংশে নির্মূল করতে গণহত্যা চালিয়েছে, তাদের পোড়ামাটি নীতির কথাও উল্লেখ করেছেন তিনি। নিহতের সংখ্যার ব্যাপারে শানা জানাচ্ছেন, প্রথমে কিছুটা সন্দেহ থাকলেও বাংলাদেশে এসে এখানকার ভিকটিমদের সাথে কথা বলে তিনি যা জেনেছেন তাতে আর সন্দেহ করার কোন কারণ থাকে না যে নিহতের যে সংখ্যা (তিন মিলিয়ন) বলা হয়েছে তা মোটামুটিভাবে সঠিক। একজন আমেরিকান বুঝে গেলেন, আর আমাদের জাতীয় সংসদের একজন সদস্য বুঝলেন না। জাতীয় কলঙ্ক বোধ হয় একেই বলে।




অথবা হয়তো আমারই ভুল। কারণ নিলোফার চৌধুরীর দল তো এখন প্রকাশ্যেই অবস্থান নিয়েছে বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতাকারী দল জামাতে ইসলামীর পক্ষে। বাংলাদেশের ইতিহাস বিকৃতিকে এই দলই একটি শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে গেছে। সেই দলের একজন সাংসদ হয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাসের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হলে তাকে দোষ দেয়া যায় না। তবে যে গুরুত্বপূর্ণ তথ্যটি নিলোফার ভুলে গেছেন সেটি হলো - তিনি বাংলাদেশের মাটিতে দাঁড়িয়ে আছেন। এই দেশের মাটিতে যতক্ষণ আছেন নিলোফার চৌধুরী মনি, আপনাকে শ্রদ্ধা করতে হবে এই দেশের ইতিহাসকে, মেনে নিতে হবে তিরিশ লক্ষ শহিদের আত্মত্যাগ। এই মাটি যাদের রক্তে পবিত্র হয়েছে তাদের প্রতি সামান্য অশ্রদ্ধা ধারণ করা স্পর্ধার এই মাটিতে দাঁড়িয়ে দেখাবেন না নিলোফার চৌধুরী মনি। বাংলাদেশের জন্মের ইতিহাস নিয়ে একটি মীমাংসিত সত্য নিয়ে মিথ্যাচার করে আপনি গুরুতর অপরাধ করেছেন। অপমান করেছেন এই দেশের স্বাধীনতাকে, আঘাত করেছেন ষোল কোটি বাঙালির চিরন্তন আবেগকে।

আপনাকে ক্ষমা চাইতে হবে নিলোফার চৌধুরী মনি, প্রকাশ্যে জনতার সামনে এসে মাথা নুইয়ে ক্ষমা চাইতে হবে আপনাকে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনেক অজানা তথ্য জানানোর জন্য ধন্যবাদ ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

একজন রাজাকারে কন্যা ক্ষমা কিভাবে চাইবে?
উন্নতমানের ভাড়াটিয়া বেশ্যা বললে খারাপ হবে না!

--------------------------------------------------------
সোনালী স্বপ্ন বুনেছি
পথ দিয়েছি আধারী রাত ........


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সহমত প্রকাশ করছি।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দরকার ছিলো। স্যালুট এন্ড শেয়ার্ড।

....................................................................................


আমরা ছুডলোক, গালিবাজ। জামাত শিবির ছাগুর বিরুদ্ধে গালাগালি করেই যাব, প্রতিরোধ করেই যাব। সুশীলতার মায়েরে বাপ। আমরা ছাগু ও সুশীলদের উত্তমরূপে গদাম দিয়ে থাকি


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই নিলোফার মাগি দেখি সাংসদ পাপিয়ার চেয়েও খারাপ!

>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>
Only constant is change


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ঠিক ঠিক


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বেশ্যাটাকে ধিক্কার জানাই ।

" মুক্তি এখনো আসে নি, বিপ্লব অপেক্ষমাণ "

" মুক্তি এখনো আসে নি, বিপ্লব অপেক্ষমাণ "


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ফেসবুকে শেয়ার করলাম

~~~~~~~~
নিজেদের জন্যে হুইস্কি, ডাবল;
ছোটলোকদের জন্যে ইমাম হাম্বল।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রক্রিত পক্ষে এরা ইতিহাশকে বিক্রিতো করতে চায়। এরা জানেনা ইতিহাশ তার নিজের গতিতে চলবে। এবং এরাই একদিন ইতিহাশের নরদমায় পরে থাকবে।

অনেক অজানা তথ্য জানানোর জন্য ধন্যবাদ ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ছড়িয়ে দেওয়া হোক।

____________________
ঘর ছেড়ে ধন খুঁজিস কেন বনে বনে?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রীতম ভাই নিলোফার কোন সংসদ সদস্য না, সংসদ সদস্য হতে হলে জনগণের সমর্থন লাগে, সে রকম কোন সমর্থন নিয়ে সংসদ সদস্য হয়নি। দলীয় মূক্ষিরানী হিসেবে নিয়োগ পাইছে। তাই ওই মাগী পাগলের প্রলাপ বকছে। ওদের মত পাগলের ব্যাপারে কথা বলে আমাদের মূল্যবান সময় নষ্ট করা মনে হয় ঠিক হবেনা। আমাদের আরও সামনে এগিয়ে যেতে হবে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শালি কত নেয় ? আমার দারোয়ানের বৌ নাই।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

স্বাধীন বাংলাদেশে জাতীয় সংসদের সদস্য হিসেবে এরপরেও কি করে বহাল থাকে এই নির্লজ্জ?

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
পথের প্রান্তে নয়, পথের দু'ধারে আমার গন্তব্য


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনেক তথ্য দিয়েছেন তাই www.kalkini.net এর পক্ষ থেকে অনেক ধন্যবাদ। এ ধরণের লেখা চাই।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমি নিজে দুটি টকশোতে এই 'মনি'কে এই মন্তব্য করতে শুনেছি। এই মহিলা রাজনীতি করার কোন যোগ্যতাই রাখে না। তৃতীয়মাত্রায় এসে সে তার এই বক্তব্যকে প্রতিষ্ঠিত করতে গিয়ে আরও নানাভাবে নিজের মূর্খতাকে পাবলিকের কাছে মেলে ধরেছে। সে বলেছে, প্রজন্ম চত্বরের ছেলেমেয়েরা হুজুগে মেতেছে, কিছু না বুঝে হুজুগ করার মত। সেও নাকি ৯০ দশকের এরশাদ বিরোধী ছাত্র আন্দোলনে এমন হুজুগে মাততো। সে নির্লজ্জের মতো বলেছে, সে নাকি এরশাদ বিরোধী আন্দোলনের সাথে ওতপ্রোতভাবে (এই শব্দটি ব্যবহার করেছে) জড়িত ছিল, আবার পরক্ষণেই বলেছে, মিছিলের সামনে যারা শ্লোগান দিত, তাদের সাথে সাথে ওরা গলা মেলাতো, অমুক চাই, তমুক চাই বলে। কেউ যদি জিজ্ঞেস করতো, কি চাও, তাহলে নাকি বলতো, জানিনা কী চাই! হা হা হা!!!! গাধা নারী বলে কি! আমাদের নারী সমাজের ইজ্জত মেরে দিয়েছে। তখনই বলেছে, প্রজন্ম চত্বরের ওরা হুজুগে। তবে সাংসদ পলক খুবই দৃঢ় কন্ঠে এই মূর্খ নারীর কথার প্রতিবাদ করেছে। সাংসদ পলককে আমার এমনিতেই ভালো লাগে, সেদিন আরও অনেক বেশী ভাল লেগেছিল। তৃতীয়মাত্রার উপস্থাপক জিল্লুর রহমান এক সময় বিএনপি'এ রাজনীতি করতো, সে উপস্থাপক ভাল হলেও অনুষ্ঠানে বিএনপির কতগুলো বেয়াদব, মূর্খকে ডেকে আনে। মনি'কে ক্ষমা চাইতেই হবে, নাহলে ওর বিপদ আছে। পুরা বেয়াদব মহিলা।

রীতা রায় মিঠু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভালোই বলেছেন,
"তৃতীয়মাত্রার উপস্থাপক জিল্লুর রহমান এক সময় বিএনপি'এ রাজনীতি করতো"- জেনে খৃব আবাক হলাম,

রাজনিতিক দল সমথন করা আর ফুটবল বা িককেট দল সমথন করা ঘে এক কথা নয়, তা আমরা আর কবে বুঝবো


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বালের মাথায় ১ গ্রাম ঘিলু নাই। টক শোতে যায় চটাং চটাং করতে।
মামলা হান্দায় দিলে বুঝব পরে।

পাকিস্থানে আর্মিগো লাইগা ১ মাস রাইখা দিলে বুঝব মাতারী

ইনজয় আর ধর্ষণের তফাৎ কি ?

*********************************************************
মানবতা হরণকারীদের জন্য মানবতা দেখানো চরম অমানবিক।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

চৌধুরী সাব মাগী ইনজয়ই করবো।

‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‍‍‍‍‍‍‍‍‍‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
সর্বোচ্চ নয় সর্বনিম্ন শাস্তি ফাঁসি চাই..............
We hate Pakistan,Pakistani & their supporters.
https://www.facebook.com/groups/wehatepakistan/


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভুল বলেন নাই।
১৬ কোটি মানুষকে যে তোয়াক্কা করে না সেতো পাকি আর্মিগো ইনজয়ই করবো।

*********************************************************
মানবতা হরণকারীদের জন্য মানবতা দেখানো চরম অমানবিক।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

১০০ তে ১০০ । সবাই শুধরে নিলে ভালো হয়- সর্বোচ্চ নয় সর্বনিম্ন শাস্তি ফাঁসি চাই..............।
রাজাকারদের ফাসি চাই সেইসাথে দেশ বিরোধি রাজাকার মানসিকতার বিলোপ চাই


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

যারা ইতিহাস পড়ে না, সত্যিকার অর্থে লেখা পড়া করে না; তারাই সংবিধানে দেয়া সুযোগ গ্রহন করে (দলের প্রধান প্রধান নেতাদের ক্ষতার কারণে) সংসদ সদ্য হন সংরক্ষিত কোটায়। তাদেরতো জনগণের কাছে জবাব দিহি করতে হয় না। ব্যক্তি পরিচয় এবং সম্পর্কের মধ্য দিয়ে "মাননীয়" হয়ে যান। তাদের কাছে গঠনমূলক বাক্য আশা করবেন কি করে? এমন ভুল তথ্য এবং কখনোবা আপত্তিজনক তথ্য / বক্তব্য মহান সংসদেই দয়ে থাকেন তারা। আর টক শো? সেতো এখন মুক্তাঙ্গণ। ইতিহাস এদের বিচার করবে---- প্রয়োজন একটু অপেক্ষা করা।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনেক অজানা তথ্য জানলাম।
ধন্যবাদ আপনাকে।
আপনাকে ক্ষমা চাইতে হবে নিলোফার চৌধুরী মনি, প্রকাশ্যে জনতার সামনে এসে মাথা নুইয়ে ক্ষমা চাইতে হবে আপনাকে।

‘‘আমার চোখে পুরুষ দ্বারা নির্যাতিত প্রতিটি নারী এক একটা শামূক।
কেউ খোলকের ভেতর নির্জীব জীবন কাটায় আবার কেউ খোলকের ভেতরেই পচেঁ মরে”।

Shamuk


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমার দেশ তো মন্তব্য করেছে যে ৫২ তে নাকি ৫ জন নিহত(শহীদ নয়) হয়েছে। আর তারা বলে ৭১ এ নাকি ৩ লাখো শহীদ হয়েছে।
এ ধরণের মিথ্যাচার এর প্রতিবাদ করতেও লজ্জা লাগে।

tasjid ahmed


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মনি আমাদের স্বাধীনতা অর্জন কে "ঝরে বক মরছে, ফকিরের কেরামতি বাড়ছে" এর সাথে তুলনা করেছেন। এতে লাখো শহীদের আত্মা কতটা কষ্ট যেয়েছেন জানি না। তবে আমি রীতিমত বিক্ষুব্ধ হয়েছি। মনি ও তার নেত্রী যেভাবে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধ্ধে অবস্থান নিয়েছেন তা অভাবনীয়। ভীষন লজ্জায় ফেলেছে তারা এই জাতিকে। তাদের ক্ষমা নেই।

Ensure Fundamental Freedoms......


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বেশ্যার কথা বলে লাভ নাই। ২৪ ঘন্টা বেশ্যা বৃত্তিতো শাহবাগে চলছে।

dev


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মা শুনলে দুঃখ পাবে ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বিএনপি,বিএনপি নেত্রীবৃন্দ বাংলাদেশের জন্য এখন একটা বিষফোঁড়া হয়ে আবির্ভূত হয়েছে ।

"অবাক পৃথিবী অবাক করলে তুমি ; জন্মেই দেখি ক্ষুব্ধ স্বদেশভূমি " -সুকান্ত ভট্টাচার্য


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনতিবিলম্ভে তাকে পাকিস্তানে পাঠানো হউক


~***********************~

যার সাথে সংসার করা সম্ভব নয় তার সাথে পিরিতের কথা বলার প্রয়োজন আছে বলে মনে করি না।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনাকে ক্ষমা চাইতে হবে নিলোফার চৌধুরী মনি, প্রকাশ্যে জনতার সামনে এসে মাথা নুইয়ে ক্ষমা চাইতে হবে আপনাকে।


প্রিয়তে এবং শেয়ারড

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ঘৃনা এদের জন্য

সহিংসতাই অক্ষমের শেষ অবলম্বন


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এইরকম অসাধারন পোষ্টের জন্য প্রীতম'দা আপনাকে ধন্যবাদ। Star Star Star Star Star

ওই মাগীর বুকে হাত দিয়া ওরে দেশে রাখার জন্য ক্ষমা চাইতে চাই.............................. Tongue

‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‍‍‍‍‍‍‍‍‍‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
সর্বোচ্চ নয় সর্বনিম্ন শাস্তি ফাঁসি চাই..............
We hate Pakistan,Pakistani & their supporters.
https://www.facebook.com/groups/wehatepakistan/


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নিলোফার চৌধুরী খালেদা জিয়ার পাঁ চাটা কুত্তানিলোফার চৌধুরীর হাতে আপনি ২ টাকা ধরিয়ে দিয়ে যা বলতে বলবেন কুত্তা টা তাই বলবে ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মিডিয়ার কর্তব্য এদের কোন টকশোতে না আনা ।

';;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;;
আমি কে , তুমি কে
বাঙ্গালি বাঙ্গালি ।
জয় বাংলা , জয় বঙ্গবন্ধু ।
তোমার আমার ঠিকানা
পদ্মা মেঘনা যমুনা ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ প্রীতম আপনাকে।
করুণা হয় নিলুফারদের জনা, শিক্ষার, দিক্ষার এই ফল! ছি:


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নিলুফাররা গুনে দিক, তাবে শত থাকবে, যদি একজন শাহিদও বাদ পড়ে তাকে জিবন দিয়ে তা পুরণ করতে হবে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নিলুফার কাছে আমার প্রশ্ন, ৩০ লক্ষের জায়গায় ৩ লক্ষ হলে কি জামাতের পাপ ছোট হয়ে যায়?

আসলে তারা ৭১'এর মুক্তিযুদ্ধকে ৭১'এর গন্ডগোল বলে চালাতে চায়। সামান্য গন্ডগোলে ৩০ লক্ষ মৃত্যু কি করে সম্ভব(?), বিশ্বযুদ্ধ-টুদ্ধ হলে কথা ছিল।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমাদের উচিত একটি জাতিয নিরাপতা কমিটি গঠন করা জরুরি,
দেশের ভিতরে এই খরনের নেতিবাচক ঘেকোন আপকম রোখে সবসময় সজাগ থাকা জরুরি, ঘা রাষেটর পধান কাজ।
সবসময় শাহবাগ পথ দেখাবে, সেই আশায় সরকার বসে খাকবে। এতে ছদবেশি দলের ও সঠিক পথে থাকা ছাড়া উপায় থাকবে না।
আশাকরি সবাই দাবিটি বিবেচনা করবেন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এরকম একটা লেখা চাচ্ছিলাম।ধন্যবাদ প্রীতমকে।প্রিয়তে

------------------------------------------------------
সব মানুষেরই কিছু না কিছু অক্ষমতা থাকে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রিয়তে নিলাম। অনেক ধন্যবাদ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনারা বড় বড় ব্লগার ইতিহাসের পেট খুড়ে পাতিহাস বাইর কইরা আনেন। আপনাদের ব্লগে হাজার হাজার লাইক পড়ে ।
কিন্তু বাস্তব হল নিলুফার মনি । উনি কোন ড্রাগ নেয় কিনা বলতে পারব না , কিন্তু এতে প্রমানিত হয় দেশের বেশির ভাগ মানুষ ইতিহাস রে প্রস্রাব করে, নিজের মতন করে বানাইয়া নেয়।
মুসলমানদের কাছে দেশ ও দেশের পতাকার চেয়ে ধর্ম ও ঈমান বড়।

জয় বাংলা ।

# Satyajit Das #
# Powered by MacOSX Lion #


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই মূর্খ টক শো'তে আসে কিভাবে?
@ প্রীতমদা অনেক ধন্যবাদ এমন একটা পোস্টের জন্য। সরাসরি প্রিয়তে।

==============================
বাংলার মাটি
দুর্জয় ঘাঁটি
বুঝে নিক দুর্বৃত্ত ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই মাগীকে শাহবাগে নিয়ে যাওয়া হউক । এবং মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস শিক্ষা দেওয়া হউক ।

_________________________
সত্যের পথে অবিচল ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নিলোফার ইজ এ প্রোডাক্ট হু ইজ কাম ফর্ম সাম পাকিস্তানি সিম্যান । সো নো কমেন্ট স টু হার

সময় উপযোগী একটি পোস্টের জন্য প্রিতম দাকে রইলো অভিনন্দন।
জয় বাংলা।

---------------------------------------------------------------------------------------------
রক্ত দিয়ে নাম লিখেছি বাংলাদেশের নাম ,মুক্তি ছাড়া তুচ্ছ মোদের এই জীবনের দাম।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মজার এই তথ্যটি ফেসবুক/ ব্লগে শেয়ার করুন ।



সূত্রঃ সাঈদী একাত্তরে রাজাকার ছিলেন/ দৈনিক প্রথম আলো, শেষের পাতা ,তারিখ: ০১-০৩-২০১৩ http://www.prothom-alo.com/detail/date/2013-03-01/news/333023


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পোষ্টে উল্লিখিত মাননীয়া সংসদ সদস্যা নিয়ে কথা বলে সময় খরচ করার পরিবর্তে ৩ মিলিয়ন (অথবা ৩০ লক্ষ) শহীদের সংখ্যা নিয়ে গুগলে সার্চ দিয়েছিলাম। দুটো লিংক পাওয়া গেল-

১/ রয়টার্স, ২রা মার্চ, ১৯৭২:

বঙ্গবন্ধুর রাশিয়া সফরের খবর-



২/ Dictionary of Genocide [Two Volumes] - By SAMUEL TOTTEN and PAUL BARTROP: Page 35, Volume 1: A-L, Greenwood press. ISBN 978-0-313-32967-8, 978-0-313-34642-2 (vol 1).

পৃথিবীর নানা দেশের গনহত্যার তুলনা করা হয়েছে ২০০৮ সালে আমেরিকা ও গ্রেট ব্রিটেন থেকে প্রকাশিত এই বইতে। সেখানে ভলিউম ১ এর পৃষ্ঠা ৩৫ এ রয়েছে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ-


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কোন এক সময় ছাত্রী সংস্থায় ছিল মনে হয়, অবাক হই নাই দেখতে হইব না নেত্রী কে????????

খোঁড়ো আমার ফসিল,অনুভুতির মিছিল/প্রতিক্রিয়াশীল কোনো বিপ্লবে,শোনো তুমি কি আমার হবে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

যারা দেশ-জাতি ও মহান মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে এমন কথা বলে তাদের এদেশে থাকার কোন অধিকার নেই।
স্বাধীনতার মাস, উত্তাল মার্চ, অগ্নিঝরা মার্চে বজ্রকন্ঠে আওয়াজ তুলুন
একাত্তেরর হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেকবার।
প্রজন্মের হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেকবার।
তুমি কে আমি কে
বাঙ্গালী, বাঙ্গালী।
তোমার আমার ঠিকানা,
পদ্মা, মেঘনা, যমুনা।
রাজাকারের ঠিকানা ফাঁসির পর পাকিস্তানের মোহনা।
একটাই দাবি ফাঁসি চাই,ফাঁসি।
কসাই কাদের সহ অন্যান্য সকল মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি চাই, ফাঁসি।
ইনশাল্লাহ জয় আমাদের হবে।
জয়বাংলা।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

খালেদা,মনি,পাপিয়াদের বিছানায়, নাপাকিআর্মি বেশী বেশী পাঠানো দরকার যাতে বেশী করে শয়তান রাজাকার তৈরি হয়।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনাকে ক্ষমা চাইতে হবে নিলোফার চৌধুরী মনি, প্রকাশ্যে জনতার সামনে এসে মাথা নুইয়ে ক্ষমা চাইতে হবে আপনাকে।

- ওরা স্বজ্ঞানে বুঝেসুজেই এসব কথা বলে,, এসব কথা বলার জন্য ক্ষমা চাইতে বলাটাই তাদের কাছে এক ধরনের আস্পর্ধা প্রদর্শনের সামিল বলে গণ্য হতে পারে। এসব কথা তারা কেন বলে সেটা ভেবে দেখতে হবে। বরং ৭১-এ এদেশে স্বাধীনতাযুদ্ধ হয়নি, যা হয়েছে তা পাকিস্তানের সাথে ভারতের যুদ্ধ - এইটা বুঝতেই তারা এরূপ কথা বলে থাকে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নিলোফার মনি,তোমাকে অবশ্যই প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে।তোমার মত নির্লজ্জের স্থান বাংলার মাটিতে হতে পারে না,পাকিস্তানে যাও।দরদ ঐখানে দেখাও,বাংলার মাটিতে নয়।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মনির কথা শুনে মনে হই মাগির মুখে হেগে দেই !!!

* হুক্কা হুয়া !!! *


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সহমত প্রকাশ করছি।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শাপলা চত্বরের তিন হাজার শহীদের(!!!) সংখ্যা প্রমাণ করলে বলে মুক্তিযুদ্ধের শহীদের সংখ্যা প্রমাণ করতে। ৪২ বছরেও এদের মানসিকতার কোন পরিবর্তন হয় নাই এইটার তার প্রমাণ। এরা পাকিস্তানের বীর্যই হয়ে আছে।

*******************************************************************
জামাত শিবির রাজাকার এই মুহূর্তে বাংলা ছাড়...
ফেজবুকে আমি

glqxz9283 sfy39587p07