Skip to content

এইসব খেলাঘরে

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দাউদ হায়দারের একটা কবিতা দিয়েই শুরু করা যাক । নির্বাসনের কবিতা গ্রন্থে একটি কবিতার আমার কয়েকটি প্রিয় লাইন,



“এই দুদৈর্বের বসে আর কত নিঃসঙ্গতার কবিতা লিখলে

আমাকে তুমি সংগ দিবে ?

বিপ্লবে পরাজয়ে দেখি ,

একমাত্র আমাকেই আমি ধারণ ক’রে আছি”



সেটাই । আমি আমার নিজেকে ধারন করি বিপ্লবে,আদর্শে আর বাংলাদেশে । আমার এই বিপ্লব কোন রক্তপাতময় বিপ্লব নয় কিংবা সে অর্থে বলবার মত কোন আদর্শকে চাপিয়ে দেওয়াও নয় । এই বিপ্লব ক্ষয়ে যাওয়া সমাজের সাথে, এই বিপ্লব ভুলে থাকা স্মৃতির সাথে,এই বিপ্লব নিজের পরিবার আর পরিজনের সাথে । সে কথাই বলতে এসেছিলাম আপনাদের । কারো কারো মতে বাজারে কথা, কারো কারো মতে খেরো কথা,কারো কারো মতে এক জনপ্রিয় হতে চাওয়া বিপদগামী যুবকের কথা ।



বলতে পারিনি , তা নয় । বলেছি নির্ভয়ে,বলেছি বুক চিতিয়ে ও নিজের কথা বলবার সর্বোচ্চ আনন্দ নিয়ে । এই বলতে পারার স্থানটি সবসময় বিপদ মুক্ত ছিলো, তা বলছি না ।নখের আচড়হীন ছিলো, তাও বলছি না । সেইসব দলীয় চাটুকার,দালালদের চেনা ছিলো আমার অনেক আগ থেকেই । সুতরাং তাদের পরিচিত নখের ধারলো আচড় আপাত দৃষ্টিতে ধারালো হলেও আমার কাছে তারা প্রতিটি মুহূর্তেই ছিলো ভোঁতা আর নির্বিষ । দুই একটি ছোবলে পরাজয় আমি মেনে নিতে চাইলেও অনেক জেগে থাকা মানুষ আমাকে সংগ দিয়েছে, পাশে থেকে বার বার উচ্চারণ করেছে সাহসের স্লোগান ,ভালোবাসার সংগীত ।



এত কিছুর পরেও চলে যাচ্ছি । বার বার যে কথাটি বলি । নিজের মনে আওড়াই । সেই প্রিয় দাউদ হায়দার ।“চলে যাচ্ছি, যেখানে আমিই আমার একাকী বেদনা”



একটি কৌতূহল সবার গত কয়েকদিন ধরেই । আরবান গেরিলা কারা ? কি তাদের পরিচয় ? কে কে আছেন, এই নিক গুলোর পেছনে । সগর্বে ও উচ্চকিত কন্ঠে বলি, আমি ছিলাম একজন আরবান গেরিলা । রুমি নাম নিয়ে আমি শুধু কয়েকটি মন্তব্য করতে পেরেছিলাম, আমাদের সহযোদ্ধা বাচ্চু ইউ জি’র প্রথম লেখায় । তার পরের ইতিহাস এতই হাস্যকর রকমের নোংরা যে বলতে গিয়ে চোখ, মুখ বিষিয়ে যাচ্ছে মুহূর্তেই । আমার এই রুমি ইউ জি নিকটিকে ব্যান করে দেয়া হয় সামরিক জান্তার মত অশরীরি শক্তির আবির্ভাব ঘটিয়ে ।



নতুন করে কোন এক জীর্ণ আর হীন ব্যাক্তি রুমি ইউজি নামে আরেকটি নিক খোলে । আমাদের আরেক সহযোদ্ধা অতিথি পাখিকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে । বংগবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রায় সম্পর্কিত হাবিব সাহেবের একটি পোস্টে “রুমি-ইউজি” নিকটি ব্যাবহার করে অযথাই গালাগাল করা হয় । রাশেদ ভাই-এর একটা অভিযোগ দেখলাম, এডমিনের রেকর্ডেড কথা-বার্তা প্রকাশ করে দেবার একটা কথাও নাকি, ঐ নিকে বলা হয় !



উদ্দেশ্য ? আর কিছুই নয়, সবার কাছে কেবল প্রমাণ করে দেয়া যে, আরবান গেরিলারা একটি কুতসিত প্রাণীময় দলের প্রচন্ড কিছু হাত, নোঙ্গরা মানসিকতার কয়েকটি মানুষ । প্রচন্ড হাসি পায় দেখে । কি বলা যায় ? কিংবা কিই বা আর বলা যেতে পারে তাতে ? আমি যেখানে তিনটি বা চারটি’র বেশী মন্তব্যই করতে পারিনি, সেখানে আমার একটি আস্ত পোস্টই প্রকাশ হয়ে যায় । সেলুকাস !!! সেলুকাস ব্লগের রংগমঞ্চ !!



কেন গঠন হয়েছিলো আরবান গেরিলা ? যেখানে নিজের কন্ঠেই প্রতিবাদ করেছিলাম বা করতে কোন বাধা ছিলো না ? উত্তর খুব সোজা ও সরল । আমরা পাঁচটি মানুষ এক হয়েছিলাম কোন একটি দিনে । আমাদের সবার ভেতরেই তখন ডিভাইন ইন্টারভেনশন নামের একটি ইতর ও নোংরা মানুষের প্রতি প্রবল ক্ষোভ । কেউ আবার ভেবে নেবেন না যে , ডিভাইন ইন্টারভেনশনের কারনেই সব কিছু । সে কেবল শুরু মাত্র । আমরা সবাই একটি ব্যাপারে একমত হয়েছিলাম যে, অন্যায়,দলীয় দালালী,চাটুকারিতা,ভন্ড সুশীলতার বিরুদ্ধে আমরা অভিন্ন একটি অবস্থান থেকে লড়াই করতে ,দ্রোহের আগুন নিয়ে ঝাপিয়ে পড়তে চেয়েছিলাম যুক্তি আর তথ্যের অস্ত্র নিয়ে । মানুষকে জানাতে চেয়েছিলাম রাজনীতিবিদদের সত্যিকারের চরিত্র আর মুখোশ । জানাতে চেয়েছিলাম, আমরা যুগের পর যুগ কি করে ধর্ষিত হয়েছি রাজনীতিবিদ নামের আশ্চর্য আগুনে । এবং তা নিশ্চই শুধু ব্লগে না, পরিচিত পুরো পরিমন্ডলে ।



যাহোক , আর আসা হবে না আমার ব্লগে । তা নিশ্চিত ।এখানে দাঁড়াবার জায়গাটুকু আমার আর নেই বলেই অনুভব করি,বুঝতে পারি ।মাঝে মাঝে জীবিত থেকেই নিজের সমাধি দেখে যাব গোপনে, নিরবে । শুধু কষ্ট হচ্ছে কিছু মানুষের জন্য, যাদের সত্যিকার অর্থেই ভালোবেসেছিলাম । আপনারা ভালো থাকবেন । সুস্থ থাকবেন ।



আমার ব্লগ দীর্ঘজীবি হোক । জয়তু আমার ব্লগ ।



পদ্মলোচনের পোস্ট!



কাওছার-এর পোস্ট!



অতিথি পাখি-র পোস্ট!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

খুদাফেজ। চৌক্ষে পানি আইয়া পড়লো।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সেহে মলাগে

____________________________________________
- ১৭:৭


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

রাশেদ ভাই-এর একটা অভিযোগ দেখলাম, এডমিনের রেকর্ডেড কথা-বার্তা প্রকাশ করে দেবার একটা কথাও নাকি, ঐ নিকে বলা হয় !




মিথ্যা না বললে কি হয় না! বাচ্চু ইউজি নিক থেকে ঐ কথাটা বলা হইছে। যেখানে বলা হইছেঃ নিঝুম ভাই অ্যাড্রেস করে বলার কারনে তারা বুঝছে এইটা কার কথা, ইত্যাদি।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@রাশেদ ভাই, হা হা ! কোনো কমেন্টের উত্তর দেয়ার ইচ্ছা ছিলো না , কিন্তু এটার উত্তর না দিয়ে পারছি না । মূল ইউজি-র কোনো নিক থেকেই "নিঝুম ভাই" এড্রেস করে কোনো কথা আসে নি । ফেইক আইডি যে হয়েছিলো তা তো আমাদের পক্ষে এমুহূর্তে প্রমাণ দিয়ে দেখনো সম্ভব না, কেননা সে চাবি-কাঠি আমাদের হাতে নেই । এজন্য শুধু সত্য-জ্ঞানে বলে যাচ্ছি , বিশ্বাস করতে জোর করছি না ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@নিঝুম মজুমদার, সরি, নিঝুম অ্যাড্রেস করে বলতে ভুল বুঝাইছি। বলতে চাচ্ছিলাম রুমি নিক থেকে নিঝুমকে নিয়ে কমেন্ট আসে, যেইটার পালটা হিসেবে বাচ্চু কমেন্ট করে। নীচে স্ক্রিনশট দিলাম।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নীচের বাচ্চু নিকের কমেন্টটাও ভুয়া তাইলে? এই বাচ্চু নিক থেকে তো কয়েকটা পোস্টও দেয়া হইছে।








ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@রাশেদ, আমি এই কমেন্টটি একটা বারের জন্য-ও দেখি নি । কোন পোস্টে এসেছে তা-ও বুঝতে পারছি না । এ কি খেলায় মেতেছিলো ব্লগ!? ছি ! ঘেন্না হচ্ছে নিজের ওপর !


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@নিঝুম মজুমদার,







-বাচ্চু UG- ও তাইলে ভুয়া নিক!



যাবার বেলায় মিথ্যা কেন বলে যান! Sad







আরেকটা স্কিনশট। ঐ পোস্টেই আপনার কমেন্টের।








ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@রাশেদ, নাহ! মোটেও বলা হচ্ছে না, বাচ্চু ভূয়া নিক । বরং বলা হচ্ছে বাচ্চু-র করা এই কমেন্ট আমি দেখিনি এক্টাবার-ও কিন্তু , অথচ তার স্ক্রিণশট-ও নিয়ে রাখা হয়েছে ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@নিঝুম মজুমদার, হ্যা আমি কাওসার ও অতিথি পাখির উপর খুব বিরক্ত হইছি আর তাই দরকারি স্ক্রিনশট নিয়ে রাখছিলাম। কারন জানতাম কি ধরনের পোস্ট আসবে! তারা এইসব ইউজি টাইপ কাজে জড়িত থাকবে আশা করি নাই কখনো।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ইমোশনাল ব্ল্যাক্মেইল নামে একটা কথা শুনেছিলাম। আমার আজ খুব মনে পড়ছে। আগের কয়েকটি পোস্টপড়লাম অন্য ইউজিদের, পড়ে মনে হলো পোস্ট দেই আবার ভাবলাম থাক, যথেষ্ঠ পোন্দানী হয়েছে। আমি আমার বুয়েট লাইফে এক সিনিয়িরকে পিটাইছিলাম জুনিয়র হয়েও কারন অন্যাইয় আমার অসহ্য। আপনার কিছু কথা কোট না করে পাড়লাম না, ৭১ এর দিনগুলির মানুষদের আমি চিনি, রুমি আসদের নামের প্রতি আমার শ্রদ্ধা অনেক।





রুমি নাম নিয়ে আমি শুধু কয়েকটি মন্তব্য করতে পেরেছিলাম




রুমি কি জিনিস জাহানারা ইমামের বইয়ে পড়েছি, সেই রুমি আর আপনি রুমির ভেতর পার্থক্য তো দূরের কথা মিলই পাইনাই কোন বরং উলটা মনে হচ্ছে, কারন সেই রুমি মরেছে কিন্তু পেছনে ফিরে যাবার কোন সাহস দেখায়নি।











আমার এই রুমি ইউ জি নিকটিকে ব্যান করে দেয়া হয় সামরিক জান্তার মত অশরীরি শক্তির আবির্ভাব ঘটিয়ে








আমি এখনো অবিবাহিত প্রেম ও করা হয়ে উঠেনাই, কিন্তু এই বয়সেই আমার প্রতিজ্ঞা আমি কোন আর্মীর মেয়ে, কোন জামায়াত পরিবারের মেয়ে , কোন দূর্নীতির সাথে জড়িত পিতা মাতার সন্তানকে বিয়ে করবো না, এবং বিয়ের আগেই এই সব বিষয়ে খোঁজ নেবো, যদি কাউকে কখনো ভালো ও বাসী দেশের কথা চিন্তা করে সে সব বিসর্জন দেবার কলিজা আমার আছে। আমি আমার বউকে ভালোবেসে দেশ মাতাকে কা৬দাতে পারিনা, সে অধিকার আমার নেই। আর্মীর ভেতরে দেশ প্রেমিক নেই তা বলছি না শান্তি কামী মানুষ তার উপর এই আর্মীরা পথ ভ্রষ্ঠ হলে জাতির পিতার মতো মানুষকে খুন করতে পারে বলে এই মহলের প্রতি আমার ঘৃণা অনেক, এদের সন্তানদের কি দোষ যদি জিজ্ঞেস করেন আর এক দিন পোস্ত দেবো, কারন ক্যান্টনমেন্ট কলেজে পড়েছি তাই আর্মীর সন্তানেরা কেমন হয় জানি।







তার পরের ইতিহাস এতই হাস্যকর রকমের নোংরা যে বলতে গিয়ে চোখ, মুখ বিষিয়ে যাচ্ছে মুহূর্তেই




আপনার ইতিহাস বিশ্রী রকমের নোংরা দেখাচ্ছে এখন, যাওয়ার সময় এই সব কান্নাকাটি করে আপনি কিছু মানুষের সহানুভূতি হয়তো পাবেন কিন্তু আমি বাস্তব বাদী তাই আমার কাছে "ইমোশনাম ব্ল্যাকমেইল"ই মনে হচ্ছে।







আরবান গেরিলারা একটি কুতসিত প্রাণীময় দলের প্রচন্ড কিছু হাত, নোঙ্গরা মানসিকতার কয়েকটি মানুষ । প্রচন্ড হাসি পায় দেখে




নোংরা না হলেও পরিস্কার বলতে পারছি না, কারন আর কিছুই নয় সাহসী মানুষেরা যুদ্ধ করে সামনাসামনি, পার্দার আড়ালে ষড়যন্ত্র করে কাপুরুষেরা, আপনাদের এক্যা বলবার সামনেই বলতে পাড়তেন, ধরেন মাওলানা যেই পোস্ট দিয়েছে সেটা আপনি স্বনামে দিলে কি কোন ক্ষতি হতো, এট একটা উদাহরন দিলাম যদিও আপনি মাওলানা নন।





এখানে দাঁড়াবার জায়গাটুকু আমার আর নেই বলেই অনুভব করি,বুঝতে পারি




আমার ব্লগে মনে হয় চিরস্থায়ী বন্দোবস্তের কোন অপশন নাই, তাই এই কথা অনেক আগেই বোঝার দরকার ছিলো, এতো পরে বোঝার জন্য আপনার মেধার প্রতি করুনা না করে পারলাম না।







মানুষকে জানাতে চেয়েছিলাম রাজনীতিবিদদের সত্যিকারের চরিত্র আর মুখোশ




আমরা জানি , রাজনীতি বিদরা কেমন, ফিল্ডে থেকেছি আওয়ামীলীগের ৫ বছর, বিশ জন মানুষ যখন বুয়েটের মত জায়াগায় একজন মানুষকে মারে তখন বুঝি এই দেশের মানুষের চরিত্র আর রাজনীতি বিদদের চরিত্র। আজকে এই ভার্চুয়াল দৌড়ানি খেয়ে ইস্তাফা দিতেছেন, কোন্দিন রামদায়ের দৌড়ানী খাইলেতো হাইগা দিতেন। আর সেইখানে নিক নিয়েছেন রুমির, আপনি রুমি নামের একজন লজ্জা।







মাঝে মাঝে জীবিত থেকেই নিজের সমাধি দেখে যাব গোপনে, নিরবে





নিজেই নিজের সমাধি গরে গেলে সেই দায় কি আমুর ব্লগারদের উপর বর্তায় নাকি, আমজনতার গন্ধোলায়ের বিচার কোন আদালতই করতে পারেনা, সেই আইন নেই।







আমি যেখানে তিনটি বা চারটি’র বেশী মন্তব্যই করতে পারিনি, সেখানে আমার একটি আস্ত পোস্টই প্রকাশ হয়ে যায় । সেলুকাস !!! সেলুকাস ব্লগের রংগমঞ্চ !!



আমার ব্লগ দীর্ঘজীবি হোক । জয়তু আমার ব্লগ ।



স্ববিরোধী কথা বার্তা।



আপনাদের সবার কথায় পড়লাম এই নাকি কান্নার জন্য করুনা হচ্ছে অন্য কিছু নয়।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নেক্সট পোস্টের অপেক্ষায়


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নয়া পাগল তাই কিছুই বুঝলাম না!!!!!!!!!!!!!!!!!!! ভাইডি ভুইলা গেলেন..........







অক্টোবর ৬, ২০০৯ @ ৩:১৭ পুর্বাহ্ন ৫

নিঝুমের দল নাই

নয় সে দলীয়

এই কথা কদু মদু

সকলকে বলিও



আমার রক্ত ঘাম

যারা নেয় চুষিয়ে

জনগণ ঠিকি দেখো

তাড়াবেই ঘুষিয়ে



রাজার ছেলে আসে

ক্ষমতার গদিতে

একটাই পারে ওরা

"দেশ কে চুদিতে"



কবি সাহেব, সাহস কইরা লিখে ফেললাম । দ্যাখেন তো কেমন লাগে !! আপ্নে ভালো আসেন্নি?













অক্টোবর ৫, ২০০৯ @ ৯:৪০ অপরাহ্ন ২

বন্ধু আমার চলে এসেছে (F) (F) (F)








অক্টোবর ২, ২০০৯ @ ২:৫৩ পুর্বাহ্ন ১

বস আপনি এখনো আছেন , এই দেখে খুব ভাল্লাগছে । খুব কঠিন সময়েও আপনার লেখা ছড়া আর লেখা গুলো নির্মল আনন্দ দেয় ।








অক্টোবর ১, ২০০৯ @ ১১:৫১ পুর্বাহ্ন ৫

আপনি না থাকলে আমার কি হবে কবি ? আমি যে আপনার ভক্ত ।










সেপ্টেম্বর ২৯, ২০০৯ @ ১০:০০ অপরাহ্ন ৮

বন্ধু কি লিখলেন !! দিলেন তো মন্টা খারাপ কইরা


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আরেকটা কথা বলি, আপনারা ইউজিদের পরিচয় ফাঁস করার কারন একটাই। বাচ্চু ইউজি দুইবার ম্যালফাংশন করছে। যেইটা ব্লগে পোস্ট করার হুমকি দিছে আরো কিছু নিক। তাই নিজেরাই ফাঁস করছেন। কারন স্ক্রিনশট দিয়ে অন্যরা পোস্ট দিলে মানুষ আপনাদের অন্য নিক নিয়ে এসে এইসব করতেছেন ভাবার চান্স থাকে! তাই আগেই নিজেদের জাস্টিফাই করার চেষ্টা করলেন আর কি!



প্রথম ম্যালফাংশন হইছে একদম আপনাদের প্রথম পোস্টে। সেইটা আমি দেখছি কিন্তু কিছু বলি নাই, অন্য আলাদা একটা কমেন্টে পাগলে হাসি দিয়ে গেলাম মার্কা কমেন্ট করছি আর কিছু ইমো দেই।





তারপর আবার ম্যালফাংশন হইছে। তারপর পোস্ট প্রাইভেট বা ডিলিট করে নিছে ২য় ব্যাচ এর বাচ্চু ইউজি নিক।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কেন গঠন হয়েছিলো আরবান গেরিলা ? যেখানে নিজের কন্ঠেই প্রতিবাদ করেছিলাম বা করতে কোন বাধা ছিলো না ? উত্তর খুব সোজা ও সরল । আমরা পাঁচটি মানুষ এক হয়েছিলাম কোন একটি দিনে । আমাদের সবার ভেতরেই তখন ডিভাইন ইন্টারভেনশন নামের একটি ইতর ও নোংরা মানুষের প্রতি প্রবল ক্ষোভ ।




১। এইসব ক্ষোভ-প্রকাশ নিজস্ব নিকেই করা উচিত ছিলো। কখনো দলবাজী সমর্থন করিনি; সরি, এখনো করলাম না। আর বিষয়টি বেশ আত্নঘাতি, নকশালী বিপ্লবের মতোই।



যা হোক , আর আসা হবে না আমার ব্লগে । তা নিশ্চিত। এখানে দাঁড়াবার জায়গাটুকু আমার আর নেই বলেই অনুভব করি, বুঝতে পারি। মাঝে মাঝে জীবিত থেকেই নিজের সমাধি দেখে যাব গোপনে, নিরবে । শুধু কষ্ট হচ্ছে কিছু মানুষের জন্য, যাদের সত্যিকার অর্থেই ভালোবেসেছিলাম ।




২। ঠিক বোঝা গেলো না, আপনার দু:খবোধটা কোথায়? গালাগালিতে? অপমানে? ইউজে-৫ নিক ব্যান হওয়ায়? নাকি ব্লগের সাময়িক অস্থিরতায়? অথবা প্রয়াত এডমিন'র 'প্রয়োজনে ব্লগ সাইট বন্ধ করে দেবো' -- এমন হঠকারি মন্তব্যে (দ্র. বাউলের পোস্টে মন্তব্য)?



নিজস্ব ভুল বোঝাবুঝি মিটিয়েই ফেলা শ্রেয়।



নো মডারেশন থেকে আমারব্লগ সেমি বা ফুল মডারেশনে গেলে অনেকেই হয়তো এখানে আর থাকবে না। সেটি ভিন্ন প্রসঙ্গ।



কিন্তু আপনি আমার অনেক পছন্দের একজন ব্লগার, ভ্রাতা, এ পর্যায়ে আপনার অভিমানটুকু কিন্তু 'চোরের ওপর রাগ করে মাটিতে ভাত খাওয়ার' মতো হয়ে যাচ্ছে!



৩। কিছু মনে করবেন না, অবস্থা দৃষ্টে বাইবেলের আরেকটি কথা মনে পড়লো:



প্রভু, উহারা নিজেরাই ধূলি উড়াইয়া কহিতেছে, আমরা কিছুই দেখিতেছি না।



৪। আমারব্লগ ছেড়ে দেওয়া একটি ভ্রান্ত সিদ্ধান্ত। আপনাকে আমি খুব মিস করবো। ভালো থাকুন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

যেখানেই যান, যে ব্লগেই থাকেন নতুন করে গেরিলা যুদ্ধে যাবার আগে প্রশিক্ষণ ঠিকমতো নিয়েন। মেলাঘরের প্রশিক্ষণটা কাজে লাগল না আপনাদের। কয়েকটা টিপস দেই।



১। ম্যালফাংশন কি এটা সম্পর্কে বিশদ জ্ঞান রাখবেন। সামুর পুরোনো পোস্টগুলো পড়বেন।

২। স্ক্রীণশট রাখবেন নিয়মিত।

৩। প্রক্সি হাইড করে এ্যাডমিনদের গু বাইর কইরা দিবেন।

৪। কমেন্ট আর্কাইভ করবেন।

৫। উপরের সবগুলো ভুয়া যদি না গেরিলা যুদ্ধ করার কোনো প্রকৃত উদ্দেশ্য না থাকে।

৬। আর সবচেয়ে জরুরি যেটা পদ্মলোচন এর মতো বাচ্চা ছেলেদের ভুল কিছু বোঝাবেন না।



UG নিয়া গেরিলা যুদ্ধের প্রথমেই একে একে নিজে থেকেই ফাঁসিকাষ্ঠে ঝুলে পড়লে হবে? আপনারা যদি ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে যাইতেন তাইলে ফ্রন্টে প্রথম যুদ্ধেই মারা পড়তেন। রাতের অন্ধকারে সিগারেট খাইতেন আর আগুন দেইখা পাকিকুত্তারা গুলি মারত।



আপনাগো এমনই গেরিলা প্রস্তুতি। আর লাগতে আইসেন সামুর আরিল-জানা গো লগে ফাইট করা পোলাপানের লগে? না?



কমেডি ছবি সিনেমা হলেই মুক্তি পায় না। এখন ব্লগেও হয়

-----------------------------------------------------------------------------------
আল্লাহই ভালো জানেন ... যদিও আমাদের রয়েছে সহজ এবং পূর্ণাঙ্গ জীবনবিধান।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@অলৌকিক হাসান,



এরপর আর কি বলার আছে!



নিঝুম মজুমদারের কাছ থেকে আরো পরিনত আচরন আশা করছিলাম।

----------------------------------------------------------
"সওয়ারীদের দৌড়ানোর মাঝে কোন কল্যান নেই। "


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@অলৌকিক হাসান, মন্তব্যে ঝাঝা দিলাম! (Y) (Y) (Y) (Y) (Y)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নিঝুম দা, আপনারে ব্লগে অনেক মিস করুম Sad

>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>
Only constant is change


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@খারাপ মানুষ, (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পুরোটাই আমার কাছে হাস্যকর ছেলে মানুষী মনে হয়েছে। উচিত ছিল ডিভাইন ইন্টারভেনশনের পরিচয় ওপেন করা তখনই (যদি আপ্নারা তা নিশ্চিত ভাবে জেনে থাকতেন)।



আপনার লেখা ভাল লাগে। Oups Oups Oups Oups Oups প্রথম যুদ্ধে পিছু হটলেই কি চলবে! প্লাটফর্ম ফাকা রেখে গেলে তো ডিভাইন একাই সব দখল করবে। তাহলে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বহুত ফাও গোলাইছেন। ধরা খাইলেন। ধীরে ধীরে আপনার আসল রুপটা বাইর হবে আশা করি। দেশে গিয়া ফ্রীডম পারটির হাল ধরেন। আর সবাইরে "প্রিয়" নামক তিন নম্বরী ওয়েবসাইটে আপনার নতুন ব্লগের ঠিকানা দিয়েযান। ঐখানে ভালোই আরাম পাইছেন। তাইনা? এখানে আপনার স্বরুপ ফাস হৈছে বা হইয়াজাবে। আর বরাবরের মত এই সমালোচকের পোস্ট ডিলিট মারেন। কৎাফেজ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

;;)

glqxz9283 sfy39587p07