Skip to content

জাকির নায়েক’র অন্তত: ১০টি বক্তৃতা যাতে শান্তি’র বার্তা ছিলো না!

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অন্য ধর্মের প্রতি ঘৃণাসূচক মনোভাবাপন্ন উক্তির কারণে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা এবং মালয়েশিয়ায় নিষিদ্ধ ভারতীয় নাগরিক ও ইসলাম প্রচারক জাকির নায়েক ইদানিংকালে ভারতীয় নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর জন্য মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

জাকির নায়েক ইতোমধ্যে ঘনঘন খবরে আসছেন, কেননা গত সপ্তাহে ঢাকায় একটি ক্যাফেতে ২০ জন খুনের সাথে জড়িত পাঁচ জন সন্ত্রাসীর মাঝে দুই জন সন্ত্রাসী জাকির নায়েকের ধর্মোপদেশ শুনে উদ্বুদ্ধ হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

বুধবার ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কিরণ রিজিজু বলেছিলেন যে, নায়েকের বক্তৃতায় উদ্বেগের কারণ রয়েছে এবং আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী প্রতিষ্ঠানগুলো এসব বক্তৃতা নিয়ে চিন্তিত আছে। রিজিজু সাংবাদিকদেরকে আরও বলেন যে, বাংলাদেশের সাথে ভারতের সুসম্পর্ক রয়েছে, বিশেষ করে সন্ত্রাসের সাথে লড়াইয়ে। তিনি বলেন, "ঘনিষ্ঠ সমন্বয় এবং একত্রে দাঁড়িয়ে লড়াই করেই কেবল জঙ্গিবাদকে পরাস্ত করা সম্ভব।"

৫১ বছর বয়স্ক এই নেতা দীর্ঘদিন থেকে মুম্বাইতে একজন মেরুকরণবাদী নেতা। যাই হোক, আগে যেভাবে নায়েক মুম্বাইতে বড় সভা করে ওয়ায করতো তা আর পারে না। এ সমাবেশগুলোতে তার উপস্থাপিত বিতর্কিত বক্তব্যে বিচলিত হয়ে মুম্বাই পুলিশ ২০১২ সাল থেকে তাকে এসব সমাবেশের অনুমতি দেয়া বন্ধ করে দেয়।

প্রফুল্ল দর্শন ডাক্তার নায়েক অনর্গল ইংরেজির পাশাপাশি অল্পবিস্তর বোম্বাই হিন্দিতে কথা বলেন এবং নিজেকে ইসলাম প্রচারক হিসেবে দাবী করেন।

তথাপি, তিনি কখনো মুম্বাইয়ের সুন্নী এবং শিয়া আলেমদের মাঝে জনপ্রিয় ছিলেন না। মুসলিম সমাজের বাইরে তিনি যতোখানি না সমালোচিত ছিলেন, মুসলিম সমাজের ভেতরে তার চেয়েও বেশি নিন্দিত ছিলেন।

মুম্বাই অধিবাসী নায়েক, ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশন এবং পিস টিভি পরিচালনা করেন। পিস টিভির ওয়েবসাইট অনুযায়ী, এটি “সত্য, ন্যায়বিচার, ভ্রাতৃত্ব এবং জ্ঞানের কথা” বলা হলেও বস্তুতপক্ষে তার বক্তৃতাগুলোতে কোন প্রকার শান্তির বার্তা খুঁজে পাওয়া যায় না।

তার বক্তৃতাগুলোর দিকে দৃষ্টিপাত করা যাকঃ

১) কেন মুসলমানদের সন্ত্রাসী হওয়া উচিতঃ



See video



নায়েক বলেন, "যদি লাদেন ইসলামের শত্রুদের সাথে লড়াই করে, আমি তার পক্ষে। যদি সে সবচেয়ে বড় সন্ত্রাসী আমেরিকার সাথে সন্ত্রাসী আচরণ করে, আমি তার পক্ষে। প্রতি মুসলমানের সন্ত্রাসী হওয়া উচিত। সন্ত্রাসীর প্রতি সন্ত্রাসী আচরণ করার অর্থই হচ্ছে ইসলামকে অনুসরণ করা। আমি জানি না সে ইসলামকে অনুসরণ করছে কিনা, কিন্তু মুসলমান হিসেবে জেনে রাখুন যে, যাচাই করা ছাড়া আরোপ দেয়াও ভুল"।

নায়েক বারবার এ বক্তব্যকে অস্বীকার করেন এবং দাবী করেন যে, ভিডিওতে কারসাজি করা হয়েছে।

২) যৌনদাসীর ব্যাপারেঃ


See video



তার ভাষ্যমতে কোরআনে এভাবে উতসাহিত করা হয়েছে, "যদি তোমার বিয়ে করার মতো সামর্থ্য না থাকে, তাহলে একটি দাসীকে বিয়ে করো এবং তাকে মুক্তি দাও"। যাই হোক, তার মতে এর উল্টোটি সম্ভব নয়। নায়েকের মতে, একজন নারী এই একই কাজ করতে চাইলে পারবেন না। একমাত্র পুরুষেরই এমন অধিকার আছে।

৩) স্ত্রীকে মৃদুভাবে পেটানোর ব্যাপারে নায়েক বলেনঃ


See video



নায়েকের মতে, আল্লাহ নারীকে পেটাবার জন্য পুরুষকে অনুমতি দিয়েছেন। কিন্তু তিনি বলেন যে, পুরুষ তার স্ত্রীকে 'মৃদুভাবে' পেটানো উচিত। "পারিবারিকভাবে পুরুষই নেতা, তাই তারই অধিকার রয়েছে"।

০৪) কেন কোন মুসলিম দেশ অন্য ধর্মের লোকদেরকে অনুমোদন দেয়া উচিত নয়ঃ


See video



"অন্য ধর্মের প্রচার নিষিদ্ধ। এমনকি তাদের জন্য কোন উপাসনার স্থান তৈরিও নিষিদ্ধ।"
কেন মুসলিম দেশগুলো অন্য ধর্মের লোকদেরকে অনুমোদন দেয়া উচিৎ নয়, তার ব্যাখ্যা করতে গিয়ে নায়েক একটি উদাহরণ দেন। তিনি বলেন যে, অমুসলিমরা তিনজন প্রার্থীর মাঝে কাকে নিজেদের শিক্ষক হিসেবে বেছে নেবেন -- যে ২+২=৩ বলে, নাকি যে ২+২=৬ বলে, নাকি যে ২+২=৪ বলে?
"আমরা জানি যে, সকল ধর্মের মাঝে খোদার চোখে আমাদের ধর্মই সেরা।"

০৫) ইসলাম ত্যাগীদের জন্য মৃত্যুদণ্ডঃ


See video



নায়েকের মতে, কেউ যদি ইসলাম ত্যাগ করে অন্য ধর্ম গ্রহণ করে, তাহলে মৃত্যুদণ্ডই তার জন্য সবচেয়ে 'মানবিক শাস্তি'।

৬) কেন সমকামিতা ভুল এবং নিষিদ্ধঃ


See video



তিনি তার ভিডিওতে বলেন, "সমকামী গোত্র পাপেভরা মানসিক সমস্যায় ভুগছে। কারণ তারা অশ্লীল মুভি দেখে। এজন্য টিভি চ্যানেলগুলো দায়ী।"

৭) তালিবানদেরকে কিভাবে সমর্থন করা যায়ঃ


See video



যদি ওসামা বিন লাদেন সত্যের পথে, ইসলামের শত্রুর সাথে লড়াই করে, আমি তার সাথে আছি। প্রতি মুসলমানকে সন্ত্রাসী হওয়া উচিৎ।

৮) চুরির দায়ে হাতকাটা তেমন বাজে কোন ব্যাপার নয়ঃ


See video



নায়েক বলেন যে, প্রতিটি পাপের জন্য শাস্তি হওয়া আবশ্যক, তাই চুরির শাস্তি হিসেবে হাত কেটে দেয়া কোন ত্রুটিপূর্ণ ব্যাপার নয়।

মুসলিম এই ধর্মপ্রচারকারীর মতে, নিজ দেশে অপরাধ কমাবার জন্য আমেরিকায় এটিকে আইনে পরিণত করা প্রয়োজন।

৯) সঙ্গীত শোনা পাপঃ


See video



মুসলিম এই ধর্মপ্রচারক বলেন যে, সঙ্গীত একজন মানুষকে উত্তেজক পানীয়ের মতোই কলুষিত করে। তিনি আরও বলেন যে, যেসব মুসলিম আলেমগণ এটিকে পাপ বলেন না, তারা মুসলমানদেরকে ভুল পথে পরিচালিত করছেন।

১০) বিবর্তনবাদ শুধুই একটি তত্ত্বঃ


See video



নায়েকের মতে, ডারউইনের বিবর্তনবাদ তত্ত্ব সম্পূর্ণই ভিত্তিহীন।
তিনি বলেন, "ডারউইন যা বলে গেছেন তা কেবলই এক তত্ত্ব। কোন বই একে 'বিবর্তনবাদের বাস্তবতা' বলে না, 'বিবর্তনবাদের তত্ত্ব বলে"।

নায়েক বলেন, ''পবিত্র কোরআনে কোন বিবৃতিকে যাকে বিজ্ঞান ভুল প্রমাণিত করতে পারেনি। কোরআনের বিরুদ্ধে অনুমান নির্ভর প্রচারণা আছে, তত্ত্ব আছে। পবিত্র কোরআনে উল্লিখিত এমন কোন বাণী প্রতিষ্ঠিত বিজ্ঞানের বিপক্ষে যায়নি - এটি তত্ত্বের বিরুদ্ধে হয়তো গিয়েছে"।

লেখাটি এখান থেকে অনুবাদ করা।

যদি কেউ ভেবে থাকেন যে বক্তব্যের ভিডিওগুলা জেনুইন না তারা জনাব নায়েকের নিজের ওয়েবসাইটের এফএকিউ পেইজ থেকে ভেরিফাই করে নিতে পারেন।

http://www.irf.net/faq/


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পিস টিভি পুনরায় চালু করা উচিৎ

টি এইচ মানিক
তরুন চ্চলচিত্র নির্মাতা


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জাকিরের চেয়ে জাকিরের সমর্থকরা বেশী উগ্র!
জাকির সুধু ভন্ড মওলানা না, সে উগ্র সালাফি -ওহাবি মতবাদ প্রচার করছে, যা টোটালি জঙ্গিবাদ।
ওহাবিদের মুল আদর্শ হচ্ছে " সুধু ওহাবি মতবাদিরা ছাড়া আর কারো বেচে থাকার অধিকার নেই, এমনকি সে মুসলিম হলেও।
ইসলামে আত্নহত্যা মহাপাপ, অতচ সে বলে বেড়াচ্ছে 'ইসলামে আত্নঘাতি হামলা জায়েজ'
উগ্র সালাফি -ওহাবি মতবাদে পুষ্ট জাকিরনায়েক বলেছে -
‘পবিত্র কোরআনের ব্যাকরণগত ভুল আছে’ (আস্তাগফেরুল্লাহ)
‘প্রত্যেক মুসলমানের সন্ত্রাসী হওয়া উচিত।’
এই ধরনের অসভ্য উগ্রবাদি মোল্লা আমাদের দরকার নেই।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জাকির নায়েক আসলে একটা আপাদমস্তক-ভণ্ড। আর সে চরম সাম্প্রদায়িক-অপশক্তি।

আমি মানুষ। আমি বাঙালি। আমি সত্যপথের সৈনিক। আমি মানুষ আর মানবতার সৈনিক। আমি ধর্মে বিশ্বাসী একজন মানুষ। আর আমি ত্বরীকতপন্থী-মুসলমান। আমি মানুষকে ভালোবাসি। আর আমি বাংলাদেশ-রাষ্ট্রকে ভালোবাসি। জয়-বাংলা। জয়-বাংলা। জয়-বাংলা।...

glqxz9283 sfy39587p07