Skip to content

পাগল বলতে আপনি কি বোঝেন?

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই প্রশ্নগুলো কি আপনার মনে কখনই উঁকি দেয়নি? যদি দিয়েও থাকে তবে কি সঠিক উত্তর খুঁজে পেয়েছেন? যদি না পেয়ে থাকেন তবে আমি দার্শনিক বলছি-

সৃষ্টিকর্তা মানুষকে পৃথিবীতে পাঠানোর আগেই বেঁচে থাকার সমস্ত অবলম্বন এর ব্যবস্থা করে রেখেছিলেন। তারপর ছেড়েদিলেন মানুষকে- একদম খালি হাতে।
সৃষ্টিকর্তার নিরপেক্ষতা নিয়ে আপনার মনে কোন সন্দেহ না থাকলে আপনার যুক্তিবিদ্যার সুইচ অন করে দিন।

আলবার্ট আইনস্টাইন এর নাম নিশ্চয় শুনেছেন?- সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানী।

এবার আপনার কথা বলা যাক- আপনি, একজন মানুষ আইনস্টাইন এর মত! আপনার মাথায় 1.5 কিলোগ্রামের একটা ঘিলু আছে যা নিশ্চয় ঠিক আইনস্টাইন এর মতোয়! (এমন নয় যে আইনস্টাইনের ব্রেইন এর ওজন এক গ্রাম বেশি ছিল।)
আইনস্টাইনের শরীরের লাল রক্তের মতোয় আপনার শরীরের রক্ত! সব কিছুই তো ঠিক আছে! তাহলে আপনার আর আইনস্টাইনের মধ্যে পার্থক্য কোথায়?
আছে তো নিশ্চয়? বের করার দায়িত্বটা আপনার কাধেই ছেড়েদিলাম। মনে রাখবেন কিন্তু আইনস্টাইনও খালি হাতে এসেছিলেন, আপনিও খালি হাতেই এসেছেন।

বলেছিলাম না সৃষ্টিকর্তা আমাদের পাঠানোর আগেই বেঁচে থাকার সকল উপকরন পৃথিবীতে সৃষ্টি করে রেখেছিলেন? তিনি তাই রেখেছেন। আর আইনস্টাইন সেই উপকরন খুঁজে বের করেই আজ জগৎবিখ্যাত। আপনি ঘরের কোনে বসে তার বের করা উপকরন নিয়ে নাড়াচাড়া করছেন আর ভাবছেন কবে যে বিখ্যাত হব আর পৃথিবির মানুষ আমাকে বাহবা দিবে!!!

উপরের কথা গুলোর সাথে একমত হলে পড়া চালিয়ে যান, অন্যথা আল্লাহ হাফেয।

এবার মূল প্রসঙ্গে আসি। আমরা একজন ব্যক্তিকে বলছি পাগল। আইনস্টাইনের যুগেও তাকে তার আমলের মানুষ পাগল ভাবত! কেন জানেন? তখনকার মানুষ তার থিউরিগুলো বুঝতে পারতনা। তাই তাকে অনেকেই পাগল বলত। (পাগল আইনস্টাইননের ভাগ্য ভাল যে সে বাংলাদেশে জন্মেনি। যদি হয়ত তবে পুলাপাইনের গণপিটুনি খাইতে খাইতে মারশাল-আর্ট এর কোন সূত্র আবিষ্কারেরও সুযোগ পাইত না।) কিন্তু এখন আমরা বুঝতে পারছি তার আবিষ্কার কতটা গুরুত্বপূর্ণ। আমি এখানে কেবল আইনস্টাইন এর কথাই বলেছি। আমাদের লালন ফকিরকেও মানুষ পাগল বলত। কিন্তু তিনি বলে গেছেন-

খাঁচার ভেতর অচিন পাখি কেমনে আশে-যায়!!


এমন দুইএকটা কথা আপনি বলেন তো দেখি? তার এ কথাটা কে নিয়ে আপনি গভীর ভাবে চিন্তা করলে উপলব্ধি করতে পারবেন যে একটা মানুষ কোন লেভেল এ পৌঁছাতে পারলে তার মুখ দিয়ে এমন কথা বের হয়। আমাদের মহানবী (সাঃ) কেও তায়েফবাসী পাগল বলে পাথর নিক্ষেপ করেছিল। কারন তারা তখনও ইসলামকে উপলব্ধি করতে পারেনি।

তাহলে ব্যাপারটা কি দাঁড়াল যে আমরা যদি কোন মানুষের লাইফস্টাইল অথবা চিন্তাভাবনা বুঝতে না পারি, তাহলেই তাকে পাগল বলে গালি দেয়! কিন্তু এটা বোঝার চেষ্টা করিনা যে তার চিন্তাভাবনা আমাদের চেয়ে অনেক বেশি developed যে কারনে আমরা তাকে বুঝতে পারছি না।

এক্ষেত্রে আমি পাগল কে 3G বলব, আর যারা পাগল বলে গালি দেয় তাদের বলব 2G। আমরা যখন 2G যুগে ছিলাম তখন 3G কি জিনিষ তা বুঝতে পারাটা অনেক কঠিন ছিল। আমরা এখন 3G যুগে চলে এসেছি। এখন 3G এর ম্যাকানিসম এবং সুবিধা আমাদের কাছে কাল্পনিক বা অবিশ্বাস্য নয়। তাই আমি বলব- আপনি যাকে পাগল বলছেন সে আছে 3G যুগে, আর আপনি পরে রয়েছেন 2G যুগে। তাই পাগলের লাইফস্টাইল বা চিন্তাভাবনা আপনার কাছে বিভ্রান্তিকর এবং গুরুত্বহীন মনে হয়। যেমন গুরুত্ব পায়নি লালন সহ হাজারও মানুষ। কিন্তু এখন আমরা লালনের উপরে গবেষণা করছি, তার লিখা গান গুলোর উপর PhD করছি! তৎকালীন পাগল আজকের আধ্যাত্মিক গুরু!

ততকালীন পাগল আজকের সর্বশ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানী!

তৎকালীন পাগল আজকের শ্রেষ্ঠনবী!

আজকের পাগল যে আগামির আধ্যাত্মিক গুরু হবে না তার কি নিশ্চয়তা আপনি দিতে পারবেন?

আপনি যখন 3G তে নিজেকে update করে নিতে পারবেন ঠিক তখনি আপনি যাকে পাগল বলছেন তাকে বুঝতে পারবেন।

শেষকথা- মনে রাখবেন, যাকে দেখে আপনার পাগল বলে মনে হবে, ভাববেন সে আপনার থেকে updated একজন মানুষ। তার thinking level আপনার থেকে অনেক high. মানুষ যখন সৃষ্টির নতুন কোন রহস্য খুজে পায় তখন আর 2G তে পরে থাকে না। সে চলে যাই 3G জগতে। সেখানে গিয়ে আবারো সৃষ্টির নতুন কোন রহস্য উন্মচনে ব্যস্ত হয়ে পরে। তাই আপনার সাথে ওর সামঞ্জস্যতা খুঁজে পাওয়া যায়না। আর মিল না পেলেই যে আপনি তাকে পাগল বলবেন এটা তো ঠিক না। আপনি অলস, সৃষ্টির স্বাদ আপনি নিতে পারননি, তাই আপনি অধম...।

আর কিছু কথা- মানুষ মোবাইল, কম্পিউটার, ফেইসবুক ইত্যাদি ব্যাবহার করলেই updated বা আধুনিক হয়ে যায় না যতক্ষণ না পর্যন্ত মনকে আধুনিক করতে না পারে।

এখন ও বুঝতে না পারলে আমার সাথে দেখা কয়রেন। জনমের মত বুঝিয়ে দিব।

বিঃ দ্রঃ এই লিখাটি এর আগে অন্য একটি ব্লগে প্রকাশ করেছিলাম। যারা বঞ্চিত হয়েছিলেন তাদের জন্য।

মন্তব্য


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ছালাম,
সুন্দর লেখা।সব পাগলই কি এরূপ? কৃতজ্ঞ ও
বিনীত।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সুন্দর প্রশ্ন। পাগলের আবার রূপ কিশের? যে পাগল সে তো পাগলই। তবে ক্যাটাগরি থাকতে পারে, যেমন- 3G, 4G, 5G, 6G এরকম। আশা করি বুঝাতে পেরেছি। আরেকটা কথা বলা চলে- সব পাগলই মানুষ, কিন্তু সব মানুষ পাগল হতে পারে না, কেউ কেউ ভং ধরে নিজেকে বিভিন্ন রকমের ঝামেলা থেকে মুক্ত রাখার জন্য। যেমন একদিন মিরপুর-১ এর শাহ-আলি মাজার এ গেলাম ২ বন্ধু নিয়ে, এ সংক্রান্ত একটা গবেষণার জন্য। গেইট দিয়ে ঢুকতেই নাচতে নাচতে একটা লোক আমাদের কাছে এসে আস্তে আস্তে জিজ্ঞেস করল- মামা, লাগব নাকি? আমি জিজ্ঞেস করলাম কত? -বললেন- কাছে নাই, আইনা দিতে হয়ব, সাথে যোগ করলেন- বিশ্বাসে মিলায় বস্তু, তর্কে বহু দূর...। আমার সাথে একজন নব্য ৩জি ছিল, রীতিমত কথায় প্যাঁচ মারল, লোকটি বুঝে গেল হবে না, সে আবার নাচতে নাচতে চলে গেল...। সে এখানে পাগল সেজেছে, যাতে গাঁজা বিক্রিতে কোন সমস্যা না হয়। আশা করি বুঝাতে পেরেছি।

আমি; দার্শনিক


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

১০০% সত্য কথা বলেছেন।

সাধারণ অপেক্ষা বেশি জ্ঞান প্রাপ্ত।

সত্য সহায়।গুরুজী।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনাকে ধন্যবাদ দিতে মুঞ্চাইল, তাই ধন্যবাদ।

আমি; দার্শনিক


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভাল বলেছেন। সহমত, তবে একটা কথা জানতে ইচ্ছা করছে,

এখন ও বুঝতে না পারলে আমার সাথে দেখা কয়রেন। জনমের মত বুঝিয়ে দিব।


বুঝানোর প্রসেসটা কি? জেনে রাখার জন্য জানতে চাইছি। হয়ত ভবিষ্যতে কাজে লাগানো যেতে পারে।

------------------------------------------------------------
আমি বাংলায় দেখি স্বপ্ন, বাংলায় বাঁধি সুর
আমি এই বাংলার মায়াভরা পথে হেঁটেছি এতটাদূর


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অতিমাত্রায় ৯৯.৯৯% খাঁটি ভালবাসা প্রয়োগের মাধ্যমে মাথায় হাত বুলিয়ে এক কাপ গরম চা পান করিয়ে যুক্তি দিয়ে বুঝালে এ জনমে কেন পরজনমেও ভুলার কথা না। তাই না?

আমি; দার্শনিক


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Laughing out loud Laughing out loud Laughing out loud Laughing out loud Laughing out loud

------------------------------------------------------------
আমি বাংলায় দেখি স্বপ্ন, বাংলায় বাঁধি সুর
আমি এই বাংলার মায়াভরা পথে হেঁটেছি এতটাদূর


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মনে রাখবেন, যাকে দেখে আপনার পাগল বলে মনে হবে, ভাববেন সে আপনার থেকে updated একজন মানুষ। তার thinking level আপনার থেকে অনেক high.

মানসিক হাসপাতালের রোগীদের জন্য কী এটা প্রযোজ্য? তারা কী 3G মানব?
---------------------------------------------------------------------------------------

আমি আমার ভেতরে প্রতিনিয়ত বংশবৃদ্ধি করছি
যেমনটি করে থাকে অকোষী জীব হাইড্রা ।
বিলুপ্ততা ঠেকানোর কিংবা টিকে থাকার লক্ষ্যে নয়
নশ্বরতা আবিস্কারের লক্ষ্যে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সিরাজুল ইসলাম ভাইয়ের মন্তব্য দৃষ্টিগোচরের জন্য করজোড়ে নিবেদন করা হইল। ধন্যবাদ।

আমি; দার্শনিক


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এখন ও বুঝতে না পারলে আমার সাথে দেখা কয়রেন। জনমের মত বুঝিয়ে দিব।
ভাল লেগেছে আপনার লেখা;শুধু উদ্ধৃত অংশ ছাড়া।

.
.
__________________
অপণা মাংশেঁ হরিণা বৈরী।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অর্ধেক ধন্যবাদ।

আমি; দার্শনিক


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পাগল কি জিনিস টা বোঝলাম, জনমের মত বুঝিয়ে দিব কথাটা বোঝলাম না, দয়া করে বুঝিয়ে দিয়েন।

------------------------------------------------------------
যে শতভাগ সত্য কথা বলে, সে কখনো ভাল মানুষ না।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তাইলে তো হইলয়, বাকিটা না বুঝলেও হয়ব। ধন্যবাদ।

আমি; দার্শনিক


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পোস্ট ও মন্তব্য পইড়্যা গুগলাইলাম। শেষে জানা গেলো হেমায়েতপুর মানসিক হাসপাতালের কেউ ব্লগিঙ করতেছে না। অতএব এইবার আমিও জানতে চাই-

জনমের মত বুঝিয়ে দিব


মানে কি?

..................................................................

বারান্দা জুড়ে হাসি অচেনা চোখের জল
বিকেলের শরীর ছুঁয়ে আমার কবিতা চঞ্চল
.. .. .. .. ..
শুধু কবিতাটুকু সত্যি আর সব মিথ্যে নামে আসে
ওই আকাশটাকে দেখো- সে কবিতাই ভালোবাসে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

খুবই সোজা কথা। এ জীবনে আর ভুলবেন না। ধন্যবাদ।

আমি; দার্শনিক


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মানসিক রোগি আর পাগল এক নয়।যার সাধারণ জ্ঞান নাই সে মানসিক রোগি।আর যার সাধারণ অপেক্ষা জ্ঞানের পরিধি বেশি,এরাই পাগল।সাধারণ লোক তাদের সাধারণ জ্ঞান দ্বারা তাকে বুঝতে পারে না, অথবা তার জ্ঞানের কাছে সাধারন জ্ঞানী পরাস্ত হয়েও নিজেকে জ্ঞানী প্রমানের জন্য তাকে পাগল বলে অভিহিত করে।এরাই পাগল।

সত্য সহায়।গুরুজী।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হাছা কথা।

আমি; দার্শনিক


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পোস্ট পড়ে মন্তব্য থেকে বিরত থাকার ইচ্ছে ছিল। তবে মনে হল আপনিও একটা পাগল তবে আমি নিজেকেও মাঝে মধ্যে পাগল বলেই অভিহিত করি; তবে আজ বুঝলাম পাগলের কোন গুন আমার মাঝে নেই!!!

*********************************

আমি তাদের দলে যারা নিকৃষ্টকে ভালোবাসে
নিকৃষ্ট থেকেই উৎকৃষ্টের সৃষ্টি....
তাই চেয়ে থাকে অবিরত অপলক দৃষ্টি......।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তার মানে রাস্তা ঘাটে আমরা সে সব পাগল ছাগল দেখি ধরে নেব তারা ভয়াবহ রকম মেধাবী ও আপডেটেড?
আপনার একটা ভুল হচ্ছে। আইনস্টাইনকে কেউ পাগল ভাবত না বা লালনকেও কিন্তু সত্যিকার অর্থে পাগল বলত না। ওরা একটা নির্দিষ্ট বিষয়ের প্রতি বেশী নিবেদিত ছিলেন যা সাধারণ মানুষকে বিস্মিত করত আর তাই সখ করে বলত পাগল , যাদেরকে আমরা প্রকৃত অর্থে পাগল বলি সেই অর্থে নয়। যেমন যদি কেউ সাধারনের চেয়ে লক্ষ্যনীয়ভাবে বেশী বই পত্র পড়াশোনা করে তাকে অনেকেই মজা করে পাগল বলে, এই পাগল সম্বোধন আর রাস্তা বা হেমায়েত পুরের পাগল বা মানসিক রোগীকে পাগল সম্বোধন এক জিনিস না। একটা সম্বোধনের ভিতর বিস্ময়জাগা কৌতুহল বিদ্যমান আর অন্যটিতে সহানুভুতি বিদ্যমান।

আর আপনি এই সাধারন জিনিসটা বুঝতে না পারাতে আপনাকেই প্রকৃত অর্থে হেমায়েতপুরের কেউ মনে হয়েছে। তবে ভাবছি আপনি বাইর হইলেন কেমনে ?

===================================================================================
অন্ধ জনে দেহ আলো

glqxz9283 sfy39587p07