Skip to content

ডিসেম্বরে আমরা কি আরেকটা ১৫ আগস্ট দেখবো! বাঙালী কি প্রতিরোধে প্রস্তুত!!

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি


১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট যখন জাতির পিতা নিহত হলেন, তার ঠিক আগের রাজনৈতিক মেরুকরণটা জানা জরুরী। বঙ্গবন্ধু মাইনাস আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসবে। খন্দকার মোশতাককে দিয়ে সেটা নিশ্চিত করা হলো কয়েকমাসের জন্য। সে কয়েকটা মাসে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার স্তম্ভগুলোকে নিশ্চিহ্ন করে ফেলার নীলনকশাটাও চূড়ান্ত হলো। মোশতাকের সিনেমা শেষ হলো নভেম্বরে। জেলে নির্মমভাবে হত্যা করা হলো চার জাতীয় নেতাকে।

৭ নভেম্বর মুক্তিযোদ্ধা অফিসারদের রক্তে লাল হলো সেনানিবাস। আর সে হোলিখেলা চললো আরো ১৫টি বছর। ততদিনে গোলাম আযম ও তার জামাতে ইসলামী পুনর্বাসিত হয়ে গেছে এই বাংলায়। অধিষ্ঠিত হয়ে গেছে পাকিস্তানপন্থীরা। কাগজে কলমে না হলেও এই দেশ পাকিস্তানেরই অংশ, তাদের নির্দেশনাতেই চলে। এখানে দুটো তারিখই লক্ষণীয়। ১৫ আগস্ট ভারতের স্বাধীনতা দিবস, ৭ নভেম্বর রুশ বিপ্লবের বার্ষিকী। মুক্তিযুদ্ধে যাদের রুশ-ভারতের দালাল বলে শ্লোগান দিতো স্বাধীনতাবিরোধীরা, দুটো ল্যান্ডমার্ক তারিখেই তাদের নিশ্চিহ্ন করা প্রায় শেষ।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করার ঘোষণা দিয়ে জনগনের ম্যান্ডেট নিয়ে যখন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় বসলো, তখন থেকেই নতুন চক্রান্ত শুরু। বিডিআর বিদ্রোহের মাধ্যমে তাদের প্রথম প্রচেষ্টাটা ভেস্তে গেলো। কিন্তু ষড়যন্ত্র থেমে নেই। লন্ডন এবং ওয়াশিংটনে কড়া লবিং চলছে জামাত-বিএনপির তরফে। স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি ক্ষমতায় এলে পশ্চিমা রাষ্ট্রগুলো লাভের গুড় কিভাবে বাটোয়ারায় নেবে তার তালিকাও চূড়ান্ত। একইভাবে আরব দেশগুলোতেও সেই ’৭৫ পূর্ববর্তী প্রচারণা গতি পেয়েছে- আওয়ামী লীগ ধর্মনিরপেক্ষতার নামে ধর্মহীনতা কায়েম করতে চায়। জাল গুটিয়ে আনছে জামাত, খালেদা জিয়ার রোডমার্চে তাই হুমকি আসে আরেকটি ১৫ আগস্ট সমাগত। আসলেই? কবে?

যদি আগের মতো উল্লেখযোগ্য তারিখগুলো আমরা আমলে নেই। তাহলে সম্ভাব্য দুটো তারিখ সামনে আসে। ৩ ডিসেম্বর, যেদিন ভারতকে আক্রমণ করে পাকিস্তান, সুবাদেই মিত্রবাহিনী ঝাপিয়ে পড়ে সর্বাত্মক যুদ্ধে। ১৩ দিনের মাথায় স্বাধীন হয়ে যায় বাংলাদেশ। এবং সম্ভাব্য গুরুত্বপূর্ণ তারিখটি ১৬ ডিসেম্বর। এইদিন আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধপন্থীদের সর্বাত্মক হামলায় নিশ্চিহ্ন করে ক্ষমতায় চলে আসতে পারে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি। নানা মাধ্যমেই এই হামলা হতে পারে। জঙ্গী হামলা,আত্মঘাতি হামলা, সেনা অভ্যুথান (মূল স্পন্সর আইএসআইর আর কোনো তরিকা নাই, প্রোপাকিদের একমাত্র ভরসা)। এর মধ্যেই ক্ষমতাসীন মহাজোটের দলগুলোর কথাবার্তায় অন্যরকম আভাস মিলছে। বামপন্থীরা যুদ্ধাপরাধ ট্রাইবুনালের সমালোচনায় নেমেছে। বিপন্ন এবং মরিয়া জামাতের কোটি কোটি টাকার মিশনে আওয়ামী লীগের কিছু নেতা কি বিক্রি হননি! মুজিবের ঘনিষ্ঠদের কেনা গেলে শেখ হাসিনার ঘনিষ্ঠদের কেনা এমন কি কঠিন!! এরা নেত্রীর কাছে খবর পৌছতে দিচ্ছেন না। যেমন দিতেন না মুজিবের কাছে। তাকে জানাচ্ছেন সব ঠিকঠাক আছে, যেমন জানাতেন মুজিবকে। জামাতই এই কথা বাতাসে ছড়িয়ে দিচ্ছে এবার শেখ হাসিনা-শেখ রেহানা-সজীব ওয়াজেদসহ শেখ পরিবারের বাকি সদস্যদের একযোগে হামলা চালিয়ে নিশ্চিহ্ন করা হবে। আওয়ামী লীগের এসব বিক্রি হয়ে যাওয়া মাথারা প্রফেসর ইউনুসের কর্মকাণ্ড নিয়ে নেত্রীর মাথা জাম করে দিচ্ছেন। অন্যদিকে তলে তলে গোড়া কাটছে জামাত। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হলে কোনো না কোনো ছুতায় তা স্থগিত রাখা হচ্ছে। রাখছে আওয়ামী লীগের এই বিক্রি হওয়া অংশটাই। এরা মাইনাস শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের হয়ে দেশের ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্নে বিভোর। সত্যি যদি জামাতের নীলনকশা বাস্তবায়িত হয়, তাহলে এরা সবার আগে বিবৃতি দিবে আওয়ামী লীগ কত খারাপ, শেখ হাসিনা তার বাবার মতোই স্বৈরাচার ছিলেন বলে।

গত ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসেও এমন একটা হামলার আশঙ্কা ছিলো। শেষ মুহূর্তে শেখ হাসিনা বাতিল করেছেন সামরিক কুচকাওয়াজে তার উপস্থিতি। ১৬ ডিসেম্বরের পরিকল্পনাটা আরো নিখুত হওয়ার কথা এসব স্বাধীনতাবিরোধীদের। মুজিব তার ডান হাতকে বিশ্বাস করে ঠকেছিলেন। আশা করি শেখ হাসিনা সাবধান হবেন। দিন বেশী বাকি নেই। ‘৭৫এ ঘটনা ঘটিয়ে রাস্তায় স্বাধীনতাবিরোধীদের নামিয়ে দিয়ে শ্লোগান দিয়ে বোঝানো হয়েছিলো জনগণ মুজিবকে চায় নি। এই তথাকথিত জনগন আসলে লুকিয়ে থাকা রাজাকার আলবদর সদস্যরা। এবারও তাদের উত্তরপ্রজন্মকে মাঠে নামানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে। এরা শ্লোগানে শ্লোগানে বুঝিয়ে দেবে দেশে বিপ্লব হয়েছে। ধর্মহীনতার পতন হয়েছে, বাকশালের পতন হয়েছে। দেশ ভারতের দালালমুক্ত হয়েছে। বাঙালীও যথারীতি মেনে নেবে তা। আসলেই কি!! শেখ হাসিনা আপনি সতর্ক হোন। সতর্ক হোন দেশবাসী। এ লড়াই বাচার লড়াই, হারলে মুক্তিযুদ্ধের যাবতীয় অর্জন ধুলোয় মিশে যাবে। এ লড়াইয়ে জিততে হবে।

মন্তব্য


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এ লড়াইয়ে জিততে হবে।


অবশ্যই। এর কোন বিকল্প নাই।

*************************************************************************************
আমি অতো তাড়াতাড়ি কোথাও যেতে চাই না;
আমার জীবন যা চায় সেখানে হেঁটে হেঁটে পৌঁছুবার সময় আছে,
পৌঁছে অনেকক্ষণ বসে অপেক্ষা করবার অবসর আছে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জিততে হবে

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আংকেল,
মাটিতে পা লেগেছে?
যুদ্ধে জয়ী হতে হলে যোদ্ধার দরকার; কয়েকজন মিলে ডোডোর সহিত দেখা করে বলেন, ইউনুসের নামে তাকে ব্যস্ত রেখে ওরা সময় কিনেছে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

রাইট অন দ্য স্পট আঙ্কেল। এই জন্য আপনারে আমি এত ভালা পাই

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আংকেল,
বইটা কি আরো লাগবে?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দেন পাঠায়া। আরো সমৃদ্ধ হই Laughing out loud

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের এসব বিক্রি হয়ে যাওয়া মাথারা প্রফেসর ইউনুসের কর্মকাণ্ড নিয়ে নেত্রীর মাথা জাম করে দিচ্ছেন। অন্যদিকে তলে তলে গোড়া কাটছে জামাত। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হলে কোনো না কোনো ছুতায় তা স্থগিত রাখা হচ্ছে। রাখছে আওয়ামী লীগের এই বিক্রি হওয়া অংশটাই। এরা মাইনাস শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের হয়ে দেশের ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্নে বিভোর। সত্যি যদি জামাতের নীলনকশা বাস্তবায়িত হয়, তাহলে এরা সবার আগে বিবৃতি দিবে আওয়ামী লীগ কত খারাপ, শেখ হাসিনা তার বাবার মতোই স্বৈরাচার ছিলেন বলে।


ঠিক। আওয়ামী লীগের প্রধান শত্রু আওয়ামী লীগই। তবে এই সতর্কবার্তা তারা বুঝলে হয়।

ধন্যবাদ অরপি। চলুক। Arrow


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ বিপ্লব

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হঠাৎ করে এই ধরনের পোস্ট ! ভিতরের কোন তথ্য বা বাতাসে বাসা গুজব সম্পর্কে ওয়াকিবহাল হয়েছেন নাকি ? আরেকটু বিস্তারিত জানতে পারলে স্বস্তি পেতাম

____________________________________
একটা টাইম মেশিন দরকার ছিল, কেউ কি ধার দিবেন ?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাতাসে গুজব তো অনেকদিন ধরেই। আক্কলমন্দকে লিয়ে ইশারাই কাফি

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সময় বড়ই নিষ্ঠুর, বাঙ্গালীকে এই সময়টা আর কত শেখাবে, কতটা মূর্খতা এখনও কাজ করছে, তাই সময় এসেছে শুধরে নেবার, তবে মনে হয় আমরা কেউ দূধে ভাসা তুলসী নই, অপেক্ষায় আছি কার জয় হয় সময় না জাতিস্বত্ত্বার ?

________________________________________________________________________

একটা হাতিয়ার দাও
আমি সূর্য্যটাকে লুট করবো,
অতবড় ছায়াদানব, আজ প্রকাশ্যে
হাতিয়ার নেই আজ হাতের কাছে...........।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমাদের যাবতীয় অর্জন বলতে মুক্তিযুদ্ধ, এর চেতনার এর অস্তিত্বের জন্যই এই লড়াইয়ে জিতে আসাটা জরুরী।

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বের উপরে প্রানঘাতী আক্রমনের শংকা উড়িয়ে দেবার কোনো উপায় নেই কারন ২১ শে আগস্ট মাত্র কয়েক বছর আগের। সেই প্রতিপক্ষ এখন আরও ডেসপারেট।

কিন্তু খামোকা ষড়যন্ত্র আর কুমন্ত্রনার কথা বলে কোনো লাভ নেই। এধরনের কথা সবসময়েই আগাচৌ বলে আসছেন বিশ বছর ধরে। সরাসরি নাম বলুন, প্রধানমন্ত্রীর কুমন্ত্রক কারা, কে কে বিক্রি হয়ে গেছেন। ডাইরেক্টলি আইডেন্টিফাই না করে এরকম অস্বচ্ছ কথা কোনো পজিটিভ অবদান রাখে না।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ডাইরেক্ট নাম নিলে খালেদা জিয়া আর জামাতে ইসলামী ছাড়া অন্য কারো ব্যাপারে কোনো প্রমাণ নাই

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

খালেদা আর জামাত তো শেখ হাসিনাকে পরামর্শ দিচ্ছে না, কথা হচ্ছে হাসিনার বলয় নিয়ে।
আগাচৌ আওয়ামী সরকার আমলগুলোতে কয়েকমাস অন্তর অন্তর ঠিক এরকমই একটা কলাম লিখতো। বাইরের শত্রু, ভেতরের শত্রু এসব নিয়ে। তার লেখাগুলোর কি ইম্প্যাক্ট হয়েছে?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হাসিনার বলয়ে অস্পষ্টতা আছে, সেটা প্রকাশ পাবে ষড়যন্ত্র বাস্তবায়িত হলে। আমরা চাই না ষড়যন্ত্র বাস্তবায়িত হোক, তাই প্রকাশ্য শত্রু নিয়েই যত মাথাব্যথা। গোপন শত্রুদের পরিচয় বেরুতেও সময় লাগবে না অবশ্য। আর আগাচৌ এবং আমার মধ্যে তফাৎ আছে। আমি আর উনি এক না। আওয়ামী লীগ নিয়া আমার কোনো মাথা ব্যথা নাই যতটা শেখ হাসিনা নিয়া আছে, সেটারও কারণ উনি শেখ মুজিবের জীবিত সন্তানদের একজন।

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

" আওয়ামী লীগ নিয়া আমার কোনো মাথা ব্যথা নাই যতটা শেখ হাসিনা নিয়া আছে--"
আপনার সাথে আমার পার্থক্য এখানেই। সেকুলারিজমের পক্ষে, সংখ্যালঘু-আশ্রয় আওয়ামী লীগ নিয়ে আমার অনেক মাথাব্যাথা আছে, শেখ ফ্যামিলি নিয়ে নাই।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

গুড এই পার্থক্য থাকায় আমি খুশী। আপনারে যেমন আপনার বলয়ে অরপি বলে গালি শুনতে হবে না, তেমনি আমিও আমার বলয়ে অপমানিত হবো না Laughing out loud

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভাই...কী শোনাইলেন?
কোনো সন্দেহ নাই, এরকম ঘটনা ঘটলে প্রথেমই যা শোনা যাবে...আমরা হাসিনারে ভোট দিছিলাম, বাইচ্চা থাকার জন্য, ১০ টাকা সের চাল খাওয়ার জন্য, শান্তিতে থাকার জন্য...যুদ্ধাপরাধী গো বিচার জন্য না...
ভাই কোনো সন্দেহ নাই, আওয়ামীলীগের বিক্রি হয়ে যাওয়া অংশ মানুষের মানষিকতা সে জায়গায় নিয়ে গেছে...
ভাই, এখানে কোনোভাবেই অস্বীকার করার উপায় নাই, আওয়ামীলীগের বিক্রি হয়ে যাওয়া অংশ ইর্ষনীয়ভাবে শেখ হাসিনাকে মুছে ফেলেছে সাধারণ মানুষের মনের একটা বড় জায়গা থেকে...
এ জায়গা থেকে এখন হাসিনাকেই বেরিয়ে আসতে হবে...আমাদের আসলে সত্যি কী কিছু করার আছে...আপনার এই লেখা কী আদৌ পৌছাবে তার কানে...
না শক্তিশালী নেটওয়ার্কের বিপথগামীরা ইথারেই আটকে দেবে এই আলোচনা?

আল্লাহ দেশকে রক্ষা করুক...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জানি না তার কানে পৌছবে কিনা, চেষ্টা করতে দোষ কি। প্রস্তুত থাকতে দোষ কি!

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রস্তুত আছি, প্রস্তুত আছে দেশের আরও তরূণ যুবক। কিন্তু দরকার দূরদর্শী নেতা ও সংগঠক

___________________
------------------------------
শ্লোগান আমার কন্ঠের গান, প্রতিবাদ মুখের বোল
বিদ্রোহ আজ ধমনীতে উষ্ণ রক্তের তান্ডব নৃত্য।।
দূর্জয় গেরিলার বাহুর প্রতাপে হবে অস্থির চঞ্চল প্রলয়
একজন সূর্যসেনের রক্তস্রোতে হবে সহস্র নবীন সূর্যোদয়।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তা ঠিক।

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Puzzled Puzzled Puzzled
Sad Sad Sad


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Stare Stare Stare Stare Stare

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বগলের নীচে কালসাপ 'আমেরিকা'-
আরব বসন্তের মতো
হয়তো খেলা হবে 'ইউনুস' কার্ড,
আমেরিকা যার বন্ধু তার শত্রুর দরকার
আছে কি?

_____________________

ক্ষুদ্র স্বার্থ ভুলে মুক্তির দাঁড় টান।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমেরিকা যার বন্ধু তার শত্রুর দরকার আছে কি?
আমেরিকা যার শত্রু তার কোনো ভবিষ্যত আছে কি?

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমেরিকা যার শত্রু তার কোনো ভবিষ্যত আছে কি?


Star Star Star Star Star


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাঁইচা থাকলে ভবিষ্যত কিছু একটা হবেই; জান খোয়াইয়া ভবিষ্যত দিয়া কি করবাম।
Puzzled Puzzled Puzzled Puzzled Puzzled

_____________________

ক্ষুদ্র স্বার্থ ভুলে মুক্তির দাঁড় টান।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সামনে কি আরেকটি সশস্ত্র সংগ্রাম ?আমার কেন যেন মনে হয় আসলেই তাই।

এই মেসেজটা কি সরাসরি শেখ হাসিনার কাছে পাঠানোর কোন উপায় আছে ?

*****************************
আমার কিছু গল্প ছিল।
বুকের পাঁজর খাঁমচে ধরে আটকে থাকা শ্বাসের মত গল্পগুলো
বলার ছিল।
সময় হবে?
এক চিমটি সূর্য মাখা একটা দু'টো বিকেল হবে?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জানি না উপায় আছে কিনা

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শেখ হাসিনাকে হত্যা করবার চেষ্টা করা হয়েছে অসংখ্যাবার কয়েকটা প্ল্যান সম্পর্কে জানলে শিউড়ে উঠতে হয় শেখ হাসিনা প্রতিনিয়ত ঘাতকের বুলেটের সাথে লুকোচুরি খেলছেন বললে ভুল হবে না

শ্রীলংকার মিডিয়াতে একবার এই সংক্রান্ত একটা কাহিনী আমি পড়েছিলাম অনেক দিন আগে কিভাবে শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে এলটিটি নামে গেরিলা গ্রুপের ফিমেল সুইসাইড মেম্বার হায়ার করেছিল বঙ্গবন্ধুর খুনিরা ৯৬ সালে শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী থাকার সময়ে

The plan to assassinate Bangladesh Prime Minister Shiekh Hasina Wajed:
How LTTE deal was blocked, suicide bombers failed to explode

____________________________________
একটা টাইম মেশিন দরকার ছিল, কেউ কি ধার দিবেন ?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই লিংকটা আমি আগেও একবার শেয়ার করেছিলাম। আশ্চর্য লেগেছিলো যে এদের মধ্যে তাজউদ্দিনের মেয়ে জামাইও আছেন।

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাতাসে তো কত গুজবই শুনি সেগুলোতে পাত্তা দেওয়া হয়য় না কখনো।কিন্তু আপনি যখন বলছেন তখন উড়িয়ে দিতে পারছিনা।কথাগুলো শেখ হাসিনার কানে গেলেই হয়।তার মাথায় এইসব জিনিষ একটু ঢুকলে হয়।

======================================================
তোমায় ভালবাসা ছাড়া আর কোন উপায় নাই,তাই কেবলি ভালবেসে যাই.........


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

চাটুকাররা অত্যন্ত সজাগ, তারা লখীন্দরের মতো লোহার বাসর ঘর তৈরি করে ছোট ফুটো রেখেছে কালসাপের ছোবলের জন্য

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সামনে কঠিন সময়।

....................................................................................


আমরা ছুডলোক, গালিবাজ। জামাত শিবির ছাগুর বিরুদ্ধে গালাগালি করেই যাব, প্রতিরোধ করেই যাব। সুশীলতার মায়েরে বাপ। আমরা ছাগু ও সুশীলদের উত্তমরূপে গদাম দিয়ে থাকি


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

একমত

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Star Star Star Star Star

**************************************************
"মারা গুয়া does not come back from high court"


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সম্প্রতি কুমিল্লার হোটেলে নিজামীর সাথে পুলিশ সদস্যদের রাজকীয় ভোজ, লোকমান হত্যা, নারায়নগঞ্জ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের পার্থীকে প্রথম আলোর সন্ত্রাসি প্রমান করার জীবনপণ চেষ্টা (দুর্নীতিবাজ তৈমুরের কোন সমালোচনা ছিল না তথাকথিত নিরপেক্ষ পত্রিকার মুখে), পদ্মা সেতু, সেয়ার বাজার, তারেক মাসুদ- মিশুক মুনির ইস্যু (মনে হচ্ছে রাস্তায় এই প্রথম কেউ মারা গেছে এবং আওয়ামীলীগ সরকারই যেন তাকে হত্যা করেছে, যারা তার জন্য আজ যারা মায়াকান্না করছে তারা কিন্তু তার ছবি মুক্তিরগান, মাটির ময়নাকে ছাড় দিয়েছিল না). আজ আবার দেখলাম- মুজাহিদের ভায়রার বাড়িতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্টিকার লাগানো গাড়ি!!!! কিসের আলামত? লোকমান ভালো, আইভি ভালো শুধু আওয়ামীলীগ খারাপ!!!!! ক্যাথা পরা বুদ্ধিজীবী খালেদা জিয়ার রাজাকার সমর্থন করেছে বলে বসে থাকতে পারলেন না, কিছু তাকে বলতেই হবে. তিনি বললেন- "খালেদা রাজাকারের মা আর শেখ হাসিনা সন্ত্রাসের মা" হারামির বাচ্চার কি চমত্কার ব্যালেন্স!!!!!!! বর্তমানে সময়ে যেখানে কোনো কিছুই লুকানো সম্ভব নয় সেখানেই ষড়যন্ত্রকারীরা থেমে নেই. তাই আজ বুঝতে পারছি ৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু কত অসহায় ছিলো এইসব ষড়যন্ত্রকারীদের কাছে. ক্যাথা পরা তথাকথিত বুদ্ধিজিবি পরগাছাদের বলে দিতে চাই- আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকলে একলাই থাকে আপনারা ব্যস্ত থাকেন বুট চাটতে. কথায় আছে- একজাতীয় ইতর প্রাণী পেট ভরা থাকলে বুট জুতা চাটতে পছন্দ করে, খালেদার পায়ে আছে সেই বুটের গন্ধ . কিন্তু আওয়ামীলীগ ক্ষমতা হারালে সেই ইতর প্রানীদের পাছায় লাথি পড়ে সবার আগে. কুকুরেরা তাই সাবধান।

**************************************************
"মারা গুয়া does not come back from high court"


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

স্পট অন এনালাইসিস।
এই ক্যাথা পরা কবি একদিন আম্রিকান এম্বাসী ঘেরাও কর্মসূচি হাতে নিছিল, কিন্তু এম্বাসির সামনে পর্যন্ত যাওয়ার হ্যাডম তার হয় নাই। রাস্তার মোড়ে এবস্ট্রাক্ট প্ল্যাকার্ড ব্যানার নিয়ে কিছুক্ষণ খাম্বার মতন দাঁড়িয়ে থেকে আম্রিকান বেনসন টেনে আবার প্যাভিলিয়নে ব্যাক করছে।

___________________
------------------------------
শ্লোগান আমার কন্ঠের গান, প্রতিবাদ মুখের বোল
বিদ্রোহ আজ ধমনীতে উষ্ণ রক্তের তান্ডব নৃত্য।।
দূর্জয় গেরিলার বাহুর প্রতাপে হবে অস্থির চঞ্চল প্রলয়
একজন সূর্যসেনের রক্তস্রোতে হবে সহস্র নবীন সূর্যোদয়।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দুর্জয়, স্যালূট, দুর্দান্ত বলেছেন

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নারায়নগঞ্জ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের পার্থীকে প্রথম আলোর সন্ত্রাসি প্রমান করার জীবনপণ চেষ্টা


আপনি শামীম সাহেব সম্পর্কে কী মত পোষণ করেন??

পদ্মা সেতু, সেয়ার বাজার, তারেক মাসুদ- মিশুক মুনির ইস্যু (মনে হচ্ছে রাস্তায় এই প্রথম কেউ মারা গেছে এবং আওয়ামীলীগ সরকারই যেন তাকে হত্যা করেছে, যারা তার জন্য আজ যারা মায়াকান্না করছে তারা কিন্তু তার ছবি মুক্তিরগান, মাটির ময়নাকে ছাড় দিয়েছিল না).


ঐ সময়ে আপনার পরাণপ্রিয় আওয়ামী মন্ত্রীরা কে কি ডায়লগ দিয়েছিল তা কি মনে আছে?? একবার মনে করার চেষ্টা করুন। আপনি কি পারবেন আরেকজন মিশুক মুনির কিংবা একজন তারেরক মাসুদকে তোইরি করতে???

আপনি কি বলতে চান পদ্মা সেতু নিয়ে যা হয়েছে তাতে লীগ সরকারের দোষ ছিল না??

আপনি কি বলতে চান শেয়ার বাজার নিয়ে লীগ সরকারের কোন ব্যর্থতার দায় নেই??

আপনাদের মতন সমর্থকদের কারণেই লীগ কখনো কিছুই করতে পারবে না।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শামিমকে আমি কোথাও ভালো বলেছি? নিজের মন্তব্য আবার পড়লাম। শামিম সম্পর্কে আমার মন্তব্য "তুমি বড় মাস্তান, তোমাকে জনগন নির্বাচিত করেছে তাদের সেবা করার জন্য। তুমি তাদের দ্বারা নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতার অপব্যবহার করেছো, মাস্তানী করেছো। মাস্তানী করা তোমার বড় অপরাধ। তার চাইতে বড় অপরাধ তুমি ২০০১ সালে নির্বাচনের পর বিএনপি জামাতের নির্যাতনের মধ্যে তাদেরকে বিপদে রেখে পালিয়েছো"।
তাকে মনোনয়ন দেয়া বিষয়ে বলবো- রাজনীতি হিসাব জনগনের মন আওয়ামীলীগের কোন কোন নেতা বুঝেন ঠিক জানি না কিন্তু হাসিনা বুঝেন এটা মানি। শামিমকে মনোনয়ন দিলেও সে জিতবে না আবার আইভি কে মনোনয়ন না দিলেও সে জিতবে এটা তিনি ভালোই জানতেন। শামিমকে সমর্থন দিলেও আইভিকে বসে যাওয়ার সামান্য অনুরোধও হাসিনা করেছে এই কথা আইভি নিজে একবারও কোথাও বলেননি। শামিমকে যারা মাস্তান বানিয়েছে, যারা নারায়নগঞ্জে শামিমকে আবার প্রতিষ্ঠিত করতে চেয়েছিলো, হাসিনা তাদের সেই আশা ভবিষ্যতের জন্যও শেষ করে দিতে পেরেছেন বলেই মনে করি। কারন মন্ত্রীত্ব দেয়ার আশ্বাসও নাকি দেয়া হয়েছিলো শামিমকে, তিনি তা গ্রহণ করেননি। তিনি হয়ত বিশ্বাস করতে পারেনি ভবিষ্যতে তাকে মন্ত্রীত্ব দেয়া হবে। আমার মনে হয় হাসিনাও জানতেন শামিম অনড় থাকবে। ঠিক আছে কর নির্বাচন- জিতলে ভালো, হারলে আজীবন নির্বাসন। শামিম খারাপ তার সমালোচনা হয়েছে, আমি তাতে আপত্তি করিনি। আমি বলেছি- তৈমুর আলম সাহেব কি তুলশীপাতা? জয়নাল হাজারী খারাপ। ভিপি জয়নাল ফেরেস্তা? সব ভালো করার দ্বায় আওয়ামীলীগের।
মিশুক মুনির আর তারেরক মাসুদের কথা বলছেন? সত্যি কথা বলতে মিশুক মুনিরকে আমি ঠিক চিনতাম না, তাঁর ছোট ভাইকে টিভিতে দেখছিলাম অনেকবার। আর তারেক মাসুদের মুক্তিরগানের ফেরিওয়ালা তো আমরাই ছিলাম। তাঁর চোখেই তো আমাদের মুক্তিযুদ্ধ দেখা। বঙ্গবন্ধুর ভাষনের যে ভিডিও আছে সেটা তো তাঁর মুক্তির গানেই জেনেছিলাম। প্রথম বঙ্গবন্ধুর ভিডিও দেখার অনুভুতি, সেটা ভাষায় প্রকাশ করার মতো না। আজ কাল অনেকে বলেন খালি বঙ্গবন্ধু খালি বঙ্গবন্ধু মানুষটারে পচায়া ফালাইলো!!!!!!!!!!!! অথচ কিন্তু কি আশ্চর্য- ৯৬ সাল যখন আমার বয়স ১৭ তখনো, ১৫ আগষ্টের শোকদিবসে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষন আর পোষ্টারে ছবি ছাড়া তাঁর কোন কথা রেডিও বা টেলিভিশনে শুনিনি!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!! তারেক মাসুদ তো আমাদের নিজের।
আর মন্ত্রীদের উলটাপালটা কথা? অমি ভাইয়ের পোষ্টটা মনে হয় সেটা নিয়েই, তাই না?
শেয়ার বাজার- সরকার যখন দেশ চালায় শেয়ার বাজার কেন, একটা ফকিরও না খেতে পেয়ে মারা গেলে তার দ্বায় সরকারের। তবে বাসন্তীকে জাল পরালে গদাম।
আমি ব্লগে নতুন, আমি আমার সম্পর্কে বলতে চাই আমি আওয়ামীলীগ সাপোর্ট করি, আমি নিরপেক্ষ নই, জয় বাংলা আমার রক্তে নাচন ধরায়, ৭১এর রনাঙ্গনের এই শ্লোগানকে যারা দলিও বলে জিন্দাবাদ বেছে নিয়েছে তাদের আমি হতভাগা মনে করি। আর বিশ্বাস করি আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় যায় আমাদের আশা নিয়ে। তাদের ব্যার্থতায় আমরা ব্যার্থ হই, কষ্ট পাই। আপনার মতো নিরপেক্ষ প্রগতশীলরা প্রতিনিয়ত আওয়ামীলীগের ছোট ছোট ভুল গুলোও বিশাল করে তাকে বিতাড়িত করার পথ তৈরী করেন করেন। আর আওয়ামীলীগ ক্ষমতা থেকে গেলে বাংলাভাইয়ের চাপাতির আঘাত। হুমায়ুন আজাদ নিজের মুখে নিজেকে কখনো আওয়ামীলীগের সমর্থক বলেছে বলে শুনিনি। ৭১এও যেসব বুদ্ধিজীবিকে হত্যা করা হয়েছিলো তারা কিন্তু সবাই আওয়ামীলীগ রাজনীতির সমর্থক ছিলোনা। কিন্তু রাজাকারেরা কি তাদের ছেড়ে দিয়েছে? মৌলবাদীদের মুল টার্গেটই ছিলো প্রগতিশীল মানুষ। কারন তারাই তাদের মুল বাধা। আজও আমরা যে উদ্দেশ্য নিয়ে আওয়ামীলীগকে ভোট দিয়েছিলাম সেটা অবশ্যই রাজাকারের বিচার। আপনি ভোট না দিলেও নিশ্চই রাজাকারের বিচার চান, তাই না? এই বিচার সরকার করবে কিনা সেটা পরের কথা। শহীদদের হাড়ের অস্তিত্ব (রাজাকারের উকিল- মোক্তার'রা যেটা নিয়ে ঠাট্টা মশকরা শুরু করেছে) এখনও পাওয়া যাচ্ছে কিন্তু বামপন্থী কোন দল ক্ষমতায় গিয়ে এই বিচার করবে (করবেই তাতে ১০০% একমত) এমন চিন্তা করলে তো শহীদদের হাড় তো দুরের কথা আমার যে সন্তান এখনো পৃথিবীতেই আসনি তার হাড়েরও অস্তিত্ব খুজে পাওয়া যাবে না।
তাই নিজেরা যখন সেই ক্ষমতা অর্জন করতে পারেন নাই, আওয়ামীলীগ কি করতে পারবে সেটা নিয়ে না চিন্তা করে আমাদের যে আসল উদ্দেশ্য রাজাকার গুলারে বাংলার মাটি থেকে উপড়ে ফেলি। দ্রব্যমুল্যের উর্ধগতি, বিদ্যুত, গ্যাস, পানি, আবাসন এই সমস্যাগুলোর কথা অস্বীকার করার মতো দুঃসাহস আমার নাই। সেটা আগেও ছিলো এখনো আছে ভবিষ্যতেও থাকবে। যুদ্ধাপরাধীর বিচার না করে যারা শুধু এই সমস্যার সমাধানের জন্য কাজ করেছেন তারাও সমাধান করতে পারে নাই। একটা কথা বলতে চাই- এটাই শেষ সুযোগ।

**************************************************
"মারা গুয়া does not come back from high court"


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দূর্জয়, দূর্দান্ত বলেছেন!

----------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
ন্যায় আর অন্যায়ের মাঝখানে নিরপেক্ষ অবস্থান মানে অন্যায়কে সমর্থন করা।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ফাটাফাটি

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শেখ হাছিনা তার চাটুকার চামচাদের কথা ছাড়া কোন কথাই শুনবে না। এই পোস্টের বিষয়বস্তু তার কানে দেয়ার আগে বেসাহারা বলে ওঠবে এইসব গুজব। প্রকৃতপক্ষে আওয়ামী সরকারে আওয়ামিপন্থী বলে কাউকে মনে করি না। প্রধানমন্ত্রীকে সাবধান করে লাভ নাই,সেই সাবধান বানী তার কাছে পৌছবে না। Sad

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@দুর্জয়, জাস্ট দূর্দান্তিস। স্যালুট।

*************************************************************************************
আমি অতো তাড়াতাড়ি কোথাও যেতে চাই না;
আমার জীবন যা চায় সেখানে হেঁটে হেঁটে পৌঁছুবার সময় আছে,
পৌঁছে অনেকক্ষণ বসে অপেক্ষা করবার অবসর আছে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষে ধর্ম।এর নিতিমালা বাস্তবায়ন করুন,তাহলেই ল্যাঠা চুকে যাবে।সত্য সহায়।গুরুজী।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সত্য সহায়

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আশা করি এই পোষ্টটি গোয়েন্দাদের নজরে এসেছে এবং যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। তথাপি পোষ্টটি সকলের দৃষ্টিগোচর করতে বিভিন্ন ফোরামে শেয়ার করার অনুরোধ করছি।

======================
শিশু অপরাধ করে না ভুল করে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

গোয়েন্দারা কি সত্যিই পোস্ট নজরে এনে তৎপর হবে? মনে হয় না। জামাত তো তাদের আগে কেনার চেষ্টা করবে।

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Uncle,
tell her, she needs 5 lakhs to 30 lakh trained & dedicated people between 22 to 30 yrs of ages; time is running out.
Jamat is not sitting idle; Nizami is not everything, they have alternatives!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ইয়েস দে হ্যাভ। পার্টি পলিটিক্সের হিসাব কিতাব অন্যরকম। এখানে শিবির থেকে আসা ছেলেরা অনায়াসে ছাত্রলীগের নেতা হয়ে যেতে পারে। আই জাস্ট হেট ইট

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হাসিনা মাইনাস আওয়ামীলীগের বাংলাদেশে পশ্চিমারা বা আরবীয়রা কি ভাবছে সেটা বিষয় নয়, বিষয়টা হচ্ছে ভারত কি ভাবছে তার উপর হবে। ১৯৭৫ এর ঘটনায় ভারত সব জানার পরও নিরবতা পালন করেছিল বলেই ঘটনা ঘটাতে সহজ হয়েছিল, কারন ভারতের সেখানে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক মোটিভেশন কাজ করেছিল। হাসিনা বাদে খালেদা এলে ভারতের অর্থনৈতিক লাভ হয়, আর হাসিনা এলে ভারতের রাজনৈতিক লাভ হয়। এর বাহিরে জামাত আসার প্রশ্নই উঠে না কারন তাতে ভারতের ক্ষতিই হবার সম্ভাবনা থাকে। ইউনুস এর বিষয়টাই চিন্তার কারন। হাসিনার উচিত জনগনকে সাথে রাখা।

-------------------------------------------------------------------------------------------------

মানুষের দোষে ধর্ম দোষী
রাজা'র দোষে রাজ্য দোষী।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Sheikh Sb. had lots of "Korotoya"s, perhaphs!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এখানে হাসিনা একটা সিম্বল মাত্র। আমি শঙ্কিত মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ভবিষ্যত নিয়ে। সব মুছে ফেলা হবে। মুক্তিযোদ্ধারা ভারতের দালাল হয়ে যাবেন।

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আল্লাহ না করুক এমন কিছু হইলে জামাত আর তাদের রক্ষিতা গোলাপি বেগমের শাস্তি রাস্তাতেই দেয়া হবে

----------------------------------
© সমান্তরাল ®


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সেটার জন্য আরো ২০ বছর অপেক্ষা করতে হবে। সম্ভব না

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এইসব ষড়যন্ত্রকারীদের কাছে. ক্যাথা পরা তথাকথিত বুদ্ধিজিবি পরগাছাদের বলে দিতে চাই- আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকলে একলাই থাকে আপনারা ব্যস্ত থাকেন বুট চাটতে-


যথার্থ বলেছেন।

সন্দেহটা অমূলক নয়, তবে আমার মনে হয় হাসিনা এ ব্যাপারে অবগত আছেন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমার মনে হয় না অবগত আছেন

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভেতরের শত্রুদের চেনার ব্যাপারে, এই লেখার আঙ্গিকে গাফফার ভাইয়ের (আঃ গাঃ চৌধুরী) একটা লেখা পড়েছি একটি পত্রিকায়। এ ব্যাপারে প্রায়ই দেখেছি সতর্কবাণী লিখেন। আশা ও কামনা করি হাসিনা সতর্কতা অবলম্বন করুন। এবারে শত্রুরা কিন্তু টার্গেট কোনভাবেই মিস করতে চাইবেনা। তারা জানে হাসিনা বিহীন আওয়ামী লীগ কাগুজে বাঘ ছাড়া কিছু নয়। আর হাসিনা জীবিত থাকলে যুদ্ধাপরাধীদের একদিন ফাঁসির কাষ্ঠে ঝুলতেই হবে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@Akah Malik,
Sheikh used to know also!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মনে হচ্ছে সামনে কঠিন সময়

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
ন্যায়ের কথা বলতে আমায় কহ যে
যায় না বলা এমন কথা সহজে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শেখের পো কে-

সৃষ্টির শুরু থেকেই বিশ্ব সন্ত্রাসীদের দখলে ছিলো,এখনো আছে,আগামীতেও থাকবে।যারা এর প্রতিবাদ করেছে তারা নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে।যেমন-ইমাম বংশ।
তবে দুঃখের বিষয় হলো,মিথ্যা সত্যকে ধংস করে,সত্যের জন্য মায়া কান্না করে,নিজেকে সত্যের পক্ষে প্রচার চালিয়ে মিথ্যা বাস্তবায়ন করে গেলো।যেমন সুন্নিরা।সত্য অপমৃত্যু ব্যাতীত কিছুই পেলো না।সত্য সহায়।গুরুজী।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তা ঠিক। কারণ আগামী ডিসেম্বরেই যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিবেন শেখ হাসিনা

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আরো ছোট পরিসরে আমার বাস্তব অভিজ্ঞতায় জানি, কেউ যদি নিজের ভালো না বুঝে, তাইলে তারে প্রটেক্ট করা যায় না। এই প্রটেকশনের সাথে অন্যদের ভাগ্য জড়িত থাকলেও মূল যাকে প্রটেক্টশন দেয়া হচ্ছে, তার ইচ্ছাটাই আসল।

হাসিনার ক্ষেত্রে,

জনগণ তাকে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা দিয়েছে। যেজন্য দিয়েছে সেই কাজটা কতোদূর হলো, জনগণই তার মূল্যায়ন করবে। ফেল মারলে বা ইচ্ছাকৃতভাবে ভুজুংভাজুং দিলে জনগণ তাকে কোলে তুলে নিয়ে নাচবে না, যদিও জনগণের সামনে ভিন্ন অপশন নাই এবং হাসিনার ফেইল মানে জনগণেরও ফেইল মারা।

তার প্রোটেকশনের জন্য আইন করা হয়েছে। সে আইনের সুবিধা নেয়ার দায়িত্ব তার নিজের।

সেনাবাহিনীর মধ্যে ক্লিনিংয়ের দরকার হলে সেটাও করতে পারতো। বিশেষ করে বিডিআর বিদ্রোহের সমস্যাকে সুযোগে পরিণত করার একটা স্কোপ ছিলো।

হাসিনা বুঝে না - এটা একটা ছেলেমানুষী কথা। যে এটাও বুঝে না, তাকে দিয়ে বাংলাদেশের কোনো লাভ হবে না।

বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর একটা ডাইমেনশন হলো তাঁর নিজের অযোগ্যতা। রাজনীতির ক্ষেত্রে অযোগ্যতাকে উদারতা দিয়ে মুড়ে কোনো লাভ নেই।

হাসিনার ক্ষেত্রেও ধর্মের নামে রাজনীতি বন্ধের শক্ত অবস্থানে না যাওয়াটা একটা দুর্বলতা। জনগণের সর্বোচ্চ সমর্থন থাকা অবস্থায় জনগণের শত্রুর প্রতি নমনীয়তা দেখিয়ে লাভ নেই। এ অবস্থায় এসপার-ওসপার হয়ে যাওয়া ভালো। জনগণ ৭১ এ যুদ্ধ করেছে, ২০১১তেও হাসিনাকে বুক দিয়ে রক্ষা করতো। তা যদি আজ না করে, তার জন্য প্রধান দায় হাসিনার। ক্ষতি যদিও স্বাধীনতাপন্থী সবার।

--------------------------------------
সুশীলরা গণমানুষের শত্রু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আসলে এই ক্ষেত্রে শেখ হাসিনা সিম্বল মাত্র। তার সঙ্গে গোটা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাই বিপন্ন

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আওয়ামীলীগের এই তিন বছর দেশ শাসনে সাফল্য যেমন আছে তেমনি ব্যার্থতাও আছে সম্পদের সীমাবদ্ধতার আর প্রশাসনে রাজাকার দালালদের কারনে। শেয়ার বাজার নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে আছে দেশ। এই ব্যাবসার সাথে যারা জড়িত তাদের প্রতি সবারই সহানুভুতি আছে কিন্তু যখন দেখি ঘোর পুজিবাদ বিরোধী বামপন্থী্রা শেয়ার ব্যাবসায়ীদের "শেয়ার বাজারে নিজের টাকা দিয়ে অন্যকে কেন ধনী করবে? নিজে কিছু করো" জাতীয় উপদেশ না দিয়ে তাদের উষ্কে দিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে শ্লোগান তুলে। আমি এই দরদকে তখন ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কিছুই ভাবতে পারি না। পদ্মা সেতুর জন্য যে টাকা দেয়ই নাই সেই টাকায় দুর্নীতি হয়েছে বলে আপাদমস্তক দুর্নীতিতে ডুবে থাকা বিশ্বব্যাংক যে অভিযোগ তুলেছে তাতে বুদ্ধিজীবি নামধারী পরগাছা গুলার লাফালাফি শুরু হয়ে গেছে। যারা বিশ্বব্যাংকের কাছে থেকে টাকা নিয়ে দেশকে ঋনী করে কোন কিছু করার ঘোর বিরোধী তারাই এই ঋণ বন্ধে সবচাইতে মর্মাহত!!!!!!!!!!!!!!!!!!! পদ্মা সেতুতে বিশ্বব্যাংকের ঋণ স্থগিতের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটা বিকল্প পথের পক্ষে মতামত দিয়েছেন- "পদ্মা সেতু আমাদের করতেই হবে, দরকার হলে আমরা আমাদের নিজেদের টাকা দিয়ে সেটা করবো"। কিন্তু বিশ্বব্যাংকবিরোধী কোন বুদ্ধিজীবিকে তাঁর পাশে এসে তাঁকে সমর্থন দিতে দেখলাম না। প্রশ্নটা কি খুব জটিল শোনায়- বুদ্ধিজীবিরা কি আসলেই চায় পদ্মা সেতু হোক? কুড়িগ্রামের ধরলা সেতু কি হয়নি নিজের টাকায় (যদিও সেটা অনেক ছোট, ১০০ কোটির ব্যাপার)। তবুও হাসিনাই সেটা নির্মানের দুঃসাহস দেখিয়েছিল। হাঁস্যকর কথা হলো- সেই সেতুটা উব্দোধন করতে গিয়ে(৯৬-২০০১ এর হাসিনা সরকার উব্দোধন করে যেতে পারেনি) খালেদা বলেছিলো আমাদের একটা বিরোধী দল আছে যারা কাজ করে না শুধু বিরোধীতা করে (৯১-৯৬ ক্ষমতায় থাকাকালীন সেখানকার জনগন সেতুটির দ্বাবী করেছিলো। তিনি বলেছিলেন আপনারা যদি এখানকার আসন গুলোতে আমাদের নির্বাচিত করেন তখন দেখবো), তার কথা শুনে মানুষ মনে মনে জুতা মেরেছিলো। খালেদার দুই পুত্রের দুর্নীতি, হাওয়া ভবন, যুদ্ধাপরাধী তোষন ইত্যাদি অভিযোগে বিএনপি ছাড়া মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল অলি বলেছেন- মুক্তিযুদ্ধের সময় এরশাদ পাকিস্তানে ছিলো অতএব সে আমাদের স্বাধীনতার বিপক্ষে ছিলো" কথাটা আমরাও স্বীকার করি। কিন্তু এরশাদ ছিলো পাকিস্তানে, সে প্রত্যক্ষভাবে নিজের স্বগোত্রীয় কাউকে হত্যা করেনি। কিন্তু গোআ, নিজামী হারামীরা তো সরাসরি আমাদের স্বাধীনতার বিরোধীতাই শুধু করেনি, করেছে হত্যা, লুন্ঠন, ধর্ষন, অগ্নিসংযোগের মতো জঘন্য অপরাধ। তাহলে কে বেশী অপরাধী? আওয়ামীলীগ তো এরশাদকে একটা প্রতিমন্ত্রীও বানায়নি আর খালেদা নিজামী- মুজাহীদদের মতো রাজাকারদের গাড়িতে তুলে দিয়েছে লাখো শহীদের রক্তে পাওয়া জাতীয় পতাকা। রাজনীতির এইসব কথা উঠলে বিএনপি পন্থীরা শেষ করে- হাসিনা- খালেদা সব সমান। হ্যান্ডসেক করা আর সহবাস করা এককথা নয়। সহবাসের ফলে বাচ্চা জন্ম হয়।

**************************************************
"মারা গুয়া does not come back from high court"


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আওয়ামীলীগের এই তিন বছর দেশ শাসনে সাফল্য যেমন আছে তেমনি ব্যার্থতাও আছে সম্পদের সীমাবদ্ধতার আর প্রশাসনে রাজাকার দালালদের কারনে।

আওয়ামী লীগের নিজের 'কারণ' কি? প্রশাসনে রাজাকার দালাল দূর করা হয় না কেন?

--------------------------------------
সুশীলরা গণমানুষের শত্রু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অলি আহমেদের ডিসেম্বার প্রেডিকশানকে আমলে রাখার প্রয়োজন আছে। আওয়ামীলীগের মধ্যে মোশতাক পাওয়া যাবে, তাহের ঠাকুর পাওয়া যাবে, পাওয়া যাবে চাষীও। কিন্তু মিডিয়াতে এনায়েতুল্লাহ খানের জায়গাটা কাকে দেওয়া যায়? ক্যান্ডিডেট হিসেবে প্রথমআলোর মতিমিয়া কিন্তু শক্ত প্রার্থী smile :) :-) মতি মিয়া বায়তুল মোকাররমের খতিবের হাতের মধ্যে হাত হান্দায়া মাফ চায়, আবার হাসিনার সামনে বসে হাসিনার কাছেও দুঃখ প্রকাশ করে।

আমি গাজী গোলাম দস্তগীরের জায়গাটা দিছি শামীম ওসমানরে। ১৯৭৫ এর সময় গাজীকে নিয়ে বিশাল প্রচারণা হইছিল, গাজী দুইনাম্বারী করতো (আমার কাছে প্রমাণ নাই, পারসেপশান বেইজড) এখনকার অনেক রাজনীতিবিদদের মতন। অথচ, গাজীরে নিয়ে প্রচারণা এমন পর্যায়ে চলে গেছিল যে পুরো বাংলাদেশের সবকিছু গাজী দখল করে নিয়েছিল। ১৫ই আগস্টের পর মুজিবের আমলের দূর্নীতির কথা বলতে গাজীর উদাহরণ উঠে আসে বিভিন্ন দেশী-বিদেশী পত্রপত্রিকায়। বলা হোল, এদের দুর্নীতি ও অপশাসনের কারণেই মুজিবকে উতখাত করা হয়েছে। গাজী ডালিমের বউ-শালীর সাথে অশালীন আচরণ করে, কিন্তু কেন গাজী এই কাজ করেছিল সেই ইস্যু সবসময়ই অপ্রকাশিত থেকেছে। যাহোক, বঙ্গবন্ধুকে উতখাতের পর গাজীর পরিণতি কি হয়েছিল? (সূত্রঃ ফ্যাক্টস এন্ড ডকুমেন্টস, অধ্যাপক আবু সাইয়ীদ)

উত্তরঃ ১৯৭৮ সালেই গাজীর জেল থেকে মুক্তি smile :) :-) । বঙ্গবন্ধুকে উতখাতের পর ডালিমের বউ-শালী ইস্যুকে মুজিব পুত্র শেখ কামালের নামে চালিয়ে পাব্লিককে খাওয়ানো।

একালের গাজী হিসেবে শামীম ওসমানও শক্ত প্রার্থী! সাম্প্রতিককালের প্রথম আলোর মাত্রারিক্ত প্রচারণা এবং ক্ষেত্রেবিশেষে টুইস্টেড প্রচারণা কিছুটা হলেও বিরক্তির উদ্রেক করেছে এবং গাজী-ফ্লেভার দিয়েছে।

যাহোক, কারও হাত যদি শেখ হাসিনা পর্যন্ত পৌছানোর মতন লম্বা হয়ে থাকে এবং এই ব্লগ পড়েছেন, তবে আম-জনতাদের শঙ্কাটুকু তাকে জানিয়ে দিবেন বলে আশারাখি। ব্যাক্তি পর্যায়ে আমার দৌড় মসজিদ পর্যন্ত, তাই আপাতত শেয়ার দিলাম। আর শেষ কথা এটাই যে--

হয়তো বাংলাদেশে এমনদিন আসবে যেদিন মুক্তিযোদ্ধারা ভারতের দালাল ও রাষ্ট্রবিরোধী সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচয় পাবে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@sisifas,
When farmer says, you find ghost?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আসলে এমন কিছু ঘটলেতো আপনার ও আপনার কিছু সাগরেদের খুব খুশী হবার কথা, ডঃ ইউনুসের মতন ম্যাথমেটিক্যাল মডেলিং, অর্থনীতি, স্বাপ্নিক, সত, দেশপ্রেমিক, মাথা, সব কিছু জানাওয়ালা মানুষ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হবে বা প্রধানমন্ত্রী হবার পথ প্রশস্থ হবে!

হাসিনার সমালোচনা করা এক জিনিস, আর চোখে পট্টি বাইন্ধা হাসিনারে পোন্দানো আরেক জিনিস। দুঃখজনভাবে হলেও সত্যি যে আপনি ও আপনার কিছু সাগরেদরা মিলে চোখে পট্টি বাইন্দা হাসিনা পোন্দানীতে নামছেন এবং ইউনুস বটিকা নিয়ে হাজির হন সব সময়। প্রত্যেক ভুলের সমাধান যদি ইউনুস বটিকা হয় তাইলে সফদর ডাক্তরের কথা ইয়াদ আইসা যায় ফারমার স্যার।

যাই হোক, আপনিতো জেড-ফোর্সে যুদ্ধ করছেন, তাই আপনি "ভারতের দালাল" ইস্যু থেকে সার্টিফিক্যাট সহ মুক্তি পাবেন। আসলে আমি কিছুটা চিন্তায় আছি অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে যাদের জেড-ফোর্সে নাম লেখানোর সৌভাগ্য হয় নাই smile :) :-)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@sisfas,
I was suspecting bad time ahead for Hasina starting from 2009. Best thing was for BD & her to remain as AL chairman & let somebody be the PM.

She cannot solve problems of so big population, people will go against her; and using that opportunities the bandits will hunt her and come to power.

Who is loser? The people.

If min, she made Yunus President instead of Idiot zillur, she could be in better off. He has not knowledge of her own, and brought every idiot to the cabinet, who can help her?

Yunus could help her & the nation; but she messed up.


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হা হা হা! ইউনুস! পলিটিক্সে নাইমা অবস্থা বেগতিক দেইখা লেঞ্জা টান দিয়া ভাগা ইউনুস!

--------------------------------------
সুশীলরা গণমানুষের শত্রু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@chor,
He does not need it, people need him.


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

He does not need it, people need him.
এই চিন্তাধারাই সমস্যা। প্রয়োজনটা পারস্পরিক না হলে জবাবদিহিতা থাকে না, কাজের মোটিভেশনও জোরালো থাকে না।

অবশ্য ক্ষমতার দরকার ইউনুসেরও আছে। নাহলে অবৈধ এমডি পদের জন্য কান্নাকাটি করতো না, ঝোঁপ বুঝে রাজনীতির কোঁপ মারার চেষ্টাও করতো না।

--------------------------------------
সুশীলরা গণমানুষের শত্রু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সিসিফাস, চরম হইছে Beer

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আর কত??
জ্বালানি তেলের দাম বেশি মানে আমজনতার গুয়ায় বাঁশ
দেশের সড়ক ও রেখ যোগযোগের পুটকি মারা হইকোট
দেশের বিচার বিভাগ যেন ছাত্রলীগের পাটি অফিস
নরসিংদির মেয়র হ্ত্যাকারিরা ঘুরে বেড়ায় আর নিরপরাধ একজন হোগা মারা খায়
পদ্মা সেতু কোন এক মন্ত্রি ও তার সহযোগীদের ভোদায় ভেতরে সান্দায় গেছে


তত্ব/ ইতিহাস/ বিতক/ রাজনিতি/ জ্ঞন/ মতাদরশ/ মতবাদ/ সংবাদ/ বিচার/ ভাষণ/ সাগর তিরের হানিমুনে তো পেট ভরে না!!

কেডা কবে হোগা মারা খাইছিলো কিংবা খাইবো সেইসব নিয়ে ভাবনার সময় কোথায় ভাইয়া? দেশের মানুষের দু কেজি চাল কিনতেই তো মুখ দিয়ে বীরযো বের হবার দশা, সেসব নিয়েও কিছু একটা লিখুন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সেসব নিয়ে লেখার জন্য আসল মানুষ আমাদের মুনিম ভাইসাব নাই, যিনি ১০টাকা মন দরে চাইল খাওয়ার জন্য মুক্তিযুদ্ধ হইছিলো বইলা ফতোয়া দিছিলেন।

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পিয়াল ভাই ব্লগার চোর যে কথাগুলা বলছে তার সাথে ১০০ ভাগ একমত লাস্ট ইলেকশন শেখ হাসিনা যাতে মেজরিটি নিয়া জিতে এর জন্য নিজের ফ্যামিলির সবাই মিলে ভোট দিচ্ছি নৌকায় শুধু তাই না আশেপাশে যারে চিনি তারেও ভোট কেন্দ্রে ধরে নিয়ে গেছি নৌকা মার্কায় যাতে ভোট দেয়

দুই তৃতীয়াংশ আসনে শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী বানানোর পরেও যদি উনি আবুল দিয়ে দেশ চালাতে চান ত্যাগি নেতাদের মুল্যায়ন না করেন এবং এর কারনে যদি সামনে বিপদে পড়েন তাহলে আমরা কেন দায়ভার নেব ?

৭৫ শেখ মুজিব সাহেব ভুল লোকদের বিশ্বাস করে তাজউদ্দীনদের দূরে ঠেলে দিয়ে নিজে তো প্রাণ হারালেন নিজের পরিবারকেও বিপদে ফেলে দিলেন এমনকি তাজউদ্দীনও সহ বাকি নেতারাও প্রাণ দিলেন শেখ মুজিবের এই ভুল সিদ্ধান্তের মধ্যে অদূরিদৃষ্টিতা ছাড়া আর কিছু দেখি না

শেখ হাসিনা যদি পিতার ভুল থেকে কোন শিক্ষা প্রকার শিক্ষা নিতে অপরাগ থাকে তাহলে তার দায়ভার কেন বাঙালি নিবে ?

নাকি আপনার আমার কাজ হচ্ছে খালি তাজউদ্দীনের মতো বলির বাকরা হয়ে যাওয়া বার বার ?

দুঃখিত কথাগুলা একটু কড়া হয়ে গেল বলে ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনার যুক্তি তো উড়াইয়া দেওয়ার মতো না। কিন্তু চাটুকাররা তার চারপাশে একটা মৃত্যু বলয় তৈরি করতেছে এটা শেখ হাসিনার জানা উচিত। সেটা কোনো না কোনো ভাবে তার কানে পৌছানো উচিত। এতে তিনি পুরা ব্যাপারটা নতুন করে উপলব্ধি এবং সেমতে সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মাগার ক্যামনে !!! Stare Stare Stare

*****************************
আমার কিছু গল্প ছিল।
বুকের পাঁজর খাঁমচে ধরে আটকে থাকা শ্বাসের মত গল্পগুলো
বলার ছিল।
সময় হবে?
এক চিমটি সূর্য মাখা একটা দু'টো বিকেল হবে?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

৭৫ শেখ মুজিব সাহেব ভুল লোকদের বিশ্বাস করে তাজউদ্দীনদের দূরে ঠেলে দিয়ে নিজে তো প্রাণ হারালেন নিজের পরিবারকেও বিপদে ফেলে দিলেন এমনকি তাজউদ্দীনও সহ বাকি নেতারাও প্রাণ দিলেন শেখ মুজিবের এই ভুল সিদ্ধান্তের মধ্যে অদূরিদৃষ্টিতা ছাড়া আর কিছু দেখি না


আপনের এই কমেন্টের একটা সেমি-বিশাল উত্তর লিখছিলাম, কিন্তু সিস্টেমের ঝামেলায় কমেন্ট আসলোনা। কমেন্টটাও সেভ করিনাই কোথাও। তবে এই ইস্যুতে একটা লেখা দিব এবং আপনারে আর ব্লগার মলিকিউলরে স্মরণ করে smile :) :-)

হাসিনা সংক্রান্ত কথাবার্তায় দ্বিমত করিলামনা।

ধন্যবাদ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমি হইলাম 'আদার ব্যাপারি'-সেই আইডিয়াতে কিছু কথা লিখতেই হয়-সেদিন এক সাংবাদিক বন্ধু বলতেছিলো যে, এখন আওয়ামী লীগের বেশীরভাগ নেতা-কর্মী ভাবতাছে যে, সামনে আওয়ামী লীগ পাওয়ারে আসবেনা-সুতরাং যা পারো লুইটা-পুইটা খাও কিংবা নাও। আজকে আমরা যারা ব্লগে হাসিনার ভবিষ্যত নিয়া আসলেই চিন্তিত আমরা বেশিরভাগ কিন্তু সেই অর্থে 'রাজনৈতিক কর্মী' না। বিভিন্ন পেশায় যুক্ত। আমাদের ভাবনার জায়গা হয়তো সেই সব কথিত 'রাজনৈতিক কর্মীদের' তুলনায় অনেক স্বচ্ছ। কিন্তু শেখ হাসিনা কিংবা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে যারা বাঁচিয়ে রাখবেন তাদের চেহারা সুরত কি? ঈদে গ্রামে গিয়ে দেখলাম একজন কথিত আওয়ামী লীগার 'আদম ব্যাপারী' ত্যাগি আওয়ামী নেতাকে হারিয়ে আমার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হয়েছে। আর সেই নেতাকে নোমিনেশন সাবমিট করার সুযোগ পর্যন্ত দেওয়া হয়নি। সেই দুঃসময়ের আওয়ামী নেতা অনেক কথাই বললেন। কিন্তু জানি আবারো রুখে দাঁড়াবেন সেই মানুষটিই। ওই আদম ব্যাপারিকে আর পাওয়া যাবেনা। যেমন পাওয়া যায়নি অনেক বাঘা-বাঘা নেতাকে ২০০১ সালের সেই মহাপরাজয়ের পরে। নাম আর বল্লাম্না। শেয়ার বাজার নিয়ে এতো কথা বলে সবাই-আমরা কিন্তু ভুলিনি সজ্জন ইব্রাহিম খালেদের রিপোর্টের কথা!! কি হলো সেই রিপোর্টের? কি ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে? আসলে 'গনতন্ত্র' মানে শুধু সংগঠনকে সমর্থন করা না; সাথে সাথে দলের ভুল ত্রুটি ধরিয়ে দিয়ে সাংগঠনিক লড়াই চালিয়ে যাওয়া। সেই প্রবনতার বড় অভাব। রাজনৈতিক কর্মীর অভাব প্রকট।

তারপরেও বিপদে-আপদে সাথে আছি। মুক্তিযুদ্ধের সাথে আছি। কারন ইতিহাস রচনা করবে সাধারন মানুষ আর অসাধারনরা ব্যস্ত এখন কামানোতে কিংবা ধান্ধাবাজিতে।

_____________________

ক্ষুদ্র স্বার্থ ভুলে মুক্তির দাঁড় টান।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন আওয়ামী লীগে কখনও হয় নাই এইটা ঐতিহাসিকভাবে সত্য বইলা প্রমাণিত। যুগ যুগ ধইরা এইটাই দস্তুর, এই না হইলে আওয়ামী লীগ। তারা তাজউদ্দিনদের লাথি দিবে, মোশতাকদের গলায় লাগাবে। পোন্দানি খাইয়া উৎখাতের মুখোমুখি হবে। তারপরও শিক্ষা হবে না।

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাঘ আইলো গল্পের মতোই লাগল এই পোস্ট। সত্যিই যখন বাঘ আইব , তখন কাউরে খুজে পাওয়া যাবে না।

ঘরোয়া এক আড্ডায় এক সর্বদা সরকারী পার্টি করা বন্ধু কইলো- আওয়ামি দেশ প্রেমিকদের মোহমুক্তি ঘটিয়ে দেশটাকে বিভক্তিমুক্ত করতে হলে আওয়ামি লীগকে নেক্সট ইলেকশনে জিতে আরো এক টার্ম ক্ষমতায় যাওয়া অতীব প্রয়োজন। আমি একমত ।

-------------------------------------------------------------------------------------------------------
৫৪:১৭ আমি কোরআনকে সহজ করে দিয়েছি বোঝার জন্যে। অতএব, কোন চিন্তাশীল আছে কি?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Laughing out loud বাঘ আইলো।।।। <:-P

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দেশটাকে বিভক্তিমুক্ত করতে হলে


জাতিকে বা দেশকে বিভক্ত করার বয়ান বিশেষ বিশেষ এলাকা থেকে শুনতাম:)

এমনিতেই পানি থেকে উঠতে পারতেছেননা, দেইখেন ন্যাঞ্জা যেন গঁজায়ে না যায় আবার! ন্যাঞ্জা গজাইলে তো ন্যাঞ্জার ভারেই ডুবে যাইতে পারেন!

সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণঃ শরীরের চেয়ে ন্যাঞ্জার ভার বেশী।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ওইডাই সিসিফাস। খুউব খিয়াল কইরা Wink

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অহ নো! আপনি কি রাজনৈতিক হত্যাকান্ডের ভবিষ্যত বানী করছেন? প্রতিপক্ষ নিধনের এ পুরানো ধারা হয়ত রাজনৈতিক সমীকরণে কাউকে লাভবান করবে, কাউকে পথে বসাবে, কিন্তু কোটি কোটি আমজনতার জন্যে বয়ে আনবে পাহাড় সমান বোঝা। একজন শেখ হাসিনা অথবা খালেদা জিয়ার অকাল মৃত্যু তাকে কেবল ইতিহাসেই স্থায়ী করবে না, বরং শেখ অথবা জিয়া পরিবারের পরবর্তী প্রজন্মের জন্যে খুলে দেবে ক্ষমতার দুয়ার, যা হয়ত প্রলম্বিত হবে আরও ৪০ বছর। পাশাপাশি জাতিকে গেলানোর চেষ্টা হবে তাদের 'মহত্ব', তাদের 'ভাবাদর্শ', তাদের জন্ম দিবস, মৃত্যু দিবস, ইত্যাদি ইত্যাদি। আমি বরং তাদের দলে যারা যোগ্যতার দাড়িপাল্লায় দাড় করিয়ে রাজনীতিবিদদের শেষ দেখতে চায়। রাজনীতিবিদ ও শাসক হিসাবে শেখ হাসিনা কতটা যোগ্য তার শেষটা এখনো দেখা হয়নি, তাই দাবি করবো আরও ১৫ বছর তাকে সুযোগ দিতে। ততদিনে শেখ হাসিনা যদি ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত না হন ধরে নেব ঠাই নেবেন কোটি মানুষের অন্তরে। তখন আর জোর করে জাতিকে জন্মদিন অথবা মৃত্যু দিবস পালন অথবা বিমানবন্দর সহ শৌচাগারের নাম বদলাতে করাতে বাধ্য করা হবেনা, বরং জাতি নিজেই সেলিব্রেট করবে এই মহান রাজনীতিবিদের জীবন। গায়ের জোরে অযোগ্যতার শাসন যদি আরও ৮০ বছর লম্বা করার চেষ্টা করেন ততদিনে জনগনই হয়ত পাঠিয়ে দেবে সে পথে, যে পথে সদ্য বিদায় নিয়েছেন ৪২ বছরের শাসক মুয়াম্মার গাদ্দাফি।

আপনার সাথে যোগাযোগ থাকলে সাবধান করে দেবেন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমার সঙ্গে যোগাযোগ থাকলে তো আর পোস্ট দিতাম না। ব্যক্তিগতভাবেই তারে সতর্ক করতাম

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@ ওয়াচডগ,

যারা যোগ্যতার দাড়িপাল্লায় দাড় করিয়ে রাজনীতিবিদদের শেষ দেখতে চায়।


আপনার ভাষ্যমতে যোগ্যতা কি ? রাইফেল ?

___________________
------------------------------
শ্লোগান আমার কন্ঠের গান, প্রতিবাদ মুখের বোল
বিদ্রোহ আজ ধমনীতে উষ্ণ রক্তের তান্ডব নৃত্য।।
দূর্জয় গেরিলার বাহুর প্রতাপে হবে অস্থির চঞ্চল প্রলয়
একজন সূর্যসেনের রক্তস্রোতে হবে সহস্র নবীন সূর্যোদয়।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রীকে জামায়াতের শুকরগুলা হত্যার হুমকি দিয়ে বাইরে আলো বাতাস খেয়ে ঘুরে বেড়ায় কিভাবে?

.
~ ‎"বিদ্যা স্তব্ধস্য নিস্ফলা" ~


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এইটা একমাত্র আওয়ামী জমানাতেই সম্ভব

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বেশী দেরি হয়ে যাবেনা তো?

**************************************************
"মারা গুয়া does not come back from high court"


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমি চাই দ্রুত শুরু হোক এবং চলূক কোনো বিঘ্ন ছাড়াই

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই পরিস্থিতিতে আমাদের যেমন সতর্ক থাকা প্রয়োজন তারচেয়ে বেশি প্রয়োজন শেখ হাসিনার সতর্ক হওয়া। আশেপাশের চাটুকারদের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে আসতে না পারলে দুর্ঘটনা এড়ানো অসম্ভব। তবে আমার মনে হচ্ছে এধরনের কোনো ঘটনা ঘটবেনা। আপনি যা বললেন তা অমূলক প্রমানিত হোক অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে এই দোয়া করি।

_________________________________________________________________________________

সিগনেচার নাই।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জামাত শিবিরের রণসজ্জার বিপরীতে আমার এটা সতর্কবাণী মাত্র। আমিও চাই আশঙ্কা অমূলক হোক এবং ২৮ অক্টোবরের মতো জনতার হাতে নির্মূল হোক হায়েনার দল

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

১।

সেদিন আমাদের বাসায় অর্থ মন্ত্রনালয়ের একবারে সেকেন্ড টপ পজিশন থেকে সদ্য অবসরে যাওয়া এক আমলা এসেছিলেন। তিনি আবার মন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়ার ভার্সিটি জীবনের দোস্ত। অবসর নিলেও সপ্তাহে অন্তত দুই দিন সচিবালয়ে যান। তিনি জানালেন বর্তমানে অর্থ মন্ত্রনালয়ের সাচিবিক কর্মকর্তাদের (যারা তাঁর জুনিয়র ও দীর্ঘদিনের পরিচিত) মধ্যে বড় একটা অংশ বিএনপি জামাতের লোক। এই লোকজন সব ঘাপটি মেরে আছে। অর্থমন্ত্রী আব্দুল মাল মুহিতের অনেক ভালো ভালো ডিসিশন এরা নানাভাবে আটকে দিচ্ছে বা স্লো করে দিচ্ছে নানা অজুহাত দেখিয়ে। কিন্তু অর্থমন্ত্রী এদের কিছুই বলেন না। দোষ/বদনাম কিন্তু হচ্ছে সরকারের তথা শেখ হাসিনার। এসব শোনার পর আমি তাঁকে (অবসর প্রাপ্ত কর্মকর্তাকে) বললাম আপনার দোস্ত (দিলীপ বড়ুয়া) কয়েকদিন আগে তো জামাতিদের দিগন্ত টিভির অনুস্ঠানে গেলেন। সরকার যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু করেছে, ধীর লয়ে হলেও তা আগাচ্ছে, কিন্তু সরকারের একজন পূর্নমন্ত্রী যদি জামাতের সাথে দহরম মহরম করে তাহলে কেমনে কি? উনি বললেন, প্রধানমন্ত্রী ব্যক্তিগত ভাবে খুবই সিরিয়াস বিচার শেষ করার ব্যাপারে, কিন্তু যে সব মন্ত্রী/উপদেষ্টা/ আমলা কে সরকারের পক্ষ থেকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে তাদের সিরিয়াসনেস ভাবার বিষয়।

২।

আরেকটি উদাহরন দেই। স্বরাস্ট্র মন্ত্রনালয়ের বর্তমান এক এসিসটেন্ট সেক্রেটারী, নাসিরউদ্দিন মিয়া, তিনি ফেইসবুকে প্রকাশ্য স্ট্যাটাস দেন জামাতের অনলাইন মুখপাত্র শীর্ষনিউজ বন্ধ হয়ে যাওয়ার দু:খে। তাতে আবার সরকারের আরো দুজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা 'লাইক'ও দেন। যে দুজন 'লাইক' দেন তারা হলেন আবুল কালাম তালুকদার (সিনিয়র এসিসটেন্ট সেক্রেটারী - ইংল্যান্ডে আছেন এই মুহূর্তে) ও মোহাম্মদ সাইফুল হাসান (সিনিয়র এসিসটেন্ট সেক্রেটারী, মিনিস্ট্রী অব পাবলিক এডমিনিস্ট্রেশন)। কি দরদ জামাতিদের প্রতি এদের, আহা! অথচ সরকার খুজে পায় না তাদের 'গোপন খবর' কিভাবে জামাত বিএনপির কাছে পৌছে যায়। স্ক্রীনপ্রিন্টগুলো পেলাম এই তিনজনের সহকর্মী একজনের কাছ থেকে।










ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনেক ধন্যবাদ যাত্রী। এরকম বিচ্ছিন্ন উদাহরণ অনেক আছে, সব মিলিয়ে পরিস্থিতি আওয়ামী লীগের জন্য খুব একটা সুবিধার নয়। কিন্তু তাদের অনেক নেতাই হরিলুটে ব্যস্ত। সমস্যা ওইখানেই

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি


এ শংকা অমূলক নয়। সতর্ক হোন বঙ্গবন্ধু কন্যা। অলরেডী দেরী হয়ে গেছে। লেখককে ধন্যবাদ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জামাত শিবিরের রণসজ্জার বিপরীতে আমার এটা সতর্কবাণী মাত্র। আমিও চাই আশঙ্কা অমূলক হোক এবং ২৮ অক্টোবরের মতো জনতার হাতে নির্মূল হোক হায়েনার দল ।।।।।।

========================================================================

আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি-
কারন যুদ্ধে জিতেছি ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সেনা বাহিনীতে জামাতী ষড়যন্ত্র নস্যাত

**************************************************
"মারা গুয়া does not come back from high court"


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

smile :) :-) গরীবের কথা বাসি হইলেই ফলে

...................................................................................

অতীত খুঁড়ি, খুঁজে ফিরি স্বজাতির গুলিবিদ্ধ করোটি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পিয়াল ভাই, ভাই এই কথাটা কিন্তু অনেক গরীব লোকেরই কথা। এইবারের মতো বাঁচা গেছে দেশ প্রেমিক সেনা কর্মকর্তাদের প্রতিরোধের কারনে।


৩ বছরে আওয়ামীলীগ সরকারের সাফল্য ও ব্যার্থতা দুটোই আছে। ব্যার্থতার অনেক কারনও আছে যা আওয়ামীলীগের নিজের দোষে ঘটেনি। ব্যর্থতা পরিমান আরও বেশী হতো যদি- বেজিকে ক্যান্টনমেন্ট থেকে বিতাড়িত করা না হতো। তাই আমি বেজি'কে ক্যান্টনমেন্ট থেকে বিতাড়িত করাকেও আওয়ামীলীগ সরকারের অন্যতম সাফল্য বলে মনে করি। তাকে ক্যান্টনমেন্ট থেকে বিতাড়িত করা কিন্তু গনতন্ত্রপ্রিয় জনগনের অনেক দিনের দ্বাবী ছিলো।

বরাবরই আওয়ামীলীগের জন্য সুষ্ঠভাবে সরকার পরিচালনা করা কঠিন চ্যালেঞ্জ। কারন দেশী বিদেশী স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকার আর তার দোসর'রা আওয়ামীলীগ সরকারের সাফল্যকে সবসময়ই নানাভাবে বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করেছে এবং এখনও করছে। এই দেশটার জন্ম যারা মেনে নেয়নি, নিজ স্বার্থের জন্য তারা যে কোন কিছু করতে সব সময় প্রস্তুত। আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার জন্য নিরাপত্তারক্ষী ছাড়া চলাফেরা এক মিনিটের জন্য নিরাপদ নয়, যেখানে খালেদা পল্টন মোড়ে নাঙ্গা হয়ে ঘুরলেও তাকে মারার মতো কেউ নাই। কারন যারা বাংলাদেশে জঙ্গীবাদের হোঁতা, খালেদা তাদেরই পালন কর্তী। তাকে মারবে কে?


অনেকে বলে- রাজাকারদের বিচার করলেই কি দেশের উন্নয়ন হয়ে যাবে? আমি বলি- অবশ্যই। স্বাধীনতা বিরোধীদের ষড়যন্ত্রের কারনে আমাদের অনেক উন্নয়ন কাজ বাধাগ্রস্থ হ্য়। এইসব নরকের কীটদের স্বমুলে উৎপাটন করতে পারলে তো অবশ্যই দেশের উন্নয়নে যে পরিকল্পনা গ্রহন করা হয় তা অন্তত বাধাগ্রস্থ হবে না যার ফলে দেশের উন্নয়ন অবশ্যই বেশী হবে।

**************************************************
"মারা গুয়া does not come back from high court"

glqxz9283 sfy39587p07