Skip to content

গোপন যৌন সুখ

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মানুষের সাথে মানুষের বিবেকবোধের স্বম্পর্কটা অনেক টা সাপে নেউলের অবস্থানে চলে এসেছে বলে আজ আমার মনে হচ্ছে।বিশেষ করে আমাদের দেশে আমাদের বিশ্বাসের মাঝে যে আমরাই থাকি না , তা স্পষ্ট ; দিনের আলোর মত পরিস্কার। ৯০ % এর উপরে মুসলমানের দেশে ৯০% যে সামাজিক অপরাধ তাতে কার কাদের দায় দায়িত্ব থাকে তা নিয়ে বেশ সমস্যার সম্মুখে দাড়াতে হয়।
বিশেষ করে সাম্প্রতিক সময়ে জঙ্গিদের যে বিশেষ ভূমিকা বাংলাদেশে যত তত্র দেখা যাচ্ছে তার দায় দায়িত্ব নিতে কিন্তু ৯০% অপারগতা স্বীকার করছে।
অথচ , ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতন কিবা বিচার বিভাগের সামনে থেকে গ্রীক ভাস্কর্য সরানুর আন্দোলনে ওরা সেই ৯০% এর অন্তর্ভুক্ত।
এই ৯০ % অন্তর্ভুক্ত মানুষগুলো নিজেদেরকে নিজেদের মত করে সুবিধাঅনুযায়ী মনমত ব্যাখ্যা দাড় করায় বলে আজ ওই ৯০% এর দল থেকেই জঙ্গিবাদের উৎপত্তি।
জঙ্গিবাদের আড়ালে আরেকটি গনবিষ্ফোরন মূলক অধ্যায় যা জঙ্গিবাদের চেয়ে ভয়ানক , সেই যৌনবাদ কিন্তু কখণো আলোচনায় আসে না।নারী পুরুষ শিশু বৃদ্ধা ভেদ বিভেদে সাধারন মানুষ যে এই সমাজের যৌনবাদের শিকার তা অনেকটা দেখেও না দেখার বিষয়বস্তুতে ঢেকে রাখা হয়েছে।
সেই যৌনবাদ এমনি এক ভয়ংকর অবস্থায় গিয়েছে যে যে কোন ধরনের যৌন স্বম্পর্ক প্রকাশ্যে সহমতের অবস্থানে স্বীকৃত না হওয়ায় তা বিকৃত রূপে প্রতিফলিত হচ্ছে। মানুষের স্বভাব জাত ঈশ্বর প্রদত্ব যৌন সুখকে ১৪৪ ধারায় ফেলে দিবার কারনে তা যত্র তত্র ব্যবহার হচ্ছে নিয়মে কিবা অনিয়মে।তা কখনো হিংস্বায়, কখনো ক্রোধে, কখনো স্বভাবে, কখনো প্রতিযোগিতা মূলক আত্ম ক্ষমতায়, কখনো বিরোধে, গোত্র গত ব্যবধানে, পশুত্ব বোধে , কিবা আত্ম নিয়ন্ত্রনে অপারগতায় তা সম্পাদিত হচ্ছে সমাজ ব্যবস্থায়। সবচেয়ে ভয়ংকর দিক হল এই যৌনতার আড়ালি উন্মত্ততায় মত্ত সমাজ ব্যবস্থাকে স্বম্পূর্ণ ভাবে সাহস যোগাচ্ছে কিছু ধর্মীয় অবাস্তব মূলক অবস্থান। যৌনতাকে আবদ্ধ করতে গিয়ে এমন এক হাস্য কর অবস্থার তৈরি করেছে যে
সেখানে বোর্ড কে কাল কাপড় দিয়ে ঢেকে দিয়ে কলম কে তার কর্ম করণে পিঠ চাপড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।
ধর্মীয় তত্ত্বের সাথে বাস্তবের জীবন ব্যবস্থার এমন বিশাল ব্যবধানের কারনে যারা ধর্মীয় গণ্ডি কিবা এর আশে পাশেও থাকে তারা নিজেকে নিয়ন্ত্রন করার নামে বরং অনিয়ন্ত্রিত কর্মেই পা দেয়। আড়ালে আবডালে সত্য কে উদযাপনের জন্যে স্বাভাবিক পন্থা ছেড়ে অস্বাভাবিক পন্থায় যৌন জীবন পালন করে। যৌনতা কোন পাপ নয় তবে এর অসৎ পন্থা ও আক্রমনাত্মক কিবা জোচ্ছুরি আচরণ টাই পাপ।
যে পাপের শিকার হচ্ছে মাদ্রাসার অনেক কোমলমতি শিশু ( ছেলে) , আশি বছরের বৃদ্ধা , ছাত্র , সংখ্যালঘু নারী , এমনকি কিশোর ও কিশোরী।
একটি সুস্থ সবল মানুষের কাছ থেকে যখন সদা জাগ্রত তার যৌন স্বত্তা ছিনিয়ে নেওয়া হয় তখন তার বিস্ফোরক পরিণতি চারদিকে পচা নোংরা ময়লার মত ছড়িয়ে পড়ে।অনিয়ন্ত্রিত অসামঞ্জস্য অভ্যাসে মগ্ন হয়ে ওই নিষিদ্ধ যৌনতা কার উপর ছাপিয়ে দিয়ে নিজের একপ্রকার শক্তিমত্তার স্বাদ সে উপভোগ করে।আর যার ফলশ্রুতিতে একজন মওলানা সমকামি হয়ে আরেকজন বালক বা পুরুষের সাথে গোপন যৌন সুখ উপভোগ বা ভোগ করে।

glqxz9283 sfy39587p07