Skip to content

একের পর এক চুরি হয়ে যাচ্ছে দেশের পুরাকীর্তি..।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বহুদিন আগে দেখতে গিয়েছিলাম সিলেটের জৈন্তা রাজার বাড়ি। দেশের অন্যান্য পুরাতন নিদর্শনের মতই এখানেও তেমন কিছুই অবশিষ্ট নেই দেখার জন্য। ভাঙ্গা প্রাচীর ঘেরা একটা কিছু অবশ্য দেখতে পেলাম। ঘুরছি, সেই সময় দেখতে পেলাম ছোট্ট একটা ছেলে এসে বলছে, ছার লাগবো নাকি ইটা? দশ টাকা দিলেই চলবো। প্রথমে বুঝতে পারিনি। কিছুক্ষন পরে সে ছোট একটি টেরাকোটার ভাঙ্গা অংশ দেখিয়ে বলল দশ টাকা দিলে দিয়া দিমু। এভাবে বেচতে বেচতে আমার ভাগ্যে এসে জুটলো টেরাকোটার ঐ অংশটুকু। ভাবলাম এই টেরাকোটাটি যখন প্রথম তৈরি হয়েছিল সেটা কত বছর আগে, কি যত্নে কারিগর এটা তৈরি করেছিলেন, কিসের সৌন্দর্য্যে মুগ্ধ হয়ে রাজা এটা তার মহলে লাগানোর খায়েস করেছিলেন। যা আজকে দশ বা পাঁচ টাকায় বিকিকিনি হচ্ছে। ক্রেতা বা বিক্রেতা উভয়েই কি নিদারুন অসচেতন এর ঐতিহাসিক গুরুত্বের ব্যাপারে। কোন কোন ক্রেতা হয়তো বেশি সচেতন, তারা অনেক পূর্বেই কিনে নিয়ে গেছে ৫/১০ টাকায় এর থেকেও মুল্যবান কোন কিছু।



যাহোক যে বিষয়টা বলতে চাচ্ছিলাম সেটা হল বিভিন্ন যাদুঘর থেকে একের পর এক পুরাকীর্তি চুরি হয়ে যাচ্ছে। কোনটারই সুষ্ঠু তদন্ত হচ্ছে না। আমাদর সাংবাদিক ভায়েরা দু'একটি খবর ছাপছেন বটে, কিছুদিন পরেই সেটা ধাপাচাপা পড়ে যাচ্ছে।







আসলে কে করবে কার তদন্ত....।

এই লিংকে খবরটি পড়লেই হয়ত বা বুঝা যায় কে করে চুরি আর কে করবে তদন্ত শাস্তিই বা হবে কার..!



খবরটি নিচে দিয়ে দিলাম...



জাদুঘর থেকে পুরাকীর্তি ও নিদর্শন চুরির ঘটনার কূল-কিনারা নেই জড়িতরা ধরা-ছোঁয়ার বাইরে



০০ জামিউল আহসান সিপু



দেশের জাদুঘর থেকে একের পর এক পুরাকীর্তি ও নিদর্শন চুরির ঘটনার কোন কূল-কিনারা হচ্ছে না। এসব ঘটনায় মামলা দায়ের হলেও ঘটনার পেছনে জড়িতদের ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। গত বছরের জুন মাসে জাতীয় জাদুঘর থেকে ২৪টি মুদ্রা ও ২টি পদক চুরির ঘটনাটিও ধামাচাপা পড়ে গেছে। এর পাশাপাশি সম্প্রতি ১৪টি নিদর্শন খোয়া যাওয়ার ঘটনায় জাতীয় জাদুঘর কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নেয়নি। এ ব্যাপারে মহাপরিচালক প্রকাশ চন্দ্র দাস ইত্তেফাককে বলেন, জাতীয় জাদুঘর থেকে পুরাকীর্তি ও নিদর্শন চুরি হয়নি। জাদুঘরের কতিপয় কর্মকর্তার দায়িত্ব অবহেলার কারণে খোয়া গেছে। খোয়া যাওয়ার ঘটনায় প্রশাসনিকভাবে কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।



জাতীয় জাদুঘরের এক আভ্যন্তরীণ তদন্ত রিপোর্ট থেকে জানা যায়, গত বছরের মার্চে এই ১৪টি নিদর্শন খোয়া যাওয়ার ঘটনা ধরা পড়ে। জাতীয় জাদুঘরের একজন পদস্থ কর্মকর্তা জানান, জাদুঘরের শীর্ষ পদ থেকে নিম্ন কর্মকর্তা পর্যন্ত একটি সিন্ডিকেট রয়েছে যারা পুরাকীর্তি চুরি ও খোয়া যাওয়ার পেছনে জড়িত। এদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুললেই উল্টো দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের ওপর নির্যাতনের খড়গ নেমে আসে।



একটি সূত্র জানায়, এ পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন জাদুঘর থেকে অনেক পুরাকীর্তি ও নিদর্শন চুরি হয়েছে। ১৯৯১ সালে জাতীয় জাদুঘর থেকে নাটোরের দিঘাপাতিয়া জমিদারের রাজসিংহাসনের স্বর্ণের হাতল চুরি হয়ে যায়। ১৯৮২ সালে পুরানো ঢাকার নিমতলীতে জাতীয় জাদুঘরের ভবন থাকার সময় সেখান থেকে মধ্যযুগের ১২টি দুর্লভ স্বর্ণালংকার চুরি হয়। ১৯৮১ সালে কুমিলস্নার ময়নামতি জাদুঘরে লুট হয়। ১৯৭৯ সালে কুষ্টিয়ার শিলাইদহে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কুঠিবাড়ি থেকে কবির নিজের আঁকা ৮টি ছবি চুরি হয়। চুরি হওয়া এই ৮টি ছবির মধ্যে ৪টি ফ্রান্সে নিলামে ওঠে। ১৯৮৮ সালে বরিশালের চাখার জাদুঘর থেকে সেন আমলের একটি খাসার পান মূর্তি চুরি হয়ে যায়। ১৯৯৫ সালে ময়মনসিংহে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন সংগ্রহশালা থেকে শিল্পীর আঁকা ১২টি ছবি চুরি হয়।

মন্তব্য


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এসব নিয়ে ভাবি না। কেন জানি ভাল লাগে না।

জাপানের মত দেশে যেখানে আমাদের এত এত সাহায্য করে, সেই দেশকে বিপদে দেখে দেশের মাথারা যখন সাহায্যের হাত বাড়ায় না, তখন এসব পুরাতন জিনিসের কথা মনে রাখবে বলে মনে হয় না।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@শর্মা-ই-আযম,



Eta eder manoshik doinnota soja banglay khaslot.


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এমনি তো হচ্ছে আমাদের দেশে যা দুক্ষজনক।

**********************************************
"Do not make any decisions when you are angry And never make any promises when you are happy."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

.


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সবাই নিজের পকেট নিয়ে ব্যাস্ত, দেশের কথা ভাববার সময় কৈ? এভাবেই আমরা দিনেদিনে মানষিক ভাবেও গরীব হয়ে পড়ছি!

~-^
উদ্ভ্রান্ত বসে থাকি হাজারদুয়ারে!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমি অবশ্য এখন তেমন চিন্তিত নই;



কারন যারা কষ্ট করে চুরি করছে, তারা ভালো দাম পাচ্ছে ;

আর যারা ভালো দাম দিয়ে কিনে নিচ্ছেন, আগ্রহের কারনেই হোক আর বেশি দাম দিয়ে কেনার জন্যই হোক, ওগুলোর যত্ন অবশ্যই করছেন ।



ওসব পুরাকির্তির আসল নকল জানার চেয়ে সাধারন জনতার ওসব দেখার এবং ওগুলো সম্পর্কে জানাটাই বেশি জরুরি । তাই যাদুঘরে উল্লেখিত ডামি থাকার প্রয়োজন আছে ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

টেরাকোটার ইটা কি সাথে নিয়া আসছেন?



চুরি তো হয় নাই, খোয়া গেছে। কাজেই তেমন চিন্তার কিছু দেখি না।

------------------------------------------------
পৃথিবী আজ দুই ভাগে বিভক্ত। আস্তিক এবং নাস্তিক; আমি অবশ্যই আস্তিকের দলে। যে কম্পিউটরে ব্লগিং করছেন সেও কিন্তু হতে পারে এক ভয়াবহ ঘৃন্য নাস্তিক, আজই পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে নিন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@আদিল মাহমুদ,



চুরি তো হয় নাই, খোয়া গেছে। কাজেই তেমন চিন্তার কিছু দেখি না।




ঠিক...ঠিক...একদম ঠিক!


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুম...।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জাতীয় যাদুঘরে এখন শিক্ষা সফর ছাড়া ছাড়পোকা ঢুকে না। আঞ্চলিক যাদুঘরের কথা বললে যাদুঘরকের অপমান করা হবে।



বিদেশে দেশীয় পুরাকীর্তি বিদেশে প্রদর্শনে নিয়ে ফেরত আনার সময় ঐটা আর ফিরে আসে না,আসে দু নম্বর পুরাকীর্তি । খেয়াল কইরা-ঐ দু নম্বর পুরাকীর্তি গড়তে দীর্ঘ দিন লাগে,তারমানে বিদেশে কোনটা কোনটা নিতে হবে ঐটাও আগে থেকেই নির্ধারিত থাকে। কত দীর্ঘ আর সুপরিকল্পিত চুরি Shock

ঐগুলা থাকলেই কি লাভ না থাকলেই কি লাভ? X( X(

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@বেলের কাঁটা• •, (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y) (Y)

শিশিরে শিশিরে করি সমুদ্র সৃষ্টি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@বেলের কাঁটা• •, (Y) (Y) (Y)


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...

glqxz9283 sfy39587p07