Skip to content

সিন্ডিকেটের হাতে যেভাবে হারিকেন ধরানো সম্ভব

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি


আমাদের কৃষি আর কৃষক সিন্ডিকেটের হাতে বন্দি। এর থেকে পরিত্রানের জন্য একটা পলিসি সেট করা উচিৎ সরকারের বা কোন বৃহৎ কৃষি পণ্য ক্রয় কারী প্রতিষ্ঠানের।

এর জন্য যা প্রয়োজন হবে :

১। বৃহৎ অবকাঠামো
২। টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থার
৩। শক্তিশালী সরকারী ক্রয় ব্যবস্থা
৪। বেসরকারী খাতে ক্রয় বিক্রয় করার জন্য লাইসেন্স
৫। কৃষক পর্যায়ে প্রশিক্ষণ
৬। পণ্যের উৎপাদন ও জাত নির্ধারণে কৃষি অধিদপ্তরের মতামতের প্রাধান্য

এখন আসা যাক কিভাবে ব্যবস্থাটা গড়ে উঠবে তারদিকে------

১। প্রতিটি ইউনিয়ন পর্যায়ে একটি তথ্য ও বিক্রয় কেন্দ্র থাকবে যা--

ক. অন্তর্জালের মাধ্যমে পারস্পরিক যোগাযোগ রাখবে এবং একটি সেন্ট্রাল সার্ভারের মাধ্যমে পরিচালিত হবে।
খ. এই কেন্দ্রের বিদ্যুত সংযোগ সোলার এর মাধ্যমে হবে
গ. প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কৃষকদের এর ব্যবহার শিক্ষাদেওয়া হবে
ঘ. প্রতিদিন কয়েক সময়ে এর সার্ভারের মাধ্যমে পণ্যের দামের সর্বশেষ আপডেট জানানো হবে

২। ক্রয় বিক্রয়ের জন্য যে ব্যবস্থা থাকবে...........

ক. সরকারী ভাবে বা লাইসেন্স প্রাপ্ত স্থানীয় ক্রয় বিক্রয় এজেন্সি ক্রয় বিক্রয় করবে
খ. সর্বশেষ দর অনুযায়ী ক্রয় বিক্রয় হবে
গ. মূল্য পরিশোধে নগদ টাকার পরিবর্তে ব্যাংক এর মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালিত হবে
ঘ. পন্য পরিবহনের জন্য বিষেশায়িত ট্রান্সপোর্ট ব্যবহৃত হবে

৩। পণ্য উৎপাদনের জন্য যে ব্যবস্থা দরকার.......

ক. কৃষি দপ্তর এর পরামর্শক্রমে পণ্য উৎপাদন করতে হবে
খ. পণ্যের মান সঠিক রাখার জন্য হিমাগার থাকতে হবে
গ. উৎপাদনে নয় পন্য বিপনন আর পরিবহণে সাবসিডি

আমার একান্ত নিজের ভাবনা গুলো বললাম এখানে। এর জন্য টাকা, সরকারের সদিচ্ছা আর কিছু মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে।


ছবি: অর্ন্তজাল

মন্তব্য


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সিন্ডিকেট তোমার-আমার মত বাল ফালাইনা পাবলিক না,ক্ষেত্র বিশেষে এরা সরকারের গদীও টলিয়ে দিতে পারে। অন্তত তুমি রবি- নিরঞ্জনদের ভালৈ চিন Wink

ধরি আমরা চালের সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রন করব বা ভাংব। তাহলে আমাদের আগে ধরতে হবে মিল ও চাতাল মালিক। এরা দেশ জুড়ে দারুন এক নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে। দেশের কোন একজায়গায় সামান্যতম তাদের কাজে ভাগ বসাচ্ছ,সংগে সংগে দেশে চালের দাম বাড়িয়ে দেয়ার ক্ষমতা রাখে এবং দেয়ও। হাজার হাজার মানুষের এই সিন্ডিকেট ভাংতে চাইলে হাজার হাজার বিরোধী তৈরি করতে সম শক্তি ও সম অর্থ দিয়ে। যে ওরা কোন অজুহাতে চালের সরবরাহে বাধা দিতে না পারে। এইটাই সম্ভব না, আবার অন্যদিকে চাতাল আর মিলের সাথে লক্ষ লক্ষ মানুষের রুজি-রোজগার জড়িত। তাই কোন সরকারই এই রিস্ক নিতে সাহস পাবে না,এইটাঈ ওদের শক্তি। মনে নাই ফখরুদ্দিন সরকারের কথা।

তোমার কথা তাত্ত্বিকভাবে সম্ভব ,দেশের প্রেক্ষাপটে ব্যাবহারিক প্রয়োগ সম্ভব না

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তোমার কথা তাত্ত্বিকভাবে সম্ভব ,দেশের প্রেক্ষাপটে ব্যাবহারিক প্রয়োগ সম্ভব না


হয়ত তাই। সব কিছু তাহলে সিন্ডিকেটের হাতেই থাক

একটা শ্লোগান মনে পড়ে গেল.......

যে কইব আমি ভাল ...... সবাই তারে উস্টা মার

****************************
ঘৃণার চাষাবাদ জারি থাকুক প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে।মানবতা মানুষের জন্যই সংরক্ষিত থাক।পশুদের জন্য বরাদ্দ থাক শুধুই উগ্র ঘৃণার দাবানল।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দেশের কোন একজায়গায় সামান্যতম তাদের কাজে ভাগ বসাচ্ছ,সংগে সংগে দেশে চালের দাম বাড়িয়ে দেয়ার ক্ষমতা রাখে এবং দেয়ও। হাজার হাজার মানুষের এই সিন্ডিকেট ভাংতে চাইলে হাজার হাজার বিরোধী তৈরি করতে সম শক্তি ও সম অর্থ দিয়ে। যে ওরা কোন অজুহাতে চালের সরবরাহে বাধা দিতে না পারে। এইটাই সম্ভব না, আবার অন্যদিকে চাতাল আর মিলের সাথে লক্ষ লক্ষ মানুষের রুজি-রোজগার জড়িত

আমার মনে হয় সম্ভব; সবই সম্ভব শুধু-
আপনার মত ৭০-৮০ কাঁটা থাকলেই সম্ভব; আফসুস তা আর হবার না।

""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""""
স্বেচ্ছায় নেওয়া দুঃখকে ঐশ্বর্যের মতই ভোগ করা যায় ........................


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

থিওরীটিক্যালি অনেক সহজ মনে হৈল ব্যাপারটা, কিন্তু ইম্পলিমেন্টেশন মোটামুটি ভাবে অসম্ভব Sad

অটঃ শিরোনাম দেইখা ঈমানে কৈ আমুর ফেবু সিন্ডিকেট মনে কর্ছিলাম Tongue

***********************************************************************
"এহনবি জিন্দা আছি, মৌতের হোগায় লাথথি দিয়া
মৌত তক সহি সালামত জিন্দা থাকবার চাই"


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সহমত

===================================================================
যেখানে পাইবে ছাগু আর বাদাম

চলিবে নিশ্চিত উপর্যপরি গদাম...............


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অফ টপিক কমেন্ট: কোন সিন্ডিকেটের কথা কন? নেত্রীর হাতে হারিকেন ধরানোর কথা বলেন ... ছি ছি .. তওবা করেন।

.
~ ‎"বিদ্যা স্তব্ধস্য নিস্ফলা" ~


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

১। প্রতিটি ইউনিয়ন পর্যায়ে একটি তথ্য ও বিক্রয় কেন্দ্র থাকবে যা--
২। ক্রয় বিক্রয়ের জন্য যে ব্যবস্থা থাকবে...........
৩। পণ্য উৎপাদনের জন্য যে ব্যবস্থা দরকার.......

সবি সম্ভব!!!

সরকার চাইলে কি না হয়। আগে সরকারকে প্রতিজ্ঞা বদ্ধ হতে হবে। সহজ প্রতিজ্ঞা। যে শপথ নিয়ে তারা পরিচালনায় আসেন তা থেকে তারা কক্ষচুত হবেন না।

ঠিক এই কথাটাই এক রিপোর্টার সায়ীদ স্যারের উক্তি বলে ফাকে ঢুকিয়ে দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু স্যার না বললেও কতাডা কিন্তু খাটি।

পোষ্ট দাতাকে সুন্দর চিন্তার জন্য অনেক অনেক অভিবাদন।

লেইটস কিপ আপ দিজ গুড ওয়ার্ক। কোন একদিন আমাদের পরের প্রজন্ম সার্চ করে অন্তত্য দেখবে তাদের উত্তর প্রজন্মরা বসে ছিল না। "ঊষার দুয়ারে আঘাত হেনে" - উপড়ে ফেলতে চেয়েছিল সকল নিপীড়ন আর নির্যাতন।

______________________________________
'বিপ্লব স্পন্দিত বুকে মনে হয় আমিই মুজিব'


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই ধরনের একটা উৎপাদন ও বিপনন ব্যবস্থা দেশবাসীর কাম্য; কিন্তু গোটা দেশে সেগুলো কিভাবে গড়ে উঠবে, কারা সেগুলো পরিচালনা করবে, কিভাবে ব্যবস্থাটা টিকে থাকবে - সেটাই প্রশ্ন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সম্ভব।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

স্যার, একটা পোস্ট দেন এইটা নিয়া

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দেবো, কিছু সময় লাগবে, মাস ৩ তিনেক।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমি অসম্ভব আর অবাস্তব কোন কিছু ভাবি নাই। লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন যে আমি পোস্টে বলেছি লাইসেন্সের কথা। এর মানে দ্বারায় বিপণন ব্যবস্থা একটি কাঠামোর অধীনে আসবে আর কৃষক, ব্যবসায়ী ও সরকার এর মাধ্যমে লাভবান হবে। ভর্তুকীর টাকাটা এখানে যারা ব্যবসা করতে আসবে তাদের কাছেই যাবে। কৃষক শুধু তার উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য দাম টা পাবে। ব্যবসা করতে গেলে বিনিয়োগ প্রয়োজন আর এই বিনিয়োগ হবে অবকাঠামোগত খাতে পাশাপাশি সরকারী কৃষি অধিদপ্তর থাকবে সার্বিক দেখাশোনার জন্য।

কোন না কোন দিন আমাদের এটা করতেই হবে হয়ত এর সার্বিক চেহারা অন্য রকম হতে পারে তখন।

****************************
ঘৃণার চাষাবাদ জারি থাকুক প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে।মানবতা মানুষের জন্যই সংরক্ষিত থাক।পশুদের জন্য বরাদ্দ থাক শুধুই উগ্র ঘৃণার দাবানল।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সম্ভব

দর্কার একদল যোগ্য দেশপ্রেমিক


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

smile :) :-)

****************************
ঘৃণার চাষাবাদ জারি থাকুক প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে।মানবতা মানুষের জন্যই সংরক্ষিত থাক।পশুদের জন্য বরাদ্দ থাক শুধুই উগ্র ঘৃণার দাবানল।

glqxz9283 sfy39587p07