Skip to content

হুমায়ুন আহমেদ ও তার নামাজ সম্পর্কে ধারণা আর কিছু কথা...

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ুন আহমেদ



ধ্রুব তারার লেখা মাসিকাব্য বিতর্কের অবসানের পর খুব বেশি দিন পার হয় নি। ঐ পোস্টে আমি ধ্রুব তারার পক্ষেই ছিলাম। ব্যক্তি হুমায়ুন আহমেদ নিয়ে আমার খুব একটা মাথা ব্যাথা নেই। ব্যক্তি জীবনে উনি যাই করুক না কেন একজন পাঠক হিসেবে উনার লেখা উপন্যাসগুলোর সাহিত্যমান নিয়ে প্রশ্ন আছে। একসময়ের তারকা লেখক আজ শুধুই খোলস মাত্র। আমরা বাংলাদেশি বাঙালিরা তাই নিয়েই নাচানাচি করি। নিরপেক্ষ দৃষ্টিতে দেখলে হুমায়ুন আহমেদের 'জোছনা ও জননীর গল্প', 'মধ্যাহ্ন' কিংবা 'শঙ্খনীল কারাগার' সাফল্যের দাবিদার হলেও উনার অধিকাংশ উপন্যাসেই সাহিত্য বলে কিছু নেই। প্রশ্ন চলে আসে তো উনি কেন এত জনপ্রিয়?? এর উত্তরটা এক নির্মম সত্য। আমাদের বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষজনই সাহিত্য বোঝে না, তারা যা সহজে পড়তে পারে তাই গোগ্রাসে গিলে খায়। আর একজন মানুষ যখন বাজার কাটতির জন্য বছরে গোটা দশেক উপন্যাস লিখে তবে সেই লেখাগুলো স্বভাবতই মানহীন হয়ে পড়ে। এ নিয়ে আমার ধারণা উনি আর বই লেখেন না। উনি বেশ কয়েকজন এসিস্ট্যান্ট রেখে দিয়েছেন। উনার এসিস্ট্যান্টরা উনার দেওয়া ধারণা অনুযায়ী গৎবাধা উপন্যাস লিখে যান আর সেগুলোই বাজারে হুমায়ুন আহমেদের নামে কেটে চলে।



কী নিয়ে লিখতে আসলাম আর কী লিখে চলছি! মূল প্রসঙ্গে ফিরে আসি। আজ ব্যক্তি হুমায়ুন আহমেদের অজানা সত্যি কিছু গল্প নিয়ে এই পোস্ট সাজালাম।



নামাজঃ

সকলেই জানেন যে হুমায়ুন আহমেদ খুব একটা ধার্মিক না। এমন কী উনাকে মৌলবাদীরা মুরতাদও ঘোষণা করেছে। এই হুমায়ুন আহমেদ আমার এক শিক্ষকের বাল্যকালের বন্ধু। হুমায়ুন আহমেদ আর আমার শিক্ষক মোহাম্মদ আলী বগুড়ার এক স্কুলে পড়তেন। স্যারের কথা অনুযায়ী এই হুমায়ুন আহমেদ স্কুলের নিচের ক্লাশে খুব একটা ভালো ফলাফল করতো না। এমন কী ক্লাশ সিক্স-সেভেন এ পরীক্ষার হলে স্যারের খাতা দেখেই অঙ্ক করতেন। পরে অবশ্য দেখা গেছে হুমায়ুন আহমেদ অনেক বেশি মেধাবী।



মোহাম্মদ আলী হজ্ব সেরে দেশে ফিরেছেন। গাল ভর্তি দাড়ি রেখেছেন। এই বেশে গেলেন বন্ধু হুমায়ুনের বাসায়। সেখানে কথায় কথায় হুমায়ুন আহমেদ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজী মোহাম্মদ আলীর সাথে নামাজ নিয়েই আলোচনা করতে লাগলেন।



- মোহাম্মদ আলী, তুমি তো জানই যে আমি এইসব নামাজ-রোজার মধ্যে নাই। তুমি তো দেখি হজ্ব করে আসলা। তা তুমি কি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজই পড়??

- হুম তাই পড়ি। পারত পক্ষে মিস দেই না। আর নামাজ না পরলে পরকালে কী হবে??

- ভালো। তা তুমি কি এইসব বিশ্বাস করো??

- হুম করি এবং মানিও।

- আচ্ছা নামাজে তুমি কী বলো এত??

- নামাজে যা বলতে হয় তাইই বলি। এখন তুমি বোলো না যে তুমি জানো না যে কী বলতে হয়।

- না তা জানি। আর জানি বলেই এই প্রশ্ন করলাম। তা প্রতিবার নামাজে একই কথা বল??

- হুম, তাইই তো বলতে হয়।

- তা আল্লাহ তোমার উপর বিরক্ত হন না??

- হুমায়ুন, এইটা আবার কেমন প্রশ্ন করলা??

- তোমারে বুঝায় বলি। ধর, তোমার এক ছাত্র তোমার প্রশংসা করে একটা কবিতা লেখলো। তুমি তো ঐ কবিতা শুনে অনেক খুশি হবা, তাই না??

- তাইই তো হবার কথা।

- পরদিন সকালে যদি আবারো একই কবিতা শোনায় কেমন লাগবে?? আগের চাইতে কম ভালো লাগবে কি??

- হুম, তাই।

- এখন ঐ ছাত্র যদি সকাল-বিকাল একই কবিতা পড়ে শোনায় তবে তুমি কি ধৈর্য ধরে তাই শুনবা??

- না মেজাজ খারাপ হবে।

- তোমার এত অল্পতেই মেজাজ খারাপ হয়। আর কোটি কোটি মানুষ হাজার হাজার বার একই কথা বলতেছে। আল্লাহ বিরক্ত হন না??

- হুম, হবার কথা।

- তো তুমি নামাজ পড় কেন??

- হুমায়ূন, তোমার কথায় যুক্তি আছে। তবে তুমি যাইই বলো না কেন আমি নামাজ পড়া ছাড়বো না। আল্লাহ বিরক্ত হলে হোক। উনিই যেহেতু পড়তে বলেছেন আমি পড়ে যাবো।

- ঠিক আছে পড়তে থাকো। দেখ মরার পর কী হয়!



কিডনিঃ

হুমায়ুন আহমেদের ৫২তম জন্মদিনের কথা। মোহাম্মদ আলী শাহবাগ থেকে তাজা দেখে ৫২ টা গোলাপ নিয়ে হুমায়ুন আহমেদের বাড়ি গেলেন। গিয়ে দেখলেন বগুড়া থেকে এক লোক এসেছেন। উনি হুমায়ুন আহমেদকে বলছেন, 'স্যার, আপনি চাইলে আমি আমার জান দিয়ে দিবো! আপনি আপনার নাটকে আমাকে একটা চান্স দেন।' হুমায়ুন আহমেদ তার এসিট্যান্টকে ডেকে বললেন, 'তুমি এর নাম, ঠিকানা, ফোন নাম্বার লিখে রাখো তো। এ আমার জন্য জীবন দিতেও রাজি।' এসিস্ট্যান্ট সব টুকে নিলে চলে গেল। এরপর হুমায়ুন আহমেদ ঐ লোককে বললেন, 'তুমি বাড়ি ফিরে যাও। আমার জন্য তোমাকে জীবন দিতে হবে না। যদি কখনো কিডনি লাগে তো তোমাকে ফোন দিবো। চলে এসো।'


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Kaler konthe 2 din age Humayun ki likheche porechen?Sura Ambia theke Big Bang chole eseche.BANGLADESHER OLPOBOYOSHI TORUN TORUNI JOTIL SHAHITTO BOJHE NA,TAI KASHEM R HUMAYUN CHOLE.

/* বিশ্ব যখন এগিয়ে চলেছে আমরা তখনও পিছে,
বিবি তালাকের ফতোয়া খুঁজছি হাদিস কোরান চষে।*/


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@রুশদি, এটা আগের কথা। এখন হুমায়ুন আহামেদ একটু হলেও ধর্মের দিকে ঝুকেছেন। তিনি তার মৃত্যুর আগে মহানবী মোহাম্মদ এর জীবনী লিখে যেতে চান। তার কালেরকণ্ঠে তিনি অঈ দাবি করতেই পারেন।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@#দেবা ভাই#,

হুমায়ুন আহমেদের এই ধর্মমুখীতা নিয়ে কি আপনার কাছে থেকে পোস্ট আশা করা যায়?

==========================================================
-> সাম্প্রদায়িক কথা বললেই সাম্প্রদায়িকতা না, কে বলছে সেইটাই গুরুত্বপূর্ণ!
-> ইসলাম= জামাত-শিবির, প্রচারে ফায়দা আছে!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@ওয়ালেস, আপনার অনুরোধ রাখার চেষ্টা করবো। smile :) :-)


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হিট বাড়ানোর জন্য আজাইরা পেচাল।

****************************


ধৈর্য্য ও নম্রতাই প্রকৃত মহত্ব।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@এম সরোয়ার হোসেন, হিট আমার পোস্টে পরার দরকার নাই, তয় আপনার নিতম্বে পরাটা আবশ্যক হয়ে দাঁড়িয়েছে।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুম

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@বেলের কাঁটা• •, খালি হুম!! আর কিছু না!! X(


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@বেলের কাঁটা• •, কাঁটাটা কোথায় গাথলো বুঝলাম না!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ুন আহমেদ হয়ত লোক মন্দ নন, তবে তাকে আমার চিরকালই গা বাঁচানো সব দিকে তাল দেওয়া লোক বলে মনে হয়েছে।



ছোট উদাহরন দেই। এককালে আবাহনী-মোহামেডান ফুটবল খেলা ছিল দেশের শীর্ষ আলোচনার বিষয়। খেলার আগে পত্রপত্রিকায় দেশের বেশ কিছু বিখ্যাত লোকদের ভাষ্য নেওয়া হত কে কোন দল সমর্থন করেন এসব নিয়ে। ৮৫ সালে হুমায়ুনের ভাষ্য নেওয়া হল, একমাত্র তিনিই বললেন যে একটি দল তো অবশ্যই সমর্থন করি তবে তা এখন বলব না।!



রাজনীতি, ধর্ম সব কিছু নিয়েই তিনি এভাবে সব কূল রক্ষার নীতি নিয়ে চলেন বলেই আমার মনে হয়েছে। তিনি কাউকেই সহজে চটাতে চান না। এই নীতিতে তিনি অত্যন্ত সফল মানতেই হবে।



ধর্মের পক্ষে ভাল ভাল কথাবার্তা বলেন, কোরানের আয়াতে মুগ্ধ হন; আবার বাঁশ মারতেও ছাড়েন না। আলোচিত হিল্লা বিবাহ নিয়ে তার অয়োময় নাটকে একটি এপিসোড আছে যা অনেকেরই হয়ত মনে আছে। আল্লাহ খোদায় বিশ্বাস করেন, আবার নাস্তিকদের মতই "প্রকৃতি" এটা করেছে সেটা সৃষ্টি করেছে এভাবেও কথা বলেন।

------------------------------------------------
পৃথিবী আজ দুই ভাগে বিভক্ত। আস্তিক এবং নাস্তিক; আমি অবশ্যই আস্তিকের দলে। যে কম্পিউটরে ব্লগিং করছেন সেও কিন্তু হতে পারে এক ভয়াবহ ঘৃন্য নাস্তিক, আজই পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে নিন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@আদিল মাহমুদ,একটা মানুষ নির্বিবাদী থাকলে সমস্যা কি?

.....................................
মায়ের লাঞ্ছিত বুকে শকুন নখের দাগ... কে পেরেছে ভুলে যেতে কবে? ধর্ষিতা বোনটির বিভীষিকা মাখা চোখ আমায় জাগিয়ে রাখে, ডেকে বলে,
মনে রেখো এদিনের শোধ নিতে হবে!! , যদি বল ঘৃনাবাদী, দ্বিধাহীন মেনে নেব তাও


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@আদিল মাহমুদ, হুম, উনি সবকূলই রক্ষা করেন।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@আদিল মাহমুদএই যে গা বাচিয়ে চলা এটা কাদের স্বভাব? আমাদের গ্রামের পরিভাষায় এ ধরনের লোককে কি বলে সে কথাটা বললে বোধ আলো ভালো হতো। (F) (F) (F)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@বহিরাগত,



আমার কোনই সমস্যা নেই।



বই ছাড়া তাকে নিয়ে আমার কোনই মাথাব্যাথা নেই।



পোষ্ট দেওয়া হয়েছে তাই প্রাসংগিক হিসেবে তার সম্পর্কে আমার মূল্যায়ন বললাম।

------------------------------------------------
পৃথিবী আজ দুই ভাগে বিভক্ত। আস্তিক এবং নাস্তিক; আমি অবশ্যই আস্তিকের দলে। যে কম্পিউটরে ব্লগিং করছেন সেও কিন্তু হতে পারে এক ভয়াবহ ঘৃন্য নাস্তিক, আজই পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে নিন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@তারাপাশী,



তা আর নাই বা বললাম, সেটা একান্তই আমার নিজের মূল্যায়ন।



তবে তাকে যতই গালি দেই, তার লেখায় সাহিত্য বলে কিছু নেই এসব আঁতেলীয় কথাবার্তা বলি তার বই পেলে ঠিকই সবার আগেই পড়ি।



আমার মনে হয় তার সাহিত্য সমালোচকদের অবস্থাও অনেকটা একই রকমই হবে।

------------------------------------------------
পৃথিবী আজ দুই ভাগে বিভক্ত। আস্তিক এবং নাস্তিক; আমি অবশ্যই আস্তিকের দলে। যে কম্পিউটরে ব্লগিং করছেন সেও কিন্তু হতে পারে এক ভয়াবহ ঘৃন্য নাস্তিক, আজই পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে নিন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@আদিল মাহমুদ, যাক, সত্য বলায় ১০ এ ১০ দিলাম Laughing out loud Laughing out loud

শিশিরে শিশিরে করি সমুদ্র সৃষ্টি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@বন্দনা,



আমি সর্বদাই সত্য পথের পথিক, তাহের ভাই এর সাথে পরিচয়ের পর থেকেই হয়ে গেছি সৈনিকঃ



সত্যের সেনানীরা নেবে নাকো বিশ্রাম

আমাদের সংগ্রাম চলবেই অবিরাম



হুমায়ুন আহমদের সাহিত্য মান নিয়ে দেবা মিয়ার পয়েন্ট পুরো ঠিক না। সেই হিসেবে পুরো বাংলা সাহিত্যই বিশ্বে তূলনামূলক সাহিত্যের বিচারে অনেক পেছনে। এটা ঠিক যে উনি ফরমায়েশি লেখা এখন অনেক বেশী লেখেন, তার নাটক গত কয় বছরে শস্তা ভাড়ামি ছাড়া আর কিছুই মনে হয় না।

------------------------------------------------
পৃথিবী আজ দুই ভাগে বিভক্ত। আস্তিক এবং নাস্তিক; আমি অবশ্যই আস্তিকের দলে। যে কম্পিউটরে ব্লগিং করছেন সেও কিন্তু হতে পারে এক ভয়াবহ ঘৃন্য নাস্তিক, আজই পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে নিন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@আদিল মাহমুদ,



এটা ঠিক যে উনি ফরমায়েশি লেখা এখন অনেক বেশী লেখেন, তার নাটক গত কয় বছরে শস্তা ভাড়ামি ছাড়া আর কিছুই মনে হয় না।




পয়েন্টে পয়েন্টে ঠিক!!


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ।। এককথায় সবচেয়ে সুনদর উদাহরন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পড়লাম।

শেষ অংশটুকু একটা চমৎকার রসিকতা ।

.....................................
মায়ের লাঞ্ছিত বুকে শকুন নখের দাগ... কে পেরেছে ভুলে যেতে কবে? ধর্ষিতা বোনটির বিভীষিকা মাখা চোখ আমায় জাগিয়ে রাখে, ডেকে বলে,
মনে রেখো এদিনের শোধ নিতে হবে!! , যদি বল ঘৃনাবাদী, দ্বিধাহীন মেনে নেব তাও


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@বহিরাগত, হুম, রসিকতা দারুন হয়েছে।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ইশশ্‌! হুমায়ুন আহমেদ যদি বৎসরে ১০/১২ টি করে কালজয়ী উপন্যাস লিখতে পারত, তবেই না সবাই খুশী হত!!! আর পৃথিবীর সব সাহিত্য পুরুষ্কারগুলো হুমায়ুন আহমেদ পেয়ে যেত।



ভাই বুঝলামনা!! নামাজ নিয়ে হুমায়ুন আহ্‌মেদ কথোপকথনগুলো এখানে কোড করে কি ম্যাসেজ দিতে চাইছেন?



জানতে পারলাম, উপন্যাস লেখার জন্য হুমায়ুন আহমেদ কয়েকজন এসিটেন্ট নিয়োগ দিবেন....আপনি আগ্রহী হলে আওয়াজ দিতে পারেন। আমি আপনার জন্য সুপারিশ করতে পারি। তবে সাবধান ভাই!!! আপনার ব্লগার পরিচয়টা গোপন রাখবেন। হুমায়ুন আহমেদ'র আবার ব্লগার এলার্জি আছে। ওনার ধারনা, ব্লগার দিয়ে সাহিত্য রচনা সম্ভব নয়। ওনার সাহিত্যকে গালাগালিতে বিক্ষত করতে রাজি নয়। ..... সত্য কথা বলার কারণে দয়া করে আমাকে আবার ব্লগীয় ভাষায় অভ্যর্থনা জানাবেন না।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@নুর নবী দুলাল,



ভাই বুঝলামনা!! নামাজ নিয়ে হুমায়ুন আহ্‌মেদ কথোপকথনগুলো এখানে কোড করে কি ম্যাসেজ দিতে চাইছেন?




Shock Shock Shock



আয়হায়!! এই কী কন!!



আপনার মতন জ্ঞানী-গুনী মানুষ ম্যাসেজ বুঝলেন না!!


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এ জাতির দুর্ভাগ্য যে হুমায়ুন আহমেদের মত সস্তা লেখকেরা সবচেয়ে জনপ্রিয় লেখকে পরিণত। তার প্রতিটি গল্পে,উপন্যাসে "চা খান,সিগারেট খান" থাকবেই। এটি ছাড়া তার গল্প,উপন্যাস লেখা যেন বৃথা।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@বোবা কাননা, শুধু চা, সিগারেট কেন, অনেক জায়গায় পান খাওয়াও তো থাকে। কিন্তু তাতে সমস্যা টা কী?? :-/


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@#দেবা ভাই#,আমার কোনো সমস্যা নাই। কিন্তু আপনিই তো একটু আগে বললেন উনি কিছু অ্যাসিসটেন্ট রেখে দিয়েছেন এবং তারাই ওনার নামে লিখে। আপনার সেই কথাটাকেই একটু মনে করিয়ে দিলাম আরকি


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ূন আহমেদ ধার্মিক না হলেও সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাসী। উনি উনার অনেক বইতে পরম করুনাময়, পরম দয়ালু সৃষ্টিকর্তার প্রতি নিজের আবেগ প্রকাশ করেছেন। আর কোন একটা লেখাতে জানি পড়ছিলাম উনি উনার হার্ট অপারেশনের আগে উনার মুখস্হ সব সূরা মনে মনে পড়তেছিলেন। তবে সব সাইডে তাল মিলিয়ে চলার দিকে উনি ভালই উস্তাদ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@ভ্যালেনটাইন,

হুমায়ূন আহমেদ ধার্মিক না হলেও সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাসী।


হুম, এর প্রমাণ উনার অনেক লেখাতেই পাওয়া গেছে।

তবে সব সাইডে তাল মিলিয়ে চলার দিকে উনি ভালই উস্তাদ।


এটাও ঠিক।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@ভ্যালেনটাইন,



উনি পুত্র সন্তান লাভের আশায় আজমীর শরীফে সুতাও বেধেছিলেন।

------------------------------------------------
পৃথিবী আজ দুই ভাগে বিভক্ত। আস্তিক এবং নাস্তিক; আমি অবশ্যই আস্তিকের দলে। যে কম্পিউটরে ব্লগিং করছেন সেও কিন্তু হতে পারে এক ভয়াবহ ঘৃন্য নাস্তিক, আজই পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে নিন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@ভ্যালেনটাইন, হাঁ উনি জবরদ্সত ওস্তাদপ্রকৃতির লোক।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ুন আহমদের সূক্ষ্ণ রসবোধ ঈর্ষনীয়। তার আরো কিছু নিদর্শন দেবার জন্য ধন্যবাদ।

__
দুই ধরন ধরণীর অধিবাসীর--
যাদের বুদ্ধি আছে, নাই ধর্ম,
আর যাদের ধর্ম আছে, অভাব বুদ্ধির।
--একাদশ শতকের অন্ধ আরব কবি আবুল 'আলা আল-মা'আররি।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@কাঠ মোল্লা, হুম্ম, উনার সূক্ষ্ণ রসবোধ বেশ চমৎপ্রদ।



মোল্লা ভাই, কেমন আছেন?? আপনাকে ব্লগে দেখি না কেন??


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ন আহামেদ আস্তিক না নাস্তিক জানি না । তবে এটা বলতে পারি যখন ধর্মে বিশ্বাস ছিল না তখনকার সময়ে তার সৃষ্টি 'মিসির আলী' আর যখন বিশ্বাস করা শুরু করলো 'there is some one ' তখনকার সৃষ্টি 'হিমু' ।

আমার বিশ্বাস হুমায়ন আহামেদের মৃত্যুর পর বাংলা সাহিত্যে এ দুই চরিত্র নিয়ে যে পরিমান গবেষনা হবে তা আর কোন চরিত্রের ভাগ্যে জুটবে না ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@আফলাতুন, ghorar dimbo hobe.Serial killer nie liklei gobeshona hobe?

/* বিশ্ব যখন এগিয়ে চলেছে আমরা তখনও পিছে,
বিবি তালাকের ফতোয়া খুঁজছি হাদিস কোরান চষে।*/


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Laughing out loud Laughing out loud Laughing out loud

---------------------------------------------------------------
ছাগুরা চাঁদের গায়ে রাজাকারের ছবি দেখলে হাউকাউ করলে মেলা
তোমরা বোলোগারেরা বেবুনের পুঁটুতে, সানির বুকে দেখলে, তার বেলা ?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমি ঠিক বুঝলামনা এই পোস্টে আসলেই আপনি কি বুঝাতে চেয়েছেন। আপনি কি হুআ'র গুনগান করলেন নাকি নিন্দা? আর বাংলাদেশী পাঠকরা সাহিত্য বুঝেনা, এই ধারনা আপনার হলো কি করে? আপনি নিজেকে নিজে কি মহাজ্ঞানী ভাবেন?







আমাদের বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষজনই সাহিত্য বোঝে না, তারা যা সহজে পড়তে পারে তাই গোগ্রাসে গিলে খায়।




সত্যি আপনার এই মুল্যায়নের তুলনা নেই!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@সায়মন,

(Y) (Y) (Y)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমাদের বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষজনই সাহিত্য বোঝে না, তারা যা সহজে পড়তে পারে তাই গোগ্রাসে গিলে খায়। এই পর্যন্ত পড়েই কমেন্ট না করে থাকতে পারলাম না :-B

শিশিরে শিশিরে করি সমুদ্র সৃষ্টি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ূন আহমেদকে নিয়ে এত কেচাল কিসের ? এবার বুকে হাত দিয়া বলেন আপনারা কে কেমন ধারমিক ?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ব্যাপারটা তো খুব ঠিক। আল্লাতো বেজার হওনেরই কথা। (Y)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই হুমায়ুন আহমেদ আমার এক শিক্ষকের বাল্যকালের বন্ধু। হুমায়ুন আহমেদ আর আমার শিক্ষক মোহাম্মদ আলী বগুড়ার এক স্কুলে পড়তেন। স্যারের কথা অনুযায়ী এই হুমায়ুন আহমেদ স্কুলের নিচের ক্লাশে খুব একটা ভালো ফলাফল করতো না। এমন কী ক্লাশ সিক্স-সেভেন এ পরীক্ষার হলে স্যারের খাতা দেখেই অঙ্ক করতেন। পরে অবশ্য দেখা গেছে হুমায়ুন আহমেদ অনেক বেশি মেধাবী।

হায়রে কই যাই? আপনার ঐ মাষ্টার মশাই যে সত্য কথা ব্লছে তার গেরান্টি কি? আমি এখন আহসান হাবীবের সাথে কাজ করি। বই মেলায় বসের ১৩/১৪ টা বই বের হয়। এখন আমি যদি আমার বন্ধু বান্ধব বা পরিচিতদের বলি, ঐ লোকটা একটা ডাহা ভন্ড। তার ঐ সব লেখার প্রায় অর্ধেক লেখা আমি লিখে দেই। আর সেইগুলা সে নিজের নামে চালায়। আমার এই কথাগুলো কি বিশ্বাসযোগ্য হবে?

আসলে জনপ্রিয় আর নামকরা মানুষকে ক্ষুদ্র লোকেরাই অন্যের কাছে ছোট করে নিজেকে বৃহত দেখানোর চেষ্টা করে। আপনার ঐ মাষ্টার মশাইকে আমার সালাম দিয়েন।

শিশিরে শিশিরে করি সমুদ্র সৃষ্টি...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@বন্দনা,



হায়রে কই যাই? আপনার ঐ মাষ্টার মশাই যে সত্য কথা ব্লছে তার গেরান্টি কি?




না এর কোন গ্যারান্টি নাই। আমার শিক্ষক যে ঠিক বলেন নাই তার গ্যারান্টি কী??



এক কাজ করুন, আপনিই বরং হুমায়ুন আহমেদকে একবার জিজ্ঞাসা করে দেখুনঃ মোহাম্মদ আলীকে চিনেন কী না!! বা এর সত্যতা আছে কী না!!



আসলে জনপ্রিয় আর নামকরা মানুষকে ক্ষুদ্র লোকেরাই অন্যের কাছে ছোট করে নিজেকে বৃহত দেখানোর চেষ্টা করে।




আপনি সত্যাসত্য না জেনেই এতটা বলে ফেলছেন??!! ঘটনার উলটো উদাহরণের অভাবও কিন্তু নেই!!



অ টঃ স্মৃতি হাতড়ে বলুন তো হুমায়ুন আহমেদ কোন পরীক্ষাতে শূন্য পেয়েছিলেন কি না??


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@বন্দনা,



আমি এখন আহসান হাবীবের সাথে কাজ করি। বই মেলায় বসের ১৩/১৪ টা বই বের হয়। এখন আমি যদি আমার বন্ধু বান্ধব বা পরিচিতদের বলি, ঐ লোকটা একটা ডাহা ভন্ড। তার ঐ সব লেখার প্রায় অর্ধেক লেখা আমি লিখে দেই। আর সেইগুলা সে নিজের নামে চালায়। আমার এই কথাগুলো কি বিশ্বাসযোগ্য হবে?




আমি লিখেছিঃ



উনি বেশ কয়েকজন এসিস্ট্যান্ট রেখে দিয়েছেন। উনার এসিস্ট্যান্টরা উনার দেওয়া ধারণা অনুযায়ী গৎবাধা উপন্যাস লিখে যান আর সেগুলোই বাজারে হুমায়ুন আহমেদের নামে কেটে চলে।




ভালো করে খেয়াল করলেই বুঝতে পারবেন যে, আমি বোঝাতে চেয়েছিঃ উনি মূল গল্প তৈরি করে দেন। তারপর অ্যাসিস্টেন্ট এর হাতে যায়।



আর আমি কোথায় ব্যাপারটাকে সত্য বলেছি। উনার লেখার মান আগের থেকে কমে যাওয়াতে আমার এই ধারণা এসেছে। আমি আমার ধারণা ভাগ করেছি। গ্রহণ করা না করা আপনার ব্যাপার।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধ্রুব তারার লেখা মাসিকাব্য বিতর্কের অবসানের পর খুব বেশি দিন পার হয় নি। ঐ পোস্টে আমি ধ্রুব তারার পক্ষেই ছিলাম। ব্যক্তি হুমায়ুন আহমেদ নিয়ে আমার খুব একটা মাথা ব্যাথা নেই। ব্যক্তি জীবনে উনি যাই করুক না কেন একজন পাঠক হিসেবে উনার লেখা উপন্যাসগুলোর

সাহিত্যমান নিয়ে প্রশ্ন আছে। একসময়ের তারকা লেখক আজ শুধুই খোলস মাত্র। আমরা বাংলাদেশি বাঙালিরা তাই নিয়েই নাচানাচি করি। নিরপেক্ষ দৃষ্টিতে দেখলে হুমায়ুন আহমেদের 'জোছনা ও জননীর গল্প', 'মধ্যাহ্ন' কিংবা 'শঙ্খনীল কারাগার' সাফল্যের দাবিদার হলেও উনার অধিকাংশ উপন্যাসেই সাহিত্য বলে কিছু নেই। প্রশ্ন চলে আসে তো উনি কেন এত জনপ্রিয়??




অন্য বইয়ের কথা জানিনা; মধ্যাহ্ন পড়ার পর আমি চিনলাম উকিল মুন্সীরে কিংবা এখোনো চোখ বন্ধ করলে দেখি লাবুসরে !! আহা !! আর কি কমু?



এর উত্তরটা এক নির্মম সত্য। আমাদের বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষজনই সাহিত্য বোঝে না, তারা যা সহজে পড়তে পারে তাই গোগ্রাসে গিলে খায়।




রবীন্দ্রনাথকে নিয়েও এই ধরনের কথা প্রচলিত ছিলো; অনেকে বলেছেন কিংবা তার আগে এই বাংলার লেখকদের শুন্তে হয়েছিলো -'বাংলা ভাষায় কি সাহিত্য হয়'। খুব সম্ভবতঃ ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরকে।



সাহিত্যমান বুঝিনা; আমার কাছে অদ্বৈত মল্ল বর্মন কিংবা সুকান্ত অথবা সমরেশ বসু কিংবা হুমায়ুন-কেউ ফেলনা নয়!!

ইমদাদুল হক মিলনের দুই একটা বইও আমার মনে দাগ কেটেছে!!



ভালো থাকবেন দেবা ভাই !!

_____________________

ক্ষুদ্র স্বার্থ ভুলে মুক্তির দাঁড় টান।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@অনিমেষ রহমান,



আমাদের বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষজনই সাহিত্য বোঝে না, তারা যা সহজে পড়তে পারে তাই গোগ্রাসে গিলে খায়।




একথাটা বলা কারণ মানুষজন উনার ফরমায়েশী বই নিয়েও লাফায়। উনার শুধু 'জোছনা ও জননীর গল্প', 'মধ্যাহ্ন' কিংবা 'শঙ্খনীল কারাগার' এর মতন বই নিয়ে লাফালে তা অবশ্যই সমর্থণযোগ্য। তাই বলে 'হলুদ হিমু কালো র‍্যাব' কিংবা এরকম অন্যান্য বই নিয়ে লাফালে আর কী বলবো??!!!



হুমায়ুন আহমেদের এইসব ফরমায়েশী বই নিয়ে অধিকাংশ মানুষ লাফায় এদেরকে একটু আবু ইসহাকের 'সূর্য দীঘল বাড়ি' কিংবা বিভূতি ভূষণের 'অপরাজিত' বই পড়তে বলে দেখুন তো এরা লাফাতে পারে!!



অনিমেষ দা, আপনিও ভালো থাকবেন!!


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@অনিমেষ রহমান,

****হুমায়ুন আহমেদের এইসব ফরমায়েশী বই নিয়ে অধিকাংশ মানুষ লাফায় এদেরকে একটু আবু ইসহাকের 'সূর্য দীঘল বাড়ি' কিংবা বিভূতি ভূষণের 'অপরাজিত' বই পড়তে বলে দেখুন তো এরা কতটা লাফাতে পারে!!


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ুন আহমেদ কোনদিন নিজ পছন্দ অনুযায়ী শব্দের জটিল খেলা খেলে আমাদের কাছে নিজের পছন্দের আদর্শ বিক্রি করে নাই বলেই সে যদি সস্তা হয়ে যায় তবে তাই ভালো।বাঙ্গালি সাহিত্য না বুঝলেও এই হুমায়ুন আহমেদ লাখ লাখ সাধারন মানুষকে পাঠক বানিয়েছে, স্বপ্ন দেখা শিখিয়েছে। গরীব,দুর্বল,আলাভোলা মানুষকে গ্লোরিফাই করেছে। এসবের কারনে সে সাহিত্যিক হিসেবে সন্মান না পেলেও একজন সমাজসংস্কারক অথবা গণমানুষের দার্শনিক হিসেবে সন্মান পাবে।

হুমায়ুন আহমেদ কোনদিনই কোন রকমের ক্যাচাল সৃষ্ঠি করে নাই কলমের জোড়ে কিন্তু গণমানুষের আবেগকে নাড়িয়ে বাকের ভাইয়ের জন্য রাস্তায় নামিয়েছে আর দেশের মানুষের মনে ঢুকিয়ে দিয়েছে যে এই দিন দিন না আরো দিন আছে।



এসব ধুলোবালি না সোনাবালি তা নিশ্চিত হবার পর যদি এগুলোকে ফুঃ দিয়ে উড়িয়ে দিতে ইচ্ছা করে তো দিন।হুমায়ুন আহমেদ সম্পর্কে মানুষ ধারনা নেবার জন্য কারো সাহায্য নিবে না কারন তিনি ব্যাক্তিগতভাবে প্রতিটা পাঠকের কৈশর বা কোমল অনুভুতি'র সাথে জড়িত।



ধন্যবাদ ওনার সম্পর্কে ২টি নতুন তথ্য জানানোর জন্য।

---------------------------

বহুবার পতিত হয়ে
শক্ত হয়েছি বেশ,
কারন আমি জেনে গেছি
পতনেরও আছে শেষ!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@ভাওয়াল রাজা,



এসবের কারনে সে সাহিত্যিক হিসেবে সন্মান না পেলেও একজন সমাজসংস্কারক অথবা গণমানুষের দার্শনিক হিসেবে সন্মান পাবে।




হুম, উনাকে গণ মানুষের দার্সগণিক বলা যেতে পারে।



হুমায়ুন আহমেদ কোনদিনই কোন রকমের ক্যাচাল সৃষ্ঠি করে নাই কলমের জোড়ে কিন্তু গণমানুষের আবেগকে নাড়িয়ে বাকের ভাইয়ের জন্য রাস্তায় নামিয়েছে আর দেশের মানুষের মনে ঢুকিয়ে দিয়েছে যে এই দিন দিন না আরো দিন আছে।




আমিও বাকের ভাইয়ের ফ্যান ছিলাম, এখনো আছি। কিন্তু উনার হাল আমলের নাটকগুলোর ভাঁড়ামি কি দেখেছেন?? না থাকলে দেখে নিন। আর এ জন্যই বলেছিঃ



একসময়ের তারকা লেখক আজ শুধুই খোলস মাত্র।




তারকা তিনি ছিলেন কিন্তু এখন চলছেন পুরোনো আলোয়। উনার সাহিত্যমান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছি উনার ফরমায়েশী লেখাগুলোর জন্য, উনার ভালো বইগুলো নিয়ে কোন প্রশ্ন তোলা হয় নি।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অত্যান্ত জটিল পোস্ট। মাজেযা ধরতে কষ্ট হয়! অবশ্যই জ্ঞানী মানুষের পোস্ট!



হুমায়ুন আহমেদ এর সাহিত্যগুন নিয়ে মন্তব্য !!!!



লেখক তার লেখায় হুমায়ুন সাহেব এতো বেশি উপন্যাস লেখা (যা নাকি মানহীন) নিয়ে বলেছেন, তার ভাড়া করা লোকজন লিখে দেয় ! এর তথ্যসুত্র জানতে হচ্ছে করছে। আর ভাই এই ভাড়াটে লেখক এর মধ্যে দু'এক জনের নাম যদি বলতেন !!! হাঁস-মুরগী কিন্তু ১ বারে অনেক ডিম দেয় কন্তু সব ডিমে কি বাচ্চা জন্মায়??



বাংলা অভিধান সামনে নিয়ে যে সাহিত্য পড়তে হয় দেবা ভাই সে লেখাকেই মান সমৃদ্ধ উপন্যাস বলতে চান তাই কি?

কিন্তু ভাইজান ছোট্ট বাংলাদেশে ""আপনাদের মত জ্ঞানী পাঠক"" সংখ্যায় খুবই কম।



বাংলার বেশির ভাগ মানুষ খুব সহজ-সরল, তারা প্যাচ-গোজ খুব কম জানে, তাই হয়ত সবাই সহজ ভাষায় জীবনের প্রতিচ্ছবি খুঁজে পায়, তাই বলে সহজ-সরল গল্প-উপন্যাস'কে গুনহীন বলার অবকাশ আছে বলে মনে হয় না।



জিলাপি'র প্যাঁচের মতো না পেঁচিয়ে সহজ করে মনের ভাব প্রকাশ করাকে নিশ্চই গ্রাম্য,বোঁকা বা মূর্খ বলতে পারি না তাই না???



আচ্ছা সত্যজিৎ,সমরেশ,সুনীল,হুমায়ুন আজাদ, শেক্সপিয়র,মধুসুধন আরো অনেক মহান লেখকের সব লেখাই কি কালজয়ী বা সাহিত্য গুনে ভরপুর?? বা সব লেখাই যে কালজয়ী হতেই হবে এমন তো কথা নাই নাকি আছে????



আর যে সব লেখক লেখাকে জীবিকা হিসেবে নিয়েছেন তারা যদি বছরে ২ বা ৪ টা উপন্যাস নোবেল বা পুরস্কার পাবার মতো লেখা প্রসব করে ১টা ১ লক্ষ টাকার পুরস্কার পান তবে বছরের বাকি সময় বা মাসগুলো তিনি জীবিকা কি দিয়ে নির্বাহ করবেন মিঃ দেবু??



স্কুল,পরাশুনার কথা বলেছেন যে খুব ভাল ছাত্র ছিলেন না পরের দিকে মেধাবী হয়েছেন বাহ্ ! কি বুঝাতে চাইলেন ভাই?? মেধা কিনতে পাওয়া যায়, উনি টাকা দিয়ে মেধা কিনে মেধাবী হয়েছেন?? কতো আজব কথা যে আমরা বলি তা হয়তো জানিই না যে আমরা আবালিয় কথা বলছি !!!!!!!!!!!



মানহীন উপন্যাস লিখে থাকলে আমরা তা বর্জন করছি না কেন? বর্জন করলে এসব ফাউল লেখক তো জনপ্রিয় হতো না তো কেন তা করছি না??



আচ্ছা মেনে নিলাম হুমায়ুন স্যার অখাদ্য-কুখাদ্য লিখেন বেশি সংখ্যক, দয়া করে আপনার মতে যারা সুসাহিত্যিক, সুলেখক !তার মতো দু-একটা অখাদ্য লিখে প্রকাশ করে হুলস্থুল ফেলে দেন না দেখি আমরা আম-পাঠক কতোটা হুমরি খেয়ে কিনে গোগ্রাসে গিলছি ??????????



শেষ কথা বলি, যে কারো ব্যাপারে কিছু লিখতে বা বলতে চাইলে তার সম্পর্কে কিছু না জেনে লেখা কি ঠিক? শুধু আন্দাজে ঢিল মারা ''নির্বোধ'' বালক'রা করলেও করতে পারে,আপনার মতো ''জ্ঞানী ও প্রাপ্ত বয়স্ক'' মানুষ করলে ব্যাপারটা হাস্যকার হয়ে যায়। জনপ্রিয় মানে জনগনের পছন্দ বা প্রিয়, তাই জনপ্রিয় কিন্তু বাতাসে হওয়া যায় না, জনগনকে খুশি করাটা এই ফ্রি ব্লগ লেখার মতো সহজ বিষয় না মিঃ দেবু অনেক কঠিন।

২/১ টা লেখা দিয়ে হয়তো ক্ষনিকের জন্য আলোড়ন তৈরী করা যায় তবে তা ক্ষনিকের জন্য হুমায়ুন সাহেবের মতো দীর্ঘস্হায়ী কখনোই না। প্রবাদটা ভুলে গেছেন?? ঐ যে ''স্বাধীনতা পাবার চেয়ে রক্ষা করা কঠিন'' ঠিক সে রকম-ই জনপ্রিয়তা অর্জন করার চেয়ে তা ধরে রখাটা অনেক কঠিন, যা হুমায়ুন আহমেদ সাহেব অর্জন করেছেন এবং তা এখন পর্যন্ত ধরেও রেখেছেন।

খালি কলস দীর্ঘ সময় বাঁজাতে গেলে তা থাকে না ভেঙে যায়।



সুতরং হুমায়ুন সাহেব যদি ভাড়া করা লেখক দিয়ে উপন্যাসিক বা মেধা কিনে মেধাবী হতেন তবে তার লেখার নিজস্বতা বলতে কিছুই থাকতো না, আর তিনি নিজেও হারিয়ে যেতেন ''কবি হু মু এরশাদের মতো'' কিন্তু তার ক্ষেত্রে এর কোনটাই হয়নি !!!!অতিব দুঃখের বিষয় তাই না??????



১ টা বিষয় বলা হয়নি তা হলো '' হুমায়ুন সাহেব'' সব সময় বলেন যে 'আমার লেখা গল্প উপন্যাস এ শিক্ষামুলক কিছু খুজবেন না,শিক্ষা নিয়ে লেখার মতো অনেক গুনীজন রয়েছে, তবে আমার লেখায় মজার বিষয় খুঁজলে হয়তো পাবেন, আমি লিখি মনের আনন্দ'র জন্য.........................................................



ভাল থাকবেন মিঃ দেবু। (B) (B) (B)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@স্বপ্নবাজ মিঠু, (Y) (Y) (Y)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@মি মিঠা,



লেখক তার লেখায় হুমায়ুন সাহেব এতো বেশি উপন্যাস লেখা (যা নাকি মানহীন) নিয়ে বলেছেন, তার ভাড়া করা লোকজন লিখে দেয় ! এর তথ্যসুত্র জানতে হচ্ছে করছে। আর ভাই এই ভাড়াটে লেখক এর মধ্যে দু'এক জনের নাম যদি বলতেন !!! হাঁস-মুরগী কিন্তু ১ বারে অনেক ডিম দেয় কন্তু সব ডিমে কি বাচ্চা জন্মায়??




আরও লিখেছেনঃ

সুতরং হুমায়ুন সাহেব যদি ভাড়া করা লেখক দিয়ে উপন্যাসিক বা মেধা কিনে মেধাবী হতেন তবে তার লেখার নিজস্বতা বলতে কিছুই থাকতো না, আর তিনি নিজেও হারিয়ে যেতেন ''কবি হু মু এরশাদের মতো'' কিন্তু তার ক্ষেত্রে এর কোনটাই হয়নি !!!!অতিব দুঃখের বিষয় তাই না??????




পুরো লেখা মনযোগ দিয়ে না পড়েই এত কথা বলে ফেললেন??



এ নিয়ে আমার ধারণা উনি আর বই লেখেন না। উনি বেশ কয়েকজন এসিস্ট্যান্ট রেখে দিয়েছেন। উনার এসিস্ট্যান্টরা উনার দেওয়া ধারণা অনুযায়ী গৎবাধা উপন্যাস লিখে যান আর সেগুলোই বাজারে হুমায়ুন আহমেদের নামে কেটে চলে।




যারা আমার কথা বুঝে না তাদের সাথে কথা চালানোটা সত্যিই অনেক বেশি কঠিন। ভালো করে খেয়াল করলেই বুঝতে পারবেন যে, আমি বোঝাতে চেয়েছিঃ উনি মূল গল্প তৈরি করে দেন। তারপর অ্যাসিস্টেন্ট এর হাতে যায়।



আর আমি কোথায় ব্যাপারটাকে সত্য বলেছি। উনার লেখার মান আগের থেকে কমে যাওয়াতে আমার এই ধারণা এসেছে। আমি আমার ধারণা ভাগ করেছি। গ্রহণ করা না করা আপনার ব্যাপার।



আচ্ছা সত্যজিৎ,সমরেশ,সুনীল,হুমায়ুন আজাদ, শেক্সপিয়র,মধুসুধন আরো অনেক মহান লেখকের সব লেখাই কি কালজয়ী বা সাহিত্য গুনে ভরপুর?? বা সব লেখাই যে কালজয়ী হতেই হবে এমন তো কথা নাই নাকি আছে????


উনারা কী সমালোচনার শিকার হন না?? কেউই সমালোচনার ঊর্ধ্বে না!!



আচ্ছা মেনে নিলাম হুমায়ুন স্যার অখাদ্য-কুখাদ্য লিখেন বেশি সংখ্যক, দয়া করে আপনার মতে যারা সুসাহিত্যিক, সুলেখক !তার মতো দু-একটা অখাদ্য লিখে প্রকাশ করে হুলস্থুল ফেলে দেন না দেখি আমরা আম-পাঠক কতোটা হুমরি খেয়ে কিনে গোগ্রাসে গিলছি ??????????




সময়েই বলে দিবে কী হয় না হয়!!!!!!!!



ভাল থাকবেন মিঃ মিঠা। (B) (B) (B)


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@ভাওয়াল রাজা @বন্দনা, @অনিমেষ ও আরো অনেক ব্লগার বন্ধুরা ধন্যবাদ। দু'কলম শক্ত অক্ষর লিখে নিজেকে মহাজ্ঞানী মনেকরি, যেমন কাক নিজেকে সবচেয়ে বুদ্ধিমান প্রাণী ভাবে, কিন্তু খায় হলো গ....ু



দেবু দা'র জন্য প্রার্থনা করি যেন খুব দ্রুত জ্ঞানী থেকে তিনি মহাজ্ঞানী হোক................।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@স্বপ্নবাজ মিঠা,



দু'কলম শক্ত অক্ষর লিখে নিজেকে মহাজ্ঞানী মনেকরি, যেমন কাক নিজেকে সবচেয়ে বুদ্ধিমান প্রাণী ভাবে, কিন্তু খায় হলো গ....ু




নিজের চেহারা খানা আয়নায় দেখে নিতে ভুলবেন না। আর সারাদিন কী কী খান একবার তার একটা লিস্ট করে দেখুন!!! অনেক কিছুই পাবেন!!!





দেবু দা'র জন্য প্রার্থনা করি যেন খুব দ্রুত জ্ঞানী থেকে তিনি মহাজ্ঞানী হোক................।




আমিও মিঠা ভাইয়ের জন্য অনেক দোয়া করিঃ আল্লাহ উনার মঙ্গল করুক................।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ুন আহমেদ কি "আনন্দ সাহিত্য পুরষ্কার" পাইছিলো?

----------------------------------------------------------
"সওয়ারীদের দৌড়ানোর মাঝে কোন কল্যান নেই। "


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@আবু সাঈদ জিয়াউদ্দিন, কেন এইটা কি সাহিত্যের মান নির্ণয়ের মানদণ্ড??


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@#দেবা ভাই#,



আমি একটা প্রশ্ন করলাম - ভাবলাম হুমায়ুন আহমেদের রান্না ঘরের খবর যেভাবে কথোপকথন আকরে ব্লগে পোস্ট করছেন - নিশ্চয় আপনি উনা উপর একটা গবেষনা করেছেন। কিন্তু আপনি আমাকে উল্টা প্রশ্ন করলেন।

----------------------------------------------------------
"সওয়ারীদের দৌড়ানোর মাঝে কোন কল্যান নেই। "


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@আবু সাঈদ জিয়াউদ্দিন, আমার জানামতে পান নি। তবে আমার জানাটা ভুলও হতে পারে। আমার জানামতে উনি যেসব পুরস্কার পেয়েছে তা হলঃ



*বাংলা একাডেমী পুরস্কার (১৯৮১)

*শিশু একাডেমী পুরস্কার

*একুশে পদক (১৯৯৪)

*জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (শ্রেষ্ঠ কাহিনী ১৯৯৩, শ্রেষ্ঠ

চলচ্চিত্র ১৯৯৪, শ্রেষ্ঠ সংলাপ ১৯৯৪)

*লেখক শিবির পুরস্কার (১৯৭৩)

*মাইকেল মধুসুদন পদক (১৯৮৭)

*বাকশাস পুরস্কার (১৯৮৮)

*হুমায়ূন কাদির স্মৃতি পুরস্কার (১৯৯০)

*জয়নুল আবেদীন স্বর্ণপদক


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কিনতু ইমদাদুল হক মিলন পেয়েছে।
সামথিং ইজ রং, ভেরি রং।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

[এখানে মনে হয় মন্তব্য মুছা হয়]



আচ্ছা নামাজে তুমি কী বলো এত??

- নামাজে যা বলতে হয় তাইই বলি। এখন তুমি বোলো না যে তুমি জানো না যে কী বলতে হয়।

- না তা জানি। আর জানি বলেই এই প্রশ্ন করলাম। তা প্রতিবার নামাজে একই কথা বল??

- হুম, তাইই তো বলতে হয়।

- তা আল্লাহ তোমার উপর বিরক্ত হন না??




এই কথোপকথনে হুমায়ূন আহমদের 'নাটামী' ও ধর্মজ্ঞানশুণ্যতা প্রকাশ পায়, যদি তিনি এমন কথা বলে থাকেন। আল্লাহর সত্তা ও গূণের দিক থেকে কোন কিছুর সাথে সমতুল্য নন। কিন্তু এখানে অতুলনীয়কে 'মানবিক মানসিকতায়' এনে মন্তব্য করা হয়েছে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@তুলনাহীনা,



[এখানে মনে হয় মন্তব্য মুছা হয়]


মস্করা করেন কেন?? আমি কি আপনার দুলাভাই??


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@#দেবা ভাই#,



মস্করা করলাম বলছেন কেন? তারপর ভুল ধারণায় 'দুলাভাই' পর্যন্ত যাচ্ছেন কেন? মুছার কথা মনে হয়ার কী কোন কারণ থাকতে পারেনা?



এই কমেন্টটি কতক্ষণ আগে দিয়েছিলাম। কিন্তু তারপর দেখলাম নাই। এজন্য ভেবেছিলাম মুছে দেয়া হল কীনা। তাই কী মস্করা থেকে 'দুলাভাই' - হয়ে গেল? ব্লগে কোন সমস্যা আছে নাকী? হুমায়ুন আহমদের কথোপকথন কী ঠিক?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@তুলনাহীনা,



ব্লগে কোন সমস্যা আছে নাকী?


অ্যাডমিনকে জিজ্ঞেস করুন।

হুমায়ুন আহমদের কথোপকথন কী ঠিক?


না ভাই সত্য হবে কেন?? এইসব তো আমার সাজানো গল্প। বোকা, বোঝেনও না!!


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@#দেবা ভাই#,



না ভাই সত্য হবে কেন??




আমাকে 'ভাই' বলছেন কেন? আমার বসন উন্মোচন করে আপনাকে কি কিছু দেখিয়েছি?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@তুলনাহীনা, না করেন নি। আর আমার আপনার ঐ দেহ দেখবার ইচ্ছেও নেই।



তবে জলদি ভাগুন। এইকথা জানলে লুলরাজেরা ঝাঁপিয়ে পরবে। ঐ আসলো বলে।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@তুলনাহীনা, নিজামীর বহু স্পর্ষে ঝুলা জিনিস দেখাইয়া লজ্জা পাইও না

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@দেবু দা, আমার সম্পর্কে আপনার মুল্যায়ন ১০০% খাটি।

আমি আসলেই অনেক কিছুই বুঝি না এটাও সত্যকথা।



তবে এই কথাটুকু



"" আমাদের বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষজনই সাহিত্য বোঝে না, তারা যা সহজে পড়তে পারে তাই গোগ্রাসে গিলে খায়"" ।



১০০% সত্য বলে মানতে পারছি না। অধিকাংশ মানুষ যদি সাহিত্য না বুঝতো তবে বাংলা সাহিত্যের ভান্ডার এতো সমৃদ্ধ হতো বলে মনে হয় না।

গুটি কয়েক সাহিত্য বোঝা মানুষের দেশে সাহিত্যের ভান্ডার নিয়ে গবেষনার প্রয়োজন হতো না। সাহিত্যও গুটিকয়েক হওয়ার কথা।



সহজ-সরল ভাষায় কি সাহিত্য রচনা হয় না?? যদি না হয় তবে ভাই মাফ কইরা দ্যান....



হুমায়ুন সাহেবের যে কয়টা উপন্যাস ''মানসম্পন্ন'' বলেছেন সেগুলো কিন্তু খুবই সহজ ও সরল ভাষায় রচিত।



ভাই আল্লাহ আপনাকে অনেক জ্ঞান দান করছে বলে আমার মতো অজ্ঞানীদের উপর বিরক্ত আপনি



''যারা আমার কথা বুঝে না তাদের সাথে কথা চালানোটা সত্যিই অনেক বেশি কঠিন''



ক্ষ্যামা করবেন দাদা আর বিরক্ত করবো না।।



শেষকরি ও ''জোছনা ও জননী'র গল্প'' উপন্যাসটা তার সাম্প্রতিক সময়(২/১বছর) রচিত, দেবা দা এই উপন্যাসটা কি মানসম্পন্ন নাকি সস্তা ধরনের?? বুঝতে পারছি না !!!!!!!



আপনার ১টা উপদেশ হলো-



''নিজের চেহারা খানা আয়নায় দেখে নিতে ভুলবেন না। আর সারাদিন কী কী খান একবার তার একটা লিস্ট করে দেখুন!!! অনেক কিছুই পাবেন!!!''



আজ থেকে আগামী ৭ দিন আমার বদনখানা আয়নায় দেখবো আর সারাদিন কি কি খাই তাও লিস্টি করে রাখবো। ৭ দিন পর আপনার কাছে রিপোর্ট জমা দিবো, আর আশা করবো আপনার মুল্যায়ন এর জন্য।।।।



ভালো থাকবেন দেবা দাদা, আর আশায় থাকলাম ----



আমি লিখেছিলাম--

''আচ্ছা মেনে নিলাম হুমায়ুন স্যার অখাদ্য-কুখাদ্য লিখেন বেশি সংখ্যক, দয়া করে আপনার মতে যারা সুসাহিত্যিক, সুলেখক !তার মতো দু-একটা অখাদ্য লিখে প্রকাশ করে হুলস্থুল ফেলে দেন না দেখি আমরা আম-পাঠক কতোটা হুমরি খেয়ে কিনে গোগ্রাসে গিলছি ??????????''



আপনার জবাব--

''সময়েই বলে দিবে কী হয় না হয়!!!!!!!!''



সেই সময়ের জন্য যেদিন আপনাদের হুলস্থুল ফেলে দেয়া কিতাব আমি হুমরী খেয়ে কিনে গোগ্রাসে গিলবো।। সময়টা খুব দীর্ঘায়িত করবেন না দাদা,যদি ওটা না গিলে মরে যাই তবে আফছোছ থাকবে......।



আবারো শুভ কামনা রইলো দেবা দা, ভাল থাকবেন............. (F) (F) (G) (G) (F) (F) ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@স্বপ্নবাজ মিঠু,



১০০% সত্য বলে মানতে পারছি না।




মানা না মানা আপনার ব্যাপার।



অধিকাংশ মানুষ যদি সাহিত্য না বুঝতো তবে বাংলা সাহিত্যের ভান্ডার এতো সমৃদ্ধ হতো বলে মনে হয় না।




বাংলা সাহিত্য কি শুধু হুআ কে দিয়েই সমৃদ্ধ হয় নাকি??



সহজ-সরল ভাষায় কি সাহিত্য রচনা হয় না?? যদি না হয় তবে ভাই মাফ কইরা দ্যান....




একটু দেখিয়ে দিন তো যে, আমি কোথায় বলেছি সাহিত্য সহজ সরল ভাষায় হয় না!!



আজ থেকে আগামী ৭ দিন আমার বদনখানা আয়নায় দেখবো আর সারাদিন কি কি খাই তাও লিস্টি করে রাখবো। ৭ দিন পর আপনার কাছে রিপোর্ট জমা দিবো, আর আশা করবো আপনার মুল্যায়ন এর জন্য।।।।




শীঘ্র কাজে লেগে যান। মনে রাখবেনঃ শুভস্য শীঘ্রম্‌!,



ক্ষ্যামা করবেন দাদা আর বিরক্ত করবো না।।




ক্ষ্যমা করে দিলাম। smile :) :-)



সেই সময়ের জন্য যেদিন আপনাদের হুলস্থুল ফেলে দেয়া কিতাব আমি হুমরী খেয়ে কিনে গোগ্রাসে গিলবো।। সময়টা খুব দীর্ঘায়িত করবেন না দাদা,যদি ওটা না গিলে মরে যাই তবে আফছোছ থাকবে......।




লেখক কখনো নির্দিষ্ট কারো পড়বার আশায় কিছু লেখেন না। তাই আমার ঐরকম লেখা যখন লেখার তখনই লিখবো। আপনি পাবেন কি পাবেন না তা নিয়ে কোন আসে যায় না।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@স্বপ্নবাজ মিঠু ভাই কথা হইল বাংলা সাহিত্যের সব বাঘা বাঘা লেখকদের নিয়া যদি সমালোচনা করা যায় তাইলে

হূমায়ুন আহমেদ কে নিয়া সমালোচনা করা যাইব না কেন ?দেখেন দেবা ভাই কিন্তু উনার সব লিখা নিয়ে সমালোচনা করছেনা।মধ্যাহ্ন ,জোছনা ও জননী'র গল্প নিয়ে কারো প্রশ্ন নেই।হিমুও প্রথম দিকে ভাল লাগেছিল।কিন্তু শেষে বেশি কাচলা কাচলি করতে গিয়ে বোরিং হয়ে দাড়িয়েছে।এরপর উনার আরো অনেক বই বাহির হয়েছে।কিন্তু সেগুলায় কতটুক সাহিত্যের রস ছিল তা নিয়ে আমার সন্দেহ থেকে যায়।আর উনার নাটক ভাঁড়ামি ব্যাতিত আর কিছুই না।এই জন্য দেখবেন ফারূকি গংরা আসার পর উনার নাটক মার খেয়ে যায়।তবে পাঠকদের বইমুখ করতে উনার বিরাট অবদান।

............................................................................................................
ভালোবাসা মানে আগাম চলার সুর,ভালোবাসা মানে অবিরাম চলাবসা


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ুন আহমেদের 'মধ্যাহ্ন' পড়েছি। বিশ্বাস হয়তো করবেন না, কিন্তু একটানে পড়েছি। রাত দিন মিলিয়ে এক দিনেই। উনার অন্যান্য লেখা থেকে পৃথক লেগেছে এবং ক্লাসিক লেগেছে। উনার অন্য লেখা বলছি কিন্তু নাম বলতে পারছি না, কারণ ঐসব লেখাগুলো এমনই যা নাম মনে রাখা যায় না। অথচ মধ্যাহ্নের বেলায় অটো মনে থাকবে। এখানেই বুঝে নেওয়া যায় হুমায়ুন আহমেদের কোন লেখা কোন ধাচের। তবে আমার কথা, যে লোক 'মধ্যাহ্ন' এর মত লেখা লেখতে পারেন, উনি চাইলে শিল্প গুণে গুণান্বিত লেখা লেখতে পারবেন।



বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ যে সাহিত্য বুঝে না এই কথার সাথেও একমত আছি। এখন মানুষ চায় সহজ ও সংক্ষিপ্ত। এই যেমন, কেউ গান শিখে রেওয়াজ করতে চায় না, সফটওয়ার মেরে দিয়ে বড় শিল্পী হয়ে যায়। কেউ এখন অভিনয় শিখে অভিনেত্রী হতে চায় না। বরঞ্চ পরিচালকের সাথে বিছানায় গিয়ে অভিনেত্রী হওয়াটাকে সহজ মনে করে। এমনই ঘটে।



সাহিত্যেও এমনই ঘটে। কিন্তু শিল্পের দিকে গেলে সাহিত্য সৃষ্টি করা যেমন সাধনার। সাহিত্য বুঝতে পারাও তেমন সাধনার। কিন্তু কয়জন পাঠক বলবেন যে তারা সাহিত্য নিয়ে সাধনা করেছেন? আমি সাহিত্যিকের কথা বাদ দিলাম। খুব কম পাঠকই আছেন যারা সাধনা করেছেন। স্কুল কলেজে পাস করতে হবে বলে যে বাংলাটুকু পড়েছেন তার বেশি কিছু করেননি। তাও সেই বাংলাতেই অনেকেই ৩৩ পেয়ে পাস করে এসেছেন (নিজের মাতৃভাষা, সেখানে মাত্র ৩৩? প্রশ্ন থাকে)। আমি কাউকে ছোট করছি না। আমি শুধু সাধনার কথা বলছি। ক্লাসিক্যাল গান যেমন সবাই পারে না, ক্লাসিক্যাল সাহিত্যও তেমনি সবাই বুঝে না। আমি বলছি না যে সাহিত্য হতে হলেই কঠিন কঠিন শব্দ আসতেই হবে বা কঠিন ভাষারীতি আসতেই হবে। হ্যাঁ সহজ শব্দেও হবে, কঠিন শব্দেও হবে; সহজ ভাষারীতি কঠিন ভাষারীতি মিলিয়ে হবে। তাহলে বৈচিত্র থাকবে। সৌন্দর্য থাকবে। আর বড় কথা, চর্চা থাকলে সহজ আর কঠিন, এই দুই বিশেষণই থাকবে না তখন, পাঠকের কাছে সাধারণই লাগবে। সব ধরণের শব্দ বা ভাষারূপের চর্চা থাকলে কোন কিছু পাঠকের কাছে কঠিন বা অপ্রচলিত থাকবে না। কিন্তু আমরা তো এই সময় দিতেও নারাজ। আমি নিজেও দেখেছি একটু এদিক-সেদিক করে লেখলেই মন্তব্য আসবে 'কঠিন হয়ে গেছে'; অথচ দেখা যাবে প্রায় প্রচলিত শব্দেই লেখেছি।



এখন আমাদের পাঠকের বেশির ভাগই যদি এমন হোন তো সরাসরি হুমায়ুন আহমদকেও দোষ দেওয়া যায় না কারণ উনি ব্যবসাবাদী লেখক। উনি সাত্ত্বিক লেখক নন। আর লেখালেখিতে যখন সরস্বতীর চেয়ে লক্ষ্মীর টান বেশি থাকে তখন সেই মান কোন দিকে যায় তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না, এবং এক ঘেয়েমীর দোষে দুষ্ট যে হয় তাও বলে দিতে হয় না। বাংলাদেশের ব্যান্ড গানের ইতিহাস নিয়ে একজন লেখেছিলেন সামুতে। পড়েছিলাম। আগে আগে একেকটা এলবাম বের হতে ৩-৫ বছর লাগত। এত যত্ন আর সৌন্দর্যে গড়া। এমনকি সেসব এলবাম জনপ্রিয়ও হয়েছে। এরপরে আসল মিক্সড এলবামের রেওয়াজ। সরস্বতীর চেয়ে লক্ষ্মীর টান পড়লো বেশি। বাদবাকি সবকিছু আমাদেরই সামনে।



সাহিত্য একটি শিল্প। আর কোন শিল্পই সাধনা ছাড়া তার সুন্দর রূপ প্রকাশ করে না। সাধনার পথে আমাদের সবাই বড়ই নারাজ। যদি কোন বায়োলজিক্যাল সফটওয়ার বা হরমোন থাকত যে পুশ করলেই হয়ে যেত তাহলে তারা সেটাই করতেন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@শর্মা-ই-আযম,



আপনার কি মনে হয় এই যুগে তারাশংকর জাতীয়, এমনকি বিভূতিভূষনের ষ্টাইলের লেখাও পাবলিকে খাবে?



সাহিত্য বা শিল্প মান এবং জনপ্রিয়তা সব সময় এক নাও হতে পারে। আমার নিজের অস্কার পাওয়া বেশীরভাগ ছবিই শেষ পর্যন্ত দেখার ধৈর্য্য থাকে না smile :) :-)



হুমায়ুন আহমেদের মেধা আছে, সাহিত্য গূনও ভালই আছে, তবে তিনি ফরমায়েশি লেখা লিখে চরম বিরক্তি উতপাদন করেছেন সেটাও সত্য।



আমার কাছে তার লেখার সবচেয়ে বড় গুন মনে হয় খুব সরল ভাষায় জীবনের নানান দিক চোখে আংগুল দিয়ে দেখানো। অন্য লেখকদের যেখানে হয়ত নানান নীতি কথা বা বড় বড় দর্শন কপচাতে হতে সেখানে হুমায়ুনের সেসব কিছুই লাগে না, অথচ কি জ্বলন্ত ভাবে দেখাতে পারেন। প্রেম ভালবাসার আবেগ দূঃখ প্রকাশের ভংগীও তার এই রকমই ইউনিক। খুবই জীবনমূখী। আর তার মত সূক্ষ্ম সেন্স অফ হিউমার এই যুগে দুই বাংলাতেই মনে হয় না আর কারো আছে বলে।



বাংলায় ৩৩ কি আমাকে নিয়া কইলেন নাকি???

------------------------------------------------
পৃথিবী আজ দুই ভাগে বিভক্ত। আস্তিক এবং নাস্তিক; আমি অবশ্যই আস্তিকের দলে। যে কম্পিউটরে ব্লগিং করছেন সেও কিন্তু হতে পারে এক ভয়াবহ ঘৃন্য নাস্তিক, আজই পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে নিন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@আদিল মাহমুদ, শেষ থেকে শুরু করি। আপনিও মিয়া ইলজাম লাগিয়ে দিলেন। আরে না, আপনাকে নিয়ে বলিনি। আমি সার্বজনীন উক্তি করেছি। আপনার প্রশ্ন দেখে মনে পড়ল কোন এক জায়গায় এই নিয়ে বলেছিলেন আপনার নিজের কথা। না ভাই, আমি ব্যক্তিগত আক্রমন এখানে করিনি। আর আপনাকে নিয়ে বলতে গেলে, সাহিত্য আপনার ভাল লাগে না, এটাই কারণ হবে মূল্যায়নে কম পাবার। সেখানে আপনি জানেন না বা মূল্যায়নে অধোগতি সম্পন্ন তা বলা যাবে না। কারণ আপনিও লেখালেখি (পোস্ট) করেন আর সেই লেখা থেকেই বুঝা যায়।



হুমায়ুন আহমেদ 'মধ্যাহ্ন' কিন্তু এ যুগের স্টাইলেই লেখেছেন। তারাশঙ্কর বা বিভূতিভূষণ হয়ে লেখেননি। আশাকরি একথা থেকে বুঝে নেবেন আমি শিল্পমান বলতে কি বুঝিয়েছি। হুমায়ুন আহমেদ অবশ্যই গুণী। কিন্তু সেই গুণ তিনি কাজে লাগাচ্ছেন না। উনার নাটকের কথাই ধরি। প্রথমে এক চেটিয়া বাজার ছিল। আমিও পাগলের মত দেখেছি। এই তো 'আজ রবিবার', তারপরে আরও কি জানি না 'সবুজ সাথী' মনে হয়। এরপরে ধীরে ধীরে আর সেই স্থান ধরে রাখেনি। ফারুকীর নাটকও পাবলিক ইচ্ছেমত খায়। লাভলুর নাটকও খায়। আর এদের কারণে হুমায়ুন আহমেদ পড়ন্ত। হুমায়ুন আহমেদের নাটক আর গল্প কিন্তু একই ধারার, তাই নাটককে নিয়ে আসলাম।



কিন্তু কথা সেটা না, কথা হচ্ছে শিল্পমান বজায় রাখা। তার জন্য বঙ্কিমচন্দ্র হতে হবে এমন কথা নেই। শরতচন্দ্র হলেও চলে। এই দুইজনের নাম নিলাম- উদাহরণ দেখাতে। দুজনের বলার ভঙ্গি ও রীতি ভিন্ন। কিন্তু যা করে গেছেন কালজয়ী। হুমায়ুন আহমেদও পারবেন। আর তার প্রমান 'মধ্যাহ্ন' এর মত লেখা। পোস্টের লেখক আরও কয়েকটা নাম দিয়েছেন।অন্যগুলো আমি পড়িনি তাই কিছু বলছি না।



আর আপনার প্রথম প্রশ্নের উত্তর। খাবে না কেন, অবশ্যই খাবে। খাওয়ালে বঙ্কিম-নজরুলও খাবে। আমিও তো সেই পাবলিকের মধ্যে পড়ি। আর আমি তো ব্লগে দেখেছি, আমার মত খানেওয়ালা পাবলিকও অনেক। কিন্তু কঠিন শব্দ, কঠিন লেখা, এসব বলে যারা মুখ ঘুরায় সেটা তাদের দুর্বলতা। তার সাথে ছাইপাশ লেখা আর শিল্পগুণের মিল হতে পারে না।



কিছু কিছু বিষয় আছে যা ক্ষণিকের আবেদন দিয়ে যায়। আর কিছু কিছু চিরস্থায়ী। চানাচুরের ঝাল ছিটা খনিকের আনন্দ দেয়। কিন্তু শুটকি ভর্তায় ঝাল মরিচের আবেদন চিরস্থায়ী। শিল্পমানও তাই। কলসীতে পানি রাখতে হয়। তবে শিল্পমান বজায় রাখতে গিয়ে বঙ্কিমচন্দ্র হতে হবে এমন কথা নেই। সাধু আর ততসমের মিশ্রণ হলেই শিল্প-সম্মত সাহিত্য হয় না। ডাল-চাল মিশালেই কিন্তু খাওয়ার মত খিচুড়ী হয় না। আর রাঁধতে জানলে কমদামী সেদ্ধ চাল আর ডাল জাতীয় কিছু হলেও সুস্বাদু খিচুড়ী রান্না করা যায়।



আসলে ভাই, শিল্পগুণ এমন এক ব্যাপার হাতে ধরে সূত্রের সাহায্যে বুঝানো যায় না। অনুধাবন করে নিতে হয়। আর একজন লেখক যখন নিজের অন্তর থেকে লেখবে তখন আপনাতেই শিল্প হবে। আর যদি লেখার জন্য লেখা আর বাজারের জন্য লেখা হয়, আপনাতেই পাঠকের কাছে ধরা পড়বে। হ্যাঁ কিছুদিন তো পৌঁছাবেই। কারণ নতুন কিছু পাবলিক কেরোসিন হলেও শুঁকে দেখে। পরে আর দেখবে না। ঘরে বউ জায়গা না দিলে মানুষকে পঞ্চাশ টাকায় বাইরে শরীর নিতেও দেখা যায়। পুষ্প শয্যার পালঙ্কে জায়গা না পেলে ঘাসের উপরও প্রবলেম হয় না। কিন্তু কয়দিন? হাঁটুতে তো ব্যথা লাগবে, আর নিচে পাথর থাকলে চামড়াও ছিলতে পারে। তাই খড় হলেও মানুষ তাই খুঁজে। কিন্তু পালঙ্ক, সবসময় শিল্পসম্মত আবেদন নিয়ে থাকে, যেমনে খুশী পালটি নেন কোন সমস্যা নেই। বাতস্যায়ন হোন আর হালের ওয়েস্টার্ন হোন, সবই চলে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনার মন্তব্য যথাত।ভাল লাগলো

mmt


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আলোচনা ও সমালোচনা পড়লাম-একটি জিনিস আমার বলার আছে সেটা হলো জাফর ইকবালের যেমন মৌলবাদ, যুদ্ধপরাধ নিয়ে শক্ত অবস্থান আছে হুমায়ুনের সেটা কোনদিন ছিলনা।হুমায়ুন সবপক্ষকে খুশি রাখতে চাইতেন যেটা তার চরিত্র্রের একটা দু্বল দিক

mmt


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুম।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শেষের কাহিনীটা বেশি জোস।



আমার ছোট মাথায় খুব একটা কিছু ঢোকে না। হুমায়ুন আহমেদের বই পড়া সহজ। এজন্য উনার বইই বেশি পড়া হয়। তবে অধিকাংশ লেখাগুলোর মান সমরেশ, শীর্ষেন্দুর ধারে কাছেও মনে হয় না।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@ময়না পাখি,



আমার ছোট মাথায় খুব একটা কিছু ঢোকে না। হুমায়ুন আহমেদের বই পড়া সহজ। এজন্য উনার বইই বেশি পড়া হয়। তবে অধিকাংশ লেখাগুলোর মান সমরেশ, শীর্ষেন্দুর ধারে কাছেও মনে হয় না।




আপনার ছোট মাথাতেও যতটুকু কুলায় তা ঐ স্বপ্নবাজ মিঠুসহ বাঘা বাঘা ব্লগারদের মাথায় কুলোয় না। smile :) :-)


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@#দেবা ভাই#, বিরক্ত করবো না বলেছিলাম, কিন্তু দুঃখিত ভাই আর ১ বার বিরক্ত করি।



''ঐ স্বপ্নবাজ মিঠু'' তার মন্তব্যে কখনোই দাবি করে নাই যে তিনি ''বাঘা'' ব্লগার বা মহাজ্ঞানী বোদ্ধা টাইপ কিছু,, বরং ঐ মিঠু প্রথমেই বলে নিয়েছে যে তিনি সাধারন আম ব্লগার দয়া করে দেখবেন।



ময়না ভাই যা বলেছে সেটা খুবই সহজ ভাষায় বলেছেন,এখানে ''ঐ বাঘা মিঠুকে আনা প্রয়োজন ছিল কি?? তবে কি ''দেবা'র'' মতো মহাজ্ঞানী ব্লগার গং 'মিঠু বা ময়নার মতো সহজ সরল ঘিলু কম সম্পন্ন ব্লগারের সহজ কিছু বোঝার ক্ষমতাও হারিয়ে ফেলছেন?? অবশ্য আপনি এখন সহজ বা সরল এর অনেক উপরে অবস্থান করছেন।



@রাতের আকাশ, অবশ্যই কেউ সমালোচনার উর্ধ্ধে নয়। কিন্তু সমালোচনা যার সৃষ্টি নিয়ে তার সম্পর্কে ধারনা থাকাটা জরুরী। আমি বলেছি ''লেখালেখি'' যারা পেশা হিসেবে নিয়েছেন তারা যদি বছরে ৪টা উপন্যাস লিখে বসে থাকেন তবে তো ভাই উনারা না খেয়ে মরা যাবেন !! আর তাকে বাজারে লেখক বানিয়েছি এই আমরা।

আমি দেখেছি বিশেষ দিনে-ঈদ,বৈশাখ বিভিন্ন পত্রিকা বা প্রকাশক লাইন দিয়ে দিনের পর দিন হুমাআ বাসায় বসে থাকেন অনেক বড় সম্পাদক বসে আছেন। লেখক যতই বিনীত ভাবে অপরাগততা প্রকাশ করেন কাজ হয় না, আরে স্যার হয়ে যাবে অমুক দিন আবার আসবো, আমদের মত নাছোড়বান্দা ওনাকে ছাড়ছি না, যাই হোক স্যার যা লিখে দেন তবুও দিতে হবে.....।



আমি সাধারন ব্লগার তবে কারো ব্যক্তিগত বিষয়ের সমালোচনা করার অধিকার আমার নেই। তার সৃষ্টি নিয়ে অবশ্যই করতে পারি। কে কয়টা বিয়ে করেছে সে নাস্তিক বা আস্তিক এখানে তো এগুলো আশার কথা নয়।



হ্যাঁ এখন তিনি যা লিখেছেন বা নির্মান করছেন তার বেশি সংখ্যক মানসম্পন্ন না,কিন্তু বর্তমান প্রজন্ম যারা নাটক নির্মান করছেন তার ৯৭% শুধু ভাঁড়ামো না তার চেয়েও বেশি একটু ভাল করে দেখলে বোঝা যায়।



হাতের ৫ আঙ্গুল সমান না তো ১জন লেখকের সব লেখাই কালজয়ী হয় না, অনেক লেখা থেকে ২/৪ সৃষ্টি হয় কালজয়ী এটা তো আমাদের দামি ব্লগার গং দের বোঝা উচিত তাই না?



পদ্মা নদীর মাঝি,প্রাগঐতিহাসিক,সংসপ্তক,সেই সময়,পূর্ব-পশ্চিম,প্রথম আলো,মাধুকরি,পথের পাচাঁলী, আরো অনেক অনেক উপন্যাস ইচ্ছে করলেই সৃষ্টি করা যায় না বা যাবে না।



বাঙালীকে সাধারন স্যালাইন বানানো টাও শিখিয়েছেন, ঝাটকা নিধন ঠিক না বা বৃক্ষ রোপন বা নিধন এর উপকারীতা বা অপকারী বিষয় এক সময় শিখিয়েছেন সেটা কি ভূলে গেছি আমরা ??



আমরা কারো সমলাচোনা করতে গেলেই তার নেগেটিভ বিষয় নিয়ে বা ব্যক্তিগত বিষয় কে টানছি ! কিন্তু কেন?? কে কেমন ছাত্র ছিল কে ৫ম শ্রণীতে ফেল মারছিলো সেই বিষয় নিয় কেন বাহাস করছি। নজরুল ইসলাম এর তো একাডেমিক ব্যাগ গ্রাউন্ড নাই, তাই বলে কি তিনি মেধাবী না?



তাই সাধারন পাঠক হিসেবে মনে হয় আলোচনা-সমালোচনা গুনিদের সৃষ্টি নিয়েই হওয়া উচিত, কারো ব্যক্তিগত বিষয় তার সৃষ্টির মানদন্ড হতে পারে না। লেখক নামাজ পড়েন কিনা আল্লহ মানেন কিনা এসব সমালোচনার বিষয় বস্তু হতে পারে কি???



ভাল থাকবেন দেবা দা সহ সকল ব্লগার বন্ধুরা.....।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@স্বপ্নবাজ মিঠু, উনার পারসনাল বিষয় নিয়ে আমার মাথা ব্যাথা নাই ।কিন্তু একজন লেখক যখন লিখার শিল্পগুনের চেয়ে বানিজ্যের কথা চিন্তা করেন তখনই সব কিছু বদল হয়ে যায়।ঘুরে ফিরে আপনি আমার কথাতেই আসলেন ঊনি এখন যা লিখছেন তা মান সম্মত না।একজন লেখকের সব লিখা ফেমাস হয় না ঠিক কিন্তু একটা স্টেন্ডার্ড রাখতে হয়।কিন্তু উনার কিছুদিন আগের বইগুলো দেখেন মনে হয় না এটা লিখেছেন উনি নিজে।নরমাল সস্তা বাজারি লাগছে।আপনি সুনিল বাবুর কথা দেখেন উনিও এত সস্তা লিখা বাজারে দেন না।আর উনার ভাড়ামী এখানে গেলেই দেখতে পাবেন।

............................................................................................................
ভালোবাসা মানে আগাম চলার সুর,ভালোবাসা মানে অবিরাম চলাবসা


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@স্বপ্নবাজ মিঠু,



আমি বলেছি ''লেখালেখি'' যারা পেশা হিসেবে নিয়েছেন তারা যদি বছরে ৪টা উপন্যাস লিখে বসে থাকেন তবে তো ভাই উনারা না খেয়ে মরা যাবেন !! আর তাকে বাজারে লেখক বানিয়েছি এই আমরা।




এইব্যাপারে একমত!



বাঙালীকে সাধারন স্যালাইন বানানো টাও শিখিয়েছেন, ঝাটকা নিধন ঠিক না বা বৃক্ষ রোপন বা নিধন এর উপকারীতা বা অপকারী বিষয় এক সময় শিখিয়েছেন সেটা কি ভূলে গেছি আমরা ??




এই ব্যাপারেও একমত!



হ্যাঁ এখন তিনি যা লিখেছেন বা নির্মান করছেন তার বেশি সংখ্যক মানসম্পন্ন না,কিন্তু বর্তমান প্রজন্ম যারা নাটক নির্মান করছেন তার ৯৭% শুধু ভাঁড়ামো না তার চেয়েও বেশি একটু ভাল করে দেখলে বোঝা যায়।




এখনকার দিনে ফারুকী গং সহ অন্যান্য গংও ভাঁড়ামো করে, তাই বলে কি তাদের সবাই কোলে নিয়ে নাচে নাকি?? আর উনারা ভাঁড়ামো করেন বলেই কি হু আও ভাঁড়ামো করবেন??



ভাই সবাই ভাঁড়ামো করলে মানায় না। উনার কাছে লোকে অনেক ভালো কিছু আশা করে, ভাঁড়ামো না। সেই রাগ থেকেই লোকে উনার এত সমালোচনা করে।



আর মানুষ যত বিখ্যাত হবেন তাকে তত বেশি সূক্ষ্ণ আতশী কাঁচের নিচে আসতে হবে। এটাই এই দুনিয়ার নিয়ম। উনার সমালোচনাই হবে। কোন এক দেবা ভাই কিংবা কোন এক স্বপ্নবাজ মিঠুর সমালোচনা করার জন্য লোকে বসে নেই।



তাই সাধারন পাঠক হিসেবে মনে হয় আলোচনা-সমালোচনা গুনিদের সৃষ্টি নিয়েই হওয়া উচিত, কারো ব্যক্তিগত বিষয় তার সৃষ্টির মানদন্ড হতে পারে না। লেখক নামাজ পড়েন কিনা আল্লহ মানেন কিনা এসব সমালোচনার বিষয় বস্তু হতে পারে কি???




ঐ বোল্ড করা অংশ নিয়েই আপনার সমস্যা। আমি অনেক বোকা তাই এতক্ষণ বুঝিনি।



এই পোস্টের কোন অংশে উনার নামাজ পড়া নিয়ে সমালোচনা করেছি???



আমি শুধু মাত্র দু'টা ঘটনা তুলে ধরেছি। এটাকে কে ভালো ভাবে নিবেন আর কে খারাপ ভাবে নিবেন তা একান্তই তার ব্যাপার!!



আমার কাছে প্রথম ব্যাপারে মনে হয়েছে তিনি অত্যন্ত যুক্তিসম্পন্ন মানুষ। আর দ্বিতীয়টিতে উনার রসবোধ খুবই চমৎপ্রদ বলে মনে হয়েছে।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@রাতের আকাশ, উনার দক্ষতা নিয়ে যে কারো প্রশ্ন না, প্রশ্ন উনার মান কমে যাওয়া নিয়ে সেই ব্যাপারটাই উনাকে বোঝানো যাচ্ছে না।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

যে লেখক সমরেশ, শীর্ষেন্দুর মত লেখকদের প্রভাব কমিয়ে সীমান্তের ওপারে পাঠাতে পরেন তার মান কোন দিক দিয়ে কম জবাব দেবেন কি ?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@দেবা ভাই ও রাতের আকাশ,



আমার মাথায় মগজের পরিমান খানিক কম, এটা জানিয়ে আমি আলোচনা-সমালোচনা বা মন্তব্য করি।



সত্যি তাই কোথাকার মিঠু বা কোন দেবা কি বললো তা নিয়ে মানুষ বসে নেই। থাকার কথাও নয়।



বোল্ড করা অংশ না আমি বলতে চেয়েছি যে কারো সৃষ্টি নিয়ে এসব ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে আসা আমার মনে হয়েছে ঠিক হয় নি।



উনার লেখার মান কমে যাচ্ছে এটা আমাকে বোঝাতে পারছেন না! এটা ঠিক না, মগজ একটু কম তবুও কিছুটা বুঝতে পেরেছে দেবা দা। বরং আমি আপনাকে বোঝাতে পারিনি যে '' একজন লেখক বা নির্মাতা যারা এটাকে পেশা হিসেবে গ্রহন করে'' তাদের সব লেখা বা নির্মান এর মধ্যে শিল্পগুন ১০০% পাওয়া যাবে না, কারন জীবিকার তাগিদেই তাকে ''ফরমায়েশি'' কাজ করতেই হবে।



হয়তো বছরে যে ২০ টা ফরমায়েশি লেখা লিখছেন এর মধ্য থেকে ২/১ টা মানসম্পন্ন লেখা আমরা আশা করতে পারি, এবং সেটা পাওয়া যায়।

এতে তার লেখার মান কমে যাওয়া আমি বলবো না, কারন তিনি বা তারা এখনো ভাল কিছু আমাদের দিচ্ছেন। সংখ্যাটা কমতে পারে তবে তা জীবিকার তাগিদে, আগে তো তাকে বেঁচে থাকতে হবে তারপর তিনি শিল্পমান নিয়ে ভাববেন,এটাই তো স্বাভাবিক তাই নয় কি???



আমি এই কথাটাই বলতে চেয়েছি। অল্পজ্ঞানী মিঠুর জ্ঞানে কুলোয়নি সেটা আপনাদের বোঝাতে। আমার জ্ঞানসল্পতার জন্য দুঃখিত দেবা দা। ভালো থাকবেন কামনা করি.............।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আরে ভাই তিনি তো লেখাটাকে বৃত্তি হিসেবে নিয়েছেন। কি লিখলেন সেটা বড় কথা নয় বরং কি পরিমাণ লাভ করলেন সেটাই বড় কথা। তাছাড়া তাঁর লেখার বেশিরভাগ পাঠক আমার মত তরুণ আমাদের কি আর লেখার মান বিচার করার সময় আছে?
সময় কাটানো দরকার তাই পড়ি।

-----------------------------------------------------------------------------------------------
মুক্ত চিন্তা


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শুধু সময় কাটানোর জন্য আমি বই পড়ি না। বই পড়ার জন্য তাতে ভালো সাহিত্য, দর্শন এগুলো থাকা প্রয়োজন।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

উনি লেখালেখিটাকে পেশা হিসেবে নিয়েছেন তাহলে সেখানেই থাকুন। মানুষ তার লেখার নান্দনিকতার ভুল বিচার করে উনাকে খুব ভালো লেখক বললে তো হবে না।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এক রাতের মাঝে এই পোস্টের হিট ২০০ বেড়ে গেছে!!


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কি বলব বুঝতে পারছি না Sad

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
ন্যায়ের কথা বলতে আমায় কহ যে
যায় না বলা এমন কথা সহজে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Sad


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ূনের রসবোধ চমৎকার।

_____________________________________________

কঃ কঃ কঃ


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুম


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দেবা ভাই, আপনি আমার একজন প্রিয় ব্লগার।। আপনার পোষ্ট চেষ্টা করি মন দিয়ে পড়তে। তারমানে কি এই যে, আপনার পোষ্টে সাহিত্য ভরপুর? হুমায়ুন আহমেদ একজন লেখক ছিলেন, যার বই অগনিত মানুষ পড়ত। পড়ে ভালো লাগত। ইট-কাঠ-পাথরের শহরে, চারিদিকে অভাব আর সমস্যার অন্তহীনে কেউ যদি মন ভালো করার মতো কিছু লিখে, কারো লেখা পড়ে যদি ক্ষণিকের ভালো লাগে তাহলে কি খুব অন্যায় হবে? সাহিত্য না হোক, শিক্ষনীয় কিছু তাও বা না হোক, নিদারুন আনন্দের জন্য হলেওতো সেটি লেখা হবে এবং তাকে লেখকই বলা হবে। থাক না তাকে নিয়ে আর কাটা-ছেঁড়া।

সত্যি বলতে, দেয়াল বইয়ে তাঁর মিথ্যাচার আমাকে বড় কষ্ট দিয়েছে। জননী ও জোৎস্নার গল্প উপন্যাসে শেখ মুজিবের ভাষণ সম্পর্কেও তাঁর ভুল তথ্য আমি মানতে পারিনি। কিন্তু তাই বলে, তাঁকে কখনো আমার মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী মনে হয়নি বা দূরভিসন্ধিমূলকভাবে জাতিকে, জাতির ইতিহাসকে বিকৃত করার হীন চক্রান্তে লিপ্ত সেরকম কিছু উপলব্দিও হয়নি। "তুই রাজাকার" শ্লোগান তাঁর হাত ধরেই জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

আমি সাহিত্য বুঝিনা, বুঝতে চাইও না। সাহিত্য বোঝার ভান করে নীতি বাক্য করতে তাও চাই না। যে বই আমার কাছে ভালো লাগে, আমার মনে দাগ কাটে, তা সে কৌতুকের বই হোক আর দস্যু বনহুর হোক, তাই আমার কাছে মনের খাদ্য। ভালো থাকবেন।।

**********************************************
ধর্ম যবে শঙ্খ রবে করিবে আহবান, নিরব হয়ে নম্র হয়ে পণ করিও প্রাণ


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমি জানি আমার লেখায় সাহিত্য থাকে না বললেই চলে। তারপরও আমার লেখা আপনার ভাল লাগতেই পারে, সে আপনার পছন্দের স্বাধীনতা। কিন্তু এখন যদি দাবি করে বসেন যে আমি বাংলাদেশের সেরা সাহিত্যিক, তবে তাতে তো বিপত্তি ঘটবেই, তাই না?? হুমায়ূন বাংলাদেশের জনপ্রিয়তম সাহিত্যিক বললে আমার কিছু বলার নেই, এটাই সত্যি। তবে লোকে যখন দাবি করে হুমায়ূন খুব ভালো লেখে তখন আমাই তার প্রতিবাদ করবো। পাঠক কাকে রেখে কাকে লুফে নেবে তা একান্তই তার ইচ্ছে। কিন্তু পাঠক যদি বেশি মান সম্পন্ন লেখা বাদ দিয়ে কম মান সম্পন্ন লেখার দিকেই বেশি দৌড়ায় তবে যদি বলে আমাদের পাঠকের মানই কম, তবে কি অত্যূক্তি হবে??


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ুন আহমেদ কি কখনো নিজে দাবী করেছিল? আমি অন্তত শুনিনি। এখন আলুর মতো পত্রিকা যদি দাবী করে বসে হু আ সেরা সাহিত্যিক তাহলে সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দু কে হবে তা বিবেচ্য।

পাঠক কাকে রেখে কাকে লুফে নেবে তা একান্তই তার ইচ্ছে।


আমিও তাই বলি। ধন্যবাদ।

**********************************************
ধর্ম যবে শঙ্খ রবে করিবে আহবান, নিরব হয়ে নম্র হয়ে পণ করিও প্রাণ


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই ছাগলগুলোর জন্য আরো পিচিয়ে পঢড়ছি আমরা। ভাব দেখে মনে হয় হারভার্ড থেকে সাহিত্যে পি এইচ ডি করেছে ! বাংলা সাহিত্যের মানদন্ড বিচার করার এই মহান দায়ি্ত্ব তাকে কে দিয়েছে?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হ, ভাই, আমি গরু, আমি ছাগল, আমি ভেড়া। আমি এখনো মানুষ হয়ে উঠতে পারি নি।

আর ১৪ মাস আগের একটা পোস্ট কেন বার বার কবর খুঁড়ে বার করছেন??


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সবাইকে বলছি, দয়া করে ১৪ মাস আগের একটা পোস্টকে কবর খুঁড়ে বের করা বন্ধ করুন। আর আমাকে গরু, ছাগল, ভেড়া যা ইচ্ছে তাই বলতে পারেন। আমি জানি আমি মানুষ না, মানবিকতার অনেক গুণই আমাকে স্পর্শ করে না।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ুন আহমেদ আর আমার শিক্ষক মোহাম্মদ আলী বগুড়ার এক স্কুলে পড়তেন। স্যারের কথা অনুযায়ী এই হুমায়ুন আহমেদ স্কুলের নিচের ক্লাশে খুব একটা ভালো ফলাফল করতো না।
এই লাইন টুকু পড়ার পর আপনার লেখা আর পড়তে ইচ্ছে হল না ! ভাই সাব এই গাজাখুড়ি গল্প আপনার হুজুরের ছাত্রদের শোনান ! আমাদেরকে না !!
আর আপনার প্রথম অংটুকু পড়ে মনে হচ্ছে আপনি বড় সাহিত্য বিশারদ হয়ে গেছেন ! সাহিত্যের সঠিক সংঙ্গা কি আপনার জানা আছে ? আমার তো মনে হয় না !!
কোথাকার কোন বালছাল, সে আবার সমলোচনা করে !!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এইখানে এসে ভদ্রভাবে মন্তব্য করবেন নয়তো দূরে থাকবেন। আমি সাহিত্য বিশারদ কীনা সেটা নিয়ে যদি যুক্তিসঙ্গতভাবে আলোচনা করতে পারলে করবেন, নয়তো না। সীমা অতিক্রম করলে আমি করতে বাধ্য হব।


-----------------------------------------------------

আমি পথ চেয়ে আছি মুক্তির আশায়...


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

যে লোকটিকে শেষশ্রদ্ধা জানাতে জ্যামাইকা, নিউওয়ার্ক এর মতো জায়গায় শতশত লোক ভিড় করে, নিজ দেশে হাজার হাজার জনতা কয়েকঘন্টা লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে বৃষ্টিতে ভিজে ফুল নিবেদন করে যা অতীতের সমন্ত রেকর্ড ছাড়িয়ে যায়, যার জন্য কলকাতার মতো জায়গায় বিশিষ্ট সাহিত্যিকরা শোক ও স্মরনসভা করে তাঁর সাহিত্য জ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন তোলার অর্থ বুঝতে হবে এই ধরনের ব্লগারের গুড়াকৃমি রোগ আছে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমায়ুন আহমেদের তুলনা, হুমায়ুন আহমেদ নিজেই। হুমায়ুন আহমেদ নাস্তিক ছিল তুই বেটা কই পাইলি? হুমায়ুনের মত দুই একটা তুই লেইখ্যা দেখা। হুমায়ুন আহমেদ মারা যাবার পর যে শ্রদ্ধা ভালবাসা পাইছে। তুই মরলে একটা নেড়ী কুত্তাও যাইব কই না তাও সন্দেহ আছে।

Md. Abul Hossain

glqxz9283 sfy39587p07