Skip to content

কুহক-এর ব্লগ

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ওয়াক থুহ্

একবার, উচ্ছের শাড়ি জড়ানো পুই লতার দেহ থেকে
বাতাসে ভেসেছিলো পুষ্পের বদলে তামাক পোড়া গন্ধ
বেয়ারা আঙুলটা তখন চিনে নিয়েছিলো
কুমড়োর স্ফীতি। সুন্দর!

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

২. অনুভবে

নিরন্ন মানুষের মৌলবিচিত্র সন্ন্যাস মুজিব-জিয়া ধর্মকল বাজিয়ে
গোপন চোরাবালি পার হয় নারী। স্বচ্ছ বোরখায় ঢেকে লোভী করাল চোখ
তবু ফিরে আসে ফি বছর বেনীবাঁধা সময়ে, বাজেটের কসম
কুণ্ঠিত গৃধুল কাক আমি কথাপরিনামে মরছি সংসদে একচল্লিশ বছর
চরাচর বিধৃত নিভৃত সন্ধ্যায় তোমারও অন্তঃপুরে ডাহুক ডাকে
চোখটি বুজে অনুভব করো ক্রৌঞ্চ বক্তব্য ‘‘যুদ্ধ ও অপরাধীর’’ বিচার চাই।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কতটা কলার চোলাই হলে নেশা জমে?

শীত সপ্তাহের দু’একটা দিন পৌষী আসে মেঘের রাজ্য উপেক্ষা করে একটুকরো ও

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পাথরের পরকীয়া পাপ

মননের জ্বলন নেভে না ক’ফোট নয়না-সারে
স্মৃতির দুয়ারে মাথা-কুটে, ভাঙ্গে সব আগর
অ-সন্মানের ধৃষ্টতার দেয়াল ভাঙ্গে না,

স্বর্গের কপাট খুলেছি দেবী
স্বেচ্ছাচারী বেভুল বসন্তের ছায়ে
গায়ে জড়িয়েছি আজ

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নপুংসক ধর্মের ঈশ্বর প্রেমী...

স্ব এর মাঝে নাই বলবার অধিকার
হলুদ সংবাদে নিত্য জয়, জয় কার
স্বাধীনতা
আরে ছো:
দোনলা বন্দুকের অধিকার
মোরে চেনো !!
এক নলে যুদ্ধের অপরাধ উবগার
অন্যটায় রাজা রূপের আকার।।

মিথ্যে আজ ট্যাংক পিটানোর ব

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মিত্রাক্ষরের পীযুষ তৃষ্ণা

ফ্যাকাসে চন্দ্রায়ন ক্ষীণ হলে ঊষার আগমনে কল-কাকলি মুখরিত সুরের মূর্ছনায় ধরার নৈঃশব্দ্য ভেঙ্গে চরাচর জেগে ওঠে আর আমি বামুন হয়ে সারারাত শশীকে ধরবার নেশায় মত্ত থাকি আরে ভোর এলেই ঠিক ঐ সময়ে ঢলে পরি নি

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধুপমেশালী রূপালী ময়ঙ্ক বান

মরণ বাঁচনের অধিকারকে
তোমার হাতে দিয়ে
মিনতি করজোড়ে
বনমালী তোমার ক

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হিংসুক একাকী একা, ঈশ্বরের মতো



আগুন বোধের চিত্ত অহংকার যখন বলে ওঠে আমি জ্ঞানী, তখন অনল বুদ্ধির অন্তরিন্দ্রিয়তায় অন্য সত্ত্বা সায় দেয়, ঠিক ঠিক ঠিক, তখনই বহ্নির অনুভব শক্তির হৃদয় হয় দিশেহারা, আর আমার ভাবতে ভালো লাগে আমি গো-শালা প্রীতির গাধা।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ময়ঙ্কবানের মুক্তদানা জোঁনাক

ভালো লাগা দুঃখ বোধগুলো
যখন বিভ্রান্তি নিয়ে
ফুসফুসের শ্বাষ কস্ট হয়,
কবিতার এক একটা শব্দ
এক একটা জোঁনাক পোকা হয়
তখন যাযাবর জোৎস্নার অবগাহনে
শুদ্ধতার আশায়
প্রগাঢ় তামশকে পাপ ভাবি,
ঠিক তক্ষুনি মন

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মগ্নতার মৃত কফিনের মমি


জীবৎকালের ভোগাধিকারে লেখ গুল্মগুলো যখন শব্দ জঠরে স্বরবর্ণের মৌলিক অধিকারে ভ্রুন হয়ে হাত-পা গজিয়ে বাতাস লাগা পোয়াতী নৌকার পালে তরতর করে ঢেউয়ের পথঘাট মাড়িয়ে কোর্ট-কাচারীর পাশে ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে ওঠা টাইপিং নামক আঁতুর ঘরে খটাখট শব্দ তুলে প্রসব কাতর যন্ত্রনায় ছটফট করে বাংলা বাজারের প্রকাশনা শিল্পের হাসপাতালে এডিটর ডাক্তারের টেবিলে একটি কাব্য সন্তান প্রসব বেদনায় অস্থির হয়ে ফোরসেপ নামক কলমের কাটাকুটির পর আক্ষেপের সেলাই সম্পন্ন করে তখন বোধকরি ৭১ এর দুই লক্ষ মা-বোনের সম্ভ্রম হারানোর চিৎকারও লজ্জ্বা পায়। তবে হে কাব্য, তোমার জন্যে আবারো আমি খাতা-পেন্সিলের ফসলী মাঠে বীজ বপ্তাই নতুন জন্মের অভিলাসে।

Syndicate content
glqxz9283 sfy39587p07