Skip to content

জিজ্ঞাসা পোস্ট- লাঠিটা কার ? মুসা(আঃ) না হারুন(আঃ) এর ?

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি



উনার লাঠি বা আসা নিয়ে সূরা তা'হায় বলা হয়েছে-


১৯। [আল্লাহ্‌ ] বলেছিলো, " হে মুসা ! তুমি ইহা নিক্ষেপ কর।"
২০। সে উহা নিক্ষেপ করলো এবং দেখো! সেটা সাপ হয়ে নড়াচড়া করতে থাকলো
২১। [আল্লাহ্‌ ] বলেছিলেন, " ইহাকে ধর, ভয় পেয়ো না। আমি তৎক্ষণাত ইহাকে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে আনবো।

আসল কথা আল্লাহ মুসা(আঃ)কে একটা ক্ষমতা দিয়েছিল তার লাঠির মাধ্যমে। যা দিয়ে ফেরাউন যাদুকরদের যাদু ক্ষমতাকে খর্ব করেছিলেন আবার অন্যদিকে নীল লোহিত সাগরকে দুইভাগ করে দিয়েছিলেন আঘাত করে। এমনকি সেই লাঠি ঠেকে উজ্জ্বল আলো বিচ্ছুরিত তার অনুসারীদের পথ দেখিয়েছেন ঘোর আধারে।


সুরা : আল-আ'রাফ, আয়াত : ১১৫-১১৯
এর বাংলা অনুবাদ এইরকম-

১১৫. জাদুকররা মুসা (আ.)-কে বলল, হে মুসা, আপনি চাইলে আপনার কৃতকৌশল আগে নিক্ষেপ করুন, নয়তো আমরা আমাদের কৃতকৌশল নিক্ষেপ করব।
১১৬. মুসা বললেন, তোমরাই নিক্ষেপ করো। সুতরাং যখন তারা তাদের কৃতকৌশল নিক্ষেপ করল, তখন দেখা গেল, তারা লোকদের দৃষ্টিশক্তির ওপর ইন্দ্রজাল বিস্তার করেছে। তারা মানুষদের আতঙ্কিত করল এবং বিরাট জাদু নিক্ষেপ করল।
১১৭. আর এদিকে আমি ওহির মাধ্যমে মুসাকে নির্দেশ করলাম, তুমি তোমার লাঠি নিক্ষেপ করো। তারপর তো এ ঘটনা ঘটল যে সেটি ওদের অর্থাৎ জাদুকরদের জিনিসগুলো গ্রাস করতে লাগল, যা তারা ভেল্কিবাজির মাধ্যমে সাজিয়েছিল।
১১৮. এভাবে সত্য সবার সামনে স্পষ্ট হয়ে গেল এবং তাদের সব কৃতকৌশল মিথ্যা প্রতিপন্ন হলো।
১১৯. তারা (জাদুকররা) সেখানে পরাজিত হলো এবং অপমানিত হয়ে ফিরে গেল।

ব্যাখ্যা : এই আয়াতগুলোর মাধ্যমে মুসা (আ.)-এর সঙ্গে ফেরাউনের জাদুকরদের যে মোকাবিলা হয়েছিল, তার বিবরণ দেওয়া হয়েছে। সেদিন ফেরাউনের জাদুকররা দারুণভাবে পর্যুদস্ত হয়েছিল। ফেরাউন ও তার সভাসদরা ভেবেছিল, মুসা বোধ হয় একজন দক্ষ জাদুকর। তাই তারা তাদের অনুগত জাদুকরদের দিয়ে তাঁর মোকাবিলা করার উদ্যোগ নিয়েছিল। কিন্তু কার্যস্থলে দেখা গেল, মুসা (আ.)-এর মুজিজার অজগর জাদুকরদের জাদুমন্ত্রের কৃতকৌশলে তৈরি করা সব কিছু খেয়ে ফেলছে এবং তছনছ করে দিচ্ছে। এখানে ঘটনাটির কিছুটা বিবরণ দেওয়া হয়েছে। মোকাবিলা শুরু হওয়ার আগে তাদের মধ্যে আলোচনা চলছিল কে আগে আক্রমণ করে। জাদুকররা মুসা (আ.)-কে আগে আক্রমণ করার আহ্বান জানিয়েছিল। কিন্তু তিনি আগে আক্রমণে এলেন না। তিনি জাদুকরদের আগে আক্রমণ করার আহ্বান জানালেন। জাদুকররা মাঠে নেমে তাদের জাদুর মহড়া প্রদর্শন করতে লাগল। তারা ভয়ংকর সব জাদু ও ভেল্কিবাজি দেখাতে লাগল, যা দেখে দর্শকসাধারণ আতঙ্কিত হয়ে গেল। এমন অবস্থায় মুসা (আ.) আল্লাহর নির্দেশে তাঁর লাঠি মোকাবিলার জন্য মাঠে ছেড়ে দিলেন। তখনই সেই লাঠি অজগরের রূপ ধারণ করে জাদুকরদের তৈরি করা ভেল্কিবাজির সব কিছু গ্রাস করতে লাগল। কথিত আছে, অজগরটি এত বিরাট আকার ধারণ করেছিল যে এটা হাঁ করলে এক চোয়াল মাটিতে আর অন্য চোয়াল ফেরাউনের প্রাসাদের কার্নিশের ওপর উঠে যেত। এতে ফেরাউন ভীষণ ভয় পেয়ে গেল। দর্শনার্থী নগরবাসী তখন ভয় পেয়ে দিগ্বিদিক পালাতে শুরু করল। মুজিজার অজগর দর্শনার্থীদের প্রতি ধাওয়া করে ভয় দেখাল। ফেরাউন মুসা (আ.)-কে তার মুজিজা থামানোর অনুরোধ জানালেন। তিনি তখন মুসা (আ.)-এর প্রতি বিনীত হয়ে তাঁর লাঠি হাতে তুলে নেওয়ার জন্য কাকুতি-মিনতি করলেন। ফেরাউন তাঁর কাছে পরাজয় স্বীকার করলেন এবং তাঁর নবুয়তে বিশ্বাস স্থাপন করার আশ্বাসও দিলেন। মুসা (আ.) যখন অজগরটি ধরলেন, তখন সেটি আবার লাঠিতে পরিণত হয়ে ।



এই সেই মুসার(আঃ) লাঠি (তুরস্কের তপকপি মিউজিয়ামে নাকি রাখা আছে।)




উপরের কাহিনীগুলা ধর্ম থেকে মোল্লা সবার কাছেই শুনেছি কিন্তু এক জায়গায় বলা আছে এইটা হারুন(আঃ) এর লাঠি। এইখানে প্যাচ লাইগ্যা গেছে আমার।

মাবুদ মূসা ও হারুনকে আরও বললেন,

9 “ফেরাউন যখন তোমাদের কোন অলৌকিক চিহ্ন-কাজ করে দেখাতে বলবে, তখন তুমি হারুনকে বোলো, ‘ফেরাউনের সামনে তোমার লাঠিটা ফেল,’ আর তাতে সেটা সাপ হয়ে যাবে।”
10 মাবুদ তাঁদের যা বলেছিলেন মূসা ও হারুন ফেরাউনের কাছে গিয়ে ঠিক তা-ই করলেন। হারুন তাঁর লাঠিটা ফেরাউন ও তাঁর কর্মচারীদের সামনে ফেললেন, আর সেটা সাপ হয়ে গেল। 11 ফেরাউন গুণিনদের এবং নেশার জিনিস কাজে লাগানো কুহকীদের, অর্থাৎ তাঁর জাদুকরদের ডেকে পাঠালেন। তারাও তাদের জাদুমন্ত্রের জোরে সেই একই কাজ করল। 12 তারা প্রত্যেকেই তাদের লাঠি মাটিতে ফেলল এবং সেগুলো সাপ হয়ে গেল, কিন্তু হারুনের লাঠিটা তাদের লাঠিগুলোকে গিলে ফেলল।


আরেকটা প্রশ্ন মিউজিয়ামে রক্ষিত লাঠিটার এখনও অলৌকিক শক্তি আছে ? তাইলে কইলাম চুরি করুম।

মন্তব্য


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রথমে এই লাঠির কার্বন ডেটিং করার ব্যবস্থা করেন। smile :) :-)

-
একবার রাজাকার মানে চিরকাল রাজাকার; কিন্তু একবার মুক্তিযোদ্ধা মানে চিরকাল মুক্তিযোদ্ধা নয়। -হুমায়ুন আজাদ


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ঐটা কেমি ভাইয়ের কাম

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আরেকটা প্রশ্ন মিউজিয়ামে রক্ষিত লাঠিটার এখনও অলৌকিক শক্তি আছে ?


অলৌকিক শক্তি থাকলে এটা ইংল্যান্ডের যাদুঘরে থাকতো।
---------------------------------------------------------------------------------------

আমি আমার ভেতরে প্রতিনিয়ত বংশবৃদ্ধি করছি
যেমনটি করে থাকে অকোষী জীব হাইড্রা ।
বিলুপ্ততা ঠেকানোর কিংবা টিকে থাকার লক্ষ্যে নয়
নশ্বরতা আবিস্কারের লক্ষ্যে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হয় নাই,নিজামীর হাতে থাকত Wink

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

smile :) :-)

..............................................................

সেদিন উতলা প্রাণে, হৃদয় মগন গানে,
কবি এক জাগে_
কত কথা পুষ্পপ্রায় বিকশি তুলিতে চায়
কত অনুরাগে
একদিন শতবর্ষ আগে।।
আজি হতে শতবর্ষ পরে
এখন করিছে গান সে কোন্ নূতন কবি
তোমাদের ঘরে!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মুচকি মারেন কেন ?

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লাঠির জবাব হাসি দিয়া দিলাম আর কি। গ্যালারিতে ছিলাম এতক্ষণ তবে ধমাধম গুরু তো আসলো না । Sad

..............................................................

সেদিন উতলা প্রাণে, হৃদয় মগন গানে,
কবি এক জাগে_
কত কথা পুষ্পপ্রায় বিকশি তুলিতে চায়
কত অনুরাগে
একদিন শতবর্ষ আগে।।
আজি হতে শতবর্ষ পরে
এখন করিছে গান সে কোন্ নূতন কবি
তোমাদের ঘরে!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কোন খাবার না নিয়ে গ্যালারিতে বসলাম Wink

-----------------------
The road to success is always under construction....


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লাভ নাই,জমত না Wink

___________
জয় বাংলা,জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধমাধম বাবা কই??


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Puzzled

*************************************************************************************
আমি অতো তাড়াতাড়ি কোথাও যেতে চাই না;
আমার জীবন যা চায় সেখানে হেঁটে হেঁটে পৌঁছুবার সময় আছে,
পৌঁছে অনেকক্ষণ বসে অপেক্ষা করবার অবসর আছে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

উদাসিদার আবার কি হোল??

..............................................................

সেদিন উতলা প্রাণে, হৃদয় মগন গানে,
কবি এক জাগে_
কত কথা পুষ্পপ্রায় বিকশি তুলিতে চায়
কত অনুরাগে
একদিন শতবর্ষ আগে।।
আজি হতে শতবর্ষ পরে
এখন করিছে গান সে কোন্ নূতন কবি
তোমাদের ঘরে!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লাঠিটা আমার

------------------------------------
ছোট বেলায় গাধার দুধ খেয়ে বড় হয়েছি বলে এখন মনে হয় সবাই আমার মত গাধার দুধ খেয়েই বড় হয়- আফসান চৌধুরী, নির্বাহী সম্পাদক, বিডিনিউজটোয়েন্টিফোরডটকম


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

১৭। " হে মুসা তোমার ডান হাতে কি ? "

১৮। সে বলেছিলো, " এটা আমার লাঠি ২৫৪৮। এর উপরে আমি ভর দিই ; এর দ্বারা আঘাত করে আমি আমার মেষপালের জন্য বৃক্ষপত্র ফেলে থাকি; এটা অন্যান্য ব্যবহারেও লাগে।"

সূরা তা - হা
লাঠিতো মূসা (আ) এরই

----------------------------------
© সমান্তরাল ®


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লাঠিটা তো একটু বেকাঁ ছিল। আপনার ছবিটাতে লাঠিটা সোজা কেন?

--------------------------------------------------------
সোনালী স্বপ্ন বুনেছি
পথ দিয়েছি আধারী রাত ........


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমার কাছে যে মুসা বর্তমান,তার কাছেও একটা লাঠি আছে।সে ই যাদুকরের সব যাদু ধুলিস্যাৎ করে দিয়ে চলেছে।


সত্য সহায়।গুরুজী।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মুসা না হারুনের তা কইতে ফারুম না।
মাগার লাডিডা আমার না।
Laughing out loud Laughing out loud Laughing out loud Laughing out loud

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
আমি ঘরে ফিরবো, কিন্তু ফিরতে গিয়ে দেখলাম আমি বাড়ি ফিরেছি। আমার ঘরে ফেরা আর হল না...(সংগৃহীত)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমাদের ফেরআউনদের ভেল্কিবাজী বন্ধ করতে এই লাঠিটাই খুঁজছে বাংলাদেশ।

__
দুই ধরন ধরণীর অধিবাসীর--
যাদের বুদ্ধি আছে, নাই ধর্ম,
আর যাদের ধর্ম আছে, অভাব বুদ্ধির।
--একাদশ শতকের অন্ধ আরব কবি আবুল 'আলা আল-মা'আররি।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

গ্যালারীতে বইলাম।

======================================================
তোমায় ভালবাসা ছাড়া আর কোন উপায় নাই,তাই কেবলি ভালবেসে যাই.........


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মুসা নবী ছিলেন না; ছিলেন প্রতিবাদী কন্ঠ, তখনকার বিপ্লবী।

সুরা যিনি রচনা করেছেন, তিনি মুসার কাহিনী শুনেই রচনা করেছেন।

মরুভুমিতে, পাহাড়িয়া এলাকায় চলার সময় মানুষ লাঠি ব্যবহার করতো।
মুসা ফেরাউনদের কবল থেকে ৭০০০/৮০০০ হাজার ইহুদীকে নিয়ে সিনাই এলাকায় পৌঁছেন।
সুরা ইত্যাদি পরে মানুষ লিখেছে, উনাকে রূপকাথার নায়ক বানিয়েছেন। ততকালীন সময় কেহকে বড় করে দেখানোর জন্য ধর্মীয় নেতা করা হতো।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@ ফারমার,


মুসা নবী ছিলেন না; ছিলেন প্রতিবাদী কন্ঠ, তখনকার বিপ্লবী।

সুরা যিনি রচনা করেছেন, তিনি মুসার কাহিনী শুনেই রচনা করেছেন।



মিশরীয় ইতিহাসে অথবা ওয়ার্ল্ড হিষ্টরি বইয়ে তথাকথিত exodus কাহিনি ও মুসা নামে কোন ব্যক্তির অস্থিত্বই নাই। সম্পূর্ণ exodus মুসা-হারুন, ফেরাউন, সাপ-লাঠি, নীল-নদ কাহিনি বানোয়াট ও মিথ্যা। তাওরাত জবুরের কাহিনি যেভাবে সত্য, ঠাকুর মার ঝুলির কাহিনির ঠাকুর মা ও তার ঝুলিও সত্য।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আকাশ মালিককে-

তাওরাত জবুরের কাহিনি যেভাবে সত্য, ঠাকুর মার ঝুলির কাহিনির ঠাকুর মা ও তার ঝুলিও সত্য।

তাওরাত জবুর ও কোরআনে যে মুসার কথা বলেছে।সে মুসা এখন ও বর্তমান।তার লাঠি ও বর্তমান।এবং লাঠির ক্ষমতাও বর্তমানে বিদ্যমান।

আর কু-সংস্কারবাদীরা মুসাকে যে ভাবে উপস্থাপন করেছে,তা ঠাকুর মার ঝুলির কাহিনির ঠাকুর মা ও তার ঝুলিও সত্য এর মত।

সত্য সহায়।গুরুজী।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

@ সিরাজুল ইসলাম,

তাওরাত জবুর ও কোরআনে যে মুসার কথা বলেছে।সে মুসা এখন ও বর্তমান।তার লাঠি ও বর্তমান।এবং লাঠির ক্ষমতাও বর্তমানে বিদ্যমান।



আর ফেরাউন নাই? তো লাঠিটা ঘরে রেখে তো লাভ নাই, ছাড়েন না একবার।

এক হুজুরের ওয়াজের ক্যাসেট থেকে কিছুটা এখানে তুলে দিলাম-

একদিন আদম দেখলেন, বেহেস্তের এক কোণে তাঁরই মতো কিন্তু তাঁর চেয়ে সুন্দর একটি মানুষ বসে আছেন। বেহেস্তের আয়নায় নিজেকে দেখে আদমের মনে হিংসা ও দুঃখের উদ্রেক হলো। আদমের মন খারাপ দেখে আল্লাহ পাক তার গালে দাঁড়ির ব্যবস্থা করে দিলেন। আদম তা দেখে বেজায় খুশী হলেন। তাঁর মনে সুন্দর মানুষটিকে ছুঁয়ে দেখার বাসনা জাগ্রত হলো। অমনি আল্লাহর কাছ থেকে নিষেধ আসলো, ‘হে আদম, খবরদার হাওয়াকে ছুঁইওনা, হাওয়ার গায়ে হাত দেয়ার আগে মোহরানা আদায় করতে হবে’। আদম বললেন হে প্রভু, এখানে মোহরানা দেয়ার মতো কিছু যে আমার নাই’। আল্লাহ বললেন, ‘আদম, বেহেস্তের চারিদিকে চেয়ে দেখো’। আদম বললেন, ‘প্রভু দয়াময়, বেহেস্তের চারিদিকে, উপরে নীচে, ডানে বামে, গাছের পাতায় পাতায়, তোরণে তোরণে আপনার নামের পাশে একটা নাম দেখছি, মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ’। আল্লাহ বললেন, ‘আদম, ঐ নামে দশবার দরুদ শরিফ পড়ো, তোমার মোহরানা আদায় হয়ে যাবে’। আদম তা’ই করলেন, আদম হাওয়ার বিয়ে হয়ে গেলো। আল্লাহ, আদম ও হাওয়াকে গন্ধম বৃক্ষের নিকটে যেতে নিষেধ করলেন। একদিন ইবলিস শয়তান মা হাওয়াকে বললো, ‘দেখো এখান থেকে বহু দূরে আল্লাহ একটি দুনিয়া সৃষ্টি করেছেন, তোমাদেরকে সেখানে পাঠিয়ে দিবেন, সেখানে বেহেস্তের সুযোগ সুবিধে নেই। বেহেস্তে থাকতে হলে তোমাদেরকে গন্ধম বৃক্ষের ফল খেতে হবে’। বেহেস্তে সুখের লোভে বিবি হাওয়া আল্লাহর কথা অমান্য করলেন এবং ধীরে ধীরে নিষিদ্ধ গাছের নীচে এসে দাঁড়ালেন। হাওয়া লক্ষ্য করলেন, ফলগুলো তাঁর হাতের নাগালের সামান্য বাইরে। তিনি দু পায়ের বুড়ী আঙ্গুলের উপর ভর করে দাঁড়ালেন, অমনি তাঁর পায়ের গোড়ালী থেকে কিছুটা কাপড় উপরে উঠে যায়। হাওয়া মুখ তোলে উপরের দিকে তাকালেন, অমনি তাঁর মুখের ও মাথার কিছুটা কাপড় খোলে যায়। তিনি দুহাত উঁচু করে ফলের দিকে হাত বাড়ালেন, অমনি হাতের কাপড় কনুই পর্যন্ত অনাবৃত হয়ে যায়। সেদিন মা হাওয়ার শরীরের চার যায়গা অনাবৃত হয়েছিল, এ জন্যে সেদিন থেকে জগতের মানুষের জন্যে ওজুর চার ফরজ নির্ধারিত হয়ে যায়। আল্লাহর আদেশ অমান্য করায় বাবা আদম, মা হাওয়ার উপর ভীষণ রাগান্বিত হলেন এবং হাওয়াকে তাঁর অপরাধের শাস্তি দেয়ার লক্ষ্যে পাশের জয়তুন গাছের একটি ডাল ভেঙ্গে নিয়ে এলেন। এই ভাঙ্গা জয়তুনের ডালটাই ছিল হজরত মুসা নবীর হাতের আশা বা লাঠি, যে লাঠি সর্প হয়ে ফেরাউনের ১২ হাজার বিষাক্ত সাপকে একশ্বাসে গ্রাস করেছিল। সেদিন মুসা নবীর সেই লাঠি ৪০মাইল লম্বা অজগর হয়েছিল, যা দেখে ভয়ে ফেরাউন একদিনে ২০০বার টয়লেট করেছিল।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আকাশ মালিককে-

ফেরাউন ও বর্তমান।

কাহিনী সব সত্য,কিন্ত ঐ কথাগুলোর দর্শণ আছে।এবং সবই বর্তমান।

সত্য সহায়।গুরুজী।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাইবেলের ও ইহুদীদের তওরাতের কাহিনীতেও কি হারুনের নাম আছে ?

____________________________________
একটা টাইম মেশিন দরকার ছিল, কেউ কি ধার দিবেন ?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আছে । তবে Aaron নামে।

*************************************************************************************
আমি অতো তাড়াতাড়ি কোথাও যেতে চাই না;
আমার জীবন যা চায় সেখানে হেঁটে হেঁটে পৌঁছুবার সময় আছে,
পৌঁছে অনেকক্ষণ বসে অপেক্ষা করবার অবসর আছে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লাঠি মুসা রে ই দিলাম, তালগাছ হইলে ছাড়ুম না Wink

~-^
উদ্ভ্রান্ত বসে থাকি হাজারদুয়ারে!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বেকার প্রপিককে কাটা ছিড়া করলে যে লাঠিটা বের হবে তা অনেকটা মুসা কাক্কুর লাঠির মত। তাই লাঠিটা বেকার হইতে পারে।

______________________________________
'বিপ্লব স্পন্দিত বুকে মনে হয় আমিই মুজিব'


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Amader barite ase.

“ জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দিব স্বপ্নের দ্বার
আগামীর দিন শুধু সম্ভাবনার “ @m#


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

যদি এমন হত এই লাঠি নিয়ে আসলে প্রথমে যুদ্ধাপরাধী তারপর ভন্ড মওদুদীবাদী জামাত শিবিরদের খেয়ে ফেলত।
আমি যতটুকু জানি এটা মুসা (আ) এর লাঠি ছিল। (পরে হয়ত তা হারুন (আ)এর কাছে যেতে পারে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমাদের ফেরআউনদের ভেল্কিবাজী বন্ধ করতে এই লাঠিটাই খুঁজছে বাংলাদেশ। Laughing out loud Laughing out loud

===============================
তার আঁখি দুটি ছলছল মৃদু হাসি বদন খানায়
দেখলে যায় রে চেনা।
মহা ভাবের মানুষ হয় যে জনা ......


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাংলাদেশী ফেরাউনদের এখন রোখাই সবচেয়ে বড় কাজ । ঐ লাঠিটা কি পাওয়া সম্ভব ?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লাঠিটা মূসা আঃ এর। হতে পারে কিছু কিছু মোল্লা ভাই আলোচনায় আসার জন্য লাঠির মালিকানা হস্তান্তর করে।

.
.
..
"তোমাকে ভুলিতে কি সাধ্য আছে মোর
তুমি যে আমার কাক ডাকা ভোর ।।"

glqxz9283 sfy39587p07