Skip to content

অম্ল মধুর: বিদেশী বাবা, দেশী বাবা

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি


উইক এন্ড কল করছি, একাই তিন হাসপাতাল সামলাতে হয় এসময়। Friday সন্ধ্যা থেকে Monday সকাল পর্যন্ত। পেশেন্ট খুব বেশী না থাকলেও দূরত্বের জন্য ড্রাইভেই অনেক সময় লেগে যায় তাই দিনের শেষে বিধ্বস্ত অবস্থায় বাড়ী ফিরি, আজো তাই।

বাড়ীতে দুই মেয়ে অধির অপেক্ষায়, পাখির বাসায় ছানাদের মতো, মা এলে তবে রাতের খাওয়া, ঘুমোতে যাওয়া....। আজ একটু তাড়াতাড়ি কাজ শেষ হয়ে যাবে ভেবে আগেই বরকে ফোন করে বলেছিলাম, ফ্রিজ থেকে চিকেন নামিয়ে মেরিনেড করে রাখতে যাতে ফিরেই রান্না করতে পারি। বাবা-মেয়েদের অবশ্য carry out এ আপত্তি নেই, কিন্তু সারাদিন বাইরে হাবিজাবি খেয়ে রাতে একটু দেশী খাবার না হলে আমারই গলা দিয়ে নামতে চায়না ।তাই একান্ত অপারগ না হলে রান্না করে নেই কিছু না কিছু। আজও তাই করলাম, বিরিয়ানিটা দমে বসিয়ে স্নান করতে ঢুকেছি, কর্কশ শব্দে pager বাজা শুরু হলো। শনিবার সন্ধ্যায় এর আওয়াজ শুনলে রীতিমত কান্না পায়, কি জানি কখন না আবার কোন emergency 'র জন্য হাসপাতালে ফিরে যেতে হয় ! দ্রুত শাওয়ার শেষে বেড়িয়ে আসার আগেই আরো দুবার pager বাজলো ! বুঝে গেলাম, এ নিশ্চিত কোন emergency।

কল ব্যাক করতেই পরিচিত ইমারজেন্সি রুম attending এর উৎকণ্ঠিত গলা। যা বলল তাতে বুঝলাম, a young boy massively fluid overloaded, already intubated for pulmonary edema, acute kidney injury with potassium of 7.8, needs emergent dialysis। এই presentation এর পরে আমার জিজ্ঞাস্য শুধু একটা, "is he thermodynamically stable to tolerate dialysis"? জানলাম, ছেলেটির blood pressure প্রচণ্ড হাই। ওকে বললাম,.." get me an access for dialysis and get someone to consent for the procedure"।ও জানালো যে ছেলেটির বাবা ওর সাথেই আছে কনসেন্ট এর কোন অসুবিধা নেই, ওকে ডায়ালাইসিসের কথা বলাও হয়েছে। আমার ঐ হাসপাতালে যেতে দেড় ঘণ্টারও বেশী লাগবে জানিয়ে ওকে বললাম যতটুকু সম্ভব ম্যানেজ করতে আমি না যাওয়া পর্যন্ত।

ঝড়ের বেগে রেডি হয়ে বেরুবো, মেয়েদের মুখ শুকনো, ছোট মেয়ে কাঁদতে শুরু করলো ! ওকে একটু বললাম ছেলেটির কথা, সে কতো অসুস্থ, কেন মাকে যেতে হবে। ও সাথে সাথে কান্না থামিয়ে, আমাকে বাই দিয়ে দিল। আমার পরিশ্রান্ত চেহারা দেখে মেয়েদের বাবার বোধহয় খুব মায়া হচ্ছিল, ও জানতে চাইলো ওরাও আমার সাথে আসবে কিনা। তাহলে ও ড্রাইভ করবে, আমার একটু রেস্ট হবে। প্রস্তাবটা লোভনীয় হলেও মেয়েদের অনর্থক কষ্টের কথা ভেবে একাই বেড়িয়ে এলাম।

আমার কাজের এই জায়গাটা rural আমেরিকা, যদিও Washington DC থেকে ৭০ মাইলের কম দূরত্বে। স্থানীয়দের অনেকের-ই পড়ালেখা খুব কম, হাইস্কুল মাড়াননি। বেশীরভাগ-ই চাষি, কিছু জেলে, Chesapeake Bay তে মাছ আর কাঁকড়া ধরে জীবন চালায়। প্রথম প্রথম ভীষণ অবাক হতাম অনেকেই ঔষধের নাম বানান করে পড়তে পারত না বলে ! বেশকিছু গরীব লোকজনও আছে যারা ক্যান ফুড আর ফাস্টফুড খেয়ে কাটায়। Health insurance নেই, ঔষধ কিনবার টাকা নেই তবুও সিগারেট আর অ্যালকোহল ছাড়া চলে না। আর সে কারণেই বিভিন্ন ক্যান্সার (specially, lung/prostate/breast) খুব কমন। এখানে এখনো তামাক চাষ হয়, যদিও আগের তুলনায় সামান্য। তবু সব মিলিয়ে অসামান্য সুন্দর এ জায়গাটা, Atlantic ocean এর Chesapeake Bay ঘেঁষে দিগন্ত বিস্তৃত চাষাবাদের জমি, ঘন সবুজ গাছপালা, বন। কাঠবেরালি, হরিণ, গাঙচিল আর বুনোহাঁসেরা ঘুরে-উড়ে বেড়ায় যত্রতত্র, সহজ সরল সব মানুষ । কেমন জানি খুব সহজেই আমার আপন হয়ে গেছে। নিজের গ্রামের কিছুটা আমেজ পাই যেন। এই ভালোলাগার মূল্যও দিতে হয়, যদিও দৃষ্টিনন্দন তবু বড় দীর্ঘ ড্রাইভ কাজের পথে প্রতিদিন। আজ অনেক রাত হয়ে গেছে, কিছুই দেখবার নেই। গাড়ী চালাতে চালাতে ছেলেটির কথাই ভাবছিলাম। এ পর্যন্ত যা history পেয়েছি তাতে জানলাম, home schooling করা এই ছেলে এবং তার বাবার আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানে তীব্র অবিশ্বাস। তাই childhood immunization ও নেয়া হয়নি তার, এতো অসুস্থ হলেও এরা বিভিন্ন রকম alternative medicine ছাড়া আর কোন চিকিৎসা গ্রহণেই রাজী হয়নি। আজ ছেলে যখন মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে তখনই কেবল বাবা শরণাপন্ন হয়েছেন আধুনিক চিকিৎসার। এদেশেও এমন ঘটনা ঘটে ! ক্লান্ত-শ্রান্ত আমার রাগ হচ্ছিল প্রচণ্ড, শনিবার রাতে ৭০ মাইল ড্রাইভ করছি এক নির্বোধ পিতার নির্বুদ্ধিতার খেসারত দিতে, কে জানে ওকে প্রাণে বাঁচানো যাবে কিনা ! রাস্তা থেকে কল করে ডায়ালাইসিস নার্সকে বললাম এসে সব গুছিয়ে নিতে আমি আসার আগেই।

হাসপাতালে পৌঁছে ICU ঢুকে টের পেলাম ছোট্ট এই শহরতলীর ছোট্ট হাসপাতালে এই ছেলেটিকে নিয়ে বেশ গুঞ্জন শুরু হয়ে গেছে । রুগী isolatation এ, মাস্ক, গাউন, গ্লাভস লাগিয়ে ঘরে ঢোকার পরও তীব্র দুর্গন্ধ নাকে লাগল। পেশেন্ট ১৭ বছরের কিশোর, intubated শরীরে অন্তত ৫০ কেজি জল জমে আছে, চামড়া চুইয়ে, চুইয়ে পড়ছে জল, সারা গায়ে দুর্গন্ধময় ক্ষত, কিডনি কাজ করছে না মোটেও। ছেলেটির বাবার খোজ করতেই নার্স জানালো, সে চার্চে প্রার্থনায়, আমার জন্যই অপেক্ষা করছে। কয়েক মিনিটেই বাবা এলেন, মধ্য পঞ্চাশের কাঁচাপাকা চুলের এক সাদা লোক, প্রচণ্ড উদ্বিগ্ন মুখ। আমাকে দেখে যেন একটু স্বস্তি পেলেন। পরিচয় দিয়ে history নেয়া শুরু করলাম। প্রায় মধ্য রাতে এই বাবার সাথে কথা বলতে বলতে আমি পুরোই হতভম্ব ! বিশ্বাস করতে পারছিলাম না, আমি একবিংশ শতাব্দীতে বসে এক আমেরিকান বাবার কথা শুনছি !

দুই বছর আগ হঠাত করেই Patrick এর প্রথম পায়ে জল জমতে শুরু করে, সেসময় ওরা হরিণ শিকার করে তার মাংস খাচ্ছিল খুব। বাবা এবং ছেলের চিরকালই আধুনিক চিকিৎসা শাস্ত্রের প্রতি চরম অবিশ্বাস তাই ডাক্তার দেখায়নি। ওদের ধারনা undercooked মাংস থেকে কিছু একটা জীবাণু ঢুকে গেছে ওর শরীরে। তাই তারা দুজনে মিলে শুরু করে বিভিন্ন cleansing therapy, নেট ঘাটাঘাটি আর ফোক চিকিৎসকদের কাছ থেকে নেয়া কিছু cleansing টনিক এবং টোটকার নাম দেখালেন উনি আমাকে, সংখ্যায় ২০-২৫টি হবে। কিন্তু Patrick এর অবস্থার কোন উন্নতি হয়না। অবশেষে খুব বেশী জল জমে যাবার পড় তারা একজন কার্ডিওলজিস্টের কাছে যায়, সেখান থেকে DC'র একটা হাসপাতালে একজন নেফ্রলজিস্টকে দেখানো হয়। নেফলজিস্ট জানান, ওর নেফ্রটিক সিনড্রোম হয়েছে, কিডনি বায়োপসি এবং immunosupressive therapy দরকার। কিন্তু বাবা আর ছেলে ওসব নিয়ে অনেক পড়াশুনার পর side effects এর ভয়ে সে চিকিৎসা নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আবারো তাদের টোটকায় ফিরে আসে। সেও প্রায় বছর খানেক আগের কথা। গত ছয়মাস ধরে ওর চামড়া ফেটে জল ঝরতে শুরু করে, বাবা প্রতিদিন ছেলেকে পরিষ্কার করে pressure dressing করেছেন। মাস তিনেক আগে থেকে ওর ঘা থেকে দুর্গন্ধ ছড়াতে শুরু করে। তারপরও প্রতিদিন তিনি নিজহাতে করে গেছেন ছেলের wound care আর dressing, আরো intensively চলেছে ওর cleansing therapy । আজ সন্ধ্যায় Patrick যখন প্রচণ্ড শ্বাস কষ্ট পেতে শুরু করে তখন বাবা ভয় পেয়ে এ্যাম্বুলেন্স ডাকেন ! আমি সত্যি সত্যি স্তব্ধ হয়ে বসে রইলাম কয়েক মুহূর্ত। তারপর জানতে চাইলাম, "Since you have been refusing all the conventional therapy for so long what made you to change your mind today" ? বাবা জানান, "when he couldn't breath, I felt I was loosing him...., he is the only one I have, I raised him since his mother passed away at age 4, I can't afford to loose him. Doc, please save him...tell me what I have to do, where I have to sign.........just save him "! আমি ওর কাছ থেকে consent নিয়ে আক্ষেপ করে বললাম, "How did you let him get so sick" ! ও কেবল বলল, "I just wanted to protect him,.. all those side effects...., I didn't want him to suffer from those........"! প্রতিশ্রুতি দিলাম, আমার সাধ্যমত চেষ্টা করবার।

ডায়ালাইসিস নির্বিঘ্নেই শুরু হলো, আমি বসে আছি প্রথম ৪৫ মিনিট কাটবার অপেক্ষায়, অর্ডার, নোট এসব শেষ করে। সেই মধ্যরাতে একা ICU তে বসে মনে পড়ছিল আমার বাবার কথা.........।

ঘটনাটা '৮৭ এর এরশাদ বিরোধী আন্দোলনের সময়, আমি HSC 2nd year- এ পড়ি। বড়দা বুয়েটে, ছোটভাই সদ্য SSC পাশ করে ঢাকা কলেজে ভর্তি হয়েছে। আচমকা একদিন দুপুরে ছোটভাই ফোন করে জানাল, বড়দা প্রচণ্ড অসুস্থ, হরতালের মধ্যেই ambulance এ করে নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়েছে। এখনো ঠিক ডায়াগনোসিস হয়নি, কিন্তু খুব seriously ill। মা ঠাকুরের সামনে বসে অঝোরে কাঁদতে শুরু করলেন, বাবার অস্থির পায়চারী, আর ঘন ঘন দীর্ঘশ্বাস, মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়া মুখ । বাসায় রান্না খাওয়া সব বন্ধ, এক দমবদ্ধ পরিবেশ। আমি কি করব কিছুই বুঝতে পারছি না, মাকে বোঝাতে চাই, কিন্তু কি বোঝাবো, নিজেও কাঁদছি ! বাবার সবচেয়ে বেশী অসহায়ত্ব, ছেলের এ অবস্থায় তাঁকে টাঙ্গাইলে আটকে থাকতে হচ্ছে। ভীষণ রকম কড়া হরতাল, গাড়ী দুরে থাক কোন ট্যাক্সি, এমনকি রিক্সাও চলেনি সেদিন। অবশেষে পৃথিবীর সবচাইতে দীর্ঘ সেই হরতাল ভাঙার সাথে সাথে গাড়ী নিয়ে ঢাকা রওনা হলাম আমরা। সারারাস্তা সবাই চুপ, শুধু মাঝে মাঝে ধরা গলায় মাকে দেয়া বাবার আশ্বাস, "সব ঠিক হয়ে যাবে"।

ঢাকা মেডিকেলের ICU তে বড়দা, intubated, ততক্ষণে একটা ডায়াগনোসিস করেছেন ওয়ার্ডের Assistant Register, "Guillian-Barre Syndrome"। মনে পড়ে বাবা সেদিন সেই Assistant Register সাহেবের হাত ধরে ঠিক Patrick এর বাবার মতো করেই বলেছিলেন, "ডাক্তার সাহেব, আমার ছেলেকে বাঁচান....."। উনি আমাদের আশ্বাসই শুধু দেননি, যথাযথ চিকিৎসাও করেছিলেন বড়দার। পরে মেডিকেল বোর্ড আর spinal tap এ ডায়াগনোসিস কনফার্ম হয়। বড়দা সে যাত্রা বেঁচে যায় ! ওকে বাড়ী নিয়ে আসতে বেশ কিছুদিন সময় লেগেছিল, আমরা প্রতিদিন ICU এর সামনে বসে থাকতাম, আর বাবা আমাকে বোঝাতেন, ডাক্তার হলে এমনি ভাবেই কতো মানুষের জীবন আমিও বাঁচাতে পারবো। সত্যি বলতে, ঐ ঘটনাটা সেই Assistant Register কে রীতিমত এক দেবতার আসনে বসিয়ে দিয়েছিল আমাদের সবার মনে। বাবা-মা যতদিন বেঁচে ছিলেন, তাঁর কথা ভোলেন নি, প্রাণভরে তাকে আশীর্বাদ করেছেন ! বাবার প্রচণ্ড আগ্রহ আর অনুপ্রেরণাতেই আমি দু'বার না ভেবে ডাক্তারি পড়েছিলাম।

খুব রাগ করতে চাইছিলাম Patrick এর বাবার উপর, ছেলেটাতো নিতান্তই বাচ্চা, কিন্তু তার বাবা কি করে এমন বুদ্ধিহীন হন! মনে পড়ল, Steve Jobs এর কথা, Apple 'র CEO, পৃথিবীর smartest মানুষদের একজন হয়েও যিনি pancreatic cancer চিকিৎসার জন্য বেছে নিয়েছেন alternative medicine, আর এতো অর্ধ-শিক্ষিত গ্রাম্য এক পিতা ! রাগ আর করা হয়না, কেন যেন এক অসহায় বাবার করুন আর্তি কানে বাজতে থাকে বারবার..., "I just wanted to protect him.....,..he is the only one I have...., I can't afford to loose him............,..please save him...."! ফিরে আসার আগে তাকে আবারো খুঁজে পাই ICU'র waiting room এ, হাতে বাইবেল নিয়ে চোখ বুজে ছেলের জন্য প্রার্থনা রত!

( Patrick বেঁচে গেছে সে যাত্রা, পরের দিনই extubated হয় ও। কয়েক সপ্তাহ intensive dialysis এর পর ওর ফুলা কমে প্রায় স্বাভাবিক হলে বাড়ী ফিরে যায়। ওর কিডনি failed permanently, সপ্তাহে তিনবার dialysis করতে আসে ও। নতুন প্রাণ পাওয়া সতের বছরের কিশোর, লাজুক হাসি দেয় আমাকে দেখলেই। ওর বাবার সাথে আর দেখা হয়নি আমার, তবে মাঝে মাঝে ছেলেকে দিতে dialysis center এ আসেন শুনেছি। Patrick ওর পূর্ব স্বভাবে ফিরে গেছে, dialysis এ নিয়ম করে এলেও অনেক বোঝানো সত্ত্বেও কিডনি বায়োপসিতে কিছুতেই রাজী হয়নি। বিভিন্ন ঔষধ সহ অনেক কিছুই refuse করে, উত্তর চাইতে চাইতে আর বোঝাতে বোঝাতে ক্লান্ত হয়ে আমিও ছেড়ে দিয়েছি আজকাল। ওর বরাবর মুচকি হেসে দেয়া একই উত্তর, "let me think about the side effects..."।..... যেমন বাবার তেমন ছেলে.....!)

ব্লগের বর্তমান এবং ভবিষ্যতের সব বাবাদের জানাই "বিশ্ব বাবা দিবস"এর শুভেচ্ছা, Happy Father's Day.................!

( ঘটনার চরিত্রগুলো মূলত কাল্পনিক, জীবিত কারো সাথে কোনরকম মিল একেবারে কাকতালীয়)

মন্তব্য


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাবাকে কখনো বলা হয়নি,' আব্বু, আমি তোমায় খুব ভালবাসি"। মুখে না বলতে পারলেও আসলেই সত্য, আমার বাবাকে আমি খুব ভালবাসি।

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~

আপনার জন্য শুভকামনা থাকলো, ভাল থাকবেন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কারও কারও বলার উপায়ই থাকে না।

........................................................................
"আমি সব দেবতারে ছেড়ে
আমার প্রাণের কাছে চলে আসি
বলি আমি এই হৃদয়েরে
সে কেন জলের মত ঘুরে ঘুরে একা কথা কয়!"


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জানি, আমি বলিনি কোনদিন তাঁকে। তবে বাবা নিশ্চয় জানতেন।।।।।।।।।।।। সব বাবাই জানেন। ধন্যবাদ, স্বপ্নমগ্ন পড়বার জন্য।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বলে দেখুন একদিন, বাবা-ই তো! কি আর হবে। ধন্যবাদ আপনাকে, বাঁশদেব ।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনার পোষ্টগুলি ফলো করি, ভালো লাগে। শুভকামনা।

***********************************************************************
"এহনবি জিন্দা আছি, মৌতের হোগায় লাথথি দিয়া
মৌত তক সহি সালামত জিন্দা থাকবার চাই"


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হাদা দা, আপনাকে মিস করছিলাম আমার গত পোস্টে। পড়েছিলেন জেনে ভালো লাগল Wink
হ্যাপি ফাদারস ডে smile :) :-) smile :) :-) smile :) :-) । অনেক ভালো থাকবেন।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাবা দিবসে একেবারে পারফেক্ট একটি লেখা।

-
একবার রাজাকার মানে চিরকাল রাজাকার; কিন্তু একবার মুক্তিযোদ্ধা মানে চিরকাল মুক্তিযোদ্ধা নয়। -হুমায়ুন আজাদ


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সুশান্ত, অনেক ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা। আপনাকে প্রোপিক সমস্যা ঠিক করে দেয়ার উপহার বলতে পারেন! হ্যাপি ফাদারস ডে smile :) :-) । অনেক ভালো থাকবেন।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাবাকে ভালবাসি এ কথাটি কখনো মুখে বলিনি ঠিকই কিন্তু মনে মনে অসংখ্য বার বলা হয়েছে। কতদিন বাবার সাথে দেখা হয় না !!!

===============================
তার আঁখি দুটি ছলছল মৃদু হাসি বদন খানায়
দেখলে যায় রে চেনা।
মহা ভাবের মানুষ হয় যে জনা ......


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নীলয় হাসান, সব কথা কি বলা হয়? ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা, সাথে ফাদারস ডে'র শুভেচ্ছা।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমিও কোন একদিন বাবা দিবস নিয়ে লিখব।
লেখাটার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

........................................................................
"আমি সব দেবতারে ছেড়ে
আমার প্রাণের কাছে চলে আসি
বলি আমি এই হৃদয়েরে
সে কেন জলের মত ঘুরে ঘুরে একা কথা কয়!"


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অপেক্ষায় রইলাম, স্বপ্নমগ্ন।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কিছু ভালবাসার কথা বলার দরকার হয় না। পোস্ট ভাল লেগেছে।

__________________________________
শোনহে অর্বাচিন, জীবন অর্থহীন.............


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা, আমি বাঙ্গাল। সাথে ফাদারস ডে'র শুভেচ্ছা।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অসম্ভব ভাল লাগলো পড়ে।শুভ কামনা

----------------------------------
© সমান্তরাল ®


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ফাদারস ডে'র শুভেচ্ছা, সমান্তরাল । সাথে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাবাকে অপারেশন থিয়েটার থেকে ICU-তে নেওয়ার পর যখন ডাক্তার বড় সন্তান হিসেবে আমাকে ডেকে বললেন “ভোর পর্যন্ত অপেক্ষা করুন, সকালে বলতে পারবো অপারেশন সাকসেসফুল কিনা”। সে রাতটা ছিল আমার জীবনের সবচেয়ে বড় রাত। ভোর হতে কয়েক যুগ লেগেছিল। জানালার গ্লাস দিয়ে ভোরে যখন বাবাকে হাত-পা ছুড়তে দেখেছিলাম, তখন কি যে আনন্দ হচ্ছিল সেটা ভাষায় প্রকাশ করতে পারি নাই। তবে মনে মনে একাই বলেছিলাম “আই লাভ ইউ ড্যাড”। বাবা দিবসে আজও বাবাকে সেই কথাটিই বলেছি।

সুন্দর পোষ্টের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

======================
শিশু অপরাধ করে না ভুল করে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনুলেখা, আপনার বাবা দীর্ঘকাল সুস্থ থাকুন, ভালো থাকুন। হ্যাপি ফাদারস ডে smile :) :-)

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ব্লগে কিছুদিন ধরেই একঘেয়েমি বোধ করছিলাম। আপনার পোস্ট সেটা দূর করলো।

অনেক ধন্যবাদ।

_________________________________________________________________________________

সিগনেচার নাই।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনেক ভাল লাগল জেনে। ফাদারস ডে'র শুভেচ্ছা, মৌচাকে ঢিল । সাথে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

খুব অনবদ্য, সাবলীল লেখা। অনেক অভিনন্দন, শুভেচ্ছা। আরো লিখুন। Star


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বিপ্লব রহমান, অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা পড়বার জন্য। ফাদারস ডে'র শুভেচ্ছা।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লেখাটি অনবদ্য সুন্দর হয়েছে

______________________________________
'বিপ্লব স্পন্দিত বুকে মনে হয় আমিই মুজিব'


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হ্যাপি ফাদারস ডে, পাভেল চৌধুরী। অনেক কৃতজ্ঞতা । ভাল থাকুন।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লিখা ভাল লেগেছে।
---------------------------------------

আমি আমার ভেতরে প্রতিনিয়ত বংশবৃদ্ধি করছি
যেমনটি করে থাকে অকোষী জীব হাইড্রা ।
বিলুপ্ততা ঠেকানোর কিংবা টিকে থাকার লক্ষ্যে নয়
নশ্বরতা আবিস্কারের লক্ষ্যে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ, জটিল বাক্য ।হ্যাপি ফাদারস ডে।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনেক অনেক ভাললাগা জানিয়ে গেলাম ভাই


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনেক অনেক কৃতজ্ঞতা এবং ধন্যবাদ, মাহমুদা পারভীন। ভালো থাকুন অনেক। আপনার সিগনিফিকেন্ট আদার এর জন্য বাবা দিবসের শুভেচ্ছআ smile :) :-)

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সুনদর একটা লেখা। শুভকামনা।

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
আমি ঘরে ফিরবো, কিন্তু ফিরতে গিয়ে দেখলাম আমি বাড়ি ফিরেছি। আমার ঘরে ফেরা আর হল না...(সংগৃহীত)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ, প্রত্যয় । হ্যাপি ফাদারস ডে।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুম আজো আছে এমন কিছু লোক যাদের ধারনা মানুষের মাথা ঘুরিয়ে দিতে পারে। একমাত্র ডাক্তাররাই যাদের সান্নিধ্যে আসে।

===================================================================
যেখানে পাইবে ছাগু আর বাদাম

চলিবে নিশ্চিত উপর্যপরি গদাম...............


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সত্যি অবিশ্বাস্য, তাই না! তবে হ্যাঁ, আমাদের প্রফেশনটা অনেক প্রিভিলেইজ্ড বলতে হবে, মানুষের অনেক কাছে যাবার, অজানা গল্প শোনার সুযোগ পাই। হ্যাপি ফাদারস ডে!

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সুন্দর একটা লেখা। দেরীতে হলেও পড়লাম। না পড়লে, মিস করতাম।

শুভেচ্ছা।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনাকেও অনেক শুভেচ্ছা, শর্মা-ই-আযম। হ্যাপি ফাদারস ডে!

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভালো লাগলো।

*************************************************************************************
আমি অতো তাড়াতাড়ি কোথাও যেতে চাই না;
আমার জীবন যা চায় সেখানে হেঁটে হেঁটে পৌঁছুবার সময় আছে,
পৌঁছে অনেকক্ষণ বসে অপেক্ষা করবার অবসর আছে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ, উদাসী পথিক। কৃতজ্ঞতা পড়বার জন্য। ফাদারস ডে'র শুভেচ্ছা।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Star ভাল লেগেছে।

-------------------------------------------------------------------------------------------------------
৫৪:১৭ আমি কোরআনকে সহজ করে দিয়েছি বোঝার জন্যে। অতএব, কোন চিন্তাশীল আছে কি?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনেক অনেক কৃতজ্ঞতা এবং ধন্যবাদ, ফারুক ভাই। হ্যাপি ফাদারস ডে!

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আজ দীর্ঘ সাত বছর ধরে প্রতিনিয়ত বাবার অভাব অনুভব করে চলেছি। বাবাকে খুব মনে পড়ে ।
চমৎকার লেখা।

=========================================================
স্মৃতি ঝলমল সুনীল মাঠের কাছে আমার অনেক ঋণ আছে......


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাবার অভাব কি পূরণ হয় কোনদিন! Sad Sad Sad । তবে বাবার আশীর্বাদেরও কোন শেষ নেই, মনে রাখবেন। হ্যাপি ফাদারস ডে!

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত অভিমত

আব্বা ভালো- তবে আম্মা আব্বার চেয়ে অনেক বেশি ভালো। অনেক অনেক। তাই এই দিনে আম্মাকে বলি-

আম্মা- কি না কি দিবস আছে, আপনে আব্বাকে শুভেচ্ছা জানায় দিয়েন আমার তরফ থেইক্যা

..................................................................

বারান্দা জুড়ে হাসি অচেনা চোখের জল
বিকেলের শরীর ছুঁয়ে আমার কবিতা চঞ্চল
.. .. .. .. ..
শুধু কবিতাটুকু সত্যি আর সব মিথ্যে নামে আসে
ওই আকাশটাকে দেখো- সে কবিতাই ভালোবাসে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অসাধারণ হয়েছে , অনেক বেশী ভালো লাগলো । আমি ব্লগে নতুন , তাই মনে হচ্ছে আপনার অনেক লেখা মিস করে ফেলেছি ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত উত্তর

নিজের কাউকে কিছু বলার থাকলে সেটা নিজের মুখেই বলা ভাল। Wink

মা ভাল বাবাও ভাল, দুজনে দুরকমের ভালো। মা মায়ের মতো ভাল, বাবার মতো ভাল। জীবনের প্রয়োজনেই সেটা হওয়া দরকার মনে হয়। বাই দ্য ওয়ে শনি, আপনাকে কিন্ত একই জুতো পায়ে দিয়ে চলতে হবে একদিন। ততদিন যদি বাংলা ব্লগ থাকে তবে সত্যি দেখতে চাই আপনার মত পাল্টে যায় কিনা।
smile :) :-) Laughing out loud হ্যাপি ফাদারস ডে! ভালো থাকুন, অনেক ভালো।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

রীতু দি

আমার সন্তান যদি তার মা’কে ভালোবাসতে জানে- শ্রদ্ধা করতে শেখে; তাতেই আমি গর্বিত হবো। আমি মনে করি কোনো সন্তান যদি তাঁর মা’কে ভালোবাসতে পারে, শ্রদ্ধা জানাতে পারে হৃদয় থেকে- যথার্থভাবে- তার দ্বারা কোনো অন্যায় কাজ সম্ভব না।

আর বাবা- ইয়ে মানে, বাবাও ভালো, মানে ওকে, মানে চলে আর কি। আইচ্ছা- বাবাও ঠিকাছে।

..................................................................

বারান্দা জুড়ে হাসি অচেনা চোখের জল
বিকেলের শরীর ছুঁয়ে আমার কবিতা চঞ্চল
.. .. .. .. ..
শুধু কবিতাটুকু সত্যি আর সব মিথ্যে নামে আসে
ওই আকাশটাকে দেখো- সে কবিতাই ভালোবাসে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শনি

মাকে যে সন্তান সত্যিকারের ভালোবাসে তার পক্ষে অপরাধ করা আসলেই কঠিন। তবে মায়ের মমতা আর বাবার দৃঢ়তা দুটোই দরকার সন্তানের জন্য। তাই বাবার দায়িত্ব থেকে পালাবার কোন উপায় নেই! মাকে সব দিয়ে পালাবেন, তা হবে না!!!!!
আমি নিজে মায়ের অনেক বেশী কাছে ছিলাম সারাজীবন, বাবার অনেক সিদ্ধান্তের সাথেই রীতিমত যুদ্ধ করেছি। কিন্তু বাবা অনুপস্থিতি বা উদাসীনতা হয়তো আমাকে আজকের আমি তে আসতে দিতনা।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ পড়বার জন্য।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

"রীতু এর ব্লগ" হিসেব পুরনো লেখাগুলো পেয়ে যাবেন।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

smile :) :-)

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শনিবারের চিঠি, কিছুতেই কেন যেন ঠিক আপনার কমেন্টের পর কমেন্ট করতে পারলাম না।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ব্যাপার না- আমি পড়ে নিয়েছি।

..................................................................

বারান্দা জুড়ে হাসি অচেনা চোখের জল
বিকেলের শরীর ছুঁয়ে আমার কবিতা চঞ্চল
.. .. .. .. ..
শুধু কবিতাটুকু সত্যি আর সব মিথ্যে নামে আসে
ওই আকাশটাকে দেখো- সে কবিতাই ভালোবাসে


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সুন্দর


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ, মু: গোলাম মোর্শদ, শুভেচ্ছা।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ছেলেদের কাছে বাবা, মার চেয়ে একটু কম গুরত্ব পায়। ফ্রয়েডিয় কিচ্ছা কাহিনী বাদ দিয়েই বলতে পারি, ছেলের বাবাকে এড়ানো সম্ভব না। ঘুমিয়ে থাকে শিশুর পিতা সব শিশুরই অন্তরে। বাবাকে বাবা দিবসের শুভেচ্ছা না জানালেও কম ভালবাসি না। তবে মনে হয় মার চেয়ে বেশি না।

************************************
নিজের অস্তিত্বকে জাহির করার কোনো অধিকারই
নেই আমার: আমি হলাম চাঁদের ছেলে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ফ্রয়েডিয় মতামত ঠিক বুঝিনা, আমি চিরকালই মা ন্যাওটা ছিলাম। তবে বাবার জায়গাটা বাবার জন্যই, অন্য কারো নয়। পড়বার জন্য ধন্যবাদ, বাবা দিবসের শুভেচ্ছা

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাবা'র অপারেশন হয় ২০১০ এর ২৯শে মেয়ে। আজকেও এ নিয়ে কথা উঠলো। আব্বু বললো "আমি এখনও ঐ ছেলের জন্য দোয়া করি। সব ডাক্তারদের জন্য দোয়া করি, আল্লাহ তুমি তাদেরকে আরও জ্ঞান দিয়ো, তুমি তাদেরকে অনেক বড় কইরো, অনেক সম্মান দিয়ো, অনেক ভালো রতাইখো। মৃত্যুকে অনেক কাছ থেকে দেখসি আমি তখন, চির জীবনেও আমি ঐ ছেলের কথা ভুলবোনা আমি"

ঢাকা মেডিকেলে চান্স পাবার পরেও যখন একেবারেই মন বসছিলো না মেডিকেলে পড়া শুনা করতে, কলজে ফেটে কান্না পাচ্ছিলো, আব্বু বললো, "বাবা, ডাক্তারেরাই পারে মানুষের একেবারে সবচেয়ে কাছে যেতে, সেবা করতে। আর কেউ এই সুযোগ পায় না। মানুষের এতো বিশুদ্ধ দোয়া আর কোনোখানে তুমি পাবা না", আব্বুর এই এক কথায় ভরসা করে আজ ডাক্তারী পড়ছি।

আপনার সফলতা কামনা করছি, আপনার বাচ্চাদের জন্যও অনেক শুভ কামনা রইলো। কী সুন্দর ভাবে নিজেদের ব্যাপারে না ভেবে ঐ ছেলের কষ্ট বুঝে স্বার্থ ত্যাগ করে আপনাকে যেতে দিলো, ব্যাপারটা অনেক সুন্দর। অনেক ভালো লেগেছে।

পৃথিবীর সকল বাবার জন্য অনেক ভালোবাসা আর সম্মান রইলো, একেকটা দিন জীবন থেকে এভাবে আমাদের জন্য উতসর্গ করে দেবার জন্য।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আসলে ব্যাপারটা এতো কষ্টকর কিছু নয়, মেয়েরা জেনে গেছে আমার জব রিকয়্যারমেন্ট। বাচ্চাদের এ্যাডাপটিভ ক্ষমতা অনেক বেশী, সহজেই মানিয়ে নেয়। দেশে যেহেতু মামা-কাকা, দিদা-দাদু অনেকে থাকেন তাই তাদের এসবের দরকার হয়না। এখানে ডে কেয়ার, আফটার স্কুল এসব করতে হয় পেশাজীবি মা-বাবার বেশীরভাগের ছেলে মেয়েদের।

মানুষ জীবন নিয়ে যে পেশা সেখানে সময় মেনে তো কখনই কাজ চলেনা। অসুখ, মৃত্যু এসব কি আর ডাক্তার সাহেবের ভালো সময়, খারাপ সময় মেনে আসবে নাকি। পেশাটা যখন বেছে নিয়েছি তখন মেন্টাল প্রিপারেশন নিয়েই নিয়েছি। এই দেশে মেডিকেল স্কুল শুরু হয় বি এস শেষ করবার পর, তাই যারা পড়তে আসে তারা সবাই পরিণত বয়সের, অনেক চিন্তা ভাবনা করেই আসে। আর আমরা যারা বাবা-মায়ের ইচ্ছেতে পড়ি তারাও যখন এদেশে এসে মেডিকেল ক্যারিয়ার করতে চাই তারাও এভাবে না হলে কিছুই করতে পারে না, রেসিডেন্সি পাওয়া বা শেষ করা কিছুই হবে না। তবে আবার এমন ভাববেননা যে সব ডাক্তার কেই প্রতিদিন এভাবে দৌড়াতে হয়। এন্ডক্রাইনোলজিস্ট, পালমোনারি, রিউম্যাটোলজি, ডারমাটোলজি এদের মূলত আউট পেশেন্ট বেস প্র্যাকটিস, অনেকেই সপ্তাহে ৪/৫ দিন আটটা পাঁচটা কাজ করে, কোন ইমার্জেন্সী নেই, উইক এন্ড কল নেই। আমি যেহেতু নেফ্রলজিস্ট তাই আমার সবই করতে হয়। কিন্ত আমি নিজেই তা বেছে নিয়েছি, এখন যদি ভাল নালাগে তবে ইন্টারনিস্ট হিসেবে কাজ করতে বা আবারো অন্য সাব স্পেশালটি ট্রেনিং করতে পারি। কিন্তু নাচতে নেমে ঘোমটা দেবার সুযোগ নেই একটুও।

নিশম সরকার, আপনারও অনেক সাফল্য কামনা করি, বাবা যা বলেছেন আপনাকে সেটা মনে রাখবেন।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পোস্ট ভাল্লাগছে,ছবিটা বেশি ভাল্লাগছে Laughing out loud
সকল বাবার জন্য ভালোবাসা।

[ অফটপিকে পোস্টের ব্যাপারে একেবারেই ব্যক্তিগত একটা মতামত দিয়ে যাই।ইংরেজি বর্ণের অধিক উপস্থিতি খানিকটা ছন্দ পতন ঘটিয়েছে মনে হয় লেখায়।কিছু কিছু ইংরেজি শব্দের ক্ষেত্রে বাংলা বর্ন ব্যবহার করা যায় কি না একটু নেড়েচেড়ে দেখতে পারেন - যেমন এইচএসসি সেকেন্ড ইয়ার,পেজার,ওয়াশিংটন ডিসি,ইমার্জেন্সি ইত্যাদি।এগুলো এখন আমাদের কথ্য ভাষার অংশ হয়ে গেছে,বাংলা হরফে লিখতে মনে হয় তেমন দোষ নেই।কথোপকথনগুলো কিংবা রোগির অবস্থার যে বিবরণ দিলেন সেগুলোও বাংলায় অনুবাদ করে দিলে কেমন হয় একটা এক্সপেরিমেন্ট চালিয়ে দেখতে পারেন।আর শুক্কুরবার,সোমবার - এগুলো বাংলায় লিখলেই সবচেয়ে ভালো হয়।]

*****************************
আমার কিছু গল্প ছিল।
বুকের পাঁজর খাঁমচে ধরে আটকে থাকা শ্বাসের মত গল্পগুলো
বলার ছিল।
সময় হবে?
এক চিমটি সূর্য মাখা একটা দু'টো বিকেল হবে?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ, প্রীতম। মামি দাস এরও এমন অনেক ছবি আছে smile :) :-) smile :) :-) । অতি মূল্যবান কিছু প্রাপ্তি জীবনের!

অফ টপিকে মতামতের জন্য কৃতজ্ঞতা। আসলে সারাদিন ইংরেজীতে কথা বলতে বলতে বাংলা-ইংরেজী এই খিচুরীটা একটা অভ্যাসে পরিনত হয়েছে। অনেক বছর দেশ ছাড়া, এমন কিছু বছর কেটেছে যখন বর ছাড়া বাংলায় কথা বলার জন্য আর কেউ ছিলনা। আস্তে আস্তে নিজেদের কথার মধ্যেও ইংরেজী ঢুকে গেছে কখন জানিনা। কিন্তু কি জানেন, ইংরেজী কথোপকথনকে বাংলা করলে ঠিক একই অর্থটা অনেক সময় হয়ে উঠতে চায় না। এবং বাংলার বেলাতেও একই কথা প্রযোজ্য। মেডিকেল টার্মগুলোকে বাংলা করা মনে হয় অসম্ভব, তবে বাংলা হরফে লিখতে পারি সহজেই।অনেক সময় তাড়াহুড়োতেও ইংরেজী বেশী লিখি। আমার লেখালেখির এখনো নিতান্ত শৈশব, শুধরে নেবার চেষ্টা করব।

আবারো ধন্যবাদ, হ্যাপি ফাদারস ডে! ভালো থাকুন।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাবা দিবসের শুভেচ্ছা। smile :) :-)


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মেয়েদের বাবা(আমার বর)কে পৌঁছে দেব smile :) :-) । ধন্যবাদ, সেম টু ইউ।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দারুন , মন ছুয়ে যাওয়া লেখা।

__________________________________________________
__________________________________________________
মানুষ হিসেবে আমার নিজস্ব মতামত আমি সবার হতে নিকৃষ্ট


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ, বাবা দিবসের শুভেচ্ছা।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভালো লাগলো

______*______*______
ভরপুর বিশ্বাসে লঙ্ঘিবেনা স্বাধীনতা!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ধন্যবাদ পড়বার জন্য।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মচৎকার!

______*______*______
ভরপুর বিশ্বাসে লঙ্ঘিবেনা স্বাধীনতা!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভালো লাগার মতোই একটা লেখা।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনেক অনেক কৃতজ্ঞতা এবং ধন্যবাদ পড়বার জন্য।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লেখাটি অনেক ভাল লাগল। এমন ভুল অনেকে করে নিজের ক্ষতি করেন। সকল বাবাদের প্রতি দিবসের শুভেচ্ছা রইলো।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অজ্ঞতা আর ওভার প্রোটেকটিভ মনোভাবের ক্ষতিকর কম্বিনেশন। ধন্যবাদ, ভালো থাকুন।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনার লেখার স্টাইলটা মনে ধরার মতো, সুন্দর এবং পরিপাটি করে গুছানো। পৃথিবীর সব বাবাই তার সন্তানকে ভালবাসেন তেমনী সন্তানও। তবু বলবো- বাবা তোমায় অনেক ভালবাসি...........।

------------------
স্বাধু সেজনা, স্বাধু হও....


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনুপ্রেরণার জন্য ধন্যবাদ। ভালো থাকুন ।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আহ, অনেক দেরি হয়ে গেলো পোস্টটা পড়তে, টাটকা পেলাম না। Sad
অভিনন্দন, সুন্দর লেখনি।

..............................................................

সেদিন উতলা প্রাণে, হৃদয় মগন গানে,
কবি এক জাগে_
কত কথা পুষ্পপ্রায় বিকশি তুলিতে চায়
কত অনুরাগে
একদিন শতবর্ষ আগে।।
আজি হতে শতবর্ষ পরে
এখন করিছে গান সে কোন্ নূতন কবি
তোমাদের ঘরে!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পঁচিশে, পোস্ট যে বাসি হয় জানতাম না! ধন্যবাদ, বাসি লেখা পড়বার জন্য smile :) :-) ।বাবা দিবসের বাসি শুভেচ্ছা।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পঁচিশে বৈশাখের মত বলতে হচ্ছে
আহ, অনেক দেরি হয়ে গেলো পোস্টটা পড়তে, টাটকা পেলাম না।

বাবার প্রচণ্ড আগ্রহ আর অনুপ্রেরণাতেই আমি দু'বার না ভেবে ডাক্তারি পড়েছিলাম।


আমারও একই অবস্থা। ছোটবেলায় রক্ত দেখে ভয় পাওয়ায় মেডিক্যাল পড়ার আশা কথনও করিনি। বাবারও তাই আগ্রহ ছিল না। তিনি নিজে প্রকৌশলী। আর এখানে বাবার সাথে মায়েরও অনুপ্রেরণা ছিল আমার এই প্রকৌশলবিদ্যায় আসার পেছনে।

বাবাকে নিয়ে লিখা পোষ্টের বিচারের সামর্থ আমার নেই। ভাল থাকুন সতত smile :) :-)

------------------------------------------------------------
আমি বাংলায় দেখি স্বপ্ন, বাংলায় বাঁধি সুর
আমি এই বাংলার মায়াভরা পথে হেঁটেছি এতটাদূর


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কবি নীরব, রক্ত ভয় পেতেন বলেই আরো বেশী করে ডাক্তারী পড়া দরকার ছিল। ভয়টা চিরকালের জন্য কেটে যেত। তবে ডাক্তারদের প্রতিষ্ঠার পথটা অনেক দীর্ঘ, দেশে বিদেশে সর্বত্র। অনেক ডিমান্ডিং প্রফেশন। ইঞ্জিনিয়ার দের জন্য সেদিক থেকে জীবন অনেক সহজ। ধন্যবাদ, ভালো থাকুন ।

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লেখাটা পড়ে খুব ভালো লাগলো । বাবার হৃদয়ানুভুতি প্রকাশিত হয়েছে গভীর তীক্ষ্ণতায়, বেশ সাবলিল ভাবে ।
আসলে বাবারা দেশ-কাল, সকল জাতি স্বত্তার উরদ্ধে । সন্তান-স্নেহ কোন গণ্ডি মানে না,- সতত প্রবহমান ।
আপনাকে ধন্যবাদ ।

glqxz9283 sfy39587p07