Skip to content

‘কানাডা অপরাধীদের আশ্রয়স্থল হলে দেশের সকল খুনীদের সেখানে পাঠিয়ে দেবো’।------ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্কুল ও কলেজ জীবনে মনে হয় ভাল ছাত্রী ছিলেন না । যাকে এক কথায় বলে------- ।
দীপু মনি সারা জীবন মনে হয় কলার পাতা দিয়ে লেখা-পড়া শিখছেন নাকি । আমি ভাই নিরক্ষর মানুষ । আবুইল্যার মত ধান্দাবাজীর জ্ঞান নাই । আমার ভাই আবুইল্যা খাই বেনসন আর আমি খাই আবুল বিড়ি । তফাৎ অনেক । যাক ঐসব কথা, আর হুনেন নিচের কথাডা পইড়া কষ্ট করিয়া আমাদের সেনচুরি(১০০ বার বিদেশ সফর) করা আপা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর জন্য কিছু উপহার স্বরুপ মন্তব্য প্রদান কইরেন । যাহা ওনার জন্য বেশি উপযোগী হয় ।

ঢাকার সব ক’টি কাগজই অত্যন্ত্ গুরুত্ত্ব দিয়ে ছেপেছে যে, ‘খুনি নূর চৌধুরীকে কানাডা ফেরত দেবে না’। এই খবরটায় একটা গ্যাপ আছে। কারণ, কানাডার নবনিযুক্ত হাইকমিশনার হিথার ক্রডেন সরাসরি এ কথা বলতে পারেন না (এবং তিনি তা বলেন নি)।
কারণ, প্রথমতঃ বিষয়টি এখনও আইনি জটিলতায় ঝুলে আছে,
দ্বিতীয়তঃ তিনি সিদ্ধান্ত দেওয়ার কেউ নন।(আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবেদনটি কানাডিয়ান সরকারকে অবগত করা তার দায়িত্ব),
তৃতীয়তঃ কানাডার আরেক আইনেই খুনি নূরের আবেদন চার বার প্রত্যাখান হয়েছে,(ফলে খুনি নূর চৌধুরীর কানাডায় থাকার অধিকার নেই),
চতুর্থতঃ নূরকে ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য এরইমধ্যে (ট্রয়স এলএলপি নামে কানাডার অন্টারিওভিত্তিক) একটি আইনি প্রতিষ্ঠানকে এ দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
পঞ্চমতঃ কানাডার শান্তিপ্রিয় জনগণও একজন মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত অপরাধীকে ঘৃণা করে।(কানাডা সরকার নাগরিকত্ব পাওয়া অনেক সন্ত্রাসী ও অপরাধীকে বহিস্কার করেছে, তার প্রচুর দৃষ্টান্ত রয়েছে)।

এই সব প্রতিকূলতার মধ্যে প্রায় ধারাবাহিক ভাবে প্রতিদিন ঢাকায় নিউজ পাঠাই। যা পরে ঢাকার অন্যান্য দৈনিকগুলোও কভারেজ দেয়। ফলে বিষয়টি জনসন্মুখে উঠে আসে। পরে আইনমন্ত্রী শফিক আহমেদ এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি কানাডা সফর করেন। তখন কানাডার মিডিয়াতেও নুরের খবর স্থান পায়। এক পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎকার নেয় কানাডার মিডিয়াগুলো। তিনি তখন বলেন, ‘কানাডা অপরাধীদের আশ্রয়স্থল হলে দেশের সকল খুনীদের সেখানে পাঠিয়ে দেবো’। ( তাই নূরকে নিয়ে লেখা আমার প্রকাশিতব্য বইয়ের নাম রেখেছি ‘কানাডার কাশিমপুরে খুনি নুর চৌধুরী’)। যা হোক, এবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুরে সুর মিলিয়ে একই কথা বললেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি। অথচ প্রেক্ষাপট ভিন্ন।
প্রিয় পাঠক, উক্ত নিউজ আর দুই পক্ষের বক্তব্য বিশ্লেষণ করুন। তাহলেই ব্যাপারটি অনেকটা স্পষ্ট ও পরিষ্কার হবে।
ক) “পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি আবারও খুনি নূর চৌধুরীকে ফেরত দেওয়ার জন্য কানাডা সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি কানাডার হাইকমিশনারকে বলেছেন, কোনো আত্মস্বীকৃত খুনির নিরাপদ স্থান হতে পারে না কানাডা। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তদের ব্যাপারে কানাডার আদালতের একটি সিদ্ধান্তের জন্য কানাডা সরকার খুনি নূরকে ফেরত দিতে যে জটিল পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছে, তা অনুধাবন করতে পারছে বাংলাদেশ”।

খ) আর হাইকমিশনার হিথার ক্রডেন বলেন, `আমাদের সরকারের পরিষ্কার নীতি হচ্ছে, যে দেশে মৃত্যুদণ্ডের নিয়ম রয়েছে, সে দেশে আমরা কাউকে হস্তান্তর করি না।` বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে কানাডা ফেরত দেবে না এমন অবস্থানের কথা হাইকমিশনার বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে জানিয়েছেন কি-না জানতে চাইলে বৈঠক সূত্র জানায়, হাইকমিশনার ক্রডেন এমনটা পরিষ্কার করে বলেননি। তিনি বলেছেন, নূর চৌধুরীকে ফেরত নিয়ে আসার বিষয়টি বাংলাদেশের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, তা তিনি জানেন। তবে আইনি এ বিষয়টি তিনি তার সরকারকে জানাবেন বলে জানান।

এর পরিপ্রেক্ষিতে আমার বক্তব্য- ‘খুনি নূর চৌধুরীকে কানাডা ফেরত দেবে না’, এই খবরটা ১০০% সত্য নয়। আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি মিডিয়ার কাছে বিষয়টি সঠিক ভাবে উপস্থাপন করতে পারেন নি। তাই তিনি বার বার নানা ভাবে বিতর্কিত হচ্ছেন!
---------------------------------------------------সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল, কানাডা থেকে

মন্তব্য


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হুমম.... এদেশেও অনেক খুনিরা আজকাল প্রেসিডেন্টের কল্যাণে ক্ষমা ভিক্ষা পাচ্ছেন বিষয়টি কানাডার হাই কমিশনকে অবহিত করা হোক, তাতে হযতো তারা নূরকে এদেশে পাঠাতে রাজী হতে পারে .................. আমাদের বর্তমান প্রেসিডেন্ট বহুত দেল দরিযা মানুষ .... বিষয়টি বোঝাতে পারলেই কেল্লা ফতে ....... (বঙ্গবন্ধুর সব খুনিরাই খুনি, কিন্তু সাধারণ মানুষকে খুন করে জয় বাংলা বল্রেই সে আর খুনি থাকে না, ভালো মানুষে পরিণত হযে ক্ষমা পেয়ে যায়)

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
বহতা নদীর মতো বয়ে চলে সময়, সাথে চলে জীবন নামের তরী, কখন ডুবে যাবে, কে জানে!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দীপু মনি "জন হপকিন্স" থেকে পাশ করা মহিলা।
গরীব এবং দুর্বল কারনেই আমরা নুরুকে পাই নাই। অন্য কিছুনা।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জন্স হপকিন্সে উনি নিজ অর্থায়নে পাব্লিক হেলথে মাস্টার্স করেছেন। মিনিমাম কিছু ক্রাইটেরিয়া এবং অর্থনৈতিক সাপোর্ট থাকলে এই কোর্সে আসা যায়। তবে, একে মূল্যহীন বলা আমার উদ্দেশ্য নয়, উদ্দেশ্য হচ্ছে বলা, জন্স হপকিন্সে উনি পররাষ্ট্র নীতির কোন বিদ্যা লাভ করেন নাই। মেডিক্যাল কলেজে উনার পড়াশুনার প্রতি অবহেলা, এবং মনযোগের অভাবটি সর্ব্জনবিদিত ছিল। এরপরো, সামগ্রিকভাবে, অশিক্ষিত রাজনীতিবিদিদের মেলায়, উনি উজ্জ্বল ব্যতিক্রম। তবে,্প্রথমবার সরকারে আসা এবং একেবারে অনভিজ্ঞ দীপুমনিকে, শেখ হাসিনা এক ঠেলায় পররাষ্ট্রমন্ত্রি বানিয়ে, আমাদের সাথে রসিকতা করেছেন না দীপুমনিকে শায়েস্তা করেছেন, সেটা বুঝে উঠা কঠিন। ঃ_)
তাকে অন্যকোন মন্ত্রানালয়ে দিয়া উচিত ছিল,যেমন পানি মন্ত্রি, বা নারী বিষয়ক মন্ত্রনালয় কিংবা স্বাস্থ্য।।।।।
আমার জানামতে, কানাডা নূরকে তৃতীয় কোন দেশে ফেরত পাঠাবে কিনা, সেটা ভেবে দেখছে বা দেখতে পারে। এব্যাপারে বিস্তারিত জানাবেন কি


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পুতুল কোথায় থাকে?


____________________________________________________


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রধান মন্ত্রী কি সব ছাত্রলীগ কে পাঠিয়ে দেবার কথা বলেছেন ?

glqxz9283 sfy39587p07