Skip to content

শাহবাগ প্রজন্ম চত্বর

শাহবাগ প্রজন্ম চত্বর
ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তীতুমীরকে স্মরন করা হয়না-ফরহাদ মজহার! সত্যি কি তাই?

"তিনি বলেন, আমাদের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ভুলিয়ে দেয়া হয়েছে। প্রীতিলতা, সুর্যসেনের কথা বলা হয় কিন্তু তীতুমীর ও শরিয়ত উল্যাহর কথা আমাদের তথাকথিত সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বলেন না। সিপাহী বিপ্লবের কথাও ভুলিয়ে দেয়া হয়েছে। একটি জাতিকে ইতিহাস বিকৃত করে বেশিদিন স্তব্ধ করে রাখা যায় না। দেশের মানুষ ইতিহাস সম্পর্কে সচেতন হয়ে উঠেছেন। আবার সেই ভুলিয়ে দেয়া ইতিহাসের পদধ্বনি শুরু হয়েছে। জালিম শাসক-শোষক শ্রেণীর বিরুদ্ধে দেশের সর্বত্র লড়াই শুরু হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ লড়াইয়ে জনতার বিজয় অবশ্যম্ভাবী জেনে দেশি বিদেশি চক্র তা নস্যাত করতে চাইছে।"-ফরহাদ মজহার, মে ১, ২০১৩, চট্রগ্রাম।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রজন্মের চেতনার বাহক ‘ইমরান’ ও সম্পূরক কিছু কথা

পিচ্চি ইমরান, অনেকে ডাকে হৃদয় বলে। সেই ছেলেটা যে প্রথম হেফাজতের শুওরগুলার দিকে সামনে থেকে ইটা ছুঁড়েছিলো। পথশিশু, কয়েক মাস হৈলো ঢাকায় আসছে। রমনা এলাকার বাসিন্দা হওয়াতে আন্দোলনের প্রথম থেকেই সে কোন না কোন ভাবে আন্দোলনে জড়িত। প্রথমদিকে টিভি ক্যামেরার জন্য হাই ফ্রেমগুলার উপর উঠে স্লোগান দিতো। রাতে নেচে নেচে গান গাইতো। নিজেদের সীমাহীন ব্যাস্ততার জন্য কেউ হয়তো কখনো এই পথশিশুদের চেতনার দিকে খেয়াল করেনি। যা কিছু একাত্তর নিয়ে শিখেছে সবটুকু এই শাহবাগ আন্দোলনের জন্য।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দ্বিতীয় মুক্তিযুদ্ধ : একটি আনাড়ি এনালজি

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল - ২ কর্তৃক কাদের মোল্লাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত করার পর সে রায় আশানুরূপ হয়নি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী কোন বাঙালির কাছে। ওইদিনই এই ঘৃণ্য রাজাকারের ফাঁসির দাবিতে রাজপথে নেমে আসে বাংলাদেশের জনগণ। ঢাকার শাহবাগকে ঘিরে সারা বাংলাদেশেই শুরু হয় এক অভূতপূর্ব গণজাগরণ। প্রাথমিকভাবে এই আন্দোলনের লক্ষ্য ছিল একমাত্র যুদ্ধাপরাধীদের উপযুক্ত শাস্তি।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মাহমুদুরের মিশন পসিবল



মিশন একমপ্লিশড! মিশনের শুরুটা রাজিব হত্যাকান্ড দিয়ে, নীল নকশা ছিলো চমৎকার এবং তার সফল বাস্তবায়ন ঘটেছে ২২ ফেব্রুয়ারীতে। মাহমুদুর ও আমারদেশ এই মিশনের সবচেয়ে বড় অংশগ্রহনকারী। শুরুটা আমরা সবাই বুঝেছি, শাহবাগের আন্দোলনকে নাস্তিকদের আন্দোলন হিসাবে ট্যাগ করে তারপরে জনমানুষের অংশগ্রহন ও গ্রহনযোগ্যতাকে কমিয়ে আনার প্রয়াসে এগুলি করা। হাজার হাজার জনতার মাঝ থেকে গোটাকয়েক নাস্তিককে ট্যাগ করে আন্দোলনকে ইসলামের বিরুদ্ধে আন্দোলন হিসাবে প্রচারনা চালানো। এবং আপাত সফল হয়েছে তাতে।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আন্দোলনের ১৯ দিনঃ একটি মুল্যায়ন ও আলোচনা



আন্দোলনের ১৯ দিন পর এর অর্জন নিয়ে একটা র্নিমোহ বিশ্লেষন দরকার হয়ে পড়েছে। যদিও আন্দোলনের একজন কর্মী হিসাবে আমার এই বিশ্লেষনে কিছুটা উচ্ছাস থাকতেই পারে সেসব আপনারা চাইলে এড়িয়ে যেতে পারেন। আন্দোলনের পরবর্তী কর্মপথ কি, এর সামনে কি কি প্রতিকূলতা আসতে পারে বা এসেছে সেসবেরও একটা আলোচনার চেষ্টা থাকবে। আপনারা সেসবে অংশগ্রহন করে মত দিতে পারেন।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সহযোদ্ধাদের প্রতি আহব্বান।

একজন আমেরিকান, একজন জাপানি এবং একজন বাঙ্গালী।
তিন বন্ধু আড্ডা দিচ্ছে।
আমেরিকান বলছে,
- আমার দেশের মানুষেরা একজন আরেকজনের উন্নতিতে খুশি হয় এবং নিজেও উন্নতির শিখরে উঠে, কেউ কারো পুটু মারার সময় পায় না।
জাপানি বলছে,
- আমরা সময়টাকে কাজে লাগায়, সময়ের সঠিক ব্যবহার করি।তাই আমরা এত এগিয়ে।
বাঙ্গালী ফ্যাল ফ্যাল করে তাকি্যে থাকে, কিছু বলতে চায় না।
কিছুক্ষন পর আমেরিকান বন্ধু 'বাঙ্গালী বন্ধু তুমি চুপ কেন? কি কারনে তোমরা পেছনে পড়ে আছো?'

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শাহবাগ আন্দোলন,প্রিয় ভার্চুয়াল জগৎ,ব্লগ, শাহবাগ আন্দোলনের পুরষ্কার, এরা কারা?আসুন কিছু সাদাসিধা আলাপ করি

হ্যালো ব্লগার!
বেশ অবাক হলাম একদিন সকালে এইচআর ম্যানেজারের এমন সম্বোধনে!
ভাবলাম উনি কি করে জানলেন আমি ব্লগার! আমিতো কখনও কারো কাছে গল্প করিনি সেভাবে অফিসে যে আমি ব্লগিং করি!
মার্কেটিং চিফ এক্সিকিউটিভ বললেন যে সনি আপনি কি শাহবাগে গিয়েছিলেন?
আমি বললাম জি।
উনি শুনে বললেন যে আমি জানতাম আপনি যাবেন!

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অতি জরুরীঃ আমাদের ব্লগার ''থাবা'' কে জবাই করে খুন করা হয়েছে



রাজীবের ফেইসবুক প্রোফাইল বড়ো করে দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

আমাদের ব্লগার থাবা'র লাশ জবাই অবস্থায় পাওয়া গেছে বাড়ির পাশে। এই মাত্র কনফার্ম হইলাম। যে যেখানে আছেন সবাই যুদ্ধে নামুন।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হেফাজতে ইসলামের ভাষ্কর্য অপসারণ বনাম ইসলাম

গত কিছুদিন ধরে ভাষ্কর্য নির্মাণ বৈধ না অবৈধ, এটি রাখা যাবে কি যাবে না- এ নিয়ে তোলপাড় চলছে। প্রতিক্রিয়াশীল হুজুররা সাধারণ মুসলমানদের সরলতা ও ধর্মীয় আবেগ-অনুভূতির সুযোগ নিয়ে বাঙালিকে হাইকোর্ট দেখিয়েই যাচ্ছেন। তাই এখন এ বিষয়ে ‘ধৰ্মজগতের সুপ্রিমকোর্ট তথা ‘পবিত্র কোরআনের রায় সর্বসাধারণের জ্ঞাতার্থে তুলে

Syndicate content
glqxz9283 sfy39587p07