Skip to content

মানবতা

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তীতুমীরকে স্মরন করা হয়না-ফরহাদ মজহার! সত্যি কি তাই?

"তিনি বলেন, আমাদের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ভুলিয়ে দেয়া হয়েছে। প্রীতিলতা, সুর্যসেনের কথা বলা হয় কিন্তু তীতুমীর ও শরিয়ত উল্যাহর কথা আমাদের তথাকথিত সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বলেন না। সিপাহী বিপ্লবের কথাও ভুলিয়ে দেয়া হয়েছে। একটি জাতিকে ইতিহাস বিকৃত করে বেশিদিন স্তব্ধ করে রাখা যায় না। দেশের মানুষ ইতিহাস সম্পর্কে সচেতন হয়ে উঠেছেন। আবার সেই ভুলিয়ে দেয়া ইতিহাসের পদধ্বনি শুরু হয়েছে। জালিম শাসক-শোষক শ্রেণীর বিরুদ্ধে দেশের সর্বত্র লড়াই শুরু হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ লড়াইয়ে জনতার বিজয় অবশ্যম্ভাবী জেনে দেশি বিদেশি চক্র তা নস্যাত করতে চাইছে।"-ফরহাদ মজহার, মে ১, ২০১৩, চট্রগ্রাম।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রজন্মের চেতনার বাহক ‘ইমরান’ ও সম্পূরক কিছু কথা

পিচ্চি ইমরান, অনেকে ডাকে হৃদয় বলে। সেই ছেলেটা যে প্রথম হেফাজতের শুওরগুলার দিকে সামনে থেকে ইটা ছুঁড়েছিলো। পথশিশু, কয়েক মাস হৈলো ঢাকায় আসছে। রমনা এলাকার বাসিন্দা হওয়াতে আন্দোলনের প্রথম থেকেই সে কোন না কোন ভাবে আন্দোলনে জড়িত। প্রথমদিকে টিভি ক্যামেরার জন্য হাই ফ্রেমগুলার উপর উঠে স্লোগান দিতো। রাতে নেচে নেচে গান গাইতো। নিজেদের সীমাহীন ব্যাস্ততার জন্য কেউ হয়তো কখনো এই পথশিশুদের চেতনার দিকে খেয়াল করেনি। যা কিছু একাত্তর নিয়ে শিখেছে সবটুকু এই শাহবাগ আন্দোলনের জন্য।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মাহমুদুরের মিশন পসিবল



মিশন একমপ্লিশড! মিশনের শুরুটা রাজিব হত্যাকান্ড দিয়ে, নীল নকশা ছিলো চমৎকার এবং তার সফল বাস্তবায়ন ঘটেছে ২২ ফেব্রুয়ারীতে। মাহমুদুর ও আমারদেশ এই মিশনের সবচেয়ে বড় অংশগ্রহনকারী। শুরুটা আমরা সবাই বুঝেছি, শাহবাগের আন্দোলনকে নাস্তিকদের আন্দোলন হিসাবে ট্যাগ করে তারপরে জনমানুষের অংশগ্রহন ও গ্রহনযোগ্যতাকে কমিয়ে আনার প্রয়াসে এগুলি করা। হাজার হাজার জনতার মাঝ থেকে গোটাকয়েক নাস্তিককে ট্যাগ করে আন্দোলনকে ইসলামের বিরুদ্ধে আন্দোলন হিসাবে প্রচারনা চালানো। এবং আপাত সফল হয়েছে তাতে।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তাহরীর নয়, শাহবাগ…



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ঢাকা শহরকে বিচ্ছিন্ন করেছে যে জায়গাটা, সেটা এখন চৌরাস্তা। নবাবী আমলের বাগিচার নামে নাম। শাহবাগ। নিমতলী থেকে কলাভবন যখন এখনকার জায়গায় স্থানান্তর হলো তখন থেকেই যে কোনো আন্দোলনের ব্রেকিং পয়েন্ট। এখানেই পুলিশি বেরিকেড পেরিয়েই ১৪৪ ধারা ভাঙা। পঞ্চাশের দশক থেকে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন পর্যন্ত শাহবাগ একটি রণাঙ্গনের নাম। এবং আশির দশকের শেষ ভাগে একটা দীর্ঘ সময় এখানে মিশুক নামে একটা হরিণছানার ভাস্কর্য ছিলো। সেখানে বিপ্লবীদের কেউ একজন লিখে দিয়েছিলো ‘গাধা এরশাদ’। সাদা খড়ির সেই চিকাটিও ছিলো পথযাত্রীদের ব্যাপক বিনোদন।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমার স্বপ্ন এবং কিছু শ্বাপদ এর কথা

আমি এক নাছুড় বান্দা টাইপের অসম্ভব জ়েদী মেয়ে ।যখন কিছু করতে চাই, কিছু করা উচিত বলে মনে করি তখন তা করেই থামি।হোক সেটা আমার জন্য,হোক সেটা পরিবারের জন্য,হোক সেটা কোন ছিন্নমূল মানুষের জন্য। না করা পর্যন্ত আমার কিছুতেই যেন শান্তি নেই।এ নিয়ে মা আমার সব সময় ভয়ে থাকে। মার ধারনা আমি একটা পাগল টাইপের মেয়ে।কিছু দিন পর পর আমার মাথায় নাকি ভূত চাপে।এ নিয়ে নামাজ শেষে তার দোয়া দরোদ আর তেলাওয়াত শেষে আল্লার কাছে ফরিয়াদের শেষ নেই।ইদানিং তার এবাদত আরো বেড়ে গেছে।কারন আমি তার কানে কানে বলে দিয়েছি আমি চাকুরিটা ছেড়ে দিচ্ছি।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

২০১৩ এর সূর্য্যোদয়,দামীণি,অন্যান্যরা এবং আমি

২০১৩ সালের সূর্য্যোদয় আমার জন্য এক নতুন দিন।আমি অনেক দিন ধরে এমন একটা দিনের জন্য অপেক্ষা করেছিলাম।অনেক আশা অনেক প্রতিস্রুতি ছিল এই দিন কে ঘিরে।বন্ধুদেরকে বলেছিলাম যেদিন আমার হারানো আমি কে আমি খূজ়েঁ পাবো সে দিন তোদের মাঝে ফিরে আসবো।আপাতত আমাকে আমার মত থাকতে দে।আমার এই কথার উপর আস্থা রেখে বুন্ধুরা তাদের ‘পাহাড় কেটে ঝরণা’ বানানোর ইচ্ছা ত্যাগ করেছিল।।।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এভাবেই ওরা হয়ে ওঠে ধর্ষক !- ''একটি পরিবর্তন ডট কম রিপোর্ট''



সম্প্রতি পরিবর্তন ডট কম এর মনোজ হালদার ও হাবিবুর রহমান তারেক নারী অবমাননাকারী ও সাইবার ক্রিমিনাল সৃজন আহমেদকে নিয়ে একটি রিপোর্ট লিখেছেন যেখানে কিভাবে একজন ধর্ষক হয়ে উঠে সেদিকটি ফুটিয়ে তুলেছেন। ব্লগারদের জন্য সেটি তুলে ধরা হলো।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সাইবার অপরাধ: সৃজনসহ জড়িতদের আটক ও শাস্তির দাবিতে গণমামলার প্রস্তুতি চলছে



ইন্টারনেটের জনপ্রিয়তা বাড়ার সাথে সাথে বেড়ে চলেছে সাইবার ক্রাইম। যার মধ্যে হ্যাকিং ও নারী অবমাননাসহ বিভিন্ন ধরনের সাইবার অপরাধ ভয়ংকর ভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে।কয়েকদিন থেকে বাংলাদেশের অনলাইন জগতকে একটি ভিডিও চিত্র নিয়ে তোলপাড় সৃষ্ঠি হয়। ভিডিওতে দেখা যায় একটি ছেলে একটি মেয়েকে প্রেম নিবেদনের ভঙ্গিমায় কাছে গিয়ে মেয়েটির গালে একটা চড় বসিয়ে দেয়।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নারী অবমাননাকারি ও সাইবার ক্রিমিনাল সৃজন আহমেদ প্রসঙ্গে গনমাধ্যম কর্মীদের প্রতি আকুল আহবান


ছবিঃ সৃজন আহমেদ

প্রিয় গনমাধ্যমকর্মীবৃন্দ

আমার শুভেচ্ছা নিবেন। আশা করি ইতোমধ্যেই আমার '' কেউ এই ভিডিও এর ছেলের পরিচয় দিতে পারেন ? '' শিরোনামের ব্লগপোস্টটি আপনাদের দৃষ্টি আকর্ষিত হয়েছে। আমি নিজে ও অনেক গনমাধ্যমকর্মীবৃন্দ সাথে ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ করছি।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনাদের যা ইচ্ছে করুন – আমরা পুতুল

(অনাবশ্যক জ্ঞান দিতে আসলে আমার চেয়ে খারাপ কেউ হবে না । বিকৃত মস্তিষ্কের পুরুষরা এই পোস্ট থেকে দূরে থাকলে খুশি হবো।)

সাম্প্রতিককালের দুটো তোলপাড় করা ঘটনা।

Syndicate content
glqxz9283 sfy39587p07