Skip to content

অন্যান্য

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

"রাঙ্গিয়ে দিয়ে যাও যাও....................."



আজ 'দোল পূর্ণিমা' বা 'হোলি'। 'দোল' বা 'হোলি' হিন্দুদের এক পবিত্র উৎসব । নানান রীতিতে বাংলা এবং ভারতের সর্বত্র এই উৎসব পালিত হয়।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তবু আনন্দ কি বাজে?

আজ সোমবার। আমি বলি, ভয়ঙ্কর মান ডে ! অসম্ভব অপ্রিয় একটা দিন। সারাদিন নিচ্ছিদ্র ব্যস্ততার দখলে থাকি, সামান্য কিছু বুদবুদের সময় মেলে মাত্র ! লম্বা ড্রাইভ শেষে ডায়ালাইসিস, হাসপাতাল, অফিস একের পর এক শেষ করে বাড়ি ফিরতে ফিরতে বেশ রাত হয়ে যায়! আজো তার ব্যতিক্রম হবে বলে মনে হচ্ছে না। সমস্যা হয় যখন কাজে মন থাকে না, সারাদিন নিজেকে টেনে বেড়ানো বেশ কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়! আজ ঠিক তেমনি !

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

স্মৃতির কৌটো খুলে.......



এই সময়টা নর্থ আমেরিকা খুব উৎসব মুখর, বাতাসে ভেসে বেড়ায় কেমন এক খুশীর আমেজ। এ শুরু হয় "হলোইন" দিয়ে অক্টোবরের শেষে, এরপর নভেম্বরে আসে "থ্যাংকস গিভিং", তারপর ডিসেম্বরে "ক্রিসমাস"। নিউ ইয়ার পর্যন্ত চলে এই উৎসব উৎসব ভাব। বাড়ীর সামনে সামনে আলোক সজ্জা, অফিস আদালতে রিসেপসনিস্টদের দের লাল সাদা টুপি, সাজানো" ক্রিসমাস ট্রি, সর্বত্র চকলেট, ক্যান্ডি আর কুকিস এর ছড়াছড়ি, মলগুলোর ডিসপ্লেতে লাল-সাদা-সবুজ-সোনালী রঙের সমারোহ , স্পিকারে-এ অবিরাম বাজতে থাকে, " জিঙ্গেল বেল, জিঙ্গেল বেল ..", "টিজ দ্য সিজন টু বি জলি....", "সান্টা ক্লজ ইজ কামিং টু টাউন..." অথবা "..ওয়ানা উইশ ইউ এ মেরি ...."।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহঃ কেমন আছো আকাশের ঠিকানায়?


উৎসর্গঃ তসলিমা নাসরিন (কূলহারা কলঙ্কিনী)


“রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ” বাংলা সাহিত্যাকাশের এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম। যার জন্ম ১৯৫৬ সালের ১৬ই অক্টোবর। তাঁর বাবা ছিলেন পেশায় একজন ডাক্তার রুদ্রের জন্মের সময় তার কর্মস্থল ছিল বরিশাল। কবির জন্ম বরিশাল হলেও তাদের মূল বাড়ি বাগেরহাট জেলার মংলা উপজেলার মিঠেখালি গ্রামে। দ্রোহ ও প্রেমের কবির শৈশব কালটি কাটে মংলাতেই। এর পর চলে আসেন ঢাকায়। ১৯৭৩ সালে ঢাকা ওয়েস্ট হাইস্কুল থেকে তিনি এস.এস.সি এবং ১৯৭৫ সালে এইচ.এস.সি পাস করেন। এর পর তিনি ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং এখান থেকে বাংলায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অম্ল মধুর: বিদেশী বাবা, দেশী বাবা


উইক এন্ড কল করছি, একাই তিন হাসপাতাল সামলাতে হয় এসময়। Friday সন্ধ্যা থেকে Monday সকাল পর্যন্ত। পেশেন্ট খুব বেশী না থাকলেও দূরত্বের জন্য ড্রাইভেই অনেক সময় লেগে যায় তাই দিনের শেষে বিধ্বস্ত অবস্থায় বাড়ী ফিরি, আজো তাই।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আজি প্রণমি তোমারে....


২৫শে বৈশাখ এলেই একটু থমকে দাঁড়াই প্রতিবছর, স্তব্ধ হয়ে রই কয়েকটি মুহূর্ত, কান পাতি হৃদয়ের গভীরে.........., সেখানে সীমাহীন নৈশব্দ। তোমায় ছাড়া কবে বানী পেয়েছে আমার নির্বাক অনুভব! আমার প্রকাশ তো তোমাকে আধার করে, তোমার গদ্য, তোমার কবিতা, তোমার গান------; ভাষা দিয়েছে আমায়। তোমার হাত ধরে পেড়িয়ে এসেছি কতো অন্তবিহীন পথ.......!

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লিজেন্ড অফ ডোসিফিয়া

১৭৮৫ খ্রিস্টাব্দ,আইভানোভস্কি কনভেন্ট,রাশিয়া।
হঠাৎ করেই কনভেন্টে আবির্ভাব এক নানের। কোথা থেকে আসলেন, কিভাবে আসলেন কেউ জানে না, এমিনকি জানে না কনভেন্টের বেশিরভাগ নান, কর্মচারী ও অন্যান্যরাও।জানার মধ্

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

লিজেন্ড অফ ডোসিফিয়া

১৭৮৫ খ্রিস্টাব্দ,আইভানোভস্কি কনভেন্ট,রাশিয়া।
হঠাৎ করেই কনভেন্টে আবির্ভাব এক নানের। কোথা থেকে আসলেন, কিভাবে আসলেন কেউ জানে না, এমিনকি জানে না কনভেন্টের বেশিরভাগ নান, কর্মচারী ও অন্যান্যরাও।জানার মধ্

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বন্দী হলাম মায়ার জালে -ফরিদ উদ্দিন আহম্মদ চিশতী

[৬৪]
বন্দী হলাম মায়ার জালে
-ফরিদ উদ্দিন আহম্মদ চিশতী ।

বন্দী হলাম মায়ার জালে
ললনার ঐ ছলনায়,
চিনলে তাঁরে যেতাম নারে
কাম তটিনীর কিনারায়-।।

কাম তটিনীর উতাল তরঙ্গে
অনুরাগী বাদাম গেল ভেঙ্গে,

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তুমি এবং আমি পর্ব ১০

" এই দু'টো চোখের ভেতর দিয়ে সাজাই কতো গল্প একবার ভেবে দেখো,
তুমি কোন রকমে অস্বস্তিজনক সময় পার করছো আমার অপেক্ষা করে, আমি অল্প দেরি করায় তুমি কতোটা ম্লান মুখ করে অভিমানে গাল ফুলিয়ে চোখ অন্য

Syndicate content
glqxz9283 sfy39587p07