Skip to content

প্রান্তিক জসীম-এর ব্লগ

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অজ্ঞ .....................

কে আমি?
জানি না কোন প্রাণী আমি
না মানুষ, না অন্য কিছু।
ধর্ম- অধর্ম
সুর-অসুর
কোরআন-গীতা বেদভেদ,
ত্রিপিটক-তোরাহ-বাইবেল
কিছুই বুঝিনি
কিংবা শ্রীকৃষ্ণ-বুদ্ধ নই
মুসা-্ঈসা-মুস্তফা নই
আলী-কালি

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হে আত্মা

হে আত্মা,তুমি আমায় ক্ষমা কর
এবং বেদনাগুলো তোমার হৃদয়ে সমর্পণ কর
ধারণ কর সেই দীর্ঘশ্বাস ..
যার দায় আমার একার নয়!
কারণ,তুমি ভিন্ন আমি কেউ নই
কিংবা হতেও পারি না স্বতন্ত্র ।
আমি তো জানি, তুমি ভিন

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সভ্যতার পোশাক

সদগুনের পোশাক ছুঁড়ে যখন আমি নগ্ন
আত্মসুখে হই মগ্ন
তখন পোশাক আমায় বলে- ‘তাকাও রাত্রির দিকে
দেখ,ঝিঁঝিঁরা কীভাবে বয়ন করে কারু
চাঁদের থেকে ধার করে সোনালী তরু!’
আমি নগ্ন দেহে চোখ মেলি, তাকাই আ

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তুমি

মদের মতো আমিও নিষিদ্ধ তোমার শরিয়ায়
তবু পৃথিবীকে ভুলে থাকার জন্য
দিন-রাত পান করি তোমায় !

-প্রান্তিক জসীম
৭.৮,১৫

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

দুর্নামকে আমি সাদরে উদযাপন করি

তোমরা যতই বল আর বিদ্রুপের বর্শা নিক্ষপ কর
তাতে আমি যতটাই রক্তাক্ত হই না কেন
সেই দুর্নামকে আমি সাদরে উদযাপন করি
নববর্ষের উৎসবের মত
কেননা, তোমাদের এমন আশির্বাদে আমার আত্মা
প্রতিদিন একটু একটু করে ডানা মেলে আকাশে
তোমরাই তো আমার পরম বন্ধু
যারা আমাকে নিন্দিত করে প্রতিদিন আনন্দ উপভোগের সুযোগ করে দাও
এবং আমি যে বন্ধুকে এখনো দেখিনি অথচ আমি তাঁর প্রেমিক
আমি তোমাদের মাঝেই তাঁর প্রতিচ্ছবি দেখি, তোমাদের বিদ্রুপের আয়নায়
হে বিশ্বস্ত বন্ধুগণ, দয়া করে কুন্ঠিত হয়ো না আমার সমুদয় দুর্নাম বুঝিয়ে দিতে
এটাই আমার প্রাপ্য এবং আমি তা গ্রহণ করি মুগ্ধচিত্তে
কিন্তু ভুলেও শুত্রুতা করে স্তুতি দিও না আমায়।
দেখ, আমি এক লহমায় সর্বনাশ হবো একদিন যেদিন চন্দ্রমুখীর দেখা পাবো!

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হে, আমার ভালবাসা!

তুমিই আমার অতৃপ্ত অন্বেষা এবং তুমিই আমার অবর্ণিত আকাংখা
তোমাকেই আমি প্রতিরাতে হৃদয়ের উচ্ছ্বাস, শরীরের সব উষ্ণতা দিয়ে বরণ করি
এবং অন্তিম ইচ্ছাগুলো বুকে নিয়েই সমাহিত হই আত্মার
অনন্ত নিদ্রার কুঠুরিত

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জানোয়ারের নৃসংশ থাবা!

হুমায়ুন স্যার,ব্লগার রাজিব, অভিজিৎ রায়-সবাই হিংস্র জানোয়ারের নৃসংশ থাবায় নিভে যান। শুধু অন্ধকারে নীরব দর্শক হয়ে থাকি আমরা!

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হায পাখি জীবন!

সিরিস গাছের ডগায় বসে
আয়েশের চড়কে দোলে মন
ঘুরে-ফিরে আহার শেষে
সন্ধ্যায় তৃষার্ত ঠোঁটে নিয়ে
ফিরে আসি নীড়ে।
কে চালায় আমারে?
চিনিনি তারে-
শুধু মাঝরাতে ঘুমের ঘোরে
কে যেন ফিসফিস বলে কানেকানে
‌'এক পলাকত শিকারী চালায় তোমাকে!'

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নবীন ঠোঁটে মিশে আছে শিশিরের গৌরব!

ঝরুক না পাতা তাতে কি যায় আসে
তোমরা তো আছ মুকুর তাদের অস্বিত্ব হয়ে।
অবাক বিস্ময়ে শোনো, সেই সব পাতাপতনের ছন্দ
আর তোমাদের কচি মন, অবছায়ার মত ধরে রাখুক পতনের স্মৃতি !
হে মুকুর, এসো বিষাদ ভুলে শিশির ভেজা শাখাদের পথ ভেবে
আরোহণ কর সুউচ্চ শিখরে আর বিষাদিত পাতার পদচিহ্নগুলো
প্রেরণা হোক অনাগত সবুজের।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তন্দ্রাকে বলি

তন্দ্রাকে বলে এসেছি
তুমি আমার পশ্চাতে থেকো
পূর্বে এসো না কভু
তবে হারবে
কারণ, কেউ কেউ হয়তো রাত্রিরও অধিকারে থাকে না !
যেমন, সমুদ্রচারি নাবিক
তাকে কোন মদ মাতাল বানাতে পারে ?
তন্দ্রাকে বলে এসে

Syndicate content
glqxz9283 sfy39587p07