Skip to content

বৈজ্ঞানীক-এর ব্লগ

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আলোর পথের যাত্রী

মুহাম্মাদ।
সেই ৫৭০ খৃস্টাব্দ।
জন্ম নিল এক মহান সমাজ সংস্কারক।
মহান যোদ্ধা। যিনি লড়ে গেছেন অন্ধকারের বিরুদ্ধে।
আমরা আজ যেই আলোর পথের যাত্রী সেই পথটা হারিয়ে গিয়েছিল।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রত্যাদেশ

''ওহে অবিশ্বাসিগোষ্ঠী!
''আমি তাকে উপাসনা করি না যাকে তোমরা উপাসনা কর,
''আর তোমরাও তাঁর উপাসনাকারী নও যাঁকে আমি উপাসনা করি।
''আর আমিও তার উপাসনাকারী নই যাকে তোমরা উপাসনা কর।
''আর তোমরাও তাঁর উপাসনাকারী নও যাঁকে আমি উপাসনা করি।
''তোমাদের জন্য তোমাদের ধর্মমত এবং আমার জন্য আমার ধর্মমত।’’

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রত্যাদেশ

1. যারা পথনির্দেশের বদলে পথভ্রষ্টতার কেনাকাটা করে, তাদের ব্যবসা মুনাফা আনে না, আর তারা সৎপথপ্রাপ্ত হয় না
2. সত্যকে তোমরা মিথ্যার পোশাক পরিয়ো না বা সত্যকে গোপন কর না
3. আর প্রত্যেকের জন্য একটি কেন্দ্রস্থল আছে যে-দিকে সে ফেরে, কাজেই সৎকর্মে একে অন্যের সাথে তোমরা প্রতিযোগিতা করো।
4. যারা প্রতিজ্ঞা করার পরে তাদের ওয়াদা রক্ষা করে, আর অভাব-অনটনে-আপৎকালে ও আতঙ্কের সময়ে ধৈর্যশীল তারা সত্যনিষ্ঠ।
5. ভালো জিনিস যা-কিছু তোমরা খরচ করো তা মাতাপিতার জন্য এবং নিকট-আত্মীয়দের, এতিমদের, মিসকিনদের ও পথচারীদের জন্য।
6. তোমরা ন্যায়ের পথে নির্দেশ দাও ও অন্যায় থেকে নিষেধ করো
7. তোমরা আমানত মালিকের নিকট চাহিবামাত্র সমর্পণ করো, আর যখন তোমরা লোকদের মধ্যে বিচার-আচার করো তখন যেন ন্যায়পরায়ণতার সাথে বিচার করো।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

প্রেরিতপুরুষগণ

আজ সকালে পড়ছিলাম। ভাবলাম আপনাদের মাঝে যারা এখনও পড়েননি, তাদেরও পড়াই। আসুন পড়ে দেখি।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

যে কবিতা আরও ২০০০ বছর পরেও আধুনিক

সকালে পড়তাছিলাম। মনে হল এই কবিতাটার মতো কবিতা বাংলা ভাষায় আর নেই এই কবিতা আরও ২০০০ বছর পরেও আধুনিক।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জীবনানন্দের রূপসী বাংলাঃ রূপসী বাংলার প্রাণিরা - ২

এ লেখার উদ্দেশ্য একটাই-- আমিও আছি আপনাদের কাছে তা জানান দেয়া। সালাম সবাইকে।

জীবনানন্দের রূপসী বাংলা কবিতায় বহু প্রাণির কথা উল্লেখ রয়েছে। পাখিদের মধ্যে রয়েছে পেঁচা, লক্ষ্ণীপেঁচা, নিমপেঁচা, শালিখ, গাংশালিখ, হাঁস, রাজহাঁস, দোয়েল, শ্যামা, খঞ্জনা, বক, মাছরাঙা, মনিয়া, কাক, দাঁড়কাক, চিল, শঙ্খচিল, চড়াই, শুক, কোকিল, ঘুঘু, হীরামন, সাপমাসী, ফিঙে, মরালি, সাপচরা। কীটপতঙ্গের মধ্যে গঙ্গাফড়িং, কাঁচপোকা, প্রজাপতি, শ্যামপোকা, ঘোড়া, ভোমরা, নীলভোমরা, গুবরেপোকা, জোনাকি, সুদর্শন, ঝিঁঝিঁ, কউমাছি, মউমাছি, ফড়িং। চাঁদা, সরপুঁটি সহ বেশকিছু মাছ, শামুক, গুগলি, বাদুর, বেজি, কড়ি, শঙ্খ, ব্যাং আর মেঠো ইঁদুরের কথা। দেখা যাক এদের নিয়ে জীবনানন্দের চিন্তাজগত কেমনভাবে আলোড়িত হয়েছে- কী বলেছে। আজ কথা বলব শালিখদের নিয়ে তার লেখা নিয়ে।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

নষ্ট পদ্য- নষ্ট ভালোবাসা (উৎসর্গ- স্বপ্নমগ্ন ফারজানা আর শনিবারের চিঠি)

স্বপ্নমগ্ন ফারজানার নষ্ট পদ্য পড়ে কমেন্ট করছিলাম, কিছুক্ষণ পরে দেখি ফারজানা আর আমাদের শনিবারের চিঠি ভালোবাসা নিয়ে ভালো রকমের টানাটানি শুরু করেছেন। বিনষ্ট বা উৎকৃষ্ট ভালোবাসার খোঁজ শুরু হয়েছে। মন্তব্য-

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জীবনানন্দের রূপসী বাংলাঃ রূপসী বাংলার প্রাণিরা (উৎসর্গ- বেলের কাঁটা)

১৯৫৪ সালের ২২ অক্টোবর রাত ১১টা ৩৫ মিনিটে একটা নক্ষত্র খসে পড়ে। দেহত্যাগ করেন রূপসী বাংলার কবি, নির্জনতার কবি, বাংলা সাহিত্যের শুদ্ধতম কবি জীবনানন্দ দাশ। তার সাহিত্য আর জীবন নিয়ে অনেক কথা হয়েছে, হচ্ছে-

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

একজন ছিদ্রান্বেষী

আইজকা আমার সুপরিচিত অবৈজ্ঞানীকভাবে বৈজ্ঞানিক আবুল ভাইয়ের কতা কইতে আয়া পড়চি।

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভিতু বাঙালঃ কত আর ভয় পাবি??

আপনি কিসে বলুন সবচেয়ে বেশী ভয় পান?

Syndicate content
glqxz9283 sfy39587p07