Skip to content

'জীবনে প্রথম' সেবার

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

'জীবনে প্রথম' সেবার যেদিন আমি যে এলাকায় থাকি তার মূল রাস্তায় মিছিলটা দেখি - স্তম্ভিত হয়ে দাঁড়ায়ে ছিলাম রাস্তার একপাশে। বিশ্বাস হইতে চায় নাই। খান বংশের পোলা তাই শান্ত দুই খান চোখ নিয়া দেখলাম প্রায় ৭০ থেকে ১০০ জনের একটা মিছিল চোখের সামনে দিয়া "পাকিস্তান জিন্দাবাদ" "পাকিস্তান জিন্দাবাদ" ধ্বনি তুলতে তুলতে চলে গেল ইয়া একখান পতাকা নিয়া।
আজকেও রায়ের বাজার, মিরপুর, পুরান ঢাকাসহ আরও কয়েক জায়গায় একই রকম মিছিলের খবর পড়লাম। প্রায় সবাই যখন ওদের দিকে আঙ্গুল তুলে গালাগাল দেয়, আমার কেন জানি আঙ্গুলগুলো নিজেদের দিকে তুলে দিতে মন চায়।
জানতে ইচ্ছা করে ১৯৭৩/৭৪ সালে ভূট্টো যেবার বাংলাদেশে অবস্থানরত পাকিস্তানিদের ফিরায়ে নিতে আসলো তখন ক্যান এই পাকিস্তানিগুলারে ওদের দেশে পাঠাইয়া দেয়ার এবং পাকিস্তান থেকে বাঙালীদের ক্যান দেশে ফিরাইয়া আনার ব্যাবস্থা করা হইলো না। মাঝে মাঝে জানতে ইচ্ছা করে – এই যে পাকিস্তানিগুলা ওগো দেশের জন্যে এত তড়পায়, ওইখানে বাঙালীগুলাও কি এমন তড়পায়?
প্রচুরদিন ক্যাম্পের ভিতর দিয়া হাঁটাহাটি করছি। ঘুরছি। দেখছি। যতই ভিতরের দিকে গেছি ততই মনে হইছে অচেনা জায়গায় অপরিচিতদের দেশে আসছি। একদিন আমারে একজায়গায় ঠ্যাক দিয়া ৩০০ টাকা ছিল নিয়া গেল। আবার ওগো বানানো চাপ খাইতেই তো আমরা ভিড় জমাই। বাইক সারাইতে ওগো কাছে যাই। সাধারণ সেলুন মানেই তো ওরা। ভাঙ্গারির দোকান ইত্যাদি। পাকিস্তানেও কি তাইলে বাঙালীরা এগুলাই করে? চাপ ব্যাচে, জুতা সেলাই করে, নাপিত হয়, লাকড়ি ব্যাঁচে।
ওদেরতো ন্যাশনাল আইডি দেয়া হইছে, ভোট দেয়ার অধিকার আছে এখন। এই দেশেরই নাগরিক আইনগতভাবে। কিন্তু আমার আঙুল আমাদের দিক থেইকা নামে না। আমরা ৫ লক্ষ রোহিঙ্গা রাখতে পারছি খালি লাখ দেড়েক পাকিস্তানি ফেরত দিয়া লাখ খানেক বাঙালী ফিরাইয়া আনতে পারি নাই।
যাউক গা, অন্য কয়েকটা কথা -
খাগড়াছড়িতে নাকি আলু’র কেজি ১০০ টাকা? পেয়াজ ৭০০ টাকা?
ঐ আলু পেয়াজ তো মানুষেই খায় নাকি!! বাজার ব্যবস্থা কি আমাদের নাই?
পাহাড় ধ্বসে মারা যাওয়া ১৫৪ জনের খবর ধামাচাপা পরতে চায় মির্জা ফখরুলের গাড়ি বহরের হামলায়। ক্যান? হাতি মরলেও লাখ টাকা তাই?
আমরা আমরাই তো। তয় আমরা তো আমাগো না। ভালবাসিও না, চাই-ও না। দুইদিন আগে ‘জীবন’ নামে এক বন্ধু এক অদ্ভুত কথা বললো কথাপ্রসঙ্গে –
“হা-ডু-ডু আমাদের জাতীয় খেলা, একজন যাইতে নিলে দশজন পিছন থেইকা টাইনা ধরে, আমরা হইলাম সেই জাতি।”


শাহরিয়ার খান শিহাব
ঢাকা।

glqxz9283 sfy39587p07