Skip to content

প্রজন্মের চেতনার বাহক ‘ইমরান’ ও সম্পূরক কিছু কথা

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পিচ্চি ইমরান, অনেকে ডাকে হৃদয় বলে। সেই ছেলেটা যে প্রথম হেফাজতের শুওরগুলার দিকে সামনে থেকে ইটা ছুঁড়েছিলো। পথশিশু, কয়েক মাস হৈলো ঢাকায় আসছে। রমনা এলাকার বাসিন্দা হওয়াতে আন্দোলনের প্রথম থেকেই সে কোন না কোন ভাবে আন্দোলনে জড়িত। প্রথমদিকে টিভি ক্যামেরার জন্য হাই ফ্রেমগুলার উপর উঠে স্লোগান দিতো। রাতে নেচে নেচে গান গাইতো। নিজেদের সীমাহীন ব্যাস্ততার জন্য কেউ হয়তো কখনো এই পথশিশুদের চেতনার দিকে খেয়াল করেনি। যা কিছু একাত্তর নিয়ে শিখেছে সবটুকু এই শাহবাগ আন্দোলনের জন্য।

গত ৬ই এপ্রিল যখন হেফাজত আক্রমন করতে এগিয়ে আসে তখন সবার আগে এরাই দৌড়ে যায়। একটা বারও চিন্তা করেনি হেফাজতের হিংস্র জানোয়ারগুলা ওদের হাতের কাছে পেলে কি করতে পারে। হয়তো জানে না বলেই এতটা সামনে যেয়ে ঢিল ছুঁড়তে পেরেছে। এই জন্যই নিজের মনটাকে বোকা করে রাখা উচিত। বাচ্চাদের মত নিজের চাওয়া পাওয়ায় মৌলবাদী হওয়া উচিত। মন থেকে চাওয়া উচিত শুধু একটাই, আর কিছুনা। বেশি বুঝতে গেলেই যে সমস্যা সেটা এই পথশিশুটি আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে। কখনো এটা করলে কি হবে চিন্তা করলে শেষ পর্যন্ত কাজটিই করা হয়না।

যাহোক, ৬ তারিখের ঘটনার পর শাহবাগের সংঘঠকদের মাঝে ইমরান এখন হিরো। নির্ভীকতার প্রতীক। অনেকে ডেকে ডেকে ইমরানের সাথে ছবি তুলছে। ছোট ইমরানও অনেকটা আপ্লুত হয়ে গেছে। ওর জন্য এই ভালোবাসাটাই যেন হাজার মিলিয়ন ডলারের প্রাপ্তি।

আমার হাতটি ধরে বললো ভাই পলাশ ভাই আমাকে আজ প্যান্ট শার্ট কিনে দিবে বলেছে। আর দুইশ টাকা দিয়েছে। ঐ টাকাটা আমি রাত্রে ঘুমানোর সময় হারায়ে ফেলেছি। আমি বললাম কেন কে নিয়েছে তোর টাকা? ও জবাব দিলো আমি তো দেখি নাই। কেমনে বলবো? তখন আমি একবার ওকে জিজ্ঞাসা করলাম তোর সাথে যারা ঘুমায় তারা কি নিতে পারে না? ও আমাকে জবাব দিলো ওরা আমার সাথে থাকে ওরা কিভাবে নিবে? আমি টাস্কি খেয়ে গেলাম। এই বাচ্চাটা তার পাশের দুই দিনের পরিচিত পথশিশুটিকে এতটা বিশ্বাস করতে পারে আর আমরা বছরের পর বছর একসাথে থেকেও বিশ্বাস করতে পারিনা একে অপরকে। কিছু হলেই নির্দ্বিধায় একজন আরেকজনকে চোর বানায়ে দিতে এতটুকু কুন্ঠাবোধ করিনা। তবে কি এটাই আমাদের সভ্যত্ব? আমরা কি আদৌ সভ্য হয়ছি? সত্যি প্রশ্ন জাগে মনে।

তারপর আমি জিজ্ঞাসা করলাম পলাশ ভাই কখন আসবে তোকে জামাকাপড় কিনে দিতে? বললো আমাকে কল দিতে বলেছে। আমার দিকে পলাশ ভাইয়ের হাতের লেখা ফোন নাম্বারের কাগজটা বাড়িয়ে দেয়। আমি পলাশ ভাইকে কল দিলাম। ফোন কোন কারণে বন্ধ ছিলো। আমি তখন ওকে বললাম পলাশ ভাইতো তোকে বিকালে এসে কিনে দিবেই। কিন্তু তোর গেঞ্জিতে তো অনেক ময়লা এখন এই ময়লা জামা পরে থাকবি কি করে? তোকে কেউ গেঞ্জি কিনে দেয় নাই? ও সাবলিল কন্ঠে জবাব দেয় আমাকে এক দোকানদার একটা গেঞ্জি দিয়েছিলো ঐটা পরে ময়ালা হয়ে গেছে দেখে ধুয়ে দিয়েছিলাম। কিন্তু ওইটা আজ (আরেকটা ছেলেকে দেখিয়ে বললো) ও পরেছে। আমি বললাম তুই তোর নতুন গেঞ্জি আরেকজনকে পরতে দিলি? বললো ওর গায়ে কিছু ছিলো না, আমার গায়ে তো একটা আছে তাই ওকে পরতে দিয়েছি। আবার যেদিন আমার পরার কিছু থাকবে না আমিও তো ওর কাছ থেকে পরবো। আমি আবারো টাস্কি। এই ছেলেকে আমি যতই দেখছিলাম ওর সেন্স অব হিউম্যানিটি দেখে ততই মুগ্ধ হচ্ছিলাম। ভাবলাম আমাদের ভদ্র সমাজে কেউ কি তার নতুন জামাটা কোন বস্ত্রহীন মানুষকে পরার জন্য দিতো? নিজে পুরাতন ময়লা জড়ানোটা গায়ে দিয়ে তো পরের কথা।

পরে ছেলেটাকে একটা গেঞ্জি কিনে দিলাম। সে’তো খুবই আনন্দিত নতুন গেঞ্জি পেয়ে। বলে ভাই এক আপা আমাকে একজোড়া জুতা কিনে দিয়ছে। আপনি গেঞ্জি দিলেন। একটা প্যান্ট কিনতে পারলেই কাল সেজে গুজে আসবো। সত্যি সত্যি পরের দিন নতুন জুতা, নতুন প্যান্ট, নতুন গেঞ্জি পরে একেবারে বাবুসাহেব সেজে চলে এসেছিলো ইমরান।

চেনাই যাচ্ছিলো না ইমরানকে। কেমন ফুটফুটে ঝলমলে একটা বাচ্চা অনাদরে অবহেলায় ধুলাবালিতে ফ্যাকাসে হয়ে যাচ্ছে। হয়তো আবেগ থেকে অনেকেই এখন অনেক কিছু দিচ্ছে ইমরানকে। কিন্তু এই কয়েকদিনের ভালোবাসা আর আদর কি ইমরানের মত উজ্জ্বল শিশুদের ভবিষ্যত ধুলায় ফ্যাকাসে হওয়ার হাত থেকে বাঁচাতে পারবে? কেউ কি এগিয়ে আসবে শাহবাগের এই উজ্জ্বল লক্ষত্রগুলোকে পরিচর্যা করতে?

ইমরানকে মঞ্চ থেকে একটা বিশাল জাতীয় পতাকা দেওয়া হয়েছে। সারাক্ষন কাঁধে নিয়ে ঘোরে ইমরান। আর কারো জাতীয় পতাকা খানিকটা মাটিতে লাগলেই তাকে ধমক দিয়ে বলে জাতীয় পতাকাকে মাটিতে লাগাবেন না। উঁচু করে রাখেন নইলে ভাঁজ করে রাখেন। যে কথাগুলা আজকালকার শিক্ষিত মানুষের বলার কথা সে কথা সেই শিক্ষিত মানুষকেই ইমরান বলছে।

কতটা স্বচ্ছ আর নির্মল চেতনা হলে একটা বাচ্চা ছেলে নিজের অজান্তেই খেলাধুলা এবং আর কটা পথশিশুর মত পয়সা কামানোর ধান্দা বাদ দিয়ে নিজের জীবনকে হুমকির মুখে ঠেলে দিতে পারে শুধু শাহবাগকে রক্ষা করতে।

আমি জানি আমার এই লেখা পড়ে অনেকে ইমরানকে স্যালুটে ভরিয়ে ফেলবেন। অনেকে ইমরানের ছবি নিজের ফেইসবুক কভার ছবিতে আপলোড করবেন। কিন্তু তাতে কি হবে? শেষ পর্যন্ত ইমরান সেই পথশিশুই রয়ে যাবে। অথচ আমরা কেউ প্যান্ট, গেঞ্জি, জুতার মত একটুখানি পড়ালেখার ব্যাবস্থা করলে, একটুখানি পরিচর্যার ব্যাবস্থা করলে এই ইমরানরা একদিনের জন্য নয় সারাজীবনের জন্য ঝলমলে হয়ে যেতে পারে। আমি জানি অনেক মানুষ আছেন যারা পারেন, শুধু একটু সদিচ্ছার অভাব। তারপরেও আমার বাঙ্গালির উপর আমার আস্থা আছে।

আমি চাই শাহবাগ হোক একটি দৃষ্টান্ত। আমি চাই শাহবাগের এই বাঘ গুলো কালের গহ্বরে হারিয়ে না যাক। আমি চাই ইমরানরা বাঁচুক, মানুষের মত মানুষ হয়ে…

-জয় বাংলা।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

১৯৭১ সালে, এই ইমরানরা পাকি আর্মিদের ইট মেরেছিল; এই ইমরানদের দাদারা যুদ্ধ করে এদেশ স্বাধীন করেছিল।
শেখ সাহেব, তাজুদ্দিন এদের খবর রাখেনি, ওদের দাদাদের খবর রাখেনি; তাই আজ শাহবাগে যেতে হচ্ছে মানুষকে।

আবার ইমরান ইট মারছে, আবার রাস্তায় হারিয়ে যাবে: এ হলো ফাকড-আপ বাংগালীদের ফাকড-আপ ইতিহাস। এমরানের দরকার ছিল ইমরান সরকারের মাথায়ও কয়েকটা ইট মারা।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ফারমার ভাই নতুন করে এসে ভাবছি কিছুটা সুশীল ভেক ধরুম। কিন্তু ফাক্‌ড আপ বাঙ্গালির ফাক্‌ড আপ ইতিহাসের জন্য সামহাউ আপনি আমি সবাই দায়ী। সো দায়টা আমরা কেউ এড়াতে পারিনা। তাই নিজের জায়গা থেকে কিছু না কিছু করাটা এখন আমাদের সকলের মিশন হওয়া উচিত।
(সুশীল কয়ে গাইলাইয়েন না, আমি সুশীল না। শুধু ভেক ধরেছি)

------------------------------------
জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জাতির এ অবস্হার অনেকে দায়ী: শেখ সাহেব, তাজুদ্দিন, জিয়া, সায়েম, সাত্তার, এরশাদ, হাসিনা(শুধু খালেদা দায়ী নয়, সেই শিট এসেছিল চুরি করতে); আমি ও আরো ৯০ হাজার ছিলো যারা এ অবস্হার জন্য দায়ী নন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সেও পিচ্চি ইমরান কিন্তু এপ্রিলের ২৬ তারিখেই ফিরে গিয়েছিলো ওর নিরাপদ আশ্রয় মানে ওর বাবা মার কাছে ।

সৈকত


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই বাচ্চাটার ছবি সড়িয়ে দিন। একটা বাচ্চাকে আপনি ঝুকির মুখে ঠেলে দিলেন শুধুই ।

চরম বিরক্তিকর লাগল ব্যাপার টা

****************************
ঘৃণার চাষাবাদ জারি থাকুক প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে।মানবতা মানুষের জন্যই সংরক্ষিত থাক।পশুদের জন্য বরাদ্দ থাক শুধুই উগ্র ঘৃণার দাবানল।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হেফাজত, শিবির বা বিএনপি'র একটা ইট বা লাঠির আঘাত এ বাচ্ছার জীবনের অবসান ঘটাবে; কোন ফাকড-আপ কি এ ব্যাপারটা বুঝেনি?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এই লেখাটির আগেই ইমরানের ছবি ছড়িয়ে গেছে সর্বত্র। ফেইসবুক যারা ব্যাবহার করে সবাই এই ছবি দেখেছে। পিয়াল ভাইয়ের তোলা ছবিটি শেয়ার হয়েছে শতশতবার। পিয়াল ভাইয়ের আগেও অনেকে করেছে। সো এখান তেমন কিছুই নাই হাইড করার মত। এখন শুধুমাত্র ওদের সেইফ রেখে ওদের লেখাপড়ার বন্দোবস্ত করতে হবে…

------------------------------------
জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

একটা মেইল খোলা হয়েছে। save.imran@gamil.com
কেউ কোন প্রকারের হেল্প, কোন পরামর্শ, কোন স্কুলের এড্রেস, আর্থিক সহায়তা করতে চাইলে এই মেইলে যোগাযোগ করবেন। আমি সকলের সহায়তা কামনা করছি।

------------------------------------
জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমি চাই শাহবাগের এই বাঘ গুলো কালের গহ্বরে হারিয়ে না যাক। আমি চাই ইমরানরা বাঁচুক, মানুষের মত মানুষ হয়ে…

_____________________________________________
আমি বিধাতার ভীষণ ভুলে সৃষ্টি হওয়া প্রচণ্ড এক ত্রাস;

আমি বিধাতার দুশ্চিন্তার দীর্ঘশ্বাসে,
রোজ নিশিতে নিদ্রা নাশে,
তুমুল তুফান, ঝড়ের শেষে
ইন্দ্রপুরীর প্রলয় বেশে

বিধাতার আর্তনাদ আর অশ্রু হবার আশ।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সাবাশ বাংলাদেশের দামাল ছেলে। এই শিশুটিও দেশের বন্ধু এবং শত্রু চেনে, আর আমরা???

কথার পিঠে কথা থাকলেও আসল কথাটাই গ্রহনযোগ্য হওয়া উচিৎ


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মানবতা মানুষের ধরম। সবার মাঝেই নিহিত। কারো সুপত কারো উপত।সুসংে বিকশিত ইমরানের মানবটা মনুষতব

তন্ময় দেবনাথ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

এসব মানুষের কাছে প্রতিনয়ত হেরে যাই ত্যাগের প্রতীক্ষায়। স্যালুট তোমাকে বাবু। তোমাকে পথে থাকতে হয় আজো। তোমার স্কুল যাওয়ার কথা ছিল লাল নিল পেন্সিল নিয়ে। তোমার শিক্ষার অধিকার আমরা খেয়ে নিচ্ছি।

ধন্যবাদ অর্ধতৎসম ভাই।
========================

আমি আমার ভেতরে প্রতিনিয়ত বংশবৃদ্ধি করছি
যেমনটি করে থাকে অকোষী জীব হাইড্রা ।
বিলুপ্ততা ঠেকানোর কিংবা টিকে থাকার লক্ষ্যে নয়
নশ্বরতা আবিস্কারের লক্ষ্যে।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শা বাস ইমরান !!!

প্রতিরোধই মুক্তি


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

স্যালুট ইমরান!


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমার ব্লগ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে কিছু করা যায়না? অথবা কেউ যদি ব্যক্তিগত ভাবেও কিছু করতে চান- আওয়াজ দিয়েন, সাথে থাকার চেষ্টা করব | ছেলেটার পড়াশুনার দায়িত্ব নেয়া যায়না? আমার ইমেইল এড্রেস- bottolarukeel@gmail.com|

______________________________________________________
আমি অপার হয়ে বসে আছি-
ওহে দয়াময়।
.................
জয় বাংলা, বাংলার জয়।

http://www.facebook.com/BottolarUkeel


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমি এই ব্যপারটাই জানতে চেয়েছি যে কেউ কি এমন কোন ইনিসিয়েটিভ নিবে কি না। আমি কিছু রেস্পন্স পেয়েছি যারা হেল্প করতে ইচ্ছুক। তাই আপনারা কেউ যদি এমন কোন স্কুলের সন্ধান জানেন যেখানে এদের আবাসিক ব্যাবস্থা সহ সকল ধরণের শিক্ষা দেওয়া হয়। আমার ফাউন্ডেশান সহ সকলের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। কেউ পার্সোনাল্লি কিছু করতে চাইলে কমেন্টে জানাবেন।

------------------------------------
জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বেশি বুঝতে গেলেই যে সমস্যা সেটা এই পথশিশুটি আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে। কখনো এটা করলে কি হবে চিন্তা করলে শেষ পর্যন্ত কাজটিই করা হয়না।

Sad Sad Sad

ইমরানদের জন্য একটা রাজাকার মুক্ত দেশের সপ্ন দেখি

................................................................................................
আমার ঈশ্বর জানেন- আমার মৃত্যু হবে তোমার জন্য।
তারপর অনেকদিন পর একদিন তুমিও জানবে,
আমি জন্মেছিলাম তোমার জন্য। শুধু তোমার জন্য।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

একটা মেইল খোলা হয়েছে। save.imran@gamil.com
কেউ কোন প্রকারের হেল্প, কোন পরামর্শ, কোন স্কুলের এড্রেস, আর্থিক সহায়তা করতে চাইলে এই মেইলে যোগাযোগ করবেন। আমি সকলের সহায়তা কামনা করছি।

------------------------------------
জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জয় বাংলা ।

মহাসমুদ্রের মহাগর্জন


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

শাহবাগের এই পিচ্চি ছেলেটার ছবি দেখেই আমার মনে পড়েছিল ইতিহাস প্রসিদ্ধ আরেক পিচ্ছি ছেলের কথা.........পিচ্চিরা চিরকাল পিচ্চিই রয়ে যায়।

'৬৯ এর শহীদ ছেলেটার ছবি নীচে পাওয়া যাবে। গুলি খাবার মাত্র কিছুক্ষন আগের ছবিটি।
http://www.amarblog.com/Biplob-Rahman/posts/139463

------------------------------------------------
পৃথিবী আজ দুই ভাগে বিভক্ত। আস্তিক এবং নাস্তিক; আমি অবশ্যই আস্তিকের দলে। যে কম্পিউটরে ব্লগিং করছেন সেও কিন্তু হতে পারে এক ভয়াবহ ঘৃন্য নাস্তিক, আজই পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে নিন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভাই ২৮-০২-২০১৩ ইং তারিখে আমি আমার বাবা কে হারাইছি!!!! ঃ'( আমার বাবা পুলিশ ছিল সুন্দরগঞ্জ এ বামনডাংগাইয় যে ৪ জন পুলিশ মারা গেছেন তার মাঝে আমার বাবাও ছিল!!!! আমি ধীক্কার জানাই জামায়াত-শিবির এর কুত্তারদের !!! তারা ইসলাম ইসলাম বলে গলা ফাটায় কিন্তু মানুষ মারতে তাদের হাত কাপে না !!!! সাইদীর ফাসি সহ সকল হত্যাকারীর ফাসি চাই !!!! ঃ@


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আপনার বাবার প্রতি শ্রদ্ধা। বিদেশে কর্তব্যরত অবস্থায় পুলিশ মারা গেলে তাকে বীর শ্রেষ্ঠের মত সম্মান দেওয়া হয়। আমাদের দেশে কেউ নামও জানতে চায় না।

------------------------------------------------
পৃথিবী আজ দুই ভাগে বিভক্ত। আস্তিক এবং নাস্তিক; আমি অবশ্যই আস্তিকের দলে। যে কম্পিউটরে ব্লগিং করছেন সেও কিন্তু হতে পারে এক ভয়াবহ ঘৃন্য নাস্তিক, আজই পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে নিন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বঙ্গবন্ধু থেকে শুরু করে প্রতিটি জাতীয় নেতা কোন একদিন ইমরানের বয়সী ছিল এবং ইমরানের মতই স্বচ্ছ, সৎ ও সাহসী ছিল। আর তাই বড় হয়ে তাঁরা বঙ্গবন্ধু, তাজউদ্দীন, ভাসানী হতে পেরেছে! কে জানে, এই ইমরানরা একদিন আরেকটি শেখ সাহেব বা আরেকটি তাজউদ্দীন, ভাসানী হবে না! তাছাড়া, গণজাগরণ মঞ্চ গঠিতই হয়েছে জনগণের আশা আকাংক্ষার প্রতীক হয়ে। এই মঞ্চ যদি জয়ী হতে পারে, ইমরানদের ভাগ্য ফিরবেই ফিরবে। জয় বাংলা।

রীতা রায় মিঠু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

রাষ্ট্রযন্ত্রের বিভিন্ন অপচয়ের টাকা দিয়েই পথশিশুদের পূনর্বাসন করা সম্ভব।

.
.
__________________
অপণা মাংশেঁ হরিণা বৈরী।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মানুষের কথা কপি না করে নিজে কিছু লিখেন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কি'রে ভাই কোথায় কি সমস্যা হৈলো?

------------------------------------
জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কিছু নিক দেখলেই পাঁঠা পাঁঠা লাগে কেন?

................................................................................................
আমার ঈশ্বর জানেন- আমার মৃত্যু হবে তোমার জন্য।
তারপর অনেকদিন পর একদিন তুমিও জানবে,
আমি জন্মেছিলাম তোমার জন্য। শুধু তোমার জন্য।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

পন্ঠ সাবককে অন্য কিছু দেখবে সেটা আশা করা এটা দুরাশা। চশমা পরাইলেও ইহারা মনুষ্যকুলের সাথে মিশিতে পারে না।- সহীহ পন্ঠনামা

------------------------------------
জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

অনেক ভালো লিখছেন। বুকের ভেতরটা কেঁদে ঊঠলো। আমাদের এখন অনেক ইমরান দরকার।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

কিভাবে কি করা যায় সেটাই ভাবি এই শিশুদের ভবিষ্যতের দায়িত্ব কে নিবে ? আমাদের সিস্টেমের উচিত কোন ব্যবস্থা নেয়া নয়ত এই শিশুগুলিকে অন্ধকারের পথে ঠেলে নিয়ে যাবে কিছু মানুষ ।আমরা এটা হতে দিতে পারি না ।

----------------------------------------------



ধমনীতে প্রবাহিত স্রোতধারা আমাকে বারবার টেনে নেয় মাটির কাছে ,
শেকড় আমায় শিখিয়েছে স্বাধীনতা আঁকড়ে ধরে বাচে............।।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

স্বপ্ন দেখি ইমরান দের চোখে।

Star Star Star Star Star

--

রীতু
"আমার মুক্তি আলোয় আলোয়, এই আকাশে। আমার মুক্তি ধুলায় ধুলায়, ঘাসে ঘাসে.."


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Star Star Star Star Star
এই স্টার গুলো ইমরানের মত বাঘের বাচ্চাদের জন্য। এর যদি মানুষ হতে পারে, উঁচু হতে পারে। এই জাতি এদের থেকে শিক্ষা নেবে।

_____________
"আমরা সবাই নিজেকে নিয়েই ভাবি। কিন্তু এই এক একটি জীবন নিয়েই আমাদের এই গোটা পৃথিবী। যেমন কিনা, ছোট ছোট বালি কণা বিন্দু বিন্দু জ্বল, গড়ে তোলে মহাদেশ.. সাগর অতল।
তাই.. অপরের জন্যও ভাবুন। ভালোবাসতে শিখুন শুধু নিজের জন্য নয়, সবার জন্য।" ..


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আরে রক যে?! যাহোক পুরাতন একজনকে তো পেলাম।

------------------------------------
জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমি আছিরে ভাইডি। আল্লাহর রহমতে। কিনতুক.... ব্যাকগ্রাউন্ডে আরকি....।

_____________
"আমরা সবাই নিজেকে নিয়েই ভাবি। কিন্তু এই এক একটি জীবন নিয়েই আমাদের এই গোটা পৃথিবী। যেমন কিনা, ছোট ছোট বালি কণা বিন্দু বিন্দু জ্বল, গড়ে তোলে মহাদেশ.. সাগর অতল।
তাই.. অপরের জন্যও ভাবুন। ভালোবাসতে শিখুন শুধু নিজের জন্য নয়, সবার জন্য।" ..


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমরা এই ইমরানদের মাঝেই ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখি । কিন্তু সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দিতে গিয়ে আমরা ঘুমিয়ে পড়ি ।

------------------------------------------

সুদূরপ্রসারী স্বপ্ন দেখা , নিকট ভবিষ্যতে বাস্তবায়নের আশায় ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভাই, ই-মেইল অ্যাড্রেস টা তে একটা মেইল দিসি। এখনও চেক করেন নাই।

......................................................................................................................
আমি ঘুরিয়া ঘুরিয়া সন্ধান করিয়া স্বপ্নের ঐ পাখি ধরতে চাই
আমার স্বপ্নেরই কথা বলতে চাই।
আমার অন্তরের কথা বলতে চাই।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

Shudhu 1 Imran na , emon hajaro Imran k chailei amra hashi mukh upohar dite pari !
Joy Hok Manobotar !

বৃষ্টিতে ভেজা সহজ । কিন্তু , বৃষ্টি সহ্য করা সবার দ্বারা হয় না । সুন্দর ঠিক তেমনি ! উপভোগ করা সহজ । কিন্তু , তার যোগ্য ব্যবহার সবার দ্বারা হয় না ।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

আমিও অনেক সময় কাটিয়েছি তার সাথে।

৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥৥
ব্লগার এবং লেখক। প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা ১৮টি।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

সেই পথশিশুটা আস্তে আস্তে বদলে গেলো। দুশো টাকার গেঞ্জি থেকে তার গায়ে উঠে আসলো দু-পাঁচ হাজার টাকা দামের পাঞ্জাবী। এ ভাবেই মানুষের ভালবাসায় চকচকে হয়ে ওঠে জীবন। আর পর্দার আড়ালে চলে যায় শাহাবাগ জেগে ওঠার গল্প। মানুষের কাছে অজানা থেকে যায় সেই ব্লগারদের গল্প, যারা প্রথম সংগঠিত হয়েছিলেন শাহাবাগ চত্বরে কাদের মোল্লার ফাসির দাবিতে।

glqxz9283 sfy39587p07