Skip to content

মনে যত প্রশ্ন জাগে ১

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মনে যত প্রশ্ন জাগে
হযরত ঈসা ইবনে মারইয়াম আঃ কে পৃথিবী থেকে আসমানে উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে।
খ্রীষ্টানরা তাকে বলে ঈসা ইবনুল্লাহ, ইহুদীরা দাবী করে তারা তাকে শূলীতে চড়িয়ে হত্যা করেছে, ইসলাম বলে তাকে উপরে উঠানো হয়েছে ﻣﺎ ﻗﺘﻠﻮﻩ ﻭﻣﺎ ﺻﻠﺒﻮﻩ ﻭﻟٰﻜﻦ ﺷﺒﻪ ﻟﻬﻢ . ﺑﺎﻟﺮﻓﻌﻪ ﺍﷲ
কেয়ামতের আগে তিনি পৃথিবীতে আগমন করবেন, শেষ নবী মুহাম্মদ সাঃ এর উম্মত হয়ে।
বর্তমান উম্মতে মুহাম্মদীয়ায় প্রচলিত মাজহাব চারটি, সবগুলাই সহীহ। এর বাহিরে যারা আছে বা থাকবে তারা সঠিক নয়, ভ্রান্ত লা-মাজহাবী, গায়রে মুকাল্লিদ, আহলে হাদিস বা বাতিল।
হযরত ঈসা মাসীহ কি এই উম্মতের মুজতাহিদ হবেন নাকি মুকাল্লিদ ???
যদি মুকাল্লিদ হন তবে কার অনুসারী, হানাফি- শাফেয়ী - মালিকী - হাম্বলী?????
জবাব
যে যুগে যে নবী আগমন করেন সে যুগে তিনিই সর্বশ্রেষ্ঠ ঞ্জানী হয়ে থাকেন, হযরত ঈসা ইবনে মারইয়াম আঃ একজন নবী।
যদিও তাকে বিধাতার অপার কুদরতে নির্ধারিত সময়ের পূর্বেই আসমানে উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে, ক্বেয়ামতের আগে জমীনে তার নূযুল অবশ্যম্ভাবী, যাতে দুনিয়ার সাধারণ নেযাম বহাল থেকে তাঁর মৃত্যু হয়।
এখন কথা হল- সমস্ত নবী রাসূল উম্মতে মুহাম্মদী হওয়ার জন্য প্রভুর কাছে প্রার্থনা করেছিলেন, আল্লাহ শুধুমাত্র হযরত ঈসা আঃ এর আবেদন মন্জুর করেন। তিনি আগমন করে উম্মতে মুহাম্মদীর কোন ফেরক্বায় থাকবেন, কেননা বর্তমান উম্মতে মুহাম্মদী চার মাজহাবে বিভক্ত, যারা সবাই সঠিক(হানাফি/ শাফেয়ী/ মালিকী/ হাম্বলী)। আপাতত এর বাহিরে যারা আছে তারা ভ্রান্ত, মুজতাহিদ ব্যতিত।
সহীহ কথা হল
১- হযরত ঈসা আঃ এক কালের নবী, সুতরাং তিনি আরেক নবীর উম্মতের অনুসারী হতে পারেন না, উম্মতের অনুস্বরণীয় হবেন।
২- ঈসা আঃ নূযূলের সময় মাজহাবে মাজহাবে তাফরিক্বা থাকবেনা, তখন সবাই তাঁর অনুসারী হবে। তিনি সবাইকে সঠিক পথে পরিচালিত করবেন।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তিনি কি তাহলে মুহাম্মদ (সাঃ) এর অনুসারী হবেন না? রেফারেন্স দেবেন কি প্লীজ?


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হযরত ঈসা আঃ আমাদের নবীরই উম্মত হবেন, এতে কোন সন্দেহ নাই, তবে মাযহাবের বিষয়টা বিতর্কিত, এ ব্যাপারে কোন নকলি দলিল পাওয়া যায়নি, তাই যৌক্তিক দলীল দিয়েই তা লেখা

murad

glqxz9283 sfy39587p07