Skip to content

বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলোর নেতাদের দৈনন্দিন কাজ কারবার

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

বাংলাদেশের যে তিনটি দল দীর্ঘ দিন রাস্ট্র পরিচালনা করেছে তাদের দলের নেতা এমপি ও মন্ত্রীদের দৈনন্দিন জীবন সাধারণত কেমন হয় সে সম্পর্কে কিছু লেখার কথা বলেছিলাম । আপাত দৃস্টিতে এই তিনটা দলকে পৃথক বা ভিন্ন আদর্শের মনে হলেও এদের নেতাদের কার্যকলাপ প্রায় একই ধরনের যেমন এসব নেতাদের ২/১ জন বাদে কেউই খুব সকালে ঘুম থেকে উঠেন না, যারা সাধনারনত মন্ত্রীর দায়িত্ব প্রাপ্ত তাদের সরকারী বাধ্যবাধকতা থাকায় নিয়মিত অফিস করতে হয় তবে আপনি যদি সচিবালয় যান তা হলে নিদৃস্ট সময় কাউকেই অফিসে পাবেন না কমপক্ষে সকাল ১১ টার পর তবে বিকেল পাঁচটা বাজার আগেই এরা সচিবালয় ত্যাগ করতে সচেস্ট বাকি যারা এমপি বা অন্যন্ন নেতা তাহারা সাধারণত ১১ টা কিংবা ১২ টার পর ঘুম থেকে যেগে ফ্রেস হয়ে তাদের বাসভবনের নিচতালার বৈঠক খানায় সকালে দেখা করতে আসা দর্সনার্থিদের অল্প কিছু সময় দিয়ে গাড়ি নিয়ে বাহিরে বের হয়ে পরেন, উক্ত বৈঠক খানায় হালকা চা ও সস্তা মানের বিস্কুট পরিবেশন করা হয় তবে সরকারী তহবিল থেকে ভাউচারের মাধ্যমে উন্নত মানের বিস্কুটের টাকা হাতিয়ে নেয়া হয় । যাহারা ঢাকায় অবস্থান করেন তাদের বাহিরে বের হওয়ার মূল উদ্দেশ্য থাকে দলীয় প্রধানের যদি কোন কর্মসূচি থাকে সেখানে নিজেকে সামনের সারিতে রাখার চেস্টা করা যাতে ম্যডাম বা স্যারের সুদৃস্টি পরে অথবা কিছুটা সামাজিক অনুস্ঠানে অংশগ্রহণ যেমন বিবাহ মিলাদ ব্যবসা প্রতিস্ঠান উদ্ভোধন ইত্যাদি করে বিকেল নাগাদ বাসায় ফিরে সন্ধ্যার পর বাড়ির বৈঠক খানায় দলিয় নিজের একান্ত ভক্ত সমর্থক ও কর্মীদের সাথে বসে কখনো নির্ধারিত কখনো অনির্ধারিত সলাপরামর্স করা । এসব সলাপরামর্স হয় নিজের দলের প্রতিপক্ষকে নিয়ে যতটা নি বিরোধী পক্ষকে নিয়ে কারন বিরোধিদল তো দৌরের উপর থেকে ,কে কতটা টেন্ডার পেয়েছে বা কতটা তদ্বির সম্পূর্ণ হয়েছে বা হয়নি এবং কি কারনে হয়নি আবার দলের অঙ্গসংগঠনের কমিটিতে কি ভাবে নিজের পছন্দসই লোকদের বসানো যায় ইত্যাদি নিয়ে চলে এসব সলাপরামর্স ও বদনাম এবং গিবত । কখোন দলের পক্ষ থেকে বড় ধরনের কোনো জনসভা থাকলে সেই জনসভায় কিভাবে লোক ভাড়া করে মিছিল বড় করা যায় তা নিয়েও চলে পরিকল্পনা বা চাদাবাজি করার তালিকা প্রনয়ন । এরপর রাত যত গভীর হয় তত তাদের মন অন্ধকার জগতে ধাবিত হয় , কেউ কেউ নিয়মিত নেসা করেন আবার কেউ কেউ অল্প বয়সি মেয়ে নিয়ে যৌন সম্ভোগে ব্যস্ত হয়ে পরেন । বাংলাদেশের এসব নেতারা যে কি পরিমাণ নারী আসক্ত তা আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না । এসব নেতাদের মধ্যে আপনি শতকরা ১/২ জনকে পাবেন না যারা নিজেদের সংস্লিস্ট মন্ত্রনালয় বা এলাকার উন্নয়ন নিয়ে গভীর ভাবে ভাবনার জন্য ১ ঘন্টা সময় ব্যায় করে । তাদের মূল চিন্তা কিভাবে নিজের অবস্থান ধরে রাখা যায় অথবা অরো উপরে ওঠা যায় । আর বোকা দেশেবাসি যুগের পর যুগ এদের দ্বারাই শ্বাসিত হচ্ছে ।

glqxz9283 sfy39587p07