Skip to content

জামায়াত ই ইসলামী

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

জামায়াত ইসলামী নিয়ে আমি কিছু দিন পূর্বে আমার ফেইজবুক ওয়ালে ছোটো ছোটো কয়েক কিস্তি লিখেছিলম , মাঝখানে অন্য প্রসঙ্গে লিখিতে গিয়ে আর লেখা হয়নি । উপমহাদেশর সর্বজন পরিচিত ও বৃহত্তম ইসলামী আন্দোলনের নাম জামায়াত ইসলামী । ভারত পাকিস্তান বাংলাদেশ ও শ্রিলঙ্কায় সরাসরি জামায়াত ইসলামী নামেই আন্দোলন চলেছে এরমধ্যে ভারত ও শ্রিলঙ্কায় জামায়াত ইসলামী সরাসরি রাজনৈতিক কার্যক্রমে জরিত না মুলত বাংলাদেশে ও পাকিস্তানেই পূর্নাঙ্গ রাজনৈতিক ইসলামী আন্দোলন হিসাবে জামায়াত সক্রিয় ভুমিকা পালন করে যাচ্ছে । ব্যক্তিগত ভাবে দীর্ঘ ১০ বছর ইসলামী ছাত্র শিবিরের সাথে কাজ করার কারনে এবং বাংলাদেশে অবস্থান কালিন পরবর্তি ৩ বছর সরাসরি জামায়াতের সাথে কিছুটা কাজ করার সুযোগ হওয়া ইসলামী আন্দোলন সম্পর্কে অতি সামান্য কিছু জ্ঞান আল্লাহ দান করেছেন । পৃথিবীর অন্য সকল আন্দোলন আর ইসলামী আন্দোলনের মধ্যে পার্থক্য আকাস আর পাতাল , আর এই ইসলামী আন্দোলনে দীর্ঘ দিন টিকে থেকে দ্বীনের দায়িত্ব আঞ্জাম দেয়া মারাত্মক কঠিন কাজ। এক্ষেত্রে দুই ধরনের বিরোধিতা মধ্যে পরতে হয় যে কোনো সক্রিয় আন্দোলনকারিকে । এ সম্পর্কে মাওলানা মওদুদী রহঃ তার ইসলামী আন্দোলন সাফাল্যের সর্তাবলি বইয়ে বিস্তারিত সুন্দর ভাবে তুলেধরেছেন । সাধারনত প্রতিপক্ষে বিরোধিতা তো স্বাভাবিক থাকবেই কিন্তু আন্দোলনের অভ্যন্তরের কিছু পরিবেশ যা চরম যন্ত্রনাদায়কও হতে পারে সেই পরিবেশ অবিচল ধৈর্য নিয়ে আন্দোলনে টিকে থাকতে যে পারেন তিনি সফল ইসলামী আন্দোলনের কর্মি । ১৯৪১ সালে প্রতিস্ঠাকালিন সময় জামায়াত ইসলামীর সদস্য ছিলেন ভারতীয় উপমহাদেশের বিজ্ঞ ৭৫ জন আলেমে দ্বীন,হাটি হাটি পা পা করে সেই জামায়াতই এখন বিসাল জনসম্পৃক্ত দলে পরিনত হয়েছে সমগ্র উপমহাদেশ ব্যপি । তবে প্রচলিত গনতান্ত্রিক পদ্ধতির নির্বাচনে কি জামায়াত অংশগ্রহন করবে কি করবেনা এই বিতর্ক নিয়ে প্রতিস্ঠাকালিন কিছু আলেম জামায়াত ত্যাগ করেন এবং পরবর্তিতে বাংলাদেশে সৃস্টি হওয়ার পরেও নাম বিতর্ক নিয়েও কিছু আলেম জামায়াত ত্যাগ করেন তবে এ সকল জামায়াত পরিত্যাগ কারিগন জামায়াত ইসলামী পরিত্যাগ করলেও পরবর্তিতে কখোনই ইসলাম বিরোধি রাজনৈতিক সক্তির সাথে হাত মিলান নাই , কারন তারা দ্বীনের আসল মকছুদ ঠিকই বুঝতে পেরেছিলেন সাময়িক মতভেদের কারনে নিজেদের সরিরে রেখেছেলিখেছেন মাত্র । অপরদিকে জামায়াত ইসলামীও এসকল দলত্যাগী নেতাদের যথেস্ট শ্রদ্ধা করে চলেছে যেমন মাওলানা মনজুর নোমানি মাওলানা আব্দুর রহীম প্রমুখদের লিখিত বিভিন্ন বই এখোনো যথেস্ট গুরুত্ব সহকারে জামায়াত ও শিবিরের পাঠ্যতালিকা রাখা হয়েছে । প্রকৃত দ্বীনের আলো যার অন্তরে একবার প্রজ্বলিত হয় সে আলো নতুন কোনো প্রদ্বিপ শীখা না জ্বালাতে পারলেও নিজে কখোনই অন্ধকারে নিপাতিত হননা ।

glqxz9283 sfy39587p07