Skip to content

ইসলাম আসার আগে আইয়ামে জাহিলিয়া এবং ইসলাম আসার পরে সুপার আইয়ামে জাহিলিয়া !!!

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

মুসলমানরা হযরত মুহাম্মদের সমস্ত অন্যায় ও বর্বর কাজগুলোকে সে নিজে এবং তার অনুসারীরা বৈধতা দিতে যে অপপ্রচার চালিয়ে ছিল তারমধ্যে সবচেয়ে বড় অপপ্রচারটা ছিল "আয়ামে জাহিলিয়া" বা অন্ধকারের যুগ' এই অপপ্রচারটি। এবং এটি মুসলমানদের দ্বারা সবচেয়ে সফল অপপ্রচার। এখনও মুসলমানরা হযরত মুহাম্মদের কাজগুলোকে বৈধ করতে এই আয়ামে জাহিলিয়ার অপপ্রচারমুলক শব্দটি ব্যবহার করে। আসলেই কি সেরকম কিছু ছিল। দেখা যাক হযরত মুহাম্মদ কি কি আয়ামে জাহিলিয়াময় কাজ করেছে!

ইসলাম আসার আগে আয়ামে জাহিলিয়াতের যুগ মানে অন্ধকারের যুগ ছিল l
আর ইসলাম আসার পরে ফকফকা আলোর যুগের সূচনা হয়েছে l
কি বিশ্বাস করলেন না তো ! তাহলে দেখুন তার কিছু নমুনা !

১. ইসলাম আসার আগে আরবের মানুষ বহু বিবাহে লিপ্ত ছিল l অর্থাত একজন মানুষ একসাথে ১০ টা ২০ টা বিয়ে করতো l আবার ইসলাম আসার পরেও মানুষ ৪ টা ১৩ টা বিয়ে করে l কোন পার্থক্য নেই !

২. ইসলামের আগে আরবের মানুষ শিশু বিবাহ এবং শিশু কামের মত জঘন্য কাজ করতো l ইসলাম আসার পরেও আরবের মানুষ শিশু বিবাহ এবং শিশু কামের মত জঘন্য কাজ করতো এবং করে ! কোন পার্থক্য নেই !

৩. ইসলাম আসার আগে আরবের মানুষ খুন, হত্যা, জুলুম, ধর্ষণ, একে অন্যে মারামারি-বিবাদ এবং যুদ্ধ এসব লেগেই ছিল l আবার ইসলাম আসার পরে খুন, হত্যা, জুলুম, ধর্ষণ, একে অন্যে মারামারি-বিবাদ এবং যুদ্ধ এসব চালিয়েই গেছে l কোন পার্থক্য নেই !

৪. ইসলাম আসার আগে আরবের মানুষ অসহায় নিরীহ মানুষকে জোর করে ধরে নিয়ে যেয়ে বাজারে পশুর মত বিক্রি করতো অর্থাত দাস প্রথা ছিল l আবার ইসলাম আসার পরেও দাস প্রথা বলবৎ ছিল বহাল তবিয়তে l কোন পার্থক্য নেই !


৫. ইসলাম আসার আগে আরবের মানুষ অসহায় মেয়েদের পশুর মত বিক্রি করতো এবং ধনী ক্রেতারা সেই মেয়েদের কিনে নিয়ে যেয়ে ধর্ষণ এবং যৌন নিপীড়ন করতো এবং তাদের সাথে পশুর মত ব্যবহার করতো l ইসলাম আসার পরেও দাসীদের সাথে একই আচরণ করা হত l কোন পার্থক্য নেই l

৬. ইসলাম আসার আগে মানুষ কাল্পনিক সৃষ্টিকর্তার নামে মানুষকে মেরে ফেলতো শুধু মাত্র বিধর্মী বলে এবং বিধর্মীদের সাথে যুদ্ধ বাধানো হতো l ইসলাম আসার পরেও কাল্পনিক সৃষ্টিকর্তার নামে মানুষ মেরেছে এবং যুদ্ধ বাধিয়েছে আগের চেয়েও বেশি পরিমানে l কোন পার্থক্য নেই ! বরং আরো বেশি বর্বর ! !!!

উপরের তথ্য প্রমানের ভিত্তিতে বলা যায় ইসলাম আসার পূর্বে অর্থাত তথাকথিত অন্ধকার যুগে যে যে অন্যায় এবং বর্বরতা চালানো হয়েছে সেসব অন্যায় এবং বর্বরতা আগের মতই চলেছে ইসলাম আসার পরেও l ইসলাম আসার পরে এক সমাজ ব্যবস্থা থেকে অন্য সমাজ ব্যবস্থায় পরিবর্তন হয়েছে মাত্র কিন্তু অবস্থার কোন পরিবর্তন হয়নি l ইসলাম আসার আগে যা যা চলত সেগুলোই আরো আইন করে বৈধতা দেয়া হয়েছে ইসলামের মাধ্যমে l তথাকথিত শান্তির ধর্মের নামে বিশ্বে অশান্তির সৃষ্টি করে গেছে ইসলাম l বর্তমান সভ্য জগতের সৃষ্টিতে ইসলাম কোন ভুমিকা রাখেনি l বরং মানুষ নিজের তাগিদে এবং সভ্যতার উন্নতিতে আজকের সভ্য সমাজে রূপান্তর হয়েছে l মানুষ নিজের জ্ঞান দিয়ে এবং মানবিকতার বিকশিয়তায় হত্যা, যুদ্ধ, ধর্ষণ, বহু বিবাহ, শিশু বিবাহ, দাস প্রথা, কলহ বিবাদ, ইত্যাদি জঘন্য কাজ থেকে মানুষ ফিরে এসে সত্যিকারের সভ্য মানুষে পরিবর্তিত হয়েছে এবং বাকিরাও আস্তে আস্তে পরিবর্তিত হয়ে সভ্য মানুষে পরিনত হচ্ছে l আর এতে ইসলাম কোন ভুমিকা রাখেনি l বরং ইসলাম আসার আগে যেমন ছিল ইসলাম আসার পরেও তেমনি ছিল তথাকথিত শান্তির ধর্মের মানুষেরা l
বরং মানুষ ইসলাম বর্জন করে অথবা ইসলামের কুশিক্ষা বর্জন বা ত্যাগ করে মানুষ সভ্য হচ্ছে দিনদিন l আর একশ্রেনীর ইসলাম অনুসারীরা আয়ামে জাহেলিয়া তথা অন্ধকার যুগের ইসলামকে আকড়ে ধরে সেই বর্বরতা চালিয়ে যাবার চেষ্টায় আছে l সভ্য মানুষ সেই আয়ামে জাহিলিয়ার ইসলাম ধারী বর্বর মানুষগুলোকে ঘৃণার সাথে পরিত্যাগ করছে l
তাই আমাদের উচিত ইসলাম এবং সব ধর্মকে অথবা ধর্মের বর্বরতাকে ঘৃনা ভরে পরিত্যাগ করা l


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

তার মানে আপনি বলতে চাইছেন--ইসলাম প্রতিস্থাপিত প্রথা?

Alamgir Kabir


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

হাহাহা, যে গ্রন্থ খানি লাওহে মাহফুজে কোটি কোটি বৎসর পূর্ব হতে রক্ষিত রয়েছে, তার ধর্ম টাকে মুছে ফেলে দেওয়া কী সম্ভব?

glqxz9283 sfy39587p07