Skip to content

রোহিঙ্গা ইস্যু: আন্তর্জাতিক রাজনীতির ছলা-কলা

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আন্তর্জাতিক রাজনীতির বিরাট কৌশলে এগোচ্ছে পাকিস্তান ও তুরস্ক। পাকিস্তান ও তুরস্ক রাজাকারদের বাঁচানোর জন্য মরিয়া হয়ে উঠে পড়ে লেগেছিল। সেই তাদের একদেশ নিরব মানে (আপনারা খেয়াল করে থাকবেন) পাকিস্তান রোহিঙ্গা গণহত্যা ও নির্যাতনের বিষয়ে একেবারে নিরব। একদেশের এই নিরবতা অন্যদেশের সরবতা অন্য কিছুর ইঙ্গিত দিচ্ছে। ইঙ্গিতটা হলো: পাকিস্তান বাংলাদেশের চিরশত্রু, এই পাকিস্তান যদি বাংলাদেশকে রোহিঙ্গা আশ্রয়ের কথা বলে তাহলে বাংলাদেশ একদম বেঁকে যাবে। তাই তুরস্ককে দিয়ে কথা বলাচ্ছে যাতে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে প্রবেশ করাতে পারে। (এই প্রবেশ করানোর মধ্যে বাংলাদেশের দুই চারটি রাজনৈতিক দল রোহিঙ্গাদের দিয়ে জটিল ও ভয়াবহ কোনো খেলার চাল দেবে) এই প্রবেশ করা না করা নিয়ে একটা ঘোলাটে অবস্থার সৃষ্টি করে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের সাথে যুদ্ধ বাঁধিয়ে দেয়ার চেষ্টার কৌশল করে রেখেছে হয়ত। আর পেছন থেকে মিয়ানমারকে পাকিস্তান সহযোগিতা করবে এবং পাকিস্তানকে সহযোগিতা করবে চীন। এতে ১৯৭১ সালে পাকিস্তান হেরে যাওয়া ও রাজাকারদের বিচারের প্রতিশোধ নেবে পাকিস্তান। তখন যদি বাংলাদেশের হয়ে ভারত কথা বলে তাহলে পাকিস্তান ও চীন জবাব দেবে। কারণ ভারতের সাথে পূর্ব শত্রুতা পাকিস্তান ও চিনের। আর যখন এমন একটা পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে তখন দেশের ভেতর পুরো সুযোগ নেবে জঙ্গীরা। আর এই জঙ্গী গুলো বাংলাদেশের দুইটি রাজনৈতিক দলের পরিকল্পনা মাপিক সৃষ্টি করা।
মোদ্দাকথা হলো, (সন্দেহ) মিয়ানমারের রোহিঙ্গা সংকট লন্ডন থেকে পরিচালিত। পাকিস্তানের গুয়েন্দা সংস্থা আই এস আই, ইসরাইলের গুয়েন্দা সংস্থা মোসাদ, বাংলাদেশের সরকার উৎখাতের লেটেস্ট পরিকল্পনা এটি। অর্থাৎ রোহিঙ্গা নিয়ে বেকায়দায় থাকা সরকারকে আরো গভীর বিপদে ফেলতে যুদ্ধ লাগিয়ে দেয়া। এই সুযোগে দেশের ভেতর ঘাপটি মেরে থাকা জঙ্গিদের সহযোগীতায় সুযোগ সন্ধানী বিভীষণেরা বড় কোনো অঘটন ঘটিয়ে ফেলতে পারে। যা আমাদের ইতিহাসে আরেকটা কলংকের দাগ লেপন করবে। আমাদের উচিত কারো উস্কানিতে কান না দিয়ে, ষডযন্ত্রে লিপ্ত না হয়ে বিচক্ষনতার পরিচয়ে দিয়ে দেশকে সকল বিপদ থেকে রক্ষা করা।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

একদম কল্পনা। একমত নই।


ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

ভালো লিখেছেন। সমস্ত শয়তানীর মূলে তুরস্কের এরদোগান।

আমি মানুষ। আমি বাঙালি। আমি সত্যপথের সৈনিক। আমি মানুষ আর মানবতার সৈনিক। আমি ধর্মে বিশ্বাসী একজন মানুষ। আর আমি ত্বরীকতপন্থী-মুসলমান। আমি মানুষকে ভালোবাসি। আর আমি বাংলাদেশ-রাষ্ট্রকে ভালোবাসি। জয়-বাংলা। জয়-বাংলা। জয়-বাংলা।...

glqxz9283 sfy39587p07