Skip to content

জন্ম না নেওয়া একটা ভ্রুন

ব্লগারের প্রোফাইল ছবি

একটি জন্ম না নেয়া শিশুর গল্প
আমি ভ্রুণ বলছি। আমি এখনো আমার মায়ের পেটে। তিরিশ দিনের মাথায় আমার শরীর আদল পায়, হৃৎপিণ্ড কাজ শুরু করে, রক্ত চলাচল শুরু হয়। আমি ভ্রুন থেকে ছোট বাচ্চা হয়ে উঠি। আমার মায়ের শরীরের রক্তে খাদ্য আছে, জল আছে। আমি তা খেয়ে বেঁচে থাকি। এখন থেকেই আমি আমার মাকে ভালবাসতে শুরু করেছি। সারাদিন কান পেতে শুনতে চেষ্টা করি মা কি বলছে, কি করছে। মাঝে মাঝে একটা পুরুষ মায়ের কাছে আসে। আমি বুঝতে পারি তিনি আমার বাবা। আমার প্রাণের অর্ধেক ভাগ তার। আমি বাবা মায়ের আদর পেতে চাই। আর দেরি সহ্য হচ্ছেনা। কবে যে মায়ের পেট থেকে মায়ের কোলে যাব...
১০ম সপ্তাহ
যেদিন থেকে জানতে পেরেছে ওর পেটে আরেকটা অস্তিত্তের কথা সেদিন থেকেই, এই সম্পর্কে কোন ইমোশন ছিলোনা তিথির। প্রেগন্যান্সি টেস্টে আশঙ্কটা সত্য প্রমাণিত হওয়ার পর, তিথি অনিক দু জনই একমত হয় এতো অবিবাহিত অবস্থায় এই বাচ্চা পৃথিবীতে আনা সম্ভব না ওদের পক্ষে কিন্তু কালকে সকালে যখন ওর এবোরশন, তখন আজ রাতে কেন জানি তিথির ইচ্ছে করছে, বাচ্চা টাকে দেখতে। ও দেখতে কেমন হবে, তিথির মত, না অনিকের মত। কাকে বেশি ভালবাসবে? তিথিকে না অনিককে? কিন্তু চিন্তাগুলোকে বেশিক্ষন থাকতে দিলনা তিথি। চোখ মুদে ঘুমিয়ে পড়ল...
.
ছুড়ে ফেলার দিন আমি
আমার বয়স তিন মাস হয়ে গেল।আজ সকালে আমার মা বাবা একসাথে বের হয়েছে। ওরা এতো সকালে কখনও বের হয়না। ওরা দুইজন যখন একসাথে থাকে আমারও ইচ্ছে করে আমি ওদের সাথে কথা বলি। কিন্তু আমি তো মামনির পেটে। বললে ওড়া শুনবে না।এই মুহুর্তে মা বাবা কারো সাথে কথা বলছে। এরপরই মা কে শোয়ানো হল। আশ্চুর্য মা তো এই সময় কখনো ঘুমায় না। যন্ত্রপাতি ঠোকাঠুকির আওয়াজ পাচ্ছি। কেন জানি ভয় লাগছে আমার...
.
মা মা, আমি ব্যাথা পাচ্ছি। মা আমার মাথায় চাপ দিচ্ছে কেন ? আমি কি কোন দুষ্টুমি করেছি মা? এটাকি আমার শাস্তি! মা আমার অনেক ব্যাথা লাগছে। চাপ আরও বাড়ছে। মা এতো চাপ দিলে আমার মাথার নরম চামড়া সহ্য করতে পাড়বে না। আমি মারা যাব। মা আমি বাঁচতে চাই। পৃথিবীটা দেখতে চাই। আমি তোমার কোলে থাকতে চাই। তোমার আর বাবার সাথে। মা প্লিয ওদেরকে বল, আমাকে আর ব্যাথা না দিতে। মা, আমি আর পারছি না। আহ, ব্যাথা প্রচন্ড...মা আ...
.
ক্লিনিক থেকে বেশ দূরে একটা ডাস্টবিনে পথচারিরা ভিড় করে একটা করুন দৃশ্য দেখছে, দশ সপ্তাহ বয়সী একটা বাচ্চার মৃতদেহ। মায়ের কোলে যাওয়ার বড় ইচ্ছা ছিল যার। ক্ষনিকের শারীরিক সুখের অনাকাঙ্ক্ষিত ফসল। ব্যাপার না। ফালতু সেন্টিমেন্ট। এটা তো মানুষ না, ভ্রুণ
.
একটি প্রাণের সৃষ্টি করার ক্ষমতা বিধাতা আমাদের দেয়নি। একটি প্রাণ কে বাচতে না দেয়ার অধিকারও তাই আমাদের নেই।

## যারা একটা বাচ্চারে মেরে ফেলাকে আলু কলা পটল মনে করে তাদের মানবিকতা নিয়ে আমার সন্দেহ আছে।
একটি প্রাণের সৃষ্টি করার ক্ষমতা বিধাতা আমাদের দেয়নি। একটি প্রাণ কে বাচতে না দেয়ার অধিকারও তাই আমাদের নেই

glqxz9283 sfy39587p07